ঢাকা, শনিবার, ২১ এপ্রিল, ২০১৮ ১:৪৭:৫৩

ভারতের প্রধান বিচারপতিকে অভিশংসনের নোটিশ

ভারতের প্রধান বিচারপতিকে অভিশংসনের নোটিশ

ভারতের সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রকে অভিশংসনের জন্য নোটিশ দিয়েছে দেশটির সাত বিরোধী দল। শুক্রবার রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম ভেঙ্কাইয়া নাইডুর কাছে এ–সংক্রান্ত একটি আরজি জমা দেওয়া হয়েছে। কংগ্রেসের নেতৃত্বে বিরোধী সাতটি দলের নেতারা এই আরজিতে স্বাক্ষর করেন। প্রধান বিচারপতির অভিশংসনের প্রস্তাবে যারা স্বাক্ষর করেছেন, তাদের মধ্যে কংগ্রেস, ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি, সিপিআই (এম), সিপিআই, সমাজবাদী পার্টি, ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগ (আইইউএমএল) এবং বহুজন সমাজবাদী পার্টি থেকে নির্বাচিত পার্লামেন্ট সদস্যরা রয়েছেন। অভিশংসনের নোটিশে স্বাক্ষরের আগে এসব রাজনৈতিক দলের নেতারা পার্লামেন্টে এক সভায় একসঙ্গে বসে প্রস্তাব চূড়ান্ত করেন। ভারতের সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল সোলি সোরবজি বলেছেন, শুধু সুনির্দিষ্ট অসদাচরণের অভিযোগেই অভিশংসনের নোটিশ দেওয়া যায়। সে ক্ষেত্রে অসদাচরণের প্রমাণ দাখিল করতে হবে। তিনি বলেন, ‘ভুল রায় দিয়েছেন—এটি মনে করে কোনো প্রধান বিচারপতিকে অভিশংসনের জন্য নোটিশ দেওয়া যায় না।’ খুব দুঃখের সঙ্গে’ এই পদক্ষেপ নিতে হয়েছে উল্লেখ করে স্বাক্ষরকারী নেতারা বলেন, নির্বাহী বিভাগের হস্তক্ষেপের মুখে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা সমুন্নত রাখতে না পারায় প্রধান বিচারপতিকে অভিশংসনের আরজি জানিয়েছি। নেতারা জানান, দীপক মিশ্রকে অভিশংসনের আরজির প্রতি রাজ্যসভার ৬০ জনের বেশি সদস্যের সমর্থন রয়েছে। এ ধরনের নোটিশের ক্ষেত্রে রাজ্যসভার কমপক্ষে ৫০ জন সদস্যের স্বাক্ষর প্রয়োজন হয়। প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের বিরুদ্ধে অসদাচরণের পাঁচটি অভিযোগ এনেছে বিরোধী দলগুলো। গত জানুয়ারি মাসেই এই অভিযোগগুলো উঠেছিল। তখন চারজন বিচারক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ তুলে প্রকাশ্যে প্রধান বিচারপতির সমালোচনা করেছিলেন। এদিকে গতকাল বিচারক বিএইচ লোয়ার মৃত্যুর ঘটনার কোনো তদন্ত করা হবে না বলে উল্লেখ করেন প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর নেতৃত্বাধীন সুপ্রিম কোর্টের একটি বেঞ্চ। বিজেপি সভাপতি অমিত শাহর বিরুদ্ধে দায়ের করা হত্যা মামলার বিচারক ছিলেন বিএইচ লোয়া। ২০১৪ সালে হৃদ্রোগে তার মৃত্যু হয়। ধারণা করা হচ্ছে, বিএইচ লোয়ার মৃত্যুর তদন্ত না করার রায় দেওয়ায় প্রধান বিচারপতিকে অভিশংসনের আরজি জানিয়েছে বিরোধী দলগুলো। তবে কংগ্রেস এ কথা অস্বীকার করেছে। যদিও সুপ্রিম কোর্টের রায়ের ব্যাপারে অসন্তুষ্টি জানিয়েছে দলটি। একে ‘ভারতের ইতিহাসের দুর্দশার দিন’ বলে অভিহিত করেছে কংগ্রেস। কংগ্রেস নেতা গোলাম নবী আজাদ বলেন, “মোট ৭১ জনের স্বাক্ষর নিয়ে আমরা নোটিশটি জমা দিয়েছি। এর মধ্যে অবসর নেওয়া ছয়জনও আছেন। তাঁদের গণনায় আনা হবে না।’ কংগ্রেসের আরেক নেতা কপিল সিবাল বলেন, ‘আমাদের আশা, এমন দিন যেন আর কখনো না আসে।” এমএইচ/টিকে
ত্রিপুরা সীমান্তে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সীমান্ত এলাকা দিয়ে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ঘটনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পরেছে পুলিশ প্রশাসন। সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়ার পাশাপাশি  সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) কড়া নজরদারি এড়িয়ে কীভাবে অনুপ্রবেশ বাড়ছে, সেটাই ভাবাচ্ছে পুলিশ ও প্রশাসনিক কর্তাদের। গতকাল বৃহস্পতিবার খোয়াই জেলার তেলিয়ামুড়ায় একটি বাস থেকে ১৮জন রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার তেলিয়ামুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত  আধিকারিক তাপস দেব গণমাধ্যমকে জানান, ‘আগরতলা থেকে গুয়াহাটিগামী বাস থেকে তিন পরিবারের ১৮ জন রোহিঙ্গাকে  গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই রোহিঙ্গাদের মধ্যে চারজন শিশু রয়েছে। তাপস দেব আরও জানান, ধরা পড়া রোহিঙ্গারা বাংলাদেশ থেকে ভারতে অনুপ্রবেশ করেছে। তারা গুয়াহাটি হয়ে দিল্লি যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। তাদের আজ আদালতে তোলা হবে। ভারতে বেআইনিভাবে অনুপ্রবেশের কারণে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করা হচ্ছে। রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ব্যাপারে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অনেক আগেই ত্রিপুরাকে সতর্ক করে দেয়। বিএসএফও এর পরিপ্রেক্ষিতে সীমান্তে নজরদারি বাড়ায়। এরপরও রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ রাজ্য সরকারের চিন্তা বাড়িয়ে দিয়েছে।  কেআই/টিকে

স্যালাইন দিয়ে বাঁচানোর চেষ্টা বটগাছকে!

দক্ষিণ ভারতের তেলেঙ্গানায় ৭০০ বছরেরও বেশি বয়সী একটি বটগাছ রয়েছে। গাছটিতে উইপোকার মারাত্মক আক্রমণ ঘটেছে। এতে গাছটি পরেছে হুমকির মুখে। কীটনাশকের স্যালাইন দেওয়ার মাধ্যমে এই বৃক্ষটিকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে চেষ্টা করছেন কর্মকর্তারা। প্রায় তিন একর জায়গা জুড়ে গাছটি বিস্তৃত। বলা হচ্ছে, এটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম বটগাছ। সেকারণে দেশ বিদেশ থেকে বহু পর্যটক গাছটি দেখতে যান। কর্মকর্তারা এখন এই গাছটিকে পোকার সংক্রমণ থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। নতুন করে যাতে পোকার সংক্রমণ না ঘটে সেজন্যে এর শেকড়েও পাইপ দিয়ে কীটনশাক দেওয়া হচ্ছে। সরকারি কর্মকর্তা প্রান্ডুরাঙ্গা রাও গণমাধ্যমকে বলেন, "আমরা বেশ কিছু ব্যবস্থা নিয়েছি। গাছটি যাতে পড়ে না যায় সেজন্যে সিমেন্টের প্লেট দিয়ে এর শাখাগুলো আটকে রাখা হয়েছে।” তিনি জানান, একই সাথে গাছটিতে সারও দেওয়া হচ্ছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমে আরেক কর্মকর্তা বলেন, "গাছটির যেসব জায়গায় উইপোকার সংক্রমণ ঘটেছে সে সব জায়গায় স্যালাইনের মতো করে আমরা ফোটায় ফোটায় কীটনাশক দিচ্ছি। আমাদের ধারণা এতে কাজ হবে।” গত বছরের ডিসেম্বর মাসে কর্তৃপক্ষের চোখে পড়ে যে গাছটির ডালপালা ভেঙে পড়ছে। তারপর থেকে সেখানে পর্যটকদের যাওয়া আসাও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বন বিভাগের কর্মকর্তারা স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, উইপোকার আক্রমণে গাছটি প্রায় ঝাঝড়া হয়ে গেছে। তারা বলেছেন, অনেক পর্যটক ডালপালা ধরে দোল খাওয়ার কারণেও গাছটি অনেক নুয়ে পড়েছে। ভারতীয় বটগাছ খুব বড় হয় এবং তাদের শেকড়ও হয় খুব শক্ত। এসব গাছ এতো বড় হয় যে ডালপালা থেকেও এর শেকড় ঝুলতে থাকে। সূত্র: বিবিসি বাংলা এমএইচ/টিকে

নিখোঁজের ৪০ বছর পর স্বজনের কাছে ফেরালো ইউটিউব

 নিখোঁজ হওয়ার ৪০ বছর পর ইউটিউব ভিডিও`র মাধ্যমে সাবেক একজন ভারতীয় সেনা সদস্য হাজারো মাইল দূরে তার স্বজনদের দেখা পেয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং নামের ওই ব্যক্তি পরিবারের কাছে ফিরে গেছেন। খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং ২৬ বছর বয়সে ১৯৭৮ সালে হঠাৎ করেই নিখোঁজ হয়ে যান। তার বাড়ি ভারতের মনিপুর রাজ্যের রাজধানী ইমফলে। কিন্তু নিখোঁজ হওয়ার ৪০ বছর পর তাকে পাওয়া যায় অনেক দূরের শহর মুম্বাইতে। এখন তার বয়স হয়েছে ৬৬। প্রথমে এই খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং-এর একজন ভাতিজা ইউটিউবে একটি ভিডিও দেখে তাকে চিনতে পারেন। ফিরোজ শাকরি নামের একজন ফটোগ্রাফার মুম্বাইয়ের রাস্তায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভিডিও করেছিলেন। তিনি অনেক ছবিও তুলেছিলেন। এই ফটোগ্রাফার তার ভিডিওগুলো ইউটিউবে প্রকাশ করলে তা ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, পরিবার থেকে নিখোঁজ হওয়া খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং পুরোনো দিনের হিন্দি গান গেয়ে রাস্তায় ভিক্ষা করছেন। তার ভাতিজা ইউটিউবে সেই ভিডিও দেখে তাকে চিনতে পেরে অন্য স্বজনদের জানান। তখন স্বজনরা মনিপুরের ইমফল পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। স্বজনদের মধ্যে খোমদ্রাম কুলাচন্দ্রা তার ভাই গাম্ভীর সিংয়ের ছবি পুলিশকে দেন। সেই ছবি নিয়ে ইমফলের পুলিশ যোগাযোগ করে মুম্বাইয়ের পুলিশের সঙ্গে। পুলিশ তাকে মুম্বাইয়ের যে এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে, সেখানে তিনি মানবেতর জীবন যাপন করতেন। পুলিশ পরিদর্শক পন্ডিত ঠাকরে বিবিসিকে বলেছেন, আমরা তাকে মুম্বাইয়ের বান্দ্রা এলাকার একটি রেলস্টেশনের বাইরে খুঁজে পাই। তার অবস্থা খুব খারাপ ছিল। তার ভাই খোমদ্রাম কুলাচন্দ্রা দ্যা হিন্দু পত্রিকাকে বলেন, আমার এক ভাতিজা যখন আমাকে ভিডিওটি দেখায়, আমি তখন নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। আমরা তাকে ফিরে পাওয়ার সব আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম। তিনি আরও জানিয়েছেন, তার ভাই খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং ভারতের সেনাবাহিনীতে সেনা পদে চাকরি করতেন এবং ১৯৭৮ সালে বিয়ে করার এক মাস পরই বাড়ি ছেড়ে নিখোঁজ হন। তখন অনেক খোঁজ করার পর স্বজনরা তাকে ফিরে পাওয়ার আশাই ছেড়ে দিয়েছিলেন। তথ্যসূত্র: বিবিসি। একে// এসএইচ/

নেপালে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ল বিমান

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে উড্ডয়নের সময় ১৩৯ যাত্রী নিয়ে রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়েছে মালিন্দো এয়ারলাইনসের একটি বিমান। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। ঘটনার পর শুক্রবার ত্রিভুবন বিমানবন্দর বন্ধ রাখা হয়েছে। বিমানবন্দরের মুখপাত্র প্রেমনাথ ঠাকুর জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাতে মালয়েশিয়ার ওই বিমানটি কুয়ালালামপুরের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল। কিন্তু বিমান উড্ডয়নের সময় সমস্যার মুখোমুখি হন বিমানের পাইলট। বিমানটি ছিটকে রানওয়ে থেকে ৩০ মিটার দূরে কাদার মধ্যে আটকে যায়। বিমানের সব আরোহীই নিরাপদে আছেন বলে জানান তিনি। তবে কী কারণে বিমানটি ছিটকে পড়েছে সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানা যায়নি বলেও উল্লেখ করেন প্রেমনাথ। এ ঘটনায় কেউ আহত না হলেও নেপালের রাজধানীতে আসা সব বিমান ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়া মালিন্দ এয়ারলাইনসের বোয়িং ৭৩৭ বিমান সরাতে কর্তৃপক্ষ চেষ্টা চালানোয় বিমানগুলোর গতিপথ পরিবর্তন করা হয়। নেপালের একমাত্র ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কতক্ষণ বন্ধ থাকবে সে ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি। উল্লেখ্য, এক মাস আগেই ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের একটি বিমান ত্রিভুবন বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়। ওই দুর্ঘটনায় ৫১ জন নিহত হন। আরকে//এসএইচ/

চা বিক্রি করেই মাসিক আয় ৫ লাখ!   

শুধু চা বিক্রি করেই মাসে ৫ লাখ আয় করেন ভারতীয় এক দম্প্রতি। শুনতে অবিশ্বাস্য হলেও এটা সত্যি। ভারতের নাগপুরে ইঞ্জিনিয়ারিং ছেড়ে চা বিক্রি করছেন এক দম্পতি। চায়ের প্রতি ভালোবাসা ও নতুন কিছু করে দেখানোর উদ্যোমী মনোভাবের কারণেই এখন তারা চা বিক্রেতা। নিতিন বিয়ানি ও তার স্ত্রী পূজা এর আগে মহারাষ্ট্রের পুনে শহরে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন।তাদের তখন মাসিক আয় ছিল ১৫ লাখ রুপি। পাঁচ মাস আগে নাগপুরের সিএ রোডে সামনে ‘চা ভিলা’ নামে একটি চায়ের দোকান খোলেন। চায়ের এই দোকানে ১৫ রকম আলাদা স্বাদের চা পাওয়া যায়। এ ছাড়া বিভিন্ন নাস্তাও বিক্রি করেন তারা। দোকানটির মালিক নিতিন জানান, একজন চা প্রেমিক ইচ্ছা করলে হোয়াটসঅ্যাপ ও জোমাটো অ্যাপ দিয়েও অর্ডার করতে পারবেন। এ ছাড়া প্রতিদিন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক ও হাসপাতালেও চায়ের ডেলিভারি দেওয়া হয়। নিতিন বলেন, এর মধ্যে আমরা অনেক লোক নিয়োগ করেছি এবং আমাদের যোগাযোগ প্রসারিত করতে চাচ্ছি। আমি গত ১০ বছর ধরে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস মেশিন (আইবিএম) এর মতো বড় বড় কোম্পানিতে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কাজ করেছি। তবে আমার স্ত্রী ও আমি নতুন কিছু করায় বেশ উদ্যোমী ছিলাম। তাই চায়ের দোকানটি খুলে ফেলি। এখন আমাদের মাসিক আয় পাঁচ লাখ। টিআর/এসএইচ/

ভিয়েনার এই মসজিদের উপর কেন এত ক্ষিপ্ত সরকার?

ভিয়েনার এক মসজিদে তুর্কী পতাকা হাতে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের এক ঘটনা তুলে ধরেছিল একদল শিশু। বিষয়টি অস্ট্রিয়ার সরকারকে এতটাই ক্ষিপ্ত করেছে যে চ্যান্সেলর সেবাস্টিয়ান কুর্য এর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, মসজিদটি বন্ধ করে দেওয়ারও হুমকি দিয়েছেন এই নেতা। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় গ্যালিপলির লড়াইয়ের এক দিকে ছিল জার্মানি ও তৎকালীন অটোম্যান তুরস্ক আর অন্যদিকে মিত্র পক্ষ। সেখানে তীব্র লড়াই চলে বহুদিন ধরে। শেষ পর্যন্ত এই লড়াইয়ে মিত্র পক্ষের অগ্রযাত্রা থামিয়ে দিতে সক্ষম হয় অটোম্যান বাহিনী। এই বিজয় এখনো উদযাপন করা হয় তুরস্কে। এই ঘটনার মধ্য দিয়ে আধুনিক তুরস্কের ভিত্তি স্থাপিত হয়েছিল বলে মনে করা হয়। ঠিক এই ঘটনাটিকেই ভিয়েনার এক মসজিদে এক অনুষ্ঠানে ফুটিয়ে তুলেছিল একদল শিশু।সেখানে তারা সামরিক ইউনিফর্ম পরে তুর্কী পতাকা হাতে মিছিল করে। এরপর যুদ্ধে গুলি খেয়ে মারা যাওয়ার ভান করে। এই অনুষ্ঠানের ছবি এবং খবর প্রকাশিত হওয়ার পর ভীষণ ক্ষুব্ধ অস্ট্রিয়ার ডানপন্থী সরকার। প্রধানমন্ত্রী সেবাস্টিয়ান কুর্য বলেছেন, মসজিদে যা ঘটেছে তার স্থান নেই অস্ট্রিয়ায়। এর বিরুদ্ধে সরকার `জিরো টলারেন্সের` নীতি নেবে। পূর্ণ শক্তি দিয়ে সরকার এসবের মোকাবেলা করবে। ভিয়েনার যে মসজিদে এই ঘটনা ঘটেছে সেটি চালায় তুর্কী ইসলামিক কালচারাল এসোসিয়েশেন। এটির মূল দফতর জার্মানির কোলন শহরে। সংস্থাটি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এই অনুষ্ঠানের জন্য তারা দু:খিত। এটি তারা তদন্ত করে দেখছে। অন্যদিকে অস্ট্রিয়ার ইসলামিক এসোসিয়েশন বলেছে, এই কেলেংকারি অস্ট্রিয়ায় মুসলিমদের ভাবমূর্তির মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে। তুরস্কের সঙ্গে অস্ট্রিয়ার সম্পর্ক বহুদিন ধরেই টানাপোড়েন চলছে। অস্ট্রিয়ার বর্তমান সরকার তুরস্ককে ইউরোপীয় ইউনিয়নে নেয়ার বিরুদ্ধে। তারা তুরস্কের ইইউ-তে যোগ দেয়ার আলোচনা ভেঙ্গে দেয়ারও আহ্বান জানিয়েছে অতীতে। সূত্র: বিবিসি বাংলা এমজে/

সিরিয়ায় হামলা শুরু ইরাকের

সিরিয়ায় সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের স্থাপনা লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছে ইরাক। সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর সঙ্গে একজোট হয়ে হামলা চালায় দেশটির সেনাবাহিনী। হামলায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে সিরিয়া সরকারের অনুমতি নিয়ে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরাকি সেনাবাহিনী। বৃহস্পতিবার ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ইরাকি সেনাবাহিনীর কমান্ডার ইন চিফ হায়দার আল আবাদির (প্রধানমন্ত্রী) নির্দেশে এ হামলা চালানো হয়। হামলায় ইরাকি সামরিক বাহিনীর এফ-১২ ফাইটের জেট ব্যবহার করা হয় বলে জানিয়েছেন ইরাকি সামরিক বাহিনীর এক মুখপাত্র। তিনি জানান, এফ-১২ ফাইটার জেট ইরাক থেকে উড্ডয়ন করে সিরিয়া সীমান্তে ঢুকে আইএসকে লক্ষ্য করে হামলা চালায়। উল্লেখ্য, দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইরাকে অভিযানের ঘোষণা দেয়ার পরদিনই এ হামলা চালায় দেশটির সেনাবাহিনী। এই হামলার মধ্য দিয়ে দেশটিতে নতুন করে যুদ্ধে জড়িয়েছে আরেক দেশ। এর আগে তুরস্ক, ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ব্রিটেন দেশটিতে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে। সূত্র: আল-জাজিরাএমজে/

ট্রানজিট ভিসা দেবে দুবাই: ঘুরে আসুন ৭ পর্যটন স্পটে

বিশ্বের এ মুহূর্তে সবচেয়ে উচু ভবনের নাম বুর্জ খলিফা। কেউ এটাকে ডাকেন দুবাই টাওয়ার নামে। শুধু বুর্জ খলিফা-ই নয়, বিশ্বের সবচেয়ে ঝাঁকজমকপূর্ণ স্থাপনাগুলোর বেশিরভাগই সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থিত। শপিংয়ের জন্য বিখ্যাত দুবাইমল, অতি প্রাচীনকালের নিদর্শন, সমুদ্র সৈকত ও মরুভূমির সৌন্দর্য সবার জন্য উন্মুক্ত করে দিতে দেশটি ট্রানজিট ভিসা প্রদান করতে যাচ্ছে। জানা গেছে, আগের তুলনায় সংযুক্ত আরব আমিরাত পর্যটক বান্ধব হতে চায়। বিশেষ করে পর্যটন খাতে দেশটির বিপুল সম্ভাবনা আছে বলে মনে করে দেশটির সরকার। আর পর্যটকদের জন্য দেশটিতে ভ্রমণ সহজ করতে ইতোমধ্যে দেশটির মন্ত্রীপরিষদ পর্যটকদের ভিসা প্রদানে একটি খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করছে। এ নীতিমালার আওতায় বলা হয়েছে, যেসব যাত্রী দেশটির দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় স্থানে ঘুরতে চান তাদের ট্রানজিট ভিসা দেওয়া হবে। ট্রানজিট ভিসা দেওয়ার ব্যাপারে দেশটি আরও সহজ পদ্ধতি নিয়ে আসবে বলেও জানিয়েছে খালিজ টাইমস। তাই যারা বিশ্বের সুউচ্চ ভবনগুলো পরিদর্শনের সাক্ষী হতে চান, তার দেশটির আটটি পর্যটন কেন্দ্রে অবশ্যই ঘুরে আসতে পারবেন। দুবাই মল: বিশ্বে কেনাকাটার জন্য বিখ্যাত শপিং মলের নাম দুবাই মল। পশ্চিম দুনিয়ার অনেকেই কেনাকাটার জন্য দুবাই মলে ঝড়ো হয়। আন্তর্জাতিক সব ব্রান্ডের সমাহার বললেই চোখে যে নামটি ভেসে ওঠে, তার নাম দুবাই মল। তা ছাড়া সেখানে আইস স্কেটিং করতে পারবেন। পেঙ্গুইনদের দেখা মিলবে। আইকনিক বুর্জ খলিফার সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতে পারবেন। ভবনের নিচে মাত্র ৪০ দিরহাম খরচে এক ঘণ্টার ঘুমও দিতে পারবেন। বিমানবন্দর থেকে মাত্র ১৪ মিনিটের পথ এটি। সমুদ্র সৈকতনীল জলরাশির গর্জন শুনতে চান, তবে চলে যান দুবাইয়ের বিখ্যাত পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে। দেশটিতে রয়েছে অসংখ্য সামুদ্রিক পর্যটন কেন্দ্র। রয়েছে অসংখ্য সৈকত। জেবিআর, বুর্জ বিচ, কাইট বিচ, মামজর বিচ পার্ক, ঘান্টোট বিচ আর জাবেল আলী বিচ পর্যটন প্রেমীদের কাছে বিশেষ আকর্ষণ তৈরি করেছে। বিমানবন্দর থেকে এসব জায়গায় যেতে সর্বোচ্চ ২০-৩০ মিনিট সময় লাগবে। প্রাচীন দুনিয়ায় ডুব দিন:বলা হয়ে থাকে মানবসভ্যতার সূচনা হয়েছিল মধ্যপ্রাচ্য-আফ্রিকা উপমহাদেশে। প্রাচীন যুগের মানুষ দেখতে কেমন ছিল? দুবাই বছরের পর বছর নিজেদের উন্নত থেকে উন্নততর জাতিতে পরিণত করেছে। যুগ যুগ আগে দেশটি দেখতে কেমন ছিল? তা জানরতে দুবাই ক্রিক এবং দ্য আল ফাহিদি হিস্টরিক ডিস্ট্রক্ট মিউজিয়ামে চলে যান। সেখানে ঐতিহ্যবাহী আবরাসে (নৌকা) করেও ভ্রমণ করতে পারেন। বিমানবন্দর থেকে এই স্থানের দূরত্ব ১৯ মিনিট। প্রকৃতি দর্শন কেবল প্রকৃতি দেখে চোখ জুড়াতে চাইলে তার ব্যবস্থাও আছে। দুবাই সাফারি পার্কে চলে যান। সেখানে আছে দেশের ২ হাজার ৫০০ প্রজাতির প্রাণী। পাখিদের কোলাহলের সঙ্গে প্রকৃতির মিতালি অবলোকন করতে চলে যেতে পারেন সাফারি পার্কটিতে। বিমানবন্দর থেকে এর দূরত্ব ২২ মিনিট। মেরিনা আবহাওয়া ঠিকঠাক থাকলে দুবাই মেরিনাতে যেতে পারেন। বিশাল বিশাল আকাশছোঁয়া সব ভবন দেখে হতবাক হয়ে যেতে হয়। সেখানে আছে প্যাঁচানো `ক্যানন টাওয়ার`। দুবাই মেরিনা বোর্ড বরাবর হেঁটে যান। সেখানেই পাবেন সবচেয়ে বড় ফেরিস হুইল। কেনাকাটা যারা এ কাজে আগ্রহী তাদের স্বর্গ দুবাই। সময় বের করে চলে যেতে পারেন দুবাই মল, মল অব এমিরেটস, ইবনে বতুতা মল, মেরিনা মল, মিরডিফ সিটি সেন্টার, মের্কাতো মল ইত্যাদি স্থান রয়েছে। মরুর তারকাপুঞ্জ দুবাইয়ের আকাশ আপনাকে অবাক করে দেবে। দুবাইয়ের ডেজার্ট সাফারি সৌন্দর্যপিয়াসীদের তৃষ্ণা মেটাতে পারে। সন্ধ্যায় চলে যান কোনো মরুতে। সেখানে ঘুরে বেড়ানোর মতো গাড়ি রয়েছে। এ ছাড়া দিনের বেলা অবলোকন করতে পারেন মরুর উটের সৌন্দর্য। মিটবে তৃষিত হৃদয়ের তৃষ্ণা। সূত্র : খালিজ টাইমসএমজে/

যুক্তরাষ্ট্র নয়, চীন-ই পাকিস্তানের মূল ভরসা

কয়েক যুগ ধরে অস্ত্র আমদানির ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের উপর নির্ভরশীল থাকলেও বেশ কয়েক বছর ধরে দেশটির কাছ থেকে সরে আসছে পাকিস্তান। এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পাকিস্তানে ২০০ বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা বন্ধ ঘোষণার পরই পাকিস্তান দেশটির কাছ থেকে অস্ত্র কেনা কমিয়ে দিয়েছে বিস্ময়জনকভাবে। তবে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে অস্ত্র আমদানি কমালেও পাকিস্তান ঝুঁকছে আরেক মিত্র চীনের দিকে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার যুগ থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের উপর নির্ভরতা কমাতে শুরু করে পাকিস্তান সরকার। যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে এফ-১৬ নামের অস্ত্র বিক্রির বিষয়টি আটকে গেলে পাকিস্তান সরকার ঝুঁকতে থাকে চীনের দিকে। সেই সময় তারা চীন থেকে জেএফ-১৭ ক্রয়ে মনোযোগ দেয়। এদিকে ভারতের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ঘনিষ্ঠতা নিয়ে পাকিস্তানের সন্দেহ বেড়েই যাচ্ছে। তা ছাড়া ২০১১ সালে পাকিস্তানের মাটিতে আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনকে হত্যার মধ্য দিয়ে দুই দেশের মধ্যে শুরু হয় সম্পর্কের অবনতি। লাদেনকে হত্যার পর দুই দেশের সম্পর্ক মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর পর গত জানুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পাকিস্তানকে দেয়া ২০০ কোটি ডলার সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দেন। দেখা গেছে, ২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ৪২০ মিলিয়ন ডলারের অস্ত্র ক্রয় করলেও মাত্র ৭ বছরের ব্যবধানে বর্তমানে দেশটি থেকে ১০০ মিলিয়ন ডলারেরও কম অস্ত্র আমদানি করছে পাকিস্তান। বিপরীতে ২০১০ সালে চীন থেকে ৪০০ মিলিয়ন ডলারেরও কম অস্ত্র আমদানি করলেও পাকিস্তান মাত্র ৭ বছরের ব্যবধানে দেশটি থেকে প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ডলার অস্ত্র আমদানি করছে। যুক্তরাষ্ট্র দেশটি থেকে ২০০ বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা তুলে নেওয়ার ব্যপারে এ বিষয়টিই গুরুত্ব রেখেছে বলে জানিয়েছে ফিন্যান্সাল টাইমস। এমজে/

পাকিস্তান-যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক যুদ্ধ শুরু

রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা বিশ্বের কূটনীতিক যুদ্ধ শেষ না হতেই এবার যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনৈতিক যুদ্ধে জড়িয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তানে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর যুক্তরাষ্ট্রও দেশটির কূটনীতিকদের উপর একই ধরণের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের রাজনীতিবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি থমাস শ্যানন বলেছেন, তার দেশে নিয়োজিত পাকিস্তানি কূটনীতিকদের চলাফেরায় ১ মে থেকে বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে। ভয়েস অব আমেরিকার উজবেক সার্ভিসে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে মঙ্গলবার তিনি এ কথা জানিয়েছেন। ভয়েস অব আমেরিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শ্যানন জানান, যে শহরে পাক কূটনীতিকরা আছেন, সেখান থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরত্বের বাইরে তারা অনুমতি ছাড়া যেতে পারবেন না। পাকিস্তানে নিয়োজিত মার্কিন কূটনীতিকদের ওপর একই ধরনের কড়াকড়ির জবাবেই এ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শ্যানন। এ নোটিশ অনুযায়ী, কূটনীতিকদের শহরের ৪০ কিলোমিটারের বেশি দূরে যেতে হলে অন্তত পাঁচ দিন আগে অনুমতি নেওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে। ইসলামাবাদও মার্কিন কূটনীতিকদের ওপর আগে থেকেই একই রকম কড়াকড়ি আরোপ করে রেখেছে। উল্লেখ্য, আফগানিস্তান ও তালেবান ইস্যু নিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকে। যুক্তরাষ্ট্র ইতোমধ্যে দেশটিতে দেওয়া অর্থনৈতিক ও সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দিয়েছে। পাকিস্তানের রাজনীতিবিদরাও যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন। পাক রাজনীতিবিদদের দাবি, কেবল যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থের জন্য দেশটি আজ সন্ত্রাসের শিকার। এরপরই দেশ দুটোর মধ্যে কূটনীতিক উত্তেজনা চলে আসছে। সূত্র: এক্সপ্রেস ট্রিবিউনএমজে/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি