ঢাকা, রবিবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

কেমন ছিলো বাংলাদেশের সব বিশ্বকাপ টুর্নামেন্ট?

প্রকাশিত : ২৩:৫৬ ২৪ মে ২০১৯ | আপডেট: ১০:০৩ ২৫ মে ২০১৯

বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশের যাত্রা শুরু বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে। আইসিসির পূর্ব ঘোষণা অনুসারে সপ্তম বিশ্বকাপ আসরে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের অভিষেক ম্যাচে নিউজিল্যান্ড ছিল বিপক্ষে (১৭ মে ১৯৯৯, চেমসফোর্ডে)। তৃতীয় ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে ২২ রানে হারিয়ে প্রথম জয় লাভ করে। ওই আসরেই শক্তিশালী প্রতিপক্ষ পাকিস্তানকে ৬২ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে আইসিসির কাছে পূর্ণ সদস্যপদ লাভের শক্তিশালী ভিত রচনা করে বাংলাদেশ।

এর ভিত্তিতে ২০০০ সালের ২৬ জুন আইসিসির পূর্ণ সদস্যপদ লাভ করে। ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে পাঁচটি ম্যাচ খেলে দুটিতে জয় ও তিনটিতে পরাজিত হয়। ওই আসরে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক ছিলেন আমিনুল ইসলাম বুলবুল, কোচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের গর্ডন গ্রিনিজ।

২০০৩ সালে দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ। দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের অষ্টম আসরে গ্রুপ পর্বের সব ম্যাচে হেরে যায়। এ বিশ্বকাপে দলের অধিনায়ক ছিলেন খালেদ মাসুদ পাইলট, কোচ পাকিস্তানের মহসিন কামাল।

বাংলাদেশ তৃতীয়বার বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করে ২০০৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপে। এই বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী প্রতিপক্ষ ভারতকে পাঁচ উইকেটে হারিয়ে দেয়। এই আসরে বারমুডাকে সাত উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় জয়লাভ করে। ফলে সুপার এইট-এ খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। এ পর্বে বাংলাদেশ দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৬৭ রানে হারায়। এ আসরে দলের অধিনায়ক ছিলেন হাবিবুল বাশার সুমন, কোচ অস্ট্রেলিয়ার ডেভ হোয়াটমোর।

বাংলাদেশ চতুর্থবার বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করে ২০১১ সালে। প্রথমবারের মতো ভারত ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে আয়োজক দেশ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। এ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়েছিল বাংলাদেশে। এ আসরে বাংলাদেশ আয়ারল্যান্ডকে ২৭ রানে পরাজিত করে প্রথম বিজয়ের হাসি হাসে। পরে ইংল্যান্ডকে দুই উইকেটে ও নেদারল্যান্ডসকে ছয় উইকেটে হারায়। দলের অধিনায়ক ছিলেন সাকিব আল হাসান, কোচ অস্ট্রেলিয়ার জেমি সিডন্স।

২০১৫ সালে বিশ্বকাপের একাদশ আসর হলেও বাংলাদেশের জন্য পঞ্চম। এ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ১০৫ রানের বিশাল ব্যবধানে হারায়। ম্যান অব দ্য ম্যাচ হন মুশফিকুর রহিম। দ্বিতীয় ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে না হওয়ায় অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগিতে ১ পয়েন্ট লাভ করে বাংলাদেশ। তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে হারলেও চতুর্থ ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে ছয় উইকেটে হারায়। পঞ্চম ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ১৫ রানে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ খেলেছে তারা। এ আসরে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা, কোচ শ্রীলঙ্কান চন্দ্রিকা হাথুরাসিংহে।

আগামী ৩০ মে শুরু হবে ২০১৯ বিশ্বকাপ। এবারের বিশ্বকাপে টাইগারদের কাছে বাংলাদেশের মানুষের প্রত্যাশাও খানিকটা বেশি। এবারও বাংলাদেশ দলের নেতৃত্ব দিবেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ফলাফল:

১৯৯৯- লিগ পর্বে গ্রুপ ‘বি’তে পঞ্চম
২০০৩- লিগ পর্বে গ্রুপ ‘বি’তে শেষ অবস্থান
২০০৭- সুপার এইট পর্বে সপ্তম
২০১১- লিগ পর্বে গ্রুপ ‘বি’র পঞ্চম
২০১৫- কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট

এসএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি