ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৮ ৫:১২:২৭

‘মেন্টাল ফেমিলি’র পর আসছে ‘ভাগের মা’

‘মেন্টাল ফেমিলি’র পর আসছে ‘ভাগের মা’

দীপু হাজরা পরিচালিত ‘মেন্টাল ফেমিলি’ ছিল গত রোজা ঈদের সবচেয়ে জনপ্রিয় নাটক। হাস্যরসে ভরপুর, হৃদয়কে নাড়া দেয়া গল্পের নাটকটি খুব সহজেই দর্শকের মনে দাগ কেটেছিলো। বৃন্দাবন দাসের রচনায় এ নাটকটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন- চঞ্চল চৌধুরী, ফারহানা মিলি, শাহনাজ খুশি, আ খ ম হাসান। এছাড়া বৃন্দাবন দাস ও শাহনাজ খুশির দুই পুত্র দিব্য ও সৌম্য ছিলো চঞ্চলের দুই শালার চরিত্রে।এবারও একই পরিচালক একই টিম নিয়ে নির্মাণ করলেন নাটক ‘ভাগের মা’। এই নাটকটিও রচনা করেছেন জনপ্রিয় নাট্যকার বৃন্দাবন দাস। এতে ‘মেন্টাল ফেমিলি’র প্রায় সবাই অভিনয় করেছেন। নতুন করে কেবল যোগ দিয়েছেন অভিনেত্রী নাদিয়া।এছাড়া দেখা যাবে- চঞ্চল চৌধুরী, শাহনাজ খুশি, আখম হাসানকে। আর এবারেও বিশেষ দুটি চরিত্রে থাকছেন দিব্য ও সৌম্য।নাটকটি প্রসঙ্গে নির্মাতা দীপু হাজরা বলেন, ‘রোজা ঈদে ‘মেন্টাল ফেমিলি’র অভাবনীয় সাড়া দেখে এই নাটকটি নির্মাণ করেছি। এখানেও অনেক হাসির খোরাক থাকবে। তবে বরাবরের মতো জীবনের সুন্দর-মানবিক বিষয়গুলোও ফুটে উঠবে; ঠিক যেমনটা দেখা যায় বৃন্দাবন দাসের লেখা নাটকগুলোতে। আশা করছি এবারের ঈদেও দর্শক জয় করবে আমাদের টিম। দর্শকপ্রিয় হবে ‘ভাগের মা’ নাটক।’ নাটকটি প্রচার হবে গাজী টিভিতে। এসএ/  
দীর্ঘ বাইশ বছর পর

অভিনেতা ও নির্মাতা আফজাল হোসেন। ঢালিউডের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা মৌসুমী। আসছে কোরবানির ঈদের জন্য নির্মিত একটি টেলিফিল্মে দুজনকে এক সঙ্গে দেখা যাবে তাদের। টেলিফিল্মের নাম ‘ভুলে ভরা গল্প’। আর এর মাধ্যমে দীর্ঘ বাইশ বছর পর একসঙ্গে আবারও অভিনয় করেছেন তারা। টেলিফিল্মটি রচনা করেছেন বদরুল আনাম সৌদ ও পরিচালনা করেছেন আরিফ খান। এর গল্প প্রসঙ্গে নির্মাতা জানান, এটি একেবারেই বিনোদননির্ভর কমেডি গল্প। ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গিতে বড় হওয়া কয়েকজন মানুষ একত্রিত হলে কী হতে পারে তা এ টেলিফিল্মে দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে।এতে অভিনয় প্রসঙ্গে আফজাল হোসেন বলেন, ‘একটি ভালো গল্প, গুণী নির্মাতা ও শিল্পীদের সমন্বয়টা যখন ভালো হয়, তখন আমি অভিনেতা হিসেবে উচ্ছ্বসিত থাকি। কারণ তখন আমার মনে হয় সব মিলিয়ে একটি ভালো কাজ হবে। এই টেলিফিল্মটির ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে।’মৌসুমী বলেন, ‘আফজাল ভাইয়ের সঙ্গে দীর্ঘ বাইশ বছর পর অভিনয় করেছি, এটা আমার জন্য সত্যিই অনেক ভালোলাগার, আনন্দের। টিভি নাটকে তিনি আমার অন্যতম প্রিয় অভিনেতা। মানুষ হিসেবেও তিনি অনন্য। সবচেয়ে বড় কথা আফজাল ভাই অনেক অভিজ্ঞ একজন অভিনেতা, নির্মাতা। ধন্যবাদ নির্মাতা আরিফ খানকে এমন একটি কাজে আমাকে সম্পৃক্ত রাখার জন্য।’ টেলিফিল্মটি আগামী ঈদে চ্যানেল আইতে প্রচার হবে বলে জানান নির্মাতা।এসএ/  

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চার কাহিনীচিত্র

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকান্ডের ওপর নির্মিত হয়েছে চারটি কাহিনীচিত্র। জাতীয় শোক দিবসে ভিন্ন চারটি চ্যানেলে প্রচার হবে এগুলো। প্রতিটি কাহিনীচিত্রই নির্মিত হয়েছে সহিদ রাহমানের গল্প ‘মহামানবের দেশে’ অবলম্বনে। ‘সেদিন শ্রাবণের মেঘ ছিল’র কাহিনী, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন সহিদ রাহমান। পরিচালনা করেছেন রাজিবুল ইসলাম রাজিব। অভিনয় করেছেন আজাদ আবুল কালাম, রওনক হাসান, হিমি ও মিজানুর রহমান। এই কাহিনীচিত্রটি একুশে টেলিভিশনে রাত ৯টায় প্রচার হবে। কাহিনীচিত্র ‘কবি ও কবিতা’র চিত্রনাট্য লিখেছেন পান্থ শাহরিয়ার, পরিচালনা করেছেন রোকেয়া প্রাচী। এতে অভিনয় করেছেন আহমেদ রুবেল, এসএম মহসীন, লুসি তৃপ্তি গমেজ, শাহাদাৎ হোসেন নিপু ও একে আজাদ সেতু। এটি ১৫ আগস্ট চ্যানেল আইতে রাত ৮টায় প্রচারত হবে।‘তখন পঁচাত্তর’ নামের কাহিনীচিত্রটির চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন মিরন মহিউদ্দীন। পরিচালনা করেছেন আবু হায়াত মাহমুদ। অভিনয়ে রাইসুল ইসলাম আসাদ, রুনা খান, এসএম মহসীন, শ্যামল মাওলা, উর্মিলা শ্রবন্তী কর, রাশেদ মামুন অপু, রামিজ রাজু ও হিন্দোল রায়। এটি আরটিভিতে রাত ৮টায় প্রচার হবে।‘জনক ১৯৭৫’ কাহিনীচিত্রের চিত্রনাট্য শাহীন রেজা রাসেলের। পরিচালক আজাদ কালাম। অভিনয়ে তারিক আনাম খান, তমালিকা কর্মকার, আরমান পারভেজ মুরাদ, শ্যামল মাওলা, মিজানুর রহমান ও নাফা। এটি এটিএন বাংলায় রাত ৯টায় প্রচার হবে। এসএ/  

কাজী নওশাবা আবারও দুই দিনের রিমান্ডে     

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় গুজব ছড়ানোর দায়ে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদকে আবারও দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।   শুক্রবার (১০ আগস্ট) চার দিনের রিমান্ড শেষে নওশাবাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য দশ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আমিরুল হায়দার চৌধুরী দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে রোববার (৫ আগস্ট) ঢাকা মহানগর হাকিম মাজহারুল হকের আদালতে হাজির করে ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনে নওশাবার সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উত্তরা পশ্চিম থানার থানার উপ-পরিদর্শক বিকাশ কুমার পাল। অপরদিকে তার আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার এজহার থেকে জানা যায়, শনিবার (৪ আগস্ট) কাজী নওশাবা নিজের ফেসবুক থেকে অত্যান্ত আবেগী কণ্ঠে লাইভ ভিডিও সম্প্রচার করে বলে যে, ‘জিগাতলায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করিয়া এক জনের চোখ উঠাইয়া ফেলেছে এবং চারজনকে মেরে ফেলেছে। আপনারা যে যেখানে আছেন কিছু একটা করেন।’ তার এ আহ্বান মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়। এতে জনমনে আতঙ্ক ও বিদ্বেষ ছড়ে পড়ে। বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীরা তার এই মিথ্যা প্রোপাগান্ডার উৎস জানতে ফোন করলে তিনি তার স্বপক্ষে সঠিক কোনো উত্তর দিতে পারেননি। ওই সময় জিগাতলায় এ ধরনের কোনো ঘটনাও ঘটেনি। এ ঘটনায় রোববার (৫ আগস্ট) র‌্যাব-১ এর ডিএপি আমিরুল ইসলাম বাদী হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন ২০০৬ সালের ৫৭(২) ধারায় রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলাটি করেন। এসি     

আগামীকাল ‘দেখা হয়ে গেলো’

এয়ারপোর্ট থেকে বেরিয়ে এসে ট্যাক্সি খুঁজছে আরবা এবং জয়ন্ত। এমন সময় একজন আততায়ী আড়াল থেকে একটা পিস্তলের নল তাক করে আরবার দিকে। আরবা দেখে না, কিন্তু জয়ন্ত দেখে। হঠাৎ ওদের সামনে এসে একটা গাড়ি দাঁড়িয়ে পড়ার কারণে আরবারের বুকে গুলি করতে পারে না অচেনা আততায়ী। ওরা গাড়িতে ওঠে। জয়ন্ত আর আরবা স্বামী স্ত্রী নয়, প্রেমিক প্রেমিকা। আরবা তার স্বামী ফয়সালের টাকা পয়সা চুরি করে পালিয়েছে পূর্বতন প্রেমিক জয়ন্তর সঙ্গে। চলে এসেছে নেপালে। কিন্তু নেপালে এসেই বুঝতে পারে বড্ড ভুল করে ফেলেছে সে। বুঝতে পারে জয়ন্ত যতটা না তার প্রতি আগ্রহী তার চেয়ে বেশি আগ্রহী চুরি করে নিয়ে আসা আরবার টাকা পয়সার প্রতি। নেপালে এসেই আরবা ফয়সালের সঙ্গে জয়ন্ত-র তুলনা করার সুযোগ পায়। এর আগে আরবা হানিমুনে নেপাল এসেছিলো ফয়সালের সঙ্গে। তখন ওকে নিয়ে নানান জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছিলো ফয়সাল। অন্যদিকে জয়ন্ত নিতান্তই কঞ্জুস প্রকৃতির। সে চায় যতটা সম্ভব টাকা কম খরচ করতে। আরবা বুঝতে পারে জয়ন্ত ফয়সালের মত ক্যায়ারিং নয়। উপরন্তু জয়ন্তর ভাড়া করা লোক সন্তোষ আরবাকে মারার জন্যে নানাভাবে চেষ্ঠা চালাতে থাকে। ঘটে যায় ভিন্ন এক ঘটনা। এমনই গল্প নিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে নেপালে চিত্রায়িত বিশেষ নাটক ‘দেখা হয়ে গেলো’। নাটকটি রচনা করেছেন জুয়েল কবির, পরিচালনা করেছেন দীপু হাজরা। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন এফ.এস নাঈম, প্রভা, জোভান, টুটুল চৌধুরী, সাবিনা খানাল। বাঁধন ড্রিম ভিশনের ব্যানারে নির্মিত নাটকটি প্রযোজনা করেছেন মোহাম্মদ বোরহান খান।নাটকটি শনিবার আর টিভিতে রাত ৮টায় প্রচারিত হবে। এসএ/  

‘গানম্যান’ জাহিদ হাসান

ঈদের নাটকে এবার গানম্যান হয়ে আসছেন জনপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান। শৌর্য দীপ্ত সূর্যর রচনা ও পরিচালনায় ‘গানম্যান’ নামে একটি নাটকে নাম ভূমিকায় অভিনয় করছেন তিনি। নাটকে দেখা যাবে, গান (বন্দুক) দিয়ে বিশ্ব জয় করা যায়, কিন্তু গান (সঙ্গীত) দিয়ে মানুষের মন জয় করা যায় এটা বিশ্বাস করে সবুজ। কথায় কথায় তিনি গান ব্যবহার করেন। এ জন্য গ্রামের লোক তাকে গানম্যান বলেই ডাকেন। একদিন পাশের গ্রামে দিলপাশা নামে একজন কোটিপতি ব্যবসায়ী তার ইন্ডাস্ট্রির জন্য এলাকায় কিছু জমি কেনার জন্য আসেন। তার সঙ্গে সার্বক্ষণিক লালমিয়া নামের একজন গানম্যান থাকে। এ লালমিয়া গোপনে সংবাদ পায়, একদল সন্ত্রাসীর হাতে তার মনিব দিলপাশা দলবলে খুন হবে। জীবনের ভয়ে লালমিয়া পালিয়ে যাওয়ার সময় দেখা হয় সুবজের সঙ্গে। তাদের দু’জনের চেহারা প্রায়ই একই রকম। লালমিয়া সবুজকে বুঝিয়ে হয়ে যায় গ্রামের গানম্যান, আর সবুজ হয়ে ব্যবসায়ী দিলপাশার অস্ত্রধারী গানম্যান। এরপর ঘটতে থাকে নানা ধরনের মজার মজার সব ঘটনা। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে জাহিদ হাসান বলেন, ‘এ নাটকে গল্প সুন্দর। আমার চরিত্রেও ভেরিয়েশন আছে। আশা করি, ঈদে দর্শকরা নাটকটি দেখে বিনোদিত হবেন।’ নাটকটি বৈশাখী টিভিতে ঈদের তৃতীয় দিন রাত ৮টা ১০ মিনিটে প্রচার হবে। উল্লেখ্য, প্রতিনিয়তই নিজেকে ভেঙে চলেছেন জাহিদ হাসান। যে কারণে টিভি নাটকে তার চাহিদায় এখনও ভাটা পড়েনি এতটুকু। তার নাটক মানেই অন্যরকম বিনোদন। এসএ/  

বাঁধনের ইচ্ছা

ছোট পর্দার জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী আজমেরি হক বাঁধন। চলচ্চিত্রের প্রস্তুতির জন্য কাজ থেকে বিরতি নিয়েছিলেন তিনি। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়ার ‘দহন’ সিনেমাতে চুক্তিবদ্ধ হন এই অভিনেত্রী। কিন্তু ব্যক্তিগত কারণে শুটিংয়ের আগেই সিনেমাটি থেকে সরে দাঁড়ান। বর্তমানে চলচ্চিত্র ও ছোট পর্দার কোনোটিতে নেই তিনি। তবে আসছে ঈদের পরে আবারও ছোট পর্দায় কাজ করবেন বাঁধন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, চলচ্চিত্রের জন্য অনেক দিন ছোট পর্দার কাজ করা হয়নি। যেহেতু চলচ্চিত্রে এখন নেই তাই ছোট পর্দায় কাজ করবো। ঈদের পরেই কাজ শুরু করার ইচ্ছে আছে। এ বিষয়ে এখন আর বেশি কিছু বলতে চাই না। অভিনয়ে ফিরে সবাইকে জানাতে চাই। বাঁধন আরও বলেন, আমি আমার জন্য নিজেকে পরিবর্তন করেছি। এই পরিবর্তনকে একেকজন একেক ভাবে দেখছেন। আমি ক্যারিয়ারের শুরুতে এই সময়ের মতো এত সিরিয়াস ছিলাম না। আমার লাইফে গেল কয়েক বছরে অনেক ঝড় বয়ে গেছে। সব কিছু পেরিয়ে এখন আমার মনে হচ্ছে নিজের জন্য কিছু করতে হবে। এই যাত্রায় আমি কাজকে প্রাধান্য দিতে চাই। সেটি চলচ্চিত্র হোক কিংবা টিভি নাটক। অভিনয়ের ক্ষুধা মেটাতে চাই ভালো গল্প ও চরিত্রের মধ্য দিয়ে।এসএ/  

ঈদে আফজাল-সুবর্ণার ‘নূরুল আলমের মধুচন্দ্রিমা’

গত ঈদে প্রচার হয় আফজাল হোসেন ও সুবর্ণা মুস্তাফা অভিনীত ‘নূরুল আলমের বিয়ে’। আসছে ঈদে নাটকটির সিক্যুয়েল প্রচার হবে। নাটকটির নাম ‘নূরুল আলমের মধুচন্দ্রিমা’। বদরুল আনাম সৌদের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন আরিফ খান।এবারের গল্পে দেখা যাবে, নূরুল আলম ও নিশাত বেগমের বিয়ে হয়েছে মাসখানেক হয়ে গেল প্রায়। শত ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও নানা ঝামেলায় মধুচন্দ্রিমায় যাওয়া এখনো হয়ে ওঠেনি তাদের। না যাওয়ার পেছনে আরো একটি কারণ আছে, সেটা হলো নূরুল আলম কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেন না কোথায় যাবেন মধুচন্দ্রিমায়। যাই হোক, শেষ পর্যন্ত এক সকালে মধুচন্দ্রিমা পালনের জন্য রওনা হয় নূরুল আলম ও নিশাত বেগম। কিন্তু কপাল ছিল মন্দ, ঘণ্টা দুয়েক পর পায়ে হেঁটে দু’জনই বাড়ি ফেরে। কিছুদূর যেতে না যেতেই গাড়ি নষ্ট হয়ে গিয়েছিল তাদের।এবার মধুচন্দ্রিমার পরিকল্পনা নিজহাতে তুলে নেন নিশাত বেগম। ম্যাপ নিয়ে বসেন কোথায় যাবেন সেটা ঠিক করতে। ঠিক এ সময় এক তরুণী উপস্থিত হয় নিশাত বেগমের কাছে আবদার নিয়ে, তাও আবার ঢাকা থেকে। আবদার তার, যে করেই হোক এক সপ্তাহের মধ্যে তাকে তার পছন্দমতো ছেলের সঙ্গে বিয়ে করিয়ে দিতে হবে। নয়তো মেয়েটির বাবা তার পছন্দের ছেলের সাথে বিয়ে করিয়ে দেবে। আর যতদিন না নিশাত বেগম তাকে তার পছন্দমতো ছেলে ঠিক করিয়ে না দেয় ততোদিন সে এই বাড়িতেই থাকবে। নূরুল আলম ও নিশাত বেগম ভাবতে থাকে কি হবে তাদের মধুচন্দ্রিমার। এই মেয়ের বিয়ে না হলে তো জীবনে আর মধুচন্দ্রিমাও হবে না।এসএ/  

‘লাল দালান’ এ কাজী শুভ   

কয়েদি হিসেবে দেখা গেল কণ্ঠশিল্পী কাজী শুভকে। যার নাম্বার ১০০। তবে সেটা বাস্তবে নয় নাটকে। এই প্রথমবারের মতো নাটকে অভিনয় করলেন শুভ। ঈদের জন্য ‘লাল দালান’ নামে সাত পর্বের একটি নাটক নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে তাকে একজন কয়েদি হিসেবে দেখা যাবে।    নাটকে দেখা যাবে, কপিরাইট আইন অমান্য করায় কাজী শুভকে জেলে যেতে হয়। জেলের ভেতরের বিভিন্ন মুহুর্তের বিষয়গুলো পর্দায় উঠে আসবে। এই নাটকে কাজী শুভ নামেই অভিনয় করেছেন তিনি। নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন আদিবাসী মিজান। নাটকে অভিনয় প্রসঙ্গে কাজী শুভ বলেন, এই প্রথম নাটকে অভিনয় করলাম। যদিও ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা নতুন নয়। কিন্তু নাটকের ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা তো অবশ্যই অন্যরকম। নাটকের গল্প, চরিত্র পছন্দ হয়েছে বলেই রাজি হয়েছি। এসি    

চার বছর পর বিজ্ঞাপনে জয়া

দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। নিজের কাজ দিয়ে নিজেকেই দিনের পর দিন ছাড়িয়ে গেছেন তিনি। এক সময়ের ছোটপর্দার জনপ্রিয় এই তারকা এখন পুরদমে সময় দিচ্ছেন চলচ্চিত্রে। বাংলাদেশ ও কলকাতায় সমান তালে অভিনয় করে চলেছেন তিনি। সামনে মুক্তি পাচ্ছে তার প্রযোজিত ও অভিনীত ‘দেবী’ চলচ্চিত্র। নতুন খবর হচ্ছে প্রায় চার বছর পর টেলিভিশনের জন্য নির্মিত একটি বিজ্ঞাপনের মডেল হয়েছেন জয়া।স্কয়ার ফুড অ্যান্ড বেভারেজের পণ্য চাষী’র এই বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করেছেন মেজবাউর রহমান সুমন। গত ৫ আগস্ট নিকুঞ্জের একটি শুটিং সেটে জয়া দিনভর অংশ নেন।নতুন এ বিজ্ঞাপন প্রসঙ্গে জয়া আহসান বলেন, ‘নাটক, বিজ্ঞাপন, সিনেমা- সবকিছুই ভালো লাগে। যে কাজটি মনে ধরবে- আমি সেটাই করবো। এই বিজ্ঞাপনটির কনসেপ্ট আমার পছন্দ হয়েছে বলেই রাজি হয়েছি। অনেকদিন পর আবারও টিভিসি করলাম। আশা তো করি, ভিন্ন কিছু হবে।’জয়া আহসান সর্বশেষ টিভিসিতে অংশ নেন ২০১৪ সালে। রানার গ্রুপের কাইট মোটরসাইকেলের সেই বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করেন মাহফুজ আহমেদ। তবে সম্প্রতি মডেল মৌ-এর সঙ্গে ফ্যাশন হাউস বিশ্বরঙ-এর একটি ফটোশুটে অংশ নিয়েছেন জয়া। সেটি ছিল ‘দেবী’ সিনেমার প্রচারণার অংশ হিসেবে।সামনে ১০ আগস্ট কলকাতায় মুক্তি পাচ্ছে জয়া অভিনীত টালিউডের বড় বাজেটের আলোচিত সিনেমা ‘ক্রিসক্রস’। এটির পরিচালক বিরসা দাশগুপ্ত। জয়া ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন টালিউডের অন্যতম চার নায়িকা নুসরাত জাহান, প্রিয়াঙ্কা সরকার, মিমি চক্রবর্তী ও সোহিনী সরকার। সি-তে সিনেমার ব্যানারে নির্মিত জাজ মাল্টিমিডিয়ার পরিবেশনায় সিনেমাটি মুক্তি পাচ্ছে ৭ সেপ্টেম্বর।এসএ/  

নতুন বিজ্ঞাপনে ঈশানা

ছোটপর্দার ব্যস্ত অভিনেত্রী ঈশানা। ধারাবাহিক ও একক নাটকে সরব উপস্থিতি তার। বর্তমানে তিনি ব্যস্ত রয়েছেন ঈদের নাটকের কাজ নিয়ে। এরইমধ্যে নতুন একটি বিজ্ঞাপনের শুটিং শেষ করেছেন তিনি। এ বিজ্ঞাপনে ঈশানার সঙ্গে রয়েছেন সাবেরি আলম। এটি নির্মাণ করেছেন নঈম ইমতিয়াজ নেয়ামুল। নতুন বিজ্ঞাপন প্রসঙ্গে ঈশানা বলেন, এখন ঈদের কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছি। এরমধ্যে এই বিজ্ঞাপনটির গল্প পছন্দ হওয়ায় কাজ করেছি। ঈদ উপলক্ষে খুব শিগগির এটি প্রচারে আসবে। এদিকে ঈদের জন্য এই অভিনেত্রী জাহিদুল হাসানের ‘একটি স্বর্ণঘটিত দুর্ঘটনা’ ও কিন্নর তানিমের ‘প্রতিসরণ’ শিরোনামের দুটি নাটকের কাজ শেষ করেছেন। চলতি সপ্তাহে বেশ কিছু নাটকের শুটিং আছে বলেও জানান তিনি। বিভিন্ন চ্যানেলে ঈশানার একাধিক ধারাবাহিক প্রচার হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য ধারাবাহিকগুলো হলো সৈয়দ শাকিলের ‘উল্টো স্রোত’, দেওয়ান নাজমুলের ‘সুয়োরানী দুয়োরানী’, মীর সাব্বিরের ‘নোয়াশাল’, ‘নিউটনের তৃতীয় সূত্র’। প্রতিটি ধারাবাহিকে ঈশানা গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন বলে জানান।এসএ/

কলকাতার দাদা বাবু চঞ্চল

চঞ্চল চৌধুরীকে প্রতি ঈদেই ভিন্নমাত্রার ধারাবাহিকে দেখা যায়। আসছে ঈদে তিনি অভিনয় করছেন ইমরাউল রাফাত পরিচালনায় ‘কলকাতার দাদা বাবু’ ধারাবাহিকে। এরই মধ্যে রাজধানীর পুরান ঢাকায় নাটকটির দৃশ্যধারণের কাজ শেষ হয়েছে।ধারাবাহিকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘ঈদ এলে তো দর্শকের বিনোদনের কথা ভেবে সবসময় হাস্যরসাত্মক গল্পের নাটকে অভিনয় করার চেষ্টা করি। কিন্তু কলকাতার দাদা বাবু নাটকের গল্প বেশ সিরিয়াস। এতে আমি কলকাতার দাদা বাবুর চরিত্রে অভিনয় করছি। চরিত্রটি আমি বেশ উপভোগ করেছি। দর্শক নাটকটি বেশ ভালোলাগা নিয়ে উপভোগ করবেন বলে আশা করছি।’ আগামী ঈদে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে নাটকটি প্রচার হবে বলে জানিয়েছেন পরিচালক। এই নাটকটি ছাড়াও ঈদে আরও দুটি ঈদ ধারাবাহিকে দেখা যাবে চঞ্চল চৌধুরীকে। নাটক দুটি হচ্ছে ‘হিরো যখন ভিলেন’ এবং ‘চরিত্র স্ত্রী’। নির্মাণ করেছেন মাসুদ সেজান। পাশাপাশি মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় ‘আয়েশা’ টেলিছবিতে অভিনয় করেছেন এই অভিনেতা। এতে তার সহশিল্পী নুসরাত ইমরোজ তিশা। এসএ/  

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি