ঢাকা, বুধবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ১৪:৫১:৪৫

মালদ্বীপকে উড়িয়ে দিল বাংলাদেশ 

মালদ্বীপকে উড়িয়ে দিল বাংলাদেশ 

বাংলাদেশের সামনে মালদ্বীপ দাঁড়াতেই পারলো না। তারা কোনো প্রতিরোধই করতে পারেনি। তাদের ৩-০ সেটে উড়িয়ে দিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে এশিয়ান সিনিয়র মেনজ সেন্ট্রাল জোন ইন্টারন্যাশনাল ভলিবল চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ। শনিবার নেপালের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৩-১ সেটে জিতে টুর্নামেন্টে শুভ সূচনা করেছিল বাংলাদেশ। সেই নেপালই দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপকে তিন সেটে উড়িয়ে দিয়ে ম্যাচ জিতে নিয়েছে গতকাল। তাই বাংলাদেশ-মালদ্বীপ ম্যাচটা একতরফা হবে, তা ধরে নিয়েই হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে গিয়েছিলেন অনেক দর্শক। বড় জয়ের উচ্ছ্বাস নিয়েই মাঠ ছাড়তে পেরেছেন তারা। ২৫-১৫, ২৫-১৫ ও ২৫-২২ পয়েন্টে তিনটি সেট জিতেছে বাংলাদেশ। শেষ সেটটিতে কিছুটা প্রতিরোধ গড়েছিল মালদ্বীপ। টানা দুই ম্যাচ হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল তারা। এসি  
মালদ্বীপকে হারাতে পারলেই সেমিতে বাংলাদেশ

বঙ্গবন্ধু এশিয়ান সিনিয়র মেনস সেন্ট্রাল জোন আন্তর্জাতিক ভলিবল চ্যাম্পিয়নশিপে সোমবার দ্বিতীয় ম্যাচে অংশ নিবে বাংলাদেশ। এর আগে গত শনিবার প্রথম ম্যাচে নেপালকে ৩-১ সেটে উড়িয়ে শুভ সূচনা করেছে আসরের বর্তামন চ্যাম্পিয়নরা। যে কারণে আজ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মালদ্বীপকে হারাতে পারলেই শেষ চারে জায়গা পেয়ে যাবে লাল সবুজের ধ্বজাধারীরা। মিরপুর শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে বিকেল ৫টায় দু’দলের ম্যাচটি শুরু হবে। এই ম্যাচ জিততে পারলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হবে স্বাগতিকদের।কালকের ওই ম্যাচে জয় ছাড়া আর কিছু ভাবতে চাইছেনা স্বাগতিক বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে নেপালকে হারানোর পর আত্মবিশ্বাস আরো বেড়ে গেছে কোচ আলীপোর আরজির শিষ্যদের। ম্যচটিকে সামনে রেখে গতকাল হালকা অনুশীলন করেছেন হরষিতরা। মূলত রিকোভারি অনুশীলন ছিল এটি।অনুশীলনের পর স্বাগতিক অধিনায়ক হরষিত বিশ্বাস বলেন, ‘মালদ্বীপের বিপক্ষে জয় ছাড়া অন্য কিছুই ভাবছি না। গতবারের আসরে এই মালদ্বীপকে আমরা হারিয়েছিলাম ৩-০ সেটে। এবারও আমাদের লক্ষ্য তাদের কোনো সুযোগ না দিয়ে ম্যাচ জেতা।’নেপালের চেয়ে মালদ্বীপ অপেক্ষাকৃত সহজ প্রতিপক্ষ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তবে বড় টুর্নামেন্টে অনেক কিছুই হতে পারে। তাই আমরা কোনো দলকেই হাল্কাভাবে নিচ্ছি না। কোচের নির্দেশনা মেনে খেলতে পারলে ম্যাচ জেতা সম্ভব। আর এটা করতে পারলে গ্রুপ সেরাও হতে পারব। ফেডারেশন কর্তারাও আমাদের নানাভাবে উজ্জীবিত করছেন। নেপালকে হারানোর পর দলের প্রত্যেকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থ পুরস্কার পেয়েছি। এই উৎসাহ, অনুপ্রেরণা আমাদের মালদ্বীপের বিপক্ষে ভালো খেলতে সহায়তা করবে।’গত আসরের বাংলাদেশের অন্যতম ভরসার প্রতীক ছিলেন হাই অ্যাটাকার সাঈদ আল জাবীর রাজেশ। ফাইনালে পেয়েছিলেন সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার। একই সঙ্গে দলের অধিনায়কও ছিলেন। এই আসরে অবশ্য অসুস্থতার কারণে তিনি খেলতে পারছেন না। তার জায়গায় সুযোগ পেয়েছেন অভিজ্ঞ কায়সার হামিদ। মালদ্বীপ ম্যাচ প্রসঙ্গে কায়সার বলেন,‘জাবীর নিঃসেন্দেহে আমাদের দলের সেরা খেলোয়াড়। অসুস্থতার কারণে তিনি খেলতে পারছেন না। এবার আমাকে তার জায়গায় নেয়া হয়েছে। গতবারও আমি দলে ছিলাম। তবে স্ট্যান্ড বাই হিসেবে। এবার মূল দলের হয়ে নেপালের বিপক্ষে ম্যাচে খেলেছি। দল আমার কাছে যেটা চাইছে সেটা পুরোপুরি দেয়ার চেষ্টা করছি। আশা করি মালদ্বীপের বিপক্ষে ম্যাচেও কোচের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারব।’এদিকে গতকাল মুখোমুখি হয়েছিল বি-গ্রুপে থাকা মধ্য এশিয়ার দু’দেশ কিরগিজস্তান ও তুর্কমেনিস্তান। কিরগিজস্তান গত আসরের ফাইনালিস্ট। ফাইনালে বাংলাদেশের কাছে হেরে রানার্স আপ হয়েছিল। সেই রানার্স আপ দলই গতকাল হার দিয়ে শুরু করেছে টুর্নামেন্টে। তুর্কমেনিস্তানের কাছে ৩-০ সেটে হেরেছে দলটি। তুর্কমেনিস্তান টুর্নামেন্টে সবচেয়ে শক্তিশালী দল এবং এশিয়ান সেন্ট্রাল জোন ভলিবলের সাবেক চ্যাম্পিয়নও। যদিও গত আসরে অংশ নেয়নি এই দলটি। দিনের আরেক ম্যাচে মালদ্বীপকে ৩-০ সেটে হারিয়েছে নেপাল।আজকের খেলাউজবেকিস্তান বনাম তুর্কমেনিস্তানবাংলাদেশ বনাম মালদ্বীপ(শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়াম, বেলা ৩টা ও বিকেল ৫টা) সূত্র : বাসস এসএ/    

ভলিবলে নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশের জয়

দুই বছর পর আবারও ঢাকায় ভলিবলের আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট। বঙ্গবন্ধুর নামে সেন্ট্রাল এশিয়ান পুরুষ ভলিবল প্রতিযোগিতা, যেখানে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশসহ আরও পাঁচটি দেশ। প্রথম আসরে কিরগিজস্তানকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ, তারকাখ্যাতি পেয়েছিলেন অধিনায়ক আল জাবির। এবারের আসরে আল জাবির নেই অসুস্থতার কারণে। তার বদলে নেতৃত্বে হরশিত বিশ্বাস। উদ্বোধনী ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে জয়ে দারুণ ভূমিকা রেখেছেন নড়াইলের ছেলে হরশিত, তার দারুণ সব স্ম্যাশ আর ব্লকে মিরপুরের ইনডোর স্টেডিয়ামে উল্লাসে মেতেছেন দর্শকরা। দীর্ঘ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শেষে খেলা শুরু হয় এক ঘণ্টা দেরিতে। প্রথম সেটে একটা সময় ১৭-১২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেও ২৬-২৪ পয়েন্টে হেরে যায় বাংলাদেশ। প্রথম সেটটা হারের পর দলের কৌশলে কিছু পরিবর্তন আনেন বাংলাদেশের কোচ আলী পোর আরোজি। আক্রমণের বদলে ব্লকে মনোযোগী হতে বলেন শিষ্যদের, সেই সঙ্গে ফার্স্ট রিসিভটা ভালো করার কৌশল বাতলে দেন। কাজে দেয় কোচের পরামর্শ। পরের দুটি সেট বাংলাদেশ জিতে যায় বেশ বড় ব্যবধানে, ২৫-১৮ ও ২৫-১৪ পয়েন্টে। তৃতীয় সেটে বাংলাদেশ খুঁজে পায় নিজেদের সেরা সাফল্য, একটা সময় ১৪-৪ ব্যবধানে নেপালকে পেছনে ফেলার পর ২৫-১৪ পয়েন্টের বড় ব্যবধানে জিতে চতুর্থ সেটে পা রাখে বাংলাদেশ। খেলা শুরুর আগে ছিল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে প্রধান অতিথি হিসেবে বঙ্গবন্ধু এশিয়ান সেন্ট্রাল জোন পুরুষ ভলিবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন- বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানও। ক্রিকেটের মতো ভলিবলও একদিন বাংলাদেশকে গৌরব এনে দেবে, সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় এমন আশাবাদই প্রকাশ করেছেন বোর্ড সভাপতি। বেলুন উড়িয়ে, ব্যান্ড বাজিয়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান যেমন আনন্দ দিয়েছে, তেমনি পীড়া দিয়েছে ডিজিটাল স্কোরবোর্ডের অভাব। এমন আন্তর্জাতিক আয়োজনে ডিজিটাল স্কোরবোর্ড না থাকাটা তো বেমানানই। এসএইচ/

ম্যারাথনে দৌড়ানো কি শরীরের জন্য খারাপ?

লন্ডন আজ রোববার ম্যারাথনে দৌড়বেন অন্তত ৪০ হাজার মানুষ। এর আগে লন্ডন ম্যারাথনে অংশ নিয়ে প্রায় প্রতি বছরই অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কখনও শোনা যায় মারা যাওয়ার খবরও। এখন প্রশ্ন হলো, ম্যারাথনে দৌড়ানো কি শরীরে জন্য ভালোর চেয়ে মন্দ বেশি করে? লিভারপুল জন মুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রীড়াবিষয়ক বিজ্ঞানী ড. মার্ক লেইক বলছেন, ম্যারাথন দৌড়ানো একটি বিরাট শারীরিক চ্যালেঞ্জ। এর ফলে শরীরের হাড়, মাসলস, লিগামেন্ট এবং ধমনীর ওপর ব্যাপক চাপ সৃষ্টি করে। এমনকি যারা রোজ দৌড়ান, তাদেরও এসব প্রত্যঙ্গে যেকোনও আঘাত সারতে সময় লাগে। এজন্য শরীরের দীর্ঘ প্রস্তুতি প্রয়োজন বলে জানাচ্ছেন ড. লেইক। তবে ড. লেইক যাদের দৌড়ানো বা ম্যারাথনে অংশ নেওয়াকে ঝুঁকিপূর্ণ মনে করেন তারা হচ্ছেন- ১. যাদের ওজন অতিরিক্ত বেশি ও শারীরিকভাবে সমর্থ নন ২. আঘাতের পূর্ব রেকর্ড আছে ৩. শরীরের গঠনে অসামঞ্জস্য আছে যাদের, যেমন এক পা আরেক পায়ের চেয়ে ছোট ড. লেইক মনে করেন, কোনরকম পূর্ব প্রস্তুতি ছাড়া ম্যারাথনে অংশ নেওয়া বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। এমনকি স্থূলতা কিংবা হৃদরোগের চাইতেও একে বেশি বিপজ্জনক মনে করেন তিনি। তবে, যদি হাতে সময় নিয়ে কেউ যথাযথ প্রস্তুতি নিয়ে ম্যারাথনে অংশ নিতে চান, তাহলে কোনও সমস্যা তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। ড. লেইক মনে করেন, এর ফলে শরীর প্রস্তুত হয় একটি চ্যালেঞ্জ গ্রহণের জন্য। এজন্য তিনি হার ও মাসলের পাশাপাশি হৃদরোগের আগাম খোঁজখবর নেওয়ার পরামর্শ দেন। এ সময়ে আবহাওয়া গরম এবং বাতাসে জলীয় আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকে। ফলে এ সময়ে ম্যারাথন দৌড়ানো বেশ কঠিন। কারণ এখন অনেক ঘাম হবে। ড. লেইক বলছেন, ম্যারাথনে দৌড়ে একজন মানুষের চার লিটার পর্যন্ত ঘাম হতে পারে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই তাদের শরীর পানিশূন্য হয়ে পড়বে। যে কারণে শরীরকে এ সময় পানি এবং তরল জাতীয় খাবার পানীয় গ্রহণ করতে হবে। তবে, সেজন্য ম্যারাথন রুটে সব মোড়ে থেমে পানি না খাবারই পরামর্শ দেন ড. লেইক। প্রথমবারের মত যারা ম্যারাথনে দৌড়বেন, তাদের জন্য কিছু টিপস- * ম্যারাথনে দৌড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে * অন্তত চার থেকে ছয় মাস প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য সময় রাখা উচিৎ * সপ্তাহে তিন থেকে পাঁচদিন দৌড়াতে হবে, এবং প্রতিবার আগের চেয়ে সময় বাড়াতে হবে * প্রস্তুতির সময় যথাযথ বিশ্রাম এবং আঘাত সারার সময় দিতে হবে * ম্যারাথনের সপ্তাহে প্রচার কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার খেতে হবে, যাতে শরীর সেটা শক্তি হিসবে ব্যবহার করতে পারে। তথ্যসূত্র: বিবিসি। একে// এসএইচ/

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক ভলিবল শুরু শনিবার

আগামী শনিবার মিরপুরস্থ শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে বঙ্গবন্ধু এশিয়ান সিনিয়র মেনস সেন্ট্রাল জোন ভলিবল চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৮। এবারের আসরে স্বাগতিক বাংলাদেশসহ মোট ৬টি দল অংশগ্রহণ করছে। ছয়টি দলকে দুই গ্রুপে বিভক্ত করা হয়েছে। ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ, মালদ্বীপ ও নেপাল। আর ‘বি’ গ্রুপে রয়েছে কিরগিজিস্তান, তুর্কমেনিস্তান ও উজবেকিস্তান। ২১ থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত হবে গ্রুপ পর্বের খেলা। ২৫ এপ্রিল হবে দু’টি সেমিফাইনাল। আর ২৭ এপ্রিল বিকেল ৩টায় হবে ফাইনাল। টুর্নামেন্ট সম্পর্কে বিস্তরিত জানাতে বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ভলিবল দলের নতুন অধিনায়ক হরিষৎ বিশ্বাস শিরোপা অক্ষুন্ন রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। ভলিবলকে আরো এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সভাপতি আতিকুল ইসলাম। বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক হরিষৎ বলেন, ‘অধিনায়ক হিসেবে এটা আমার প্রথম টুর্নামেন্ট। আগের আসরের আমরা চ্যাম্পিয়ন। শিরোপা ধরে রাখাটাই আমাদের লক্ষ্য। অবশ্য গেল আসরের চেয়ে এবার আমাদের দলটা আরো বেশি শক্তিশালী। অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের পাশাপাশি তরুণ প্রতিভাবান খেলোয়াড়রাও রয়েছে দলে। খেলোয়াড় বাছাই শেষে অনেক দিন অনুশীলন করেছি। ইরানে ২১ দিনের প্রশিক্ষণ ক্যাম্প ও প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। আশা করছি আমরা আমাদের শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখতে পারবো।’ অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ আলীপোর আলজির ও টুর্নামেন্ট কমিটির অন্যান্য সদস্যগণ। উদ্বোধনী দিনে একমাত্র ম্যাচে বিকেল ৪টায় মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও নেপাল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল (এমপি)। বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার, বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন, আলহাজ ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ (এমপি), এফবিসিসিআই সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ও প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শেখর। বাসস   এমএইচ/

সাহাবউদ্দীনের বলীখেলায় চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লার শাহজালাল

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পহেলা বৈশাখে চট্টগ্রামের সিআরবি সাত রাস্তার মোড়ে বসেছিল সাহাবউদ্দীনের বলীখেলা। কক্সবাজারের উখিয়ার কলিমউল্লাহ বলীকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন কুমিল্লার শাহজালাল বলী। শনিবার (১৪ এপ্রিল) নববর্ষ উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে বিকেল ৩টায় শুরু হওয়া এ বলীখেলা দেখতে সিআরবিতে হাজারো দর্শনার্থীর সমাগম ঘটে। এবার কক্সবাজারের উখিয়া, রামু, চকরিয়া, চট্টগ্রামের বাঁশখালীসহ দেশের নানা প্রান্ত থেকে ৭০ জন বলী অংশ নেন। বলীখেলায় পুরস্কার বিতরণ করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। প্রথমে ৭০ বলীর মধ্য থেকে ৮ বলীকে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার সুযোগ দেন আয়োজকরা। পরে সেমিফাইনাল থেকে কলিম উল্লাহ ও শাহজালাল বলী ফাইনালে উন্নীত হন। ফাইনালে ‘কক্সবাজারের কলিমউল্লাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন কুমিল্লার শাহজালাল বলী।’ কেআই/টিকে

কমনওয়েলথ গেমসে ৫০ মিটার পিস্তলে শাকিলের রুপা

গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসের ১০ মিটার এয়ার পিস্তলের ফাইনালে উঠেও পদক জিততে পারেননি বাংলাদেশ। ৫০ মিটার পিস্তলে রুপা জিতে সে হতাশা কাটালেন শাকিল আহমেদ। বেলমন্ট শুটিং সেন্টারে বুধবার ২২০ দশমিক ৫ স্কোর গড়ে রুপা জেতেন শাকিল। ২২৭ দশমিক ২ স্কোর গড়ে সোনা জিতেছেন স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার ড্যানিয়েল রিপাকোলি। আর ভারতের ওম মিতারভাল ২০১.১ স্কোর নিয়ে জিতেছেন ব্রোঞ্জপদক। ছেলেদের ১০ মিটার এয়ার পিস্তলের ফাইনাল রাউন্ডে ওঠা শাকিল ষষ্ঠ হয়েছিলেন। কোয়ালিফিকেশন রাউন্ডে অষ্টম হয়ে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছিলেন ২২ বছর বয়সী এই শুটার। দুদিন আগে বাংলাদেশকে রূপালি সাফল্যে উদ্ভাসিত করেছিলেন আব্দুল্লাহ হেল বাকী। ১০ মিটার এয়ার রাইফেল ইভেন্টে জিতেছিলেন রৌপ্যপদক। এর আগে ১৯৯০ সালে শেষবারের মতো এই ইভেন্টে পদক জিততে পেরেছিল বাংলাদেশ। সেবারের কমনওয়েলথ গেমসে পিস্তলে স্বর্ণপদক জিতেছিলেন আতিকুর রহমান ও আব্দুর সাত্তার নিনি। এবার স্বর্ণপদক না জিততে পারলেও শাকিল আহমেদ ঘুঁচিয়েছেন পদক খরা। জিতেছেন রৌপ্যপদক।৫০ মিটার পিস্তলে শাকিলের রুপা / এআর /

কমনওয়েলথ গেমসের কোর্টেই বিয়ের প্রস্তাব!     

ইংল্যান্ডের বাস্কেটবল খেলোয়াড় জ্যামেল অ্যান্ডারসন। হাঁটু গেরে রিং সামনে মেলে ধরেন জ্যামেল। কারণ আনুষ্ঠানিকতার বালাই না রেখে মাঠেই প্রণয় রূপ নেয়। ক্রীড়াঙ্গনে অবশ্য এমনটা আগেও ঘটেছে। চলমান কমনওয়েলথ গেমসে রোমান্সের পুরোটা মেলে ধরেছেন ২৭ বছর বয়সী ইংল্যান্ডের এ বাস্কেটবল খেলোয়াড়।    জ্যামেল যাকে প্রস্তাব দিয়েছেন তিনিও ইংল্যান্ড নারী বাস্কেটবল দলের খেলোয়াড়। নাম জর্জিয়া জোন্স। ২৮ বছর বয়সী জর্জিয়া তখন জয়ের আনন্দে ছিলেন মশগুল। কারণ কমনওয়েলথ গেমসে মাত্রই মোজাম্বিককে হারিয়ে উল্লাসে ব্যস্ত নারী দল। ছেলেরা তখন ক্যামেরুনকে হারিয়ে মত্ত উল্লাসে। আর এমন সময়ই জর্জিয়াকে তাক লাগিয়ে দেন জ্যামেল।    এ সময় দলের সতীর্থরা জ্যামেলকে ঘিরে মানব বর্ম তৈরি করছিল। কিন্তু তখন জর্জিয়া ঘুণাক্ষরেও টের পাননি আসলে কী হতে যাচ্ছে। জয়ের উল্লাসে মত্ত জর্জিয়াকে তখন হাঁটু গেরে রিং হাতে বিয়ের প্রস্তাব দেন জ্যামেল। জর্জিয়া আচমকা সেই মুহূর্তের করণীয় কিছু ভাবতে সময় না নিয়ে মুহূর্তেই ‘হ্যাঁ’ বলে দিল। অবশ্য মুহূর্তে হ্যাঁ বলে দেওয়ার কারণও আছে জর্জিয়ার। কারণ তারা আগে থেকেই পূর্ব পরিচিত খেলোয়াড়। বাকি ছিল শুধু আনুষ্ঠানিকতার। এ পরিকল্পনাটা করেন জ্যামেল। তিনি বলেন, ‘আমাদের সম্পর্কের একটা বড় অংশ জুড়ে রয়েছে এই বাস্কেটবল। তাই এই কোর্টই এমনটি করার প্রেরণা দিয়েছে।’ সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান   একে//এসি     

পর্দা উঠছে আজ

‘স্বপ্নকে ভাগাভগি করি’ স্লোগানকে সামনে রেখে আজ পর্দা উঠছে ২১তম কমনওয়েলথ গেমসের। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টায় অস্ট্রেলিয়ার পর্যটন নগরী গোল্ডকোস্টের কারারা স্টেডিয়ামে প্রধান অতিথি হিসেবে গেমসের উদ্বোধন করবেন প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লস। কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশনের (সিজিএফ) প্রেসিডেন্ট লুইস মার্টিন এ সময় উপস্থিত থাকবেন। এবারের আসরে বাংলাদেশসহ কমনওয়েলথ ভুক্ত ৭১টি দেশের ৬ হাজার ৬০০’র বেশি অ্যাথলেটও কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করছে। আসরের মুল আয়োজক গোল্ডকোস্ট হলেও ব্রিসবেন, কেয়ার্নস ও টাউন্সভিলেতেও অনুষ্ঠিত হবে বেশ কয়েকটি ডিসিপ্লিন। গেমসটির ইতিহাসে সর্বাধিক ডিসিপ্লিনে অনুষ্ঠিত হবে এবারের আসরে। মোট ২৩টি ডিসিপ্লিনের পাশাপাশি থাকছে ৭টি প্যারা স্পোর্টস। সর্বমোট ২৭৫টি স্বর্ণ পদক জয়ের জন্য লড়বে কমনওয়েলথ ভুক্ত দেশের ক্রীড়াবিদরা। সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে মাল্টিইভেন্টের গেমে এই প্রথম লিঙ্গ সমতা আনা হয়েছে। গেমেসে সমান সংখ্যক পদক রাখা হয়েছে নারী ও পুরুষ অ্যাথলেটদের জন্য। আসরে প্রথমবারের মত অভিষিক্ত হতে যাচ্ছে বিচ ভলিবল, প্যারা ট্রাইথলন ও মহিলাদের সেভেন -এ সাইড রাগবি। গোল্ডকোস্ট শহরকে ‘সার্ফিং প্যারাডাইস’ বলা হলেও, দৃষ্টি নন্দন খেলাটি এখনো কমনওয়েলথভুক্ত না হওয়ায় সেটি স্থান পায়নি প্রতিযোগিতায়। তবে ২০১৪ সালে গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিত সমাপনী অনুষ্ঠানের মত কালকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বড় একটি অংশ জুড়ে রয়েছে সার্ফিং নিয়ে উপস্থাপনা। গেমসকে সফল করে তোলার লক্ষ্যে ২০১২ সালের জানুয়ারিতে গড়ে তোলা হয়েছে গোল্ডকোস্ট ২০১৮ কমনওয়েলথ গেমস কর্পোরেশন (গোলডক)। যার প্রধান কাজ হচ্ছে বিভিন্ন পরিকল্পনা প্রনয়নের মাধ্যমে ইভেন্টটিকে সফল করার জন্য বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে সরকারকে সহায়তা করা। যেটি শেষ পর্যন্ত শুরু হচ্ছে আজ বুধবার। উল্লেখ্য, প্রতি চার বছর পর পর আয়োজিত গেমসটি এই নিয়ে সর্বাধিক ৫ম বারের মত আয়োজন করতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। ১৯৩৮ সালে সিডনি শহর গেমসটি আয়োজন করার পর ১৯৬২ সালে পার্থ, ১৯৮২ সালে ব্রিসবেন ও ২০০৬ সালে মেলবোর্ন শহরে আয়োজিত হয়েছে কমনওয়েলত গেমস। তবে অস্ট্রেলিয়ার কোন আঞ্চলিক শহরের উদ্যোগে এই প্রথম আয়োজিত হচ্ছে গেমসটি। ১৯৩০ সালে কানাডার হ্যামিল্টনে এককালের ব্রিটিশ রাজ্যভুক্ত ১১টি দেশের অংশগ্রহনে আয়োজন করা হয়েছির কমনওয়েলথ গেমসের। যেখানে অংশ নেয় ৪০০অ্যাথলেট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণে ১৯৪২ ও ১৯৪৬ সালে গেমসটি আয়োজিত হয়নি। এরপর থেকে ফের নিয়মিত সেটি আয়োজিত হয়ে আসছে। প্রথম এই কমনওয়েলথ গেমস আয়োজনের প্রধান উদ্যোক্তা ছিলেন একজন ক্রীড়া সাংবাদিক। এর পরিচালনায় ছিলেন মেলভিল মার্কস (ববি) রবসন। তিনিই বাস্তবতার নিরিখে বুঝিয়ে আলোচনার মাধ্যমে কমনওয়েলথ ভুক্ত জাতিকে একীভুক্ত করেছেন। যা গত তিন দশক ধরে বিরাজমান রয়েছে। কমনওয়েলথ গেমসের অন্তর্নিহিত অর্থ শুধুমাত্র খেলাধুলার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। এর উদ্দেশ্য হচ্ছে খেলাধুলার মাধ্যমে কমনওয়েলথভুক্ত পরিবারের সদস্যদের মধ্যে। এর মধ্যে রয়েছে মানবতার জয়গান। সূত্র : বাসস এসএ/

এসএএ চ্যাম্পিয়নশীপে বাংলাদেশের প্রথম স্বর্ণপদক

তৃতীয় সাউথ এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশীপের প্রথম স্বর্ণপদক পেলো বাংলাদেশ। সাভারের বিকেএসপিতে চলছে এবারের সাউথ এশিয়ান আর্চারি চ্যাম্পিয়নশীপ। আজ মঙ্গলবার শেষ দিনে ব্যাক্তিগত পুরুষ রিকার্ভ ইভেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশের দুই আর্চার রুমান সানা ও ইব্রাহিম শেখ। শুরু থেকেই দুজনের মধ্যে চলে সমানে সমানে লড়াই। শেষ পর্যন্ত ৬-২ সেট পয়েন্টে রুমান সানাকে হারিয়েছেন ফরিদপুরের ইব্রাহিম শেখ রেজওয়ান। খেলা শেষে এবারের আসরের প্রথম র্স্ব্ণজয়ী ইব্রাহিমকে অভিনন্দন জানান ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কাজী রাজিব। এবার ১০টি স্বর্ণ, ১০টি রৌপ্য ও ১০টি ব্রোঞ্জ পদক জয়ের লড়াইয়ে শেষ হবে এবারের প্রতিযোগিতা। একে//এসি   

আরচ্যারী: রিকার্ভ পুরুষ এককে বাংলাদেশের রুমান প্রথম স্থান

দি ব্লেজার বিডি বিকেএসপি ৩য় সাউথ এশিয়ান আরচ্যারী চ্যাম্পিয়নশীপের র‌্যাংকিং রাউন্ডের প্রতিযোগিতার রিকার্ভ পুরুষ এককে প্রথম স্থান অর্জন করেছেন বাংলাদেশের মো. রুমান সানা। ৭২টি তীর ছুড়ে ৭২০ স্কোরের মধ্যে ৬৬৭ স্কোর করেছেন তিনি। রিকার্ভ মহিলা এককে ৬২০ স্কোর করে ভারতের হিমানী, কম্পাউন্ড পুরুষ এককে ৬৮৫ স্কোর করে একই দেশের ভেনকাতাদ্রি কুন্দেরু এবং কম্পাউন্ড মহিলা এককে ৬৭২ স্কোরে র‌্যাংকিংয়ে প্রথম হয়েছেন ইশা কেতান পাওয়ার। আজ সাভারের বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত ইলিমিনেশন রাউন্ডের প্রতিযোগিতায় রিকার্ভ পুরুষ এককে ভারতের আকাশ ৬-৪ সেট পয়েন্টের ব্যবধানে স্বদেশী সুমেদ ভি মোহোদকে হারিয়ে এবং রিকার্ভ মহিলা এককে ভারতের কির্তি ৬-০ সেট পয়েন্টের ব্যবধানে শ্রীলংকার মাধুসিকা সিলভাকে হারিয়ে ব্রোঞ্জ পদক জয় করেছেন। ইলিমিনেশন রাউন্ডের প্রতিযোগিতায় কম্পাউন্ড পুরুষ এককে বাংলাদেশের মো. মিলন মোল্লা ১৪৩-১৪০ স্কোরের ব্যবধানে স্বাদেশী অসীম কুমার দাসকে এবং কম্পাউন্ড মহিলা এককে ভারতের ইশা কেতান পাওয়ার ১৪২-১৪১ স্কোরের ব্যবধানে স্বদেশী ববিতা কুমারীকে হারিয়ে ব্রোঞ্জ পদক জয় করেছেন। এদিকে রিকার্ভ পুরুষ এককের ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশের মো. রুমান সানা ও মো. ইব্রাহিম শেখ রেজোয়ান। আগামী মঙ্গলবার তারা স্বর্ণপদকের লড়াইয়ে পরস্পরের মোকাবেলা করবে। রিকার্ভ মহিলা এককের ফাইনালে স্বর্ণপদক জয়ের লড়াইয়ে বাংলাদেশের নাসরিন আক্তার মুখোমুখি হবেন ভারতের হিমানীর। এই দিন কম্পাউন্ড পুরুষ এককে অল ইন্ডিয়ান প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পরস্পরের মোকাবেলা করবেন ভেনকাতাদ্রি কুন্দেরু ও হারস পরসার। কম্পাউন্ড মহিলা এককে বাংলাদেশের সুস্মিতা বণিক স্বর্ণপদক জয়ের লড়াইয়ে অবতীর্ণ  হবেন স্বদেশী রোকসানা আাক্তারের বিপক্ষে। এর আগে আগামীকাল সোমবার প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় দিনে রিকার্ভ পুরুষ ও মহিলা দলীয়, মিশ্র দলীয়, কম্পাউন্ড পুরুষ ও মহিলা দলীয় এবং মিশ্র দলীয় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। সূত্র: বাসস  কেআই/টিকে

রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি কামরুল ইসলামের ইন্তেকাল

বাংলাদেশ রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি কামরুল ইসলাম গত ৮ মার্চ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। তিনি ১৯৯৫-১৯৯৬ এবং ২০০১-২০০৭ পর্যন্ত দুই মেয়াদে ৮ বছর বাংলাদেশ রোলার স্কেটিং ফেডারেশনের সভাপতি ছিলেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ অ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক (১৯৮০-৮২) ছিলেন। কামরুল ইসলামের নেতৃত্বে বাংলাদেশ দল নিউ দিল্লিতে দুটি রোলার স্কেটিং প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। তার নেতৃত্বে ১৯৯৪ এবং ইনচিয়ন কোরিয়া, ১৯৯৭ সালে উভয় প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ স্বর্ণপদক জিতে। কামরুল ইসলাম ১৯৭৯ সালের ঢাকা ক্যাপিটাল লায়ন ক্লাবের সভাপতি ছিলেন এবং সিআরপি, গুলশান সোসাইটি, অফিসার্স ক্লাব ঢাকা ইত্যাদি বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। কর্মজীবনে তিনি ইপিআইডিসি, বিসিইইসি, আইএফডিসি-ইউএসএআইডি, হার্টেক্স ফাউন্ডেশন বিশ্ব ব্যাংকের প্রকল্প পরিচালক প্রতিষ্ঠাতা এবং পরবর্তীতে কয়েকজন স্থানীয় সমবায়ে উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেন। মৃত্যুকালে কামরুল ইসলামের স্ত্রী, একটি পুত্র, একটি কন্যা সন্তান রেখে গেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি