ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৮ ২৩:৫৫:৩৩

ট্রাম্পের কটুক্তির বিরুদ্ধে ৩০০ মিডিয়া

ট্রাম্পের কটুক্তির বিরুদ্ধে ৩০০ মিডিয়া

মিডিয়ার বিরুদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ধারাবাহিক আক্রমণের প্রতিবাদে প্রায় ৩০০ এর বেশি মার্কিন সংবাদ মাধ্যম প্রতিষ্ঠান এক ক্যাম্পেইন চালু করেছে। এদিকে বস্টন গ্লোব গত সপ্তাহে সংবাদমাধ্যমের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ‘নোংরা যুদ্ধের’ নিন্দা জানিয়ে ‘#EnemyOfNone’ হ্যাশটাগ ব্যবহার করার ডাক দিয়েছে। ট্রাম্প মিডিয়াকে নিন্দা জানিয়ে ‘ভুল সংবাদ’ এবং সাংবাদিকদেরকে ‘জনগণের শত্রু’ বলে আখ্যায়িত করেছে।   মিডিয়ার বিরুদ্ধে ট্রাম্পের এই ধারাবাহিক মন্তব্য ঝুঁকি হিসেবে দেখা দিতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন।  এদিকে বস্টন গ্লোবের ডাকে সাড়া দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান সংবাপত্রগুলোর পাশাপাশি ছোট ছোট স্থানীয় গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠানগুলোও তাদের প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছে। ট্রাম্পের সমালোচনার কারণে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সহিংসতা শুরু হতে পারে- এমন উদ্বেগের সঙ্গে একমত নন ৫২ শতাংশ উত্তরদাতা। অপরদিকে ৬৫ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, সংবাদ মাধ্যম যে গণতন্ত্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ, তা তারা বিশ্বাস করেন। বস্টন গ্লোবের সম্পাদকীয়র শিরোনাম করা হয়েছে, ‘সাংবাদিকরা শত্রু নয়’। সেখানে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে- ২০০ বছরের বেশি সময় ধরে আমেরিকান মূলনীতিগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা।   তথ্যসূত্র: বিবিসি।   এমএইচ/ এসএইচ/  
ইমরান হচ্ছে পাকিস্তানের ডোনাল্ড ট্রাম্প: ট্রেভর নোয়াহ  

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার অপেক্ষায় থাকা ইমরান খানকে পাকিস্তানের ডোনাল্ড ট্রাম্প হিসেবে অাখ্যায়িত করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকান কমেডিয়ান, রেডিও ও টেলিভিশন উপস্থাপক এবং অভিনেতা ট্রেভর নোয়াহ।   এই মন্তব্য করায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাকিস্তানিরা ট্রেভরকে নিয়ে তুমুল সমালোচনা করেছে।   আফ্রিকান এই কমেডিয়ান মার্কিন কেবল টেলিভিশন চ্যানেলর ডেইলি শো-এর উপস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছেন। ওই ডেইলি শো’র সর্বশেষ এপিসোডে ইমরানকে নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।    এসময় তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ইমরান খানের পার করে আসা সময়ের জীবন-যাপন ও ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলো সামনে নিয়ে আসেন। তাদের জীবন কাহিনী উল্লেখ করে তিনি বলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ইমরান খানের রাজনীতিতে আসার প্রারম্ভিক জীবন কাহিনী প্রায় একই। তিনি ইমরান খানের শোয়ার ঘরের কিছু দৃশ্য দেখিয়ে বলেন, এটি পাকিস্তানি ট্রাম্প টাওয়ার। উল্লেখ্য, ট্রেভর নোয়াহ হাস্যরসাত্মক ও কৌতুকপূর্ণ সংবাদ পরিবেশনের জন্য বিশ্বজুড়ে তার ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। সূত্র: গাল্ফ নিউজ এমএইচ/এসি       

‘গড’ শব্দটি শুনেই যৌন নির্যাতন!

যাজকদের যৌন নিগ্রহ ও নিপীড়নের কথা বললেন ভুক্তভোগী রবার্ট ও ক্যারোলাইন। রবার্টের বয়স এখন ৮৩ বছর। ক্যারোলাইনের ৩৭। তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়া অঙ্গরাজ্যের ছয়টি রোমান ক্যাথলিক গির্জা এলাকায় যাজকদের যৌন নিগ্রহ ও নিপীড়নের শিকার হয়েছে ১ হাজারের বেশি শিশু। যাদের মধ্যে আমরা দুজনও ছিলাম। রবার্ট বলেন, যাজক তাকে যৌন নির্যাতন করতেন। নির্যাতনে তিনি এতটাই দুঃসহ জীবযাপন করতেন যে স্ত্রীর সঙ্গে সময় কাটাতে পারতেন না। সন্তানদের প্রাণভরে কাছেও টানতে পারতেন না। ক্যারোলাইন বললেন, শিশু বয়সে তিনি যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যৌন নির্যাতন বেড়েছে। যখনই ‘গড’ শব্দটি শুনতেন, তারপরই যৌন নির্যাতন চলত। জীবনের সবটাই তার মিথ্যে বলে মনে হতো। এদিকে গ্র্যান্ড জুরির একটি তদন্ত প্রতিবেদন ১৪ আগস্ট প্রকাশিত হয়েছে। যাজকদের ধর্ষণ, উৎপীড়ন, মদ খাইয়ে যৌনতার কাজে ব্যবহারের শিকার ছেলে ও মেয়ে উভয় শিশুরা হলেও সবচেয়ে বেশি শিকার ছেলেশিশুরা। তদন্তে দেখা গেছে, কয়েক দশক ধরে তিন শতাধিক খ্রিষ্টান যাজক এসব ছেলে ও মেয়েশিশুর ওপর ভয়াবহ যৌন নির্যাতন চালান। গ্র্যান্ড জুরির ৮৮৭ পাতার প্রতিবেদন বলছে, নির্যাতিত শিশুর সংখ্যা প্রকৃতপক্ষে আরো অনেক বেশি হতে পারে। সূত্র-সিএনএন আরকে//  

ডাক্তার নয় প্রেসক্রিপশন দেবে কম্পিউটার!

এখন চোখের কোন রোগ নির্ণয় করতে আর ডাক্তার লাগবে না কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে কম্পিউটারের মাধ্যমে চোখ পরীক্ষা ও রোগ নির্ণয় ও প্রেসক্রিপশন দিবে কম্পিউটা এমনটায় জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যুক্তরাজ্যের লন্ডনের মুরফিল্ডস আই হাসপাতাল ও ‘ডিপ মাইন্ড’ নামে গুগলের একটি প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে এ পদ্ধতির আবিষ্কার করে। বিজ্ঞানীদের দাবি, তাদের এই ‘আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স’ তথা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে চোখের ৫০টির বেশি রোগ নির্ণয় ও তার ব্যবস্থাপত্র দেওয়া সম্ভব। তাই মনে করা হচ্ছে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার চক্ষুরোগ নির্ণয় ও চিকিৎসায় বড় ভূমিকা রাখবে। বিবিসির খবরে জানানো হয়, মূলত গুগলের ‘ডিপ মাইন্ড’ টিম এমন একটি ‘অ্যালগরিদম’ তৈরি করেছে, যার মাধ্যমে কম্পিউটার মানুষের চোখের ত্রিমাত্রিক স্ক্যান পড়তে ও বিশ্লেষণ করতে পারে। এর মাধ্যমে কম্পিউটার চোখের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মতোই কাজ করে। এ বিষয়টি নিয়ে করা গবেষণায় এক হাজার রোগীর চোখের স্ক্যান আটজন চক্ষু বিশেষজ্ঞ এবং একটি কম্পিউটারকে আলাদাভাবে দেখানো হয়েছিল। পরীক্ষা শেষে দেখা যায়, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক একজন রোগীর যে রোগ শনাক্ত করেছেন ও পরামর্শ দিয়েছেন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করা ওই কম্পিউটারটিও সেই একই রোগ শনাক্ত করেছে। চিকিৎসকের মতো প্রায় হুবহু পরামর্শ দিয়েছে কম্পিউটার। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার এই কাজকে ‘বিস্ময়কর’ হিসেবে আখ্যা দেন মুরফিল্ডস আই হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পিয়ার্স কিন। তিনি বলেন, ‘এটা দেখে কিন্তু বেশির ভাগ চক্ষু বিশেষজ্ঞের মুখ হ্যাঁ হয়ে যাবে। কারণ স্ক্যান বিশ্লেষণ করে রোগ শনাক্ত করতে এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিশ্বের নামকরা বিশেষজ্ঞদের মতো সমান দক্ষ।’ ডা. কিন আরও বলেন, ‘আগামী দুই-তিন বছরের মধ্যেই এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগানো যাবে। আর তা সম্ভব হলে চিকিৎসকদের ওপর চাপ কমানো যাবে।’ টিআর/

১৪ বছরের স্কুলছাত্র হবে গভর্নর!

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনের আগে ভারমন্ট অঙ্গরাজ্যে আজ প্রাথমিক প্রার্থী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ডেমোক্রেটদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত ভারমন্ট অঙ্গরাজ্যের প্রাথমিক নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৪ বছর বয়সী ইথান সনর্বন নামের এক স্কুলছাত্র। এতো অল্প বয়সেই এমন একটি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাই অবাক করেছে সাবইকে। ভারমন্টে গভর্নর প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে আসা নিয়ে সনবর্ন বলেন, নতুন প্রজন্মের নেতৃত্ব আমাদের অঙ্গরাজ্যের জন্য আরো ভালো কাজ করতে পারবে। তাড়াছা ২০১৮ সাল হচ্ছে এমন একটি বছর যেখানে সব স্তরের মানুষ, যে অংশের মানুষ সাধারণত রাজনীতিতে জড়ান না, তারাও এবার নির্বাচন করছেন এবং আমিও তাদেরই একজন। আরকে//

ট্রাম্পের অডিও ট্যাপ প্রকাশ নিয় তোলপাড়

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাবেক এক উপদেষ্টা ট্রাম্পের একটি অডিও টেপ প্রকাশ করেছে। গত বছর হোয়াইট হাউজ থেকে বহিষ্কারের পরই এ অডিও টেপটি প্রকাশ করেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের বেসরকারি টিভি চ্যানেল এনবিসিতে এই ট্যাপটি প্রচার করেন তিনি। নতুন ট্যাপ প্রকাশ করা ট্রাম্পের ওই উপদেষ্টার নাম মানিগাল্ট নিউম্যান। ট্যাপের একটি অডিও বার্তায় এক পুরুষ কণ্ঠে শুনা যায়, ‘কেউ আমাকে এ বিষয়ে কিছুই বলেনি।‘ হঠাৎ এ ধরণের ট্যাপ প্রকাশ করাকে ট্রাম্পের প্রতি ওই নারীর রুষ্টতা হিসেবে দেখছে হোয়াইট হাউজ। গত সোমবার ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় বলেন, চাকরি হারানোর কারণেই তার সাব্কে উপদেষ্টা তাকে আক্রমণ করছেন। এদিকে জন কেলিকে পরিস্থিতিতি সামাল দিতে নির্দেশ দিয়েছেন বলেও যোগ করেন তিনি। এদিকে ট্রাম্পের আইনজীবী রুডি গিলানি বলেন, হোয়াইট হাউজে ব্যক্তিগত কথোপকথন প্রকাশরে মধ্য দিয়ে নিউম্যান আইন ভঙ্গ করেছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। একটি টিভি শোর মধ্য দিয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। শুধু তাই নয়, ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে আফ্রিকান-আমেরিকান ভোটারদের বিষয়েও তিনি নানা পরামর্শ দিয়ে ট্রাম্পকে সহায়তা করেছেন। সূত্র: বিবিসিএমজে/  

মোদির জন্য মেয়ে দেখতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কথা বলার ভঙ্গি নকল করেছিলেন ক’দিন আগেই। এ বার মার্কিন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট বলছে, মোদির জন্য ঘটকালি করার কথাও এক বার বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প! ওই রিপোর্টে বিভিন্ন সময় ট্রাম্প মুখ ফস্কে কী কী বলেছেন, তার একটা লম্বা তালিকা আছে। মোদির জন্য মেয়ে দেখার প্রসঙ্গও সেখানেই এসেছে। গত বছর মোদির মার্কিন সফরের ঠিক আগেই ঘটনাটা ঘটেছিল বলে রিপোর্টে প্রকাশ। কী রকম? হোয়াইট হাউসে আসার কথা ছিল মোদির। সাধারণভাবে রাষ্ট্রনায়করা সস্ত্রীকই আসেন। হোয়াইট হাউসের কর্মীরা ট্রাম্পকে বলছিলেন, এ ক্ষেত্রে সেটা হবে না। কারণ মোদির সঙ্গে তার স্ত্রীর দীর্ঘদিন কোনও যোগাযোগ নেই। রিপোর্ট বলছে, কথাবার্তার সময়ে উপস্থিত দুই আধিকারিকই জানিয়েছেন, ট্রাম্প সে কথা শোনামাত্র বলে ওঠেন, ‘তাই নাকি! দেখি তাহলে, এখানে ওর জন্য কাউকে পাই কি না!’ হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারা হুকাবি পরে অবশ্য সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘রাষ্ট্রনেতাদের অনেকের সঙ্গেই ট্রাম্প ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলেছেন। সেই সুবাদে তাদের মধ্যে খোলামেলা কথাবার্তাই হয়!’ ট্রাম্পের ভূগোল-জ্ঞান সম্পর্কেও নানা টুকরো আখ্যান প্রকাশিত হয়েছে রিপোর্টে। মোদির সফরের আগেই সে বার ট্রাম্প দক্ষিণ এশিয়ার মানচিত্রটা ভাল করে দেখছিলেন। রিপোর্ট অনুযায়ী, তিনি ভুটানকে বলছিলেন ‘বাটন’, নেপালকে ‘নিপ্‌ল’! ওই নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আধিকারিকরা জানিয়েছেন সংবাদমাধ্যমে, ট্রাম্পের ধারণা ছিল, নেপাল-ভুটানও ভারতেরই অংশ! সূত্র: আনন্দবাজার একে//

কানাডায় বন্দুক হামলায় নিহত ৪

কানাডার নিউ ব্রুনস্কউইকের ফ্রেডেরিকটন শহরে বন্দুক হামলায় কমপক্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ডজনখানেক। এদিকে ব্রুকসাইড ড্রাইভের বাসিন্দাদের ‘নিরাপত্তার জন্য তাদের বাড়িতে লক লাগিয়ে ঘরে থাকার’ পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ। স্থানীয় একটি টেলিভিশনের সাংবাদিক বলেছেন, গ্রীনিচ মান সময় ১১টার কিছুক্ষণ পর তিনি চারটি গুলির শব্দ শুনতে পেয়েছেন। এদিকে ঘটনা তদন্তে মাঠে নেমেছে পুলিশ। ওই এলাকা ঘিরে রাখা পুলিশদের অবস্থান শনাক্ত করে, তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ কোথাও প্রকাশ না করার পরামর্শও দিয়েছে পুলিশ। এদিকে রাতের বেলায় এ ধরণের হামলার পরই পুলিশের পাল্টা গুলির শব্দে ঘুম ভাঙ্গা ক্রিস্টোফার গিল জানিয়েছে, আমি গুলির শব্দ শুনে ঘুম থেকে উঠেছি। একজন পুলিশ সদস্যকে ভবনের পাশে বসে থাকতে দেখেছি’। এমজে/

বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসের সূচনা যে বোমা হামলায়

সারা বিশ্ব প্রথমবারের মতো আল কায়েদা এবং বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসকে তার অস্ত্র হিসেবে ব্যবহারের কৌশলের কথা প্রথম জানতে পারে ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্কে টুইন টাওয়ারে হামলার মধ্য দিয়ে। কিন্তু ওই ঘটনার তিন বছর আগে, ১৯৮৮ সালে, পূর্ব আফ্রিকার দুই দেশ কেনিয়া এবং তানজানিয়ার মার্কিন দূতাবাসে প্রায় একই সঙ্গে দুটি বোমা হামলা হয়, যাতে প্রাণ হারায় প্রায় ২৫০ জন। ওই আক্রমণে ১২ জন আমেরিকান নিহত হয়। কিন্তু হতাহতদের একটা বড় অংশ ছিল স্থানীয় কেনিয়ান এবং তানজানিয়ান। ওই দুই হামলায় আহত হন চার হাজার মানুষ। এই দুই হামলার মধ্য দিয়ে সারা বিশ্বের নজর পড়ে আল কায়েদার ওপর। মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই-এর শীর্ষ ১০ ফেরারি আসামীর তালিকায় আল কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের নাম যুক্ত হয়। কৌশলগত দিক থেকে, টুইন টাওয়ারে হামলার মধ্য দিয়ে এমন এক পর্বের সূচনা হয় যেখানে সন্ত্রাসবাদকে কোনও ভৌগলিক সীমানার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে ছড়িয়ে দেওয়া হয় সারা বিশ্বে। উনিশশো নব্বইয়ের শেষভাগে বিশ্বায়নের দশকে, ২৪/৭ নিউজ চ্যানেলগুলোর সুবাদে এসব হামলার ছবি যেমন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র, তেমনি জিহাদি বাণীও পৌঁছে যায় ঘটনা থেকে হাজার হাজার মাইল দূরে লাখ লাখ মানুষের কাছে। পূর্ব আফ্রিকায় সাফল্য দেখিয়ে আল কায়েদা ২০০০ সালের অক্টোবর মাসে হামলা চালায় ইয়েমেনে। সেখানে নোঙর করে রাখা মার্কিন যুদ্ধ জাহাজ ইউএসএস কোল-এর ওপর আক্রমণে ১৭ জন মার্কিন নৌ সেনা এবং আরও কয়েক ডজন মানুষ নিহত হয়। পূর্ব আফ্রিকায় ওই হামলাগুলো স্মরণে কেনিয়া এবং তানজানিয়ার রাজধানীতে ৭ অগাস্ট নানা ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে নিহতদের নামগুলো আবার পড়ে শোনানো হয়। ওয়াশিংটনে মার্কিন কর্মকর্তারাও নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন। নাইরোবির অনুষ্ঠানে কেনিয়ার জাতীয় সন্ত্রাসবাদ নির্মূল কেন্দ্রের প্রধান মার্টিন কিমানি বলেছেন, ‘ওই হামলার দিন থেকে বড় মাপের হামলা চালানোর ব্যাপারে আল কায়েদা খিদে বেড়ে যায়।’ তিনি বলেন, ‘ওই ঘটনার পর থেকে সারা বিশ্বের নানা জায়গায় সন্ত্রাসবাদী আক্রমণ চলছে।’ ‘আজকের দিনটা আমাদের জন্য খুবই দু:খের দিন,’ বলছিলেন নাইরোবি বোমা হামলায় এক নিহত নারীর বোন। এই হামলায় ২০০ জন প্রাণ হারায়। ‘এমন একটা দিন নাই যেদিন তার কথা আমার মনে পড়ে না। তার পরিবার, ছেলে-মেয়ে, তার নাতি-নাতনীদের জন্য এটা একটা বেদনার ব্যাপার।’ ওই বোমা হামলার দিন জুলি ওগোয়ের জন্য ছিল অন্য যে কোনও দিনের মতোই। মার্কিন দূতাবাসের বাইরে বোমাটি বিস্ফোরিত হয় সকালের মধ্যভাগে। এতে ওই ভবনটির একটা বড় অংশ ধসে পড়ে। পাশের ২৫-তলা কোঅপারেটিভ হাউস ব্যাংকও বিধ্বস্ত হয়। এই ঘটনার পাঁচ মিনিট পর পাশের দেশ তানজানিয়ার রাজধানী দার এস-সালামে মার্কিন দূতাবাসের বাইরে একটা তেলের ট্যাংকারে বিস্ফোরণ ঘটে। জুলি বিবিসিকে বলছিলেন, বিস্ফোরণের ধাক্কায় তার দেহ আকাশে উড়ে গিয়ে মাটিতে পড়ে। তারা মাথার ওপর ঝরে পড়ে বিল্ডিং-এর ধ্বংসাবশেষ। ‘আমার সারা মুখে ছিল অনেকগুলো ক্ষত। যে নার্স আমার ক্ষত পরিষ্কার করার চেষ্টা করছিল, তার গায়েও ছোপ ছোপ রক্ত লেগে যায়। সে চিৎকার করে বলে, `এই মেয়েটি তো রক্তক্ষরণেই মারা যাবে`‘। ‘এরপর তারা আমার ক্ষতগুলো সেলাই করার চেষ্টা করে। আমাকে বলা হয়: তোমাকে অ্যানেসথেশিয়া দেয়ার সময় নেই। সেভাবেই আমার ক্ষতগুলো সেলারই করা হয়।’ ‘এরপর তারা আমাকে এক জায়গায় বসিয়ে রাখে। সেখানে এক পাদ্রীকে আমি বলি আমি এখানে তাকতে চাই না। আমাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দিন। তিনি আমাকে বলেন, তোমার চোখ কোটর থেকে বেরিয়ে জুলে রয়েছে। এই কথা শুনে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই।’ জুলি ওগোয়ের ওপর এরপর অনেকগুলো অপারেশন হয়। তার মধ্যে একটি করা হয় জার্মানিতে। তার বাঁ চোখটি অকেজো হয়ে গেলেও বেঁচে থাকতে পেরে তিনি খুশি। কারণ তিনি মনে করেন তার জীবনে আরও ২০ বছর যোগ হয়েছে। নাইরোবি এবং দার এস-সালামে হামলার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তান এবং সুদানে আল কায়েদার সন্দেহজনক ঘাঁটির ওপর ক্রুজ মিসাইল নিক্ষেপ করে। যুক্তরাষ্ট্রের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানায় আরব লীগ। আফগানিস্তান, পাকিস্তান এবং সুদানে মিছিল হয়। কিন্তু ওয়াশিংটন কর্তৃপক্ষের নিরন্তর অভিযানের মুখে আল কায়েদার সাংগঠনিক ক্ষমতা ব্যাপকভাবে হ্রাস পায়। মার্কিন সেনারা ২০১১ সালে পাকিস্তানের ভূখণ্ডের ভেতরে ঢুকে ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা করে। আল কায়েদা গঠিত হয়েছিল ২০০৮ সালে পাকিস্তানে। এর পর থেকে সংগঠনটি বহু ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। এখন উত্তর আফ্রিকা, আরব উপদ্বীপ এবং ভারতীয় উপমহাদেশসহ বিভিন্ন অঞ্চলে মূলত স্বতন্ত্র ছোট ছোট দলের মাধ্যমে তৎপরতা চালাচ্ছে। ইরাকে আল কায়েদার যে সংগঠনটি ছিল সেটি নাম পরিবর্তন করে এখন ইসলামিক স্টেট নামে পরিচিত। সূত্র: বিবিসি একে//

ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানল

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহতম দাবানলের কবলে পরেছে। গতকাল পর্যন্ত এই দাবানলের ফলে ৭৫টি বাড়ি ধ্বংস হয়ে গেছে এবং প্রায় দুই লক্ষ ৮৩ হাজার ৮০০ একর জমি পুড়ে গেছে যা আকারে লস এঞ্জেলেসের  প্রায় সমান। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই ‘মেনডোসিনো কমপ্লেক্স ফায়ার’ নামের দাবানল ‘ইতিহাসের বৃহত্তম সক্রিয় দাবানল’ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে অঙ্গরাজ্যটির জন্য। প্রদেশটির বনায়ন ও অগ্নিকাণ্ড সুরক্ষা বিভাগের উপ-প্রধান স্কট ম্যাকলেন এই দাবানলকে ‘অত্যন্ত  দ্রুত গতির, আক্রমণাত্মক ও বিপজ্জনক হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। সিএনএন এর বরাত দিয়ে জানা গেছে, দাবানলের মধ্যে একটি গত তিন দিনের মধ্যেই দ্বিগুণ রূপ ধারণ করেছে। ১৪ হাজারেরও বেশি দমকলকর্মী অগ্নিকাণ্ড নিয়ন্ত্রণে কাজ কাজ করছে এবং তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে শতাধিক সেনা সদস্যও। কিন্তু তীব্র বাতাস, অসহনীয় মাত্রার গরম ও কম আর্দ্রতা থাকার কারণে তাদের কাজে সমস্যার সৃষ্টি করছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি। দেশটির জাতীয় আবহাওয়া বিভাগের কর্মকর্তা ব্রায়ান হারলে সবাইকে সতর্ক করে বলেন, পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি হবে না। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, কোনও কোনও এলাকায় তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছাতে পারে। পরিবর্তনশীল বৈশ্বিক জলবায়ুকেই এর জন্য দায়ী করা হচ্ছে। কেআই/ এসএইচ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি