ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২৩:৪৫:০৭

৫০০ বোকো হারাম সদস্যের মুক্তি

৫০০ বোকো হারাম সদস্যের মুক্তি

স্বাক্ষ্য-প্রমাণের অভাবে সশস্ত্র সংগঠন বোকো হারামের ৫০০ সদস্যকে মুক্তি দিয়েছে নাইজেরিয়া। কোন ধরণের অভিযোগ ছাড়াই তাদের এতদিন আটকে রাখা হয়েছিল বলে জানা গেছে। আজ রোববার দেশটির বিচার বিভাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মুক্ত হওয়া ওই ৫০০ বোকো হারাম সদস্য প্রথমে তাঁদের নিজেদের জেলায় প্রেরণ করা হবে। সেখানে তাদের পুনর্বাসন করা হবে। এরপরই তাদেরকে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হবে। বোকো হারাম সদস্য সন্দেহে তাদের আটক করা হলেও, ওই গোষ্ঠী সম্পর্কে কোন তথ্য না দেওয়ায় বছরের পর বছর ধরে তাদের আটক করে রাখে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। বিবৃতিতে বলা হয়, তাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোন অভিযোগ না থাকায়, তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এদিকে আরও অন্তত ১ হাজার ৬০০ বোকো হারাম সদস্য এখনো জেলে বন্দী রয়েছে বলে জানা গেছে। সূত্র: আল-জাজিরাএমজে/  
দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন প্রেসিডেন্ট রামাফোসা

দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার পদত্যাগের পরদিন পার্লামেন্টের ভোটে দেশটির নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন সিরিল রামাফোসা। বৃহস্পতিবার পার্লামেন্টে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট রামাফোসা প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর ক্ষমতাসীন দলের এমপি’রা গান গেয়ে তার নাম ঘোষণা করেন। প্রেসিডেন্ট হিসাবে প্রথম ভাষণে ৬৫ বছর বয়সী রামাফোসা বলেছেন, তিনি দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়বেন। পূর্বসূরি জুমার আমলে দেশ যে দুর্নীতিতে ছেয়ে গিয়েছিল তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন। দুর্নীতিতে জড়িত থাকাকে কেন্দ্র করেই ক্ষমতাসীন দল আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের (এএনসি) চাপে পদত্যাগের ঘোষণা দিতে বাধ্য হয়েছিলেন জ্যাকব জুমা। তার আগে নয় বছর ক্ষমতায় ছিলেন তিনি। জুমার বিরুদ্ধে দুর্নীতির একাধিক অভিযোগ থাকলেও তিনি ভুল কোনো কিছু করার কথা বরাবরই অস্বীকার করে এসেছেন। এখন জুমার বিদায়ের পর রামাফোসার আগমনে দক্ষিণ আফ্রিকায় নতুন আশা সঞ্চার হয়েছে। নতুন প্রেসিডেন্টের জন্য এখন জুমা আমলে হওয়া দুর্নীতির বিষয়টি সফলভাবে সামাল দেওয়া ছাড়াও আরেকটি বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা স্থিতিশীল করা। দেশটিতে বেকারত্ব কমানোর জন্য বিনিয়োগ নিশ্চিত করতে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে তাকে। শুক্রবার জাতির উদ্দেশে ‘স্টেট অব দ্য ন্যাশন’ ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে রামাফোসার। তথ্যসূত্র: টাইম অব ইনডিয়া। এসএইচ/

পদত্যাগ করলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট

ক্রমাগত রাজনৈতিক চাপের মুখে অবশেষে বুধবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে টেলিভিশন ভাষণে পদত্যাগের ঘোষণা দেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা। টেলিভিশনে দেওয়া দীর্ঘ ভাষণের শেষ দিকে এসে তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দিলেও, তার দাবি তিনি ভুল কিছু করেননি। এর আগে তিনি আরও বলেছিলেন যে, পদত্যাগ করার কোনও কারণ আছে বলে তিনি মনে করেন না। তার দল এএনসি তার সঙ্গে যে আচরণ করেছে এবং যেভাবে পদত্যাগের জন্যে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে সেটিকে অন্যায় বলেও বর্ণনা করেন ৭৫ বছর-বয়সী জুমা। জুমার ওপর ক্রমাগত চাপ বাড়ছিল এএনসির নতুন নেতা সিরিল রামাফোসার কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করে সরে দাঁড়ানোর জন্য। এমন প্রেক্ষাপটে জুমার দল ক্ষমতাসীন এএনসি জানিয়ে দিয়েছিল, জুমা বুধবারের মধ্যেই পদ থেকে সরে না দাঁড়ালে তার বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার সংসদে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হবে। জুমার পদত্যাগের পর এএনসির পক্ষ থেকে এক বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়েছে, তার পদত্যাগের পর `দক্ষিণ আফ্রিকার মানুষের জীবনে নিশ্চয়তা ফিরেছে`। এখন প্রেসিডেন্টর অবর্তমানে বর্তমান ডেপুটি প্রেসিডেন্ট রামাফোসাই এ মুহুর্তে দায়িত্বে থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে। জুমা সরে যেতে বাধ্য হলেন এমন এক সময় যখন দেশটির অর্থনীতি চরম দুর্দশার মধ্য দিয়ে দিন পার করছে। এএনসি`র নতুন নেতা রামাফোসা বলেছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার অর্থনীতিকে পুনর্জীবিত করাই এখন তার মূল অগ্রাধিকার। বেকারত্ব সমস্যা, বিনিয়োগ বাড়ানো এবং দলকে ঐক্যবদ্ধ করাও তার সামনে এখন চ্যালেঞ্জ হিসেবে থাকবে। উল্লেখ্য, ২০০৯ সাল থেকে রাষ্ট্র-ক্ষমতায় ছিলেন জুমা। নানা রকম দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। তবে তিনি তার সাধ্যমত দেশের মানুষের জন্য কাজ করেছেন বলে জুমা তার ভাষণে উল্লেখ করেন। সূত্র: বিবিসি।   একে//এসএইচ/

নাইজেরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২২ শিক্ষার্থী

নাইজেরিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ২২ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় শহর কানো স্টেটে গত মঙ্গলবার একটি শিক্ষার্থীবাহী বাসের সঙ্গে ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। জানা যায়, একটি বিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থী নিয়ে ভ্রমণে বেরিয়েছিল বাসটি। তুরস্কের আনাদুলো নিউজ এজেন্সি বিষয়টির সতত্য নিশ্চিত করেছে। আনাদুলোর কাছে দেওয়া মন্তব্যে কানো পুলিশের মুখপাত্র মুসা মাগাজি বলেন, ওই সংঘর্ষে অন্তত ২২ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। স্থানীয়দের বরাত দিয়ে মাগাজি বলেন, দুর্ঘটনার পরপরই স্থানীয়দের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তবে ওই এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। নাইজেরিয়ার যোগাযোগ ব্যবস্থা অত্যন্ত নাজুক পরিস্থিতিরি মধ্য দিয়ে যাচ্ছে বলে স্থানীয়রা জানায়। একইসঙ্গে দেশটিতে প্রতি বছর শত শত মানুষ সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যান বলে জানা গেছে। সূত্র: আনাদুলো এজেন্সিএমজে/

জুমার পদত্যাগের সিদ্ধান্ত এএনসির

দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষমতাসীন দল এএনসি আজই দেশটির প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমাকে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে আনুষ্ঠানিকভাবে আহ্বান জানাবে বলে জানা গেছে। নিজ দল, বিরোধীদল ও বিক্ষোভকারীদের দাবির পরও ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে অস্বীকৃতি জানানোর পর এএনসি আজ তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগের আহ্বান জানাবেন। জুমার সঙ্গে দলের জৈষ্ঠ্য নেতাদের ম্যারাথন আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার পর আজ এক বিবৃতিতে এএনসি বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। এদিকে এএনসির আহ্বানের পরও জুমা ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে অস্বীকৃতি জানালে, সংসদে তাঁর ওপর আস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে এএনসি। শুধু তাই নয়, ওই আস্থা ভোটে জুমা হেরে যাবেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে। ২০০৯ সাল থেকে জ্যাকব জুমা দেশটিতে ক্ষমতায় রয়েছেন। তবে ক্ষমতা গ্রহণের পরই তাঁর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠতে থাকে। এএনসি আজ প্রাতিষ্ঠানিকভাবে তাদের পরিকল্পনা প্রকাশ করেছে। তবে সাইরিল রামফোসা এএনসির সর্বোচ্চ পদে বসার পর জ্যাকব জুমাকে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন। এদিকে গতকাল এএনসির বৈঠকের পর জাতীয় নির্বাহী কমিটির প্রধান রামফোসা প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে তিনি প্রেসিডেন্টকে বলেন, যদি ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে আপনি অস্বীকৃতি জানান, তাহলে আপনাকে এএনসির বৈঠকে ডাকা হবে। এদিকে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি সংসদে তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এদিকে অনাস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হলে দল ও তাঁর নিজের জন্য সেটি মারাত্মক অপমানজনক বলে মত দেন এএনসির নেতারা। এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্টের সরে দাঁড়ানোর ঘটনাকে জেক্সিট হিসেবে আখ্যা দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার গণমাধ্যম। সূত্র: বিবিসিএমজে/

এএনসির  হাতে জুমার ভাগ্য!

দক্ষিণ আফ্রিকার ক্ষমতাসীন দলের সর্বোচ্চ পরিষদ এএনসি আজ সোমবার দেশটির প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার ভাগ্য নির্ধারণ করতে যাচ্ছে। স্থানীয় পত্রিকার বরাত দিয়ে আল-জাজিরা জানায়, গত এক সপ্তাহ ধরে জুমার ওপর চাপ প্রয়োগ চলতে থাকায়, অবশেষে তাঁকে পদত্যাগেই বাধ্য করা হতে পারে বলে জানা গেছে। গত রোববার আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের নতুন নেতা সাইরিল রামপাশা ক্যাপটাউনে দেশটির অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার ২৮তম জেলমুক্তি দিবসে দেওয়া এক সমাবেশে এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন। গত রোববারের দেওয়া ভাষণে ওই নেতা বলেন, আজ এএনসির বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। যেহেতু দেশের জনগণ আর জুমাকে চান না, তাই তাদের চাওয়াকে সম্মান দিয়ে এএনসি যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জোর দেন তিনি। এদিকে দেশটির সংবিধান মতে কেবল জাতীয় নির্বাহী কমিটি-ই কেবল জুমার পদত্যাগ চাইতে পারেন।তবে তাকে পদত্যাগে বাধ্য করতে পারেন না। এদিকে এনইসির দাবির প্রেক্ষিতে জুমা পদত্যাগ না করলে সংসদে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হতে পারে বলে জানিয়েছেন এক নেতা। এদিকে এএনসির বেশ কয়েকটি কমিটি বিভিন্ন উপলক্ষে ক্ষমতা হস্তান্তর বিষয়ে আলোচনা করেছেন। এদিকে এএনসি ছাড়াও বিরোধী দল ও সুশীল সমাজের লোকজন জুমার পদত্যাগের দাবিতে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে। এই সংকটের মধ্যেই গত সপ্তাহে নেলসন ম্যান্ডেলা ফাউন্ডেশন জুমার পদত্যাগের দাবিতে এক বিবৃতি দিয়েছে।বিবৃতিতে বলা হয়, শারীরিকভাবে দেশ শাসনে ফিট না হওয়ায়, জ্যাকব জুমাকে পদত্যাগ করতে হবে।তার বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের জন্য তাকে জবাবদিহিতার মধ্যে আনা হবে বলেও হুশিয়ারি দিয়েছিলো সংস্থাটি। ২০০৯ সালে দেশটির প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করার পর জ্যাকব জুমা দুর্নীতির বেশ কয়েকটি মামলায় জড়িয়ে পড়েছেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক প্রভাবশালী পরিবারের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের বিষয়টি লাইমলাইটে আসার পরই সমালোচনায় বিদ্ধ হন জুমা। রাষ্ট্রের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত ওই পরিবার থেকে দেওয়া হয় বলে স্থানীয় পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হওয়ার পরই জিম্বাবুইয়ানদের মধ্যে ক্ষোভ জন্মে। এরপরই জুমার পদত্যাগে দাবি উঠতে থাকে চারদিক থেকে। সূত্র: আল-জাজিরাএমজে/

২২ জন ক্রু নিয়ে জাহাজ নিখোঁজ

২২ জন ভারতীয় ক্রু নিয়ে নিখোঁজ হয়েছে একটি বাণিজ্যিক জাহাজ। পশ্চিম আফ্রিকার গুনিয়া উপসাগর থেকে নিখোঁজ হয় জাহাজটি। আজ রবিবার এক টুইট বার্তায় এখবর জানান খোদ ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সুষমা সরাজ। তবে উপসাগরটির ঠিক কোথা থেকে নিখোঁজ হয় জাহাজটি সে ব্যাপারে এখনও বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। তবে গত শুক্রবার থেকেই জাহাজটির সাথে উপকূলের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আফ্রিকার বেনিন সাগরে শেষ বারের মত দেখা গিয়েছিল তেল বহনকারী জাহাজটিকে। হংকং ভিত্তিক অ্যাংলো ইস্টার্ন নামক এক প্রতিষ্ঠান জাহাজটির মালিক। জাহাজটিকে উদ্ধারে নাইজেরিয়া ও বেনিনের সরকারের সাথে ইতোমধ্যে যোগাযোগ করেছে ভারত সরকার। তবে ভারতের বার্তা সংস্থা এএনআই এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে যে, খুব সম্ভবত জলদস্যুদের দ্বারা ছিনতাই হয়ে থাকতে পারে জাহাজটি। তবে ভারত সরকারের অনুরোধে সাড়া দিয়ে নাইজেরিয়া নৌবাহিনী একটি উদ্ধারকার দল পাঠিয়েছে উপসাগরে। পাশাপাশি জাহাজটির বিষয়ে কারও কোন তথ্য জানা থাকলে লন্ডনে অবস্থিত আন্তর্জাতিক মেরিন ব্যুরোর অ্যান্টি পাইরেসি রিপোর্টিং সেন্টারে তা অবহিত করতে নাইজেরিয়ার সকল জলযানকে নির্দেশনা দিয়েছে দেশটির সরকার। আর ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সুষমা সরাজ জানিয়েছে, নিখোঁজ জাহাজটি খুঁজে পেতে নাইজেরিয়া এবং বেনিন সরকারের সাহায্য নিয়ে সম্ভবপর সবকিছু করছে তার সরকার। সূত্র: রয়টার্স /এস এইচ এস/টিকে

দ.আফ্রিকার খনি থেকে ৯৫৫ শ্রমিক উদ্ধার

দক্ষিণ আফ্রিকার একটি স্বর্ণ খনি  থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ৯৫৫ জন শ্রমিককে। ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় আটকে থাকার পরেও সবাইকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করতে সক্ষম হয় উদ্ধারকারীরা। রাজধানী জোহান্সবার্গ থেকে ২৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমের শহর ওয়েলকমে অবস্থিত দ্য বেয়াট্রিক্স মাইনে এ ঘটনা ঘটে। গত বুধবার রাতে ঐ খনিতে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলে খনির নিচে আটকা পরে ঐ শ্রমিকেরা। আজ শুক্রবার সকালে পুনরায় বৈদ্যুতিক সংযোগ স্থাপন করে লিফট চালু করা হয়। আর এতে করে উদ্ধার করা হয় খনিতে থাকা শ্রমিকেকে। ঐ খনির মালিকানা প্রতিষ্ঠান সিবানে-স্টিলওয়াটার এর মুখপাত্র জেমস ওয়েলসটেড বার্তা সংস্থা বিবিসিকে এ খবর নিশ্চিত করেন। পানি স্বল্পতা ও উচ্চ রক্তচাপে কোন কোন শ্রমিক আক্রান্ত হলেও কারও অবস্থাই গুরুতর নয় বলেও জানান ঐ মুখপাত্র। বুধবার রাতে ঐ খনির নিকটবর্তী এক বৈদ্যুতিক খুঁটিতে একটি বজ্রপাত আঘাত করে। আর তাতেই বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় খনিতে। তবে আটকে থাকা অবস্থায় খনি শ্রমিকদের কাছে খাবার ও পানীয় পৌছে দেয় উদ্ধারকারী সংস্থাগুলো। আর এতেই এত লম্বা সময় পরেও জীবিত ছিলেন তারা। উদ্ধার হওয়া খনি শ্রমিক মাইক খন্টো বলেন, “পুরো সময়টা অনেক দুশ্চিন্তার মধ্যে দিয়ে গেছে। সেখানে বাতাস চলাচলের কোন উপায় ছিল না। আমাদের প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ যে তারা পুরোটা সময় আমাদের খাবার আর পানীয় দিয়েছেন”। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে বিবিসি’র প্রতিবেদক পামজা ফিলহানি জানান যে, শ্রমিকদের যখন উদ্ধার করে উপরে নিয়ে আসা হয় তখন সেখানে এক আবেগঘন মুহুর্তের সৃষ্টি হয়। অনেকেই নিজেদের অশ্রু ধরে রাখতে পারেননি। এক শ্রমিকের আত্মীয় জেলো নেকচাই বলেন, “আমার ছেলেমেয়েরা সারারাত ঘুমাতে পারেনি। আত্মীয়স্বজনরা বারবার ফোন দিচ্ছিল আমাকে”। উল্লেখ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ সোনা উত্তোলনকারী দেশ। তবে দেশটিতে খনিগুলোর নিরাপত্তা নিয়ে বরাবরি সন্দেহ জানিয়ে আসছে ট্রেড ইউনিয়নগুলো। তারই মধ্যে মাটির প্রায় এক হাজার নিচে থাকা এই খনিতে এ দূর্ঘটনা ঘটল। সূত্র: বিবিসি এসএইচএস/টিকে

উন্নত জীবনের আশায় জীবনই খোয়াল ১০জন; নিখোঁজ ৯০

উন্নত জীবনের আশায় সমুদ্র পাড়ি দিয়ে ইউরোপে প্রবেশের চেষ্টার সময় সেই জীবনই খোয়াল ১০ জন। লিবিয়া উপকূল হয়ে ইউরোপে পাড়ি জমানোর সময় উপকূলের কাছেই জুওয়ারা অঞ্চলের কাছে এসব শরণার্থীদের বহনকারী নৌকাটি ডুবে গেলে এ ঘটনা ঘটে। এতে এখনও নিখোঁজ আছে অন্তত ৯০ জন। জাতিসংঘের অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম) আজ এক বিবৃতিতে এ খবর জানায়। লিবিয়াতে সংস্থাটির মুখপাত্র অলিভিয়া হেডন জানান, আজ শুক্রবার সকালে লিবিয়া উপকূল ধরে ইতালীর উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল শরণার্থী বোঝাই একটি ডিঙ্গি নৌকা। কিন্তু পথি মধ্যেই নৌকাটি ডুবে গেলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। তিনি আরও জানান, ১০জনের মৃতদেশ লিবিয়া উপকূলে ভেসে এসেছে। তবে নিখোঁজ আছেন আরও অন্তত ৯০জন। এ কারণে প্রকৃত নিহতের সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেতে পারে আশংকা আইওএমের। নিহতদের মধ্যে ৮জনই পাকিস্তানের নাগরিক। আর বাকি দুই জন লিবিয়ান নাগরিক। একই ঘটনায়, ৯৬ জন শরণার্থীকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা গেছে। এদেরকে একজনকে একটি মাছ ধরার ট্রলার উদ্ধার করে। আর দুই জন নিজেরাই সাতরে উপকূলে আসেন। বাকিদের উদ্ধার করে উদ্ধারকারী জাহাজ অ্যাকোয়ারিস। উদ্ধারকৃতদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। উদ্ধার হওয়াদের বরাত দিয়ে সংস্থাটি জানায়, গত শনিবার মধ্যরাতে ১৩০ থেকে ১৩৫ জন শরণার্থী নিয়ে জুওয়ারা উপকূল থেকে যাত্রা আরম্ভ করে ঐ নৌকাটি। রবিবার সকালেই নৌকাটিতে পানি প্রবেশ করতে দেখা যায়। এক পর্যায়ে আজ শুক্রবার ডুবেই যায় নৌকাটি।    উল্লেখ্য, বেশ কয়েক বছর ধরেই লিবিয়া উপকূল দিয়ে এশিয়া থেকে ইউরোপে যাচ্ছে লাখ লাখ শরণার্থী। গত এক বছরে এ সংখ্যা অন্তত ১ লক্ষ ২০ হাজার। আর উন্নত ও স্বচ্ছল এই জীবনের আশায় পাড়ি জমানো পাড়ি দিতে গিয়ে নৌকাডুবি হয়ে প্রতি বছর নিহতও হচ্ছেন অনেকে। ২০১৮ সালে শুধু এক জানুয়ারি মাসে মারা যায় ২৪৩ জন শরণার্থী। সূত্র: আইওএম এসএইচএস/টিকে

লিবিয়ায় সহিংসতায় নিহত ৩৯

যুদ্ধবিধ্বস্ত লিবিয়ায় ত্রিমুখী সহিংসতায় গত জানুয়ারি মাসেই অন্তত ৩৯ বেসামরিক নাগরিক নিহত ও ৬৩ জন আহত হয়েছেনস। দেশটিতে থাকা জাতিসংঘ সমর্থিত মিশন (ইউএনএসএমআইএল) বৃহস্পতিবার একথা জানায়। ইউএনএসএমআইএল সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়, গত জানুয়ারি মাসে দেশটিতে সহিংসতায় ১০২ জন নাগরিকের হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। গত বছরের অন্য মাসগুলোর তুলনায় চলতি বছরের শুরুর মাসে সবচেয়ে বেশি হতাহতের ঘটনা ঘটে দেশটিতে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, অধিকাংশ হতাহতের কারণ ছিল গাড়িবোমা বিস্ফোরণ, বন্দুক হামলা ও গোলাবর্ষণ। উল্লেখ্য, ২০১১ সালে মুয়াম্মার গাদ্দাফি’র সরকার ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকেই লিবিয়া নিরাপত্তাহীনতা ও বিশৃংখলাপূর্ণ অবস্থার মধ্যে পড়ে। দেশটির একটি অংশে পশ্চিমা বিশ্বে সমর্থিত একটি সরকার রয়েছে। এ ছাড়া বেশ কয়েকটি অংশ বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে। সূত্র: সিনহুয়ার এমজে/

লিবিয়ায় ৩০ হাজার টাকায় শরনার্থী বেঁচাকেনা

লিবিয়ায় মাত্র ৩০ হাজার টাকায় (চারশ’ ডলার) মানুষ বিকিকিনি হচ্ছে। উন্নত জীবনের মোহে আফ্রিকা থেকে ইউরোপের পথে পাড়ি জমাতে গিয়ে অপরহরনের শিকার হওয়া শরণার্থীরা এই পন্য হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছেন। তাদের বিক্রি করে অপহরণকারীরা আয় করছে হাজার হাজার ডলার। রোববার কাতারভিত্তিক বার্তাসংস্থা আল জাজিরার প্রতিবেদনে এ চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।এতে বলা হয়েছে, সুদান, ইরিত্রিয়া, ইথিওপিয়ার লোকজন প্রথমে লিবিয়ায় এসে জড়ো হয়। সেখান থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ছড়িয়ে পড়ে ইউরোপে। যারা ধরা পরে দালালরা তাদের বিক্রি করে দেয়। সেখানে ধরা পরা শরনার্থীদের ধর্ষণ-মারধরসহ পাশবিক নির্যাতনও করা হয়ে থাকে।  প্রতিবেদন বলছে,আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থার মতে বর্তমানে লিবিয়াতে প্রায় ৭০ লাখেরও বেশি অভিবাসী অবস্থান করছে। আফ্রিকা থেকে ইউরোপে যাওয়ার পথে বাঁকে বাঁকে ফাঁদ পেতে বসে থাকে মানব পাচারকারী চক্রের দালালরা। তাদের কাছেই একেবারে পানির দরে শরণার্থীদের বেঁচে দেয় দালালরা।সবচেয়ে বড় চক্র হচ্ছে লিবিয়ায়। যেখানে ওঁৎ পেতে রয়েছে অপহরণ চক্রের মতো ভয়াবহ গোষ্ঠী। এই অপহরণ চক্রের কাজ হচ্ছে শরণার্থীদের জিম্মি করা কিংবা অন্য কোনো অপরাধ চক্রের কাছে আটককৃতদের দিগুণ দামে বিক্রি করে দেয়া। ত্রিপোলির ‘বড় হাটে’ সর্বনিন্ম চারশ’ ডলারেও বিক্রি করা হয় তাদের।সূত্র : আলজাজিরা।/ এআর /

জুলাইয়ের আগেই নির্বাচন: নানগাওয়া

জিম্বাবুয়ের সেনা-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাওয়া বলেছেন, আগfমী জুলাইয়ের আগেই দেশটিতে স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের আয়োজন করা হবে। গত বুধবার দাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে দেওয়া বক্তৃতায় তিনি এ ঘোষণা দেন। এসময় বিশ্বনেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, জিম্বাবুয়ে বাণিজ্যের রাস্তা সবার জন্য উন্মুক্ত।  এসময় তিনি বলেন, আগামী মাসে আমি নির্বাচনের অধ্যাদেশ জারি করবো। আর এর মাধ্যমে আমরা জুলাই নয়, বরং তার আগেই একটি স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজন করতে পারবো। গত নভেম্বরে ৩৭ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকা রবার্ট মুগাবেকে সেনাবাহিনী ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিলে, নানগাওয়া প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। মুগাবের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তার স্ত্রী গ্রেস মুগাবেকে ক্ষমতায় বসানোর ষড়যন্ত্র করছিলেন তিনি, আর এতেই সেনাবাহিনী ক্ষিপ্ত হন তার উপর। এরপর ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেন দেশটির জাতীয় এই নেতাকে। এদিকে এই ভোটই নানগাওয়ার প্রতি জনগণের আস্থার প্রথম টেস্ট হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা। তবে নানগাওয়া বলেন, আমি জনগণের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা রাখবো। শুধু তাই নয় নির্বাচনকে নিরপেক্ষ, স্বচ্ছ ও বিশ্বাসযোগ্য করতে আন্তর্জাতিক মহলকে দেশটি অভ্যর্থনা জানাবে বলেও ঘোষণা করেন তিনি। আর নির্বাচনে তারা কখনো সংঘর্ষ চায় না বলেও দাবি করেন তিনি। ইউরোপিয় ইউনিয়নকে নানগাওয়া স্বাগত জানিয়ে বলেন, আমরা যদি নির্বাচনে হেরে যায়, তাহলে ক্ষমতা ছেড়ে দিবো। যে দলই নির্বাচনে ভোটের মাধ্যমে জিতে আসবে, তারা ক্ষমতা গ্রহণ করে শান্তিপূর্ণভাবে দেশ চালাবে। উল্লেখ্য, জিম্বাবুয়ে সেনা, প্লাটিনাম ও পানিসম্পদে ভরপুর থাকলেও দেশটিতে চরম বেকারত্ব বিরাজ করছে। সুত্র: এএফপিএমজে/

বেনগাজিতে গাড়ি বোমা হামলায় নিহত ২৭

লিবিয়ার বেনগাজিতে দুটি পৃথক গাড়ি বোমা হামলায় কমপক্ষে ২৭ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া এ ঘটনায় কমপক্ষে ২০-৩০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। বেনগাজির একটি মসজিদের নিটকবর্তী এলাকায় গাড়ি বোমা হামলার ঘটনাটি ঘটে। কয়েক মিনিটের ব্যবধানে একই এলাকায় দুটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটে। এতে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে এখন পর্যন্ত কোন গোষ্ঠীই এ হামলার দায় স্বীকার করেনি। জানা যায়, বেনগাজির আল-স্লেমানির পার্শ্ববর্তী একটি মসজিদের রাস্তায় প্রথম বোমা বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে। এসময় মুসল্লিরা মাগরিবের নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বের হচ্ছিলেন। এর মাত্র কয়েকমিনিটের মধ্যে রাস্তার অপর পার্শ্বে দ্বিতীয় গাড়ি বোমা হামলার ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় সেনাবাহিনীর সদস্যসহ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। এর আগে গত ১৬ জানুয়ারি বিভিন্ন অভিযানে আটক সন্ত্রাসবাদীদের মুক্ত করতে রাজধানী ত্রিপোলির আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এতে ঘটনাস্থলেই ২০ জন নিহত ও ৬৯ জন আহত হয়েছিল। সুত্র: বিবিসিএমজে/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি