ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ২:৩৪:০৯

কেন্দ্রের শাসন মানবে না কাতালোনিয়া

কেন্দ্রের শাসন মানবে না কাতালোনিয়া

কাতালোনিয়াকে মাদ্রিদের সরাসরি নিয়ন্ত্রনে নেওয়ার পরিকল্পনা মেনে নেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন স্পেনের স্বায়ত্ত্বশাসিত ওই অঞ্চলটির প্রেসিডেন্ট কার্লোস পুজদেমন। তিনি বলেছেন, ১৯৩৯-১৯৭৫ সালের জেনারেল ফ্রাঙ্কোর একনায়কতান্ত্রিক শাসনের পর এটি হবে কাতালোনিয়ার সংবিধান লঙ্ঘনের সবচেয়ে খারাপ উদাহরণ। খবর বিবিসির।কাতালোনিয়াকে স্পেনের সরাসরি শাসনে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণার পর স্থানীয় সময় শনিবার রাতে এক প্রতিক্রিয়ায় পুজদেমন কাতালোনিয়ায় কেন্দ্রের নিয়ন্ত্রণ পরিকল্পনা সরাসরি নাকচ করে দেন। পুজদেমন বলেন, আলোচনার সব প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানের পর স্পেন সরকার কাতালানের গণতান্ত্রিক আচরণের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।
বাংলাদেশের চিরবন্ধু ফাদার রিগন আর নেই

দার্শনিক, লেখক, অনুবাদক ও মানবসেবী ফাদার মারিনো রিগন মারা গেছেন। ইতালির ভিচেঞ্চায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ইতালিতে অবস্থানরত ফাদার রিগনের ঘনিষ্টজন বাংলাদেশের পুঁথি শিল্পী কাব্য কামরুল তার ফেসবুকে খবরটি নিশ্চিত করেছেন। তিনি লিখেছেন, বাংলা সাহিত্যের বিশিষ্ট ইতালীয় অনুবাদক, মুক্তিযুদ্ধ-বন্ধু, শিক্ষানুরাগী, মানবসেবক ফাদার মারিনো রিগন গত ২০ অক্টোবর ২০১৭, বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় ইতালিতে মৃত্যুবরণ করেন। ফাদার রিগন দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্য জনিত নানা রোগে ভুগছিলেন। বাংলাদেশের সম্মানসূচক নাগরিক ও মুক্তিযোদ্ধা ফাদার মারিনো রিগন ১৯২৫ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি ইতালির ভেনিসের কাছে ভিল্লভেরলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৩ সালে তিনি খ্রিষ্টধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশে আসেন। দেশের নানা জায়গা ঘুরে বাগেরহাটের মংলা উপজেলার হলদিবুনিয়া গ্রামে দীর্ঘদিন বসবাস করেন তিনি। ধর্মের গণ্ডি পেরিয়ে বাংলাদেশের মানুষের দারিদ্র্য বিমোচন, শিক্ষার প্রসার, চিকিৎসা সেবা ও দুঃস্থ নারীদের উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রাখেন রিগন। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি অসুস্থ ও যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের আশ্রয় ও সেবা দেওয়ার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। বাংলাদেশ সরকার ২০০৯ সালে তাকে সম্মানসূচক নাগরিকত্ব প্রদান করে। বাংলা শিল্প-সাহিত্য নিয়ে গবেষণার পর তা ইতালীয় ভাষায় অনুবাদ করেছিলেন ফাদার মারিনো রিগন। তার হাত দিয়ে ইতালীয় ভাষায় অনূদিত হয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গীতাঞ্জলিসহ প্রায় ৪০টি কাব্যগ্রন্থ, লালন সাঁইয়ের ৩৫০টি গান, জসীম উদদীনের নকশীকাঁথার মাঠ, সোজন বাদিয়ার ঘাট ছাড়াও এ দেশের গুরুত্বপূর্ণ কবিদের অনেক কবিতা। ফাদার রিগনের ইতালীয় ভাষায় অনূদিত রবীন্দ্রকাব্যের একাধিক গ্রন্থ ফ্রেঞ্চ, স্পেনিশ ও পুর্তগিজ ভাষায় অনূদিত হয়। ১৯৯০ সালে তিনি ইতালিতে রবীন্দ্র অধ্যয়ন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেন। ফাদার রিগন বাংলার নকশিকাঁথাকেও তুলে ধরেছেন ইতালির বিভিন্ন শহরে। তার প্রতিষ্ঠিত শেলাবুনিয়া সেলাই কেন্দ্রের উৎপাদিত নকশিকাঁথার চারটি প্রদর্শনী হয় ইতালির বিভিন্ন শহরে। ফাদার রিগনের কর্মপরিধির বিরাট অংশ জুড়ে রয়েছে শিক্ষামূলক কার্যক্রম। তার প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে প্রতিষ্ঠিত হয় ১৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানে সুবিধাবঞ্চিতদের জন্য তিনি বৃত্তির ব্যবস্থাও করেছিলেন। ১৯৮৬ সালে ফাদার রিগনের সহযোগিতায় বাংলাদেশের একটি নৃত্যনাট্যের দল ‘নকশীকাঁথার মাঠ’ মঞ্চায়ন করে ইতালির মঞ্চে। ২০০১ সালে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তার পরিবারের সদস্যরা তাকে ইতালি নিয়ে যেতে চান। তখন তিনি তার স্বজনদের শর্ত দিয়েছিলেন যে, ইতালিতে তার যদি মৃত্যু হয় তাহলে মরদেহটি বাংলাদেশে পাঠাতে হবে। ইতালির স্বজনেরা মেনে নেন তার জুড়ে দেওয়া শর্ত। এরপর তিনি উন্নত চিকিৎসায় ইতালি যান। সেখানেও অস্ত্রোপচারের আগে স্বজনদের কাছে তার শেষ মিনতি ছিল, ‘আমার মৃত্যু হলে লাশটি বাংলাদেশে পাঠাবে’।   এসএ/ এআর

কাতালোনিয়া স্পেনের সঙ্গে থাকবে: রাজা ষষ্ঠ ফিলিপ

স্পেনের রাজা ষষ্ঠ ফিলিপ বলেছেন কাতালোনিয়া স্পেনের অংশ ছিল এবং থাকবে। কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা প্রশ্নে নানা আলোচনার মধ্যে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো মন্তব্য করলেন রাজা ষষ্ঠ ফিলিপ। উত্তর স্পেনের ওভিয়েডো শহরে একটি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনি বলেন, কাতালান সরকার স্পেনে একটা ফাটল তৈর করার চেষ্টা করছে। কিন্তু স্পেনের যেসব গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো আছে তা দিয়েই স্পেন এই সংকট সমাধান করবে বলে  মন্তব্য করেছেন তিনি। রাজা ফিলিপ বলেন, একটি গণতান্ত্রিক কাঠামোতে ফাটল ধরিয়ে কোনো উন্নয়ন বা মুক্তির পথ পাওয়া সম্ভব নয়। কাতালোনিয়া সম্পর্কে স্পেন কী পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে তার একটা পরিপূর্ণ ও বিস্তারিত ঘোষণা এ রবিবারে দিতে যাচ্ছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মারিনো রাজোয়। কেন্দ্রীয় সরকার বলছে, তারা সংবিধানের ১৫৫ নম্বর ধারা জারি করবে। এই ধারা অনুযায়ী সরাসরি শাসন জারি করা হয়। যদি কাতালোনিয়ায় ১৫৫ ধারা জারি করা হয় তবে, এটিই হবে প্রথমবাররে মতন সরাসরি শাসন জারি করা। কাতালোনিয়াতে ১৫৫ ধারা জারির পাশাপাশি, কাতালোনিয়ার আঞ্চলিক পুলিশ দপ্তরের নিয়ন্ত্রণও কেন্দ্রের হাতে নিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। কাতালোনিয়ার স্বাধীনতা প্রশ্নে গত পহেলা  অক্টোবর সেখানে একটি বিতর্কিত গণভোট অনুষ্ঠিত হয়।যেখানে স্বাধীনতার পক্ষে ভোট দিয়েছিল প্রায় ৯০ ভাগ ভোটার। সূত্র:বিবিসি / এম / এআর

কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন স্থগিত করছে স্পেন

কাতালোনিয়ার নেতা কার্লোস পুজদেমন স্বাধীনতা ঘোষণা করার হুমকি দেওয়ার পর এ অঞ্চলটির স্বায়ত্তশাসন স্থগিত করার পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে স্পেন। শনিবার থেকেই কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন স্থগিত করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে জানানো হয়, কাতালোনিয়ার শাসনভার নিতে সংবিধানের ১৫৫ অনুচ্ছেদ কার্যকর করার জন্য শনিবার মন্ত্রিসভার বৈঠক হবে। এর আগে কাতালান নেতা পুজদেমন জানান, স্পেনের ‘দমননীতি চলতে থাকলে’আঞ্চলিক পার্লামেন্ট স্বাধীনতার প্রশ্নে ভোটের আয়োজন করবে। পুজদেমনের এই পদক্ষেপে স্পেনের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলে অস্থিরতা শুরু হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকে। এক বিবৃতিতে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাখয় বলেছেন, কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসনের ক্ষেত্রে বৈধতা পুনর্বহাল করার জন্য স্পেনের সরকার সংবিধানের ১৫৫ অনুচ্ছেদে নির্দেশিত পথে এগিয়ে যাবে। স্পেনে একনায়ক জেনারেল ফ্রাঙ্কোর মৃত্যুর তিন বছর পর ১৯৭৮ সালে গণতান্ত্রিক শাসনের শুরুতেই নতুন সংবিধান চালু করা হয়। সংবিধানের ১৫৫ অনুচ্ছেদে সঙ্কটজনক পরিস্থিতি সামাল দিতে মাদ্রিদের হাতে সরাসরি শাসনভার দেওয়া হয়। এর আগে কখনই দেশটিতে সংবিধানের ওই অনুচ্ছেদ ব্যবহার করার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। কাতালোনিয়ায় গণভোট আয়োজনের পর থেকেই মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার নেতাদের মধ্যে সম্পর্কের টানপোড়ন তৈরি হয়। গণভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ স্বাধীনতার পক্ষে রায় দিলেও সেটাকে অবৈধ বলছে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার। দেশটির প্রধানমন্ত্রী আগেই জানিয়েছেন, স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার মধ্যে পুজদেমনের দেওয়া স্বাধীনতার ঘোষণা প্রত্যাহার করে না নিলে কাতালোনিয়ায় সরাসরি কেন্দ্রের শাসন চালু হবে। সূত্র: বিবিসি। আর/ডব্লিউএন

দাবানলে পতুর্গাল ও স্পেনে নিহত ৩৪

পর্তুগালের মধ্যাঞ্চল ও উত্তরাঞ্চলে রোববার প্রায় ১৪৫টি দাবানলের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পর্তুগালে ৩১ জন ও স্পেনে তিন জন নিহত হয়েছেন। এ দাবানলগুলোর মধ্যে কয়েক ডজনকে গুরুতর বলে জানিয়েছে পর্তুগালের বেসামরিক প্রতিরক্ষা কর্তৃপক্ষ। পর্তুগালের উত্তরাঞ্চলে ও স্পেনের গ্যালিসা অঞ্চলের সীমান্তজুড়ে এ দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। দাবানলগুলো নিয়ন্ত্রণে কয়েক হাজার দমকল কর্মী কাজ করছেন। পর্তুগাল জানায়, ইউরোপের পশ্চিম উপকূলের দিকে এগিয়ে আসা হারিকেন ওফেলিয়ার কারণে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে বেগ পেতে হচ্ছে। হারিকেনের প্রবল বাতাসের কারণে আগুন আরো জোরালো হয়ে চারদিকে ছড়িয়ে পড়েছে। পর্তুগালে আগুনে পুড়ে আহত হয়েছেন ৫০ জনেরও বেশি মানুষ। এদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা গুরুতর। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন এখনো নিখোঁজ রয়েছেন। যাদের মধ্যে মধ্যে এক মাস বয়সী একটি শিশু রয়েছে। দেশটির কোয়িমব্রা, গুয়ার্দা, ক্যাস্টেলো ব্রানকা এবং ভিসেউ এলাকায়ই অধিকাংশ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে স্পেনে নিহত তিন জনের মধ্যে দুজনের লাশ রাস্তার পাশে পুড়ে যাওয়া একটি গাড়িতে পাওয়া গেছে। পর্তুগালের টাগুস নদীর উত্তরপাশের প্রায় অর্ধেক এলাকাগুলোজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। সোমবার দাবানল কবলিত এলাকাগুলোতে ছয় হাজারেরও বেশি দমকল কর্মী ও এক হাজার ৮০০ গাড়ি মোতায়েন করা হয়। দাবানলের কারণে কয়েকটি এলাকায় স্কুল বন্ধ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি ১২টি সড়ক বন্ধ করে দেওয়া হয়। চলতি বছরের জুনে পর্তুগালে একটি দাবানলে ৬৪ জন নিহত ও ১৩০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছিল। সোমবার স্পেনের প্রধানমন্ত্রী মারিয়ানো রাখয় গালিসার পন্তেভেদরা জরুরি বিভাগের কর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। পরে তিনি দাবানলের ঘটনাগুলোকে ‘নাশকতা’ বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, আমরা যার সঙ্গে লড়ছি এটা দুর্ঘটনা নয়, এগুলো সচেতনভাবে ঘটানো হয়েছে।         আর/এআর

বিয়ারের সঙ্গে নাচলেন অন্ত:সত্ত্বা কেট

তৃতীয় সন্তানের মা হতে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর সোমবারই প্রথম জনসমক্ষে আসলেন ব্রিটিশ রাজবধূ কেট উইলিয়াম। লন্ডনের প্যাডিংটন স্টেশনে একটি দাতব্য অনুষ্ঠানে কেটের সঙ্গে ছিলেন তার স্বামী প্রিন্স উইলিয়াম ও দেবর প্রিন্স হ্যারি। সেখানে প্যাডিংটন বিয়ারের সঙ্গে নাচেও অংশ নিয়েছেন রাজবধূ। লন্ডনের প্যাডিংটন স্টেশনে পৌঁছলেই প্যাডিংটন বিয়ার চুম্বন দিয়ে ৩৫বছর বয়সী ক্যাটকে স্বাগত জানায়। অনুষ্ঠান দেখা যায়, চুলকে কয়েক ইঞ্চি ছোট করেছেন কেট এবং তার শারীরিক গঠন দেখে বুঝা যায় যে তিনি মা হতে চলেছেন। BAFTAR কিডস প্রোগ্রামের সহায়তায় অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে স্টোডিও ক্যানাল। অনুষ্ঠানে কেটকে বেশ প্রাণবন্ত দেখাচ্ছিল। কেটের প্রিয় ডিজাইনার ওরলা কাইলের ডিজাইন করা সুন্দর একটি পোষাক পরিধান করেন উপস্থিত হয়েছিলেন কেট। তবে তিনি পুরোপুরি স্বাভাবিক নন। সকালের সময়টাতে কিছুটা দুর্বলতা দেখা দেয় কেটের। অনুষ্ঠানে ’প্যাডিংটন-২’ সিনেমার প্রচারণাও চালান ‘ডাচেস অব ক্যামব্রিজ’। এছাড়া এ সিনেমার অভিনয় শিল্পী ও কলাকৌশলীদের সাথে সাক্ষাত করেন রাজ ত্রয়ী।   সূত্র: বিবিসি এমআর/এআর    

সাবমেরিনে কমান্ডারের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক, নারী কর্মী বরখাস্ত

সাবমেরিনে সহকর্মীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করায় এক নারী কর্মকর্তাকে ওই সাবমেরিন থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। দ্য মেট্রোর প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই নারী কর্মকর্তা হলেন সাব-লেফটেন্যান্ট রেবেকা এডওয়ার্ডস। তিনি ব্রিটিশ রয়্যাল নেভির `এইচএমএস ভিজিল্যান্ট` সাবমেরিনে অস্ত্র প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। প্রতিবেদনে বলা হয়, সাবমেরিনটিতে উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরে কমান্ডার স্টুয়ার্ট আর্মস্ট্রং`র (৪১) সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়েন রেবেকা। বিষয়টি টের পেরে অন্য কর্মকর্তারা তাদের শাস্তির দাবিতে পদত্যাগের হুমকি দেন। এরপর গত মাসে স্টুয়ার্টকে তার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। ওই প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, রয়্যাল নেভির সাবমেরিনে ক্রুদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্ক একদম নিষিদ্ধ। সাবমেরিনে মূলত `কোনো স্পর্শ নয়` নীতি অনুসরণ করা হয়। তবে এই নিষেধাজ্ঞা একটু শিথিল হলে ২০১১ সাল থেকে নারীরা সাবমেরিনে কাজ করার সুযোগ পান। ব্রিটিশ রয়্যাল নেভির একটি সূত্র জানিয়েছে, রেবেকা এডওয়ার্ডস সাবমেরিনে তার কমান্ডারের সঙ্গে শারীরিক সংসর্গের কথা স্বীকার করেছেন। সাবমেরিনে যা ঘটেছে, তা খুবই খারাপ হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। তবে দোষ প্রমাণিত হলে কমান্ডিং কর্মকর্তার মতো তার কঠোর শাস্তি হবে না বলে জানা গেছে। যুক্তরাজ্যের কাছে ভ্যানগার্ড শ্রেণির চারটি পারমাণবিক অস্ত্রসমৃদ্ধ সাবমেরিন রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো `এইচএমএস ভিজিল্যান্ট`। নিয়মিত টহলে থাকা সাবমেরিনটি যুক্তরাজ্যকে যেকোনো ধরনের পারমাণবিক অস্ত্রের হুমকি থেকে সুরক্ষা দিতে সক্ষম।সূত্র : দ্য মেট্রো।//এআর

একজনের বাম আরেকজনের ডান পা মিলিয়ে নতুন জীবন

ইসরায়েলি সেনাদের ছোঁড়া বোমার আঘাতে ডান পা হারিয়েছেন ফিলিস্তিনের গাজার এক তরুণ। বোমা হামলায় আরেকজন হারিয়েছেন তার বাম পা। তবু মুক্তির সংগ্রামে সোচ্চার এই দুই তরুণ জীবনে চলার পথে খুঁজে পেয়েছেন পরস্পরকে। তারা বলছেন, একজন আরেকজনকে পেয়ে তাদের শরীর আবার পূর্ণ হয়েছে। দু`জনেই এখন তাদের দুই পা ব্যবহার করে মোটরসাইকেল চালান। এক জোড়া জুতা কিনলে একজন নেন ডান পায়ের জুতা, আর অন্যজন বাম পায়ের। এবং এভাবেই তাদের মধ্যে গড়ে উঠেছে বিশেষ এক বন্ধুত্ব। তাদের একজনের নাম মানসুর গুরুন। বয়স ২৪। আরেকজন তার চেয়ে এক বছরের বড়ো, ২৫ বছর বয়সী তরুন- আদলি হাসান আবিদ। ২০১১ সালের আগস্ট মাসে গাজায় ইসরায়েলি বোমা হামলায় পা হারান মানসুর। এর আট মাস পর ২০১২ সালের মার্চ মাসে একই ধরনের হামলায় পা হারান আদলি। মানসুর যেখানে পা হারান সেই জায়গাটি দেখিয়ে বলেন, ঠিক এই জায়গাতেই বোমা হামলা চালানো হয়েছিল। এখানেই পড়েছিল রকেটটি। আমি তখন অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলাম। ১০ দিন পর আমার জ্ঞান ফিরে আসে। আমি গুরুতরভাবে আহত হই। এখনও আপনি ওই ধ্বংসলীলা দেখতে পাবেন। বোমা পড়ার সাথে সাথেই আমি দূরে ছিটকে পড়ি। আদলি কীভাবে পা হারান সে সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেন, আমি তো কিছুই জানি না। হঠাৎ করে হাসপাতালে জ্ঞান ফিরে এলে জানতে পারি আমার পা নেই। তখন একজনকে জিজ্ঞেস করলাম, আমার পা কোথায়? তিনি বললেন, আমার পা আমার আগেই বেহেশেতে চলে গেছে। মানসুর ও আদলি এখন একসাথে চলাফেরা করেন। তাদের মনে হয়, একে অপরকে পেয়ে তাদের শরীর পূর্ণ হয়েছে। মানসুর বলেন আমরা একসাথে বাজার করতে যাই। জুতা কিনতে গেলে কখনও সে পছন্দ করে, কখনও আমি পছন্দ করি। পছন্দ নিয়ে আমাদের মধ্যে অনেক বাদানুবাদও হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা একজোড়া জুতার ব্যাপারে ঠিকই সিদ্ধান্ত নিতে পারি। খরচটা ভাগাভাগি করে নেই। তেমনি ভাগ করে নেই জুতা জোড়াও। ও বাম পায়ের জুতাটা নেয় আর আমি নেই ডান পায়ের জুতা। আদলি বলেন, আমরা যখন মোটর সাইকেল চালাই তখন মানসুর তার এক পা দিয়ে গিয়ার বদলায়। ফলে আমাকে আর নিচু হয়ে হাত দিয়ে সেটা করতে হয় না। মানসুর যাতে তার পা দিয়ে গিয়ার বদলাতে পারে সেজন্যে আমি ওকে পেছনে বসাই। এভাবেই আমরা দু`জনেই একজন পরিপূর্ণ মানুষ। মোটর সাইকেলে ঘুরতে গিয়ে একবার তারা দুর্ঘটনার কবলেও পড়েছিলেন। বিপরীত দিক থেকে আসা একটি গাড়ি তাদের মোটর বাইককে ধাক্কা দিলে মানসুর ছিটকে পড়েন একদিকে। আদলি অন্যদিকে। তখন গাড়ি থেকে বৃদ্ধ চালক বেরিয়ে এসে দেখতে পান তাদের দু`জনেরই একটি করে পা নেই। তখন তিনি হাউমাউ করে কাঁদছিলেন, হায় হায় আমি তোমাদের পা কেটে ফেলেছি। আদলি বলেন, আমি বুঝতে পারছিলাম না তখন আমি হাসবো নাকি ব্যাথায় কাঁদবো। মানসুর এবং আদলি - তারা দু`জনেই এখন সারা শহরে ঘুরে বেড়ান। তারা বলছিলেন, পা না থাকার কারণে তারা চুপ করে ঘরে বসে থাকবেন না। সূত্র : বিবিসি বাংলা। ডব্লিউএন

অস্ট্রিয়ার পরবর্তী নেতা ভাবা হচ্ছে সেবাস্টিয়ান কুরৎসকে

আজ রোববার অস্ট্রিয়ায় সংসদ  নির্বাচনে ভোট দিচ্ছেন দেশটির নাগরিকরা। এ নির্বাচনে ৩১ বছর বয়সী রক্ষণশীল পার্টির নেতা এবং বর্তমান পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেবাস্তিয়ান কুরৎসকে পরবর্তী নেতা হিসেবে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অস্ট্রিয়ার বর্তমান জোট সরকারের একটি দল ‘অস্ট্রিয়ান পিপলস পার্টি` বা ওভিপি৷ অন্যটি ‘সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি অফ অস্ট্রিয়া` বা এসপিও৷ মতামত জরিপ অনুযায়ী, দ্য ফার-রাইট ফ্রিডম পার্টি এবং সোশাল ডেমোক্রেটস পার্টি দ্বিতীয় স্থানের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এসপিও কে মনে করা হয় যে পরবর্তী জোটে সরকারের সাথে যোগ দেয়ার সুযোগ রয়েছে তাদের এবং এর মধ্যে ইমিগ্রেশনের বিষয়টি এক্ষেত্রে যথেষ্ট প্রভাব ফেলবে। এর আগে ভোটের প্রচারে ওভিপি দলের প্রধান ৩১ বছর বয়সি সেবাস্টিয়ান কুরৎস বলেছিলেন, তিনি দেশের সীমান্ত আরো সুরক্ষিত করবেন এবং রাজনৈতিক ইসলামের বিরুদ্ধে লড়াই করাসহ  অভিবাসীর সংখ্যা সীমিত করবেন  তিনি৷ ২০১৩ সালে অস্ট্রিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিযুক্ত হন কুরৎস৷ তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ২৭৷ অতীতে অস্ট্রিয়ায় নির্বাচনী প্রচারণায় কর, অর্থনীতি, শিক্ষা এসব বিষয় প্রাধান্য পেলেও এবারের নির্বাচনে সেগুলো পেছনের সারির বিষয় হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। এবার প্রাধান্য পাচ্ছে অভিবাসন, শরণার্থী, ইসলামাইজেশন বিষয়গুলো।  সূত্র:বিবিসি বাংলা। এম/ডব্লিউএন

উনসত্তরে বাবা হচ্ছেন ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট

ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সাউলি নিনিস্তো এবং তার স্ত্রী জেনি হাওকিও আশা করছেন, শিগগিরই তাদের পরিবারে আসছে নতুন অতিথি। নিনিস্তোর বয়স এখন ৬৯ বছর, আর হাওকিওর ৪০। আগামী ফেব্রুয়ারিতেই এই দম্পতির সন্তানের জন্ম নিতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছে রয়টার্স। সোমবার নিনিস্তো দম্পতির এক বিবৃতিতে বলা হয়, “একটি সন্তানের জন্য আমাদের অপেক্ষা দীর্ঘদিনের। বিগত বছরগুলোতে আমাদের নানা জটিলতার মুখোমুখি হতে হয়েছে। গর্ভধারণের শুরুর দিনগেুলোতে স্পর্শকাতর অনেক বিষয় ছিল, তবে সেসব পেরিয়ে এখন আমরা সুখবরটা শেয়ার করতে পারি।” সাউলি নিনিস্তো ও জেনি হাওকিও সংসার শুরু করেন ২০০৯ সালে। এটাই হবে হাওকিওর প্রথম সন্তান, আর নিনিস্তোর তৃতীয়। আসছে ফেব্রুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট পরিবারে যখন নতুন শিশুর আগমন ঘটবে বলে আশা করা হচ্ছে, ওই সময়ই আরও ছয় বছর মেয়াদে প্রেসিডেন্ট হওয়ার আশায় ভোটের লড়াইয়ে থাকবেন নিনিস্তো। এখন পর্যন্ত জনমত জরিপে তিনি অনেকটাই এগিয়ে আছেন বলে জানিয়েছে। কেআই/ডব্লিউএন  

৩০ নভেম্বর বাংলাদেশে আসছেন পোপ

ক্যাথলিক ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস আগামী ৩০ নভেম্বর তিন দিনের সফরে বাংলাদেশ আসছেন। মঙ্গলবার ভ্যাটিকান সিটির পক্ষ থেকে ঘোষিত সূচি অনুযায়ী তিনি ৩০ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশে অবস্থান করবেন। আগেই জানানো হয়েছিল নভেম্বরের শেষদিকে তিনি দক্ষিণ এশিয়ার দুই দেশে আসবেন। ভ্যাটিকানের বিবৃতিতে বলা হয়, পোপ ফ্রান্সিস ২৭ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত মিয়ানমারে অবস্থান করবেন। বাংলাদেশে এসে সর্বপ্রথম তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন। এরপর প্রেসিডেন্ট আব্দুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন পোপ ফ্রান্সিস। এদিন অন্যান্য কূটনীতিকের সঙ্গেও দেখা করবেন তিনি। সূচি অনুযায়ী, ১ ডিসেম্বর এক গণমিছিলে অংশ নেবেন পোপ। এদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে তার। ২ ডিসেম্বর পোপ মাদার তেরেসা পরিচালিত মিশনারিগুলো প্রদর্শন করবেন। সেখানে পাদ্রীদের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। অংশ নেবেন সেমিনারে। আর/ডব্লিউএন

মেক্সিকোর কারাগারে কয়েদিদের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১৩

মেক্সিকোর উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য নুয়েভো লিওনের একটি কারাগারে কয়েদিদের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ১৩ জন নিহত হয়েছেন। নিরাপত্তা কর্মকর্তা আলদো ফ্যাসকি এক সংবাদ সম্মেলনে, মন্টেরি শহরের বাইরের ক্যাডেরিতা নামক ওই কারাগারে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ দেখা দিলে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা কারাকর্মী ও অন্য কয়েদিদের রক্ষা করতে কঠোর ব্যবস্থা নেয়। তবে এ ঘটনায় সত্যিকার অর্থে কতজন লোক মারা গেছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায় নি। ফ্যাসকির বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম জানায়-সোমবার রাতে কারাগারটিতে  অপরাধী দলের লোকদের মধ্যে একটি দল  প্রতিবাদ  শুরু করলে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। ওই দলের প্রতিবাদ শেষ যাওয়ার পর মঙ্গলবার ভোরে দলগুলোর মধ্যে আবার লড়াই শুরু হলে এক কয়েদি নিহত হয়। পরে তার লাশ পুড়িয়ে ফেলা হয়। এরপর দাঙ্গাকারীরা কারারক্ষীদের জিম্মি করে রাখে এবং কারাগারের ছাদে নিয়ে গিয়ে তাদের পেটায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কারাগারের ভিতরে প্রবেশ করলে প্রায় দেড়শ কয়েদি তাদের ওপর হামলা চালায়।  ফ্যাসকি জানায়, যদি কঠোর পদক্ষেপ না নেয়া হতো তাহলে আরোও বেশি লোকের প্রাণহানির আশঙ্কা ছিল । সূত্র:রয়টার্স এবং দ্যা গার্ডিয়ান  এম/এআর

কাতালানের স্বাধীনতার ঘোষণা স্থগিত

স্পেনের কাছ থেকে স্বাধীনতার পক্ষে সমর্থন পাওয়ার পরও কাতালোনিয়ার প্রেসিডেন্ট কার্লোস পুজদেমন স্বাধীনতার ঘোষণা স্থগিত করেছেন। মঙ্গলবার কাতালোনিয়ার রাজধানী বার্সেলোনায় আঞ্চলিক পার্লামেন্টের অধিবেশনে এই ঘোষণা দেন পুজদেমন। পার্লামেন্টে পুজদেমন এবং অন্যান্য নেতারা স্বাধীনতার ঘোষণা এখনই না দিয়ে সমঝোতার ভিত্তিতে স্পেন থেকে আলাদা হতে মাদ্রিদ সরকারের সঙ্গে আলোচনার করার মত দিয়েছেন । ইউরোপসহ সারাবিশ্বের মনোযোগের বিষয় ছিল পুজদেমনের ওই ভাষণ। অধিকাংশের ধারণা ছিল ওই ভাষণের মাধ্যমেই স্বায়ত্ত্বশাসিত ওই অঞ্চলের স্বাধীনতা ঘোষণা করবেন তিনি। আলোচনার পথ খোলা রেখেই ভাষণ শেষ করলেন পুজদেমন। গত ১ অক্টোবর কাতালোনিয়ার স্বাধীনতার জন্য বার্সেলোনায় গণভোট অনুষ্ঠিত হয়। ওই গণভোটে ৯০ শতাংশ ভোট পড়ে স্বাধীনতার পক্ষে। যদিও স্পেনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এই  ভোট অবৈধ এবং দেশটির আদালতও তা প্রত্যাখ্যান করেছে। স্বাধীনতা ঘোষণার আগে বার্সেলোনায় সংসদের বাইরে মঙ্গলবার অবস্থান নেয় কেন্দ্রীয় পুলিশ বাহিনী। জনগণকে সংসদের কাছে ভিড়তেও দেয়া হয়নি। তবে ওই এলাকায় স্বাধীনতার পক্ষে বিশাল সমাবেশ হয়। তবে লক্ষণীয় যে স্বাধীনতার ঘোষণার মতো একটি ঐতিহাসিক ঘটনার সময়ও  স্পেন ও কাতালান সরকার ছিল যথেষ্ট সংযত। এর আগে স্পেনের প্রধানমন্ত্রী বলেন, কাতালান স্বাধীনতা ঘোষণা করলে সংবিধানের ১৫৫ অনুচ্ছেদ জারি করে সেখানকার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে কেন্দ্রীয় সরকারের শাসন জারি করা হবে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং সংস্থাটির বেশ কয়েকটি দেশ কাতালানের স্বাধীনতার বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে।  তারা আলোচনার মাধ্যমে সংকটের সমাধান করতে বলেছে। সূত্র:বিবিসি ও দ্যা গার্ডিয়ান এম/এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি