ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ৯:১৫:৫৩

Ekushey Television Ltd.

জার্মানির রোমাঞ্চকর জয়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:৪৮ এএম, ২৪ জুন ২০১৮ রবিবার | আপডেট: ০৪:৪৭ পিএম, ২৪ জুন ২০১৮ রবিবার

প্রথমার্ধে পিছিয়ে পড়ে বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ার শঙ্কাতেই পড়ে গিয়েছিল জার্মানি। তবে ঘাবড়ে যায়নি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। বিরতির পর দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে সুইডেনকে হারিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে যাওয়ার সম্ভাবনা ভালোভাবেই টিকিয়ে রেখেছে ইওয়াখিম লুভের দল।
সোচির ফিশৎ স্টেডিয়ামে শনিবার ‘এফ’ গ্রুপের রোমাঞ্চকর ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ওলা তইভনেনের গোলে প্রথমার্ধে এগিয়ে যায় সুইডেন। দ্বিতীয়ার্ধে মার্কো রয়েস সমতা ফেরানোর পর টনি ক্রুসের যোগ করা সময়ের গোলে রোমাঞ্চকর এক জয় তুলে নেন জার্মানি।
মেক্সিকোর কাছে হেরে শিরোপা ধরে রাখার লড়াই শুরু করা জার্মানি শুরু থেকেই চড়াও হয় সুইডেনের ওপর। একের পর এক আক্রমণে কঠিন পরীক্ষায় ফেলে দেশটির রক্ষণভাগকে। তবে সুযোগ পেলে পাল্টা জবাব দিতে ছাড়েনি সুইডেনও।
দ্বাদশ মিনিটে সুইডেনের পেনাল্টির জোরালো আবেদন নাকচ করে দেন রেফারি। বল নিয়ে দ্রুত ফাঁকা ডি-বক্সে এগিয়ে গিয়েছিলেন সুইডিশ ফরোয়ার্ড মার্কাস বার্গ। পেছন থেকে জেরোম বোয়াটেংয়ের ট্যাকলে পড়ে যান তিনি। রেফারি স্পট কিকের নির্দেশ দেননি। ভিএআর প্রযুক্তিরও সহায়তা নেননি।
খেলার ধারার বিপরীতে ৩২তম মিনিটে দুর্দান্ত গোলে সুইডেনকে এগিয়ে নেন তইভনেন। মাঝমাঠে ক্রুস ভুল পাস দিয়ে বসেন। সতীর্থের কাছ খেকে বল পেয়ে ভিক্তর ক্লসন উঁচু করে বাড়ান ডি-বক্সে। বুক দিয়ে বল নামিয়ে ডান পায়ের টোকায় আগুয়ান মানুয়েল নয়ারের মাথার উপর দিয়ে জালে পাঠান তইভনেন।
নাকে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়া ডিফেন্ডার আন্টোনিও রুডিগারের জায়গায় নামা মিডফিল্ডার ইলকাই গিনদোয়ানের শট ৪১তম মিনিটে ঝাঁপিয়ে কোনোমতে ফিরিয়ে দেন সুইডেনের গোলরক্ষক রবিন ওলসেন।
প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে নয়ারের নৈপুণ্যে ব্যবধান বাড়েনি। সেবাস্তিয়ান লারসনের ক্রসে বার্গের হেড ঝাঁপিয়ে দারুণ সেভ করেন জার্মান গোলরক্ষক।
ম্যাচ শেষে এই স্কোর থাকলে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিশ্চিত হয়ে যেত চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের। তবে বেশিক্ষণ সেই শঙ্কায় থাকতে হয়নি সমর্থকদের দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সমতা ফেরায় মরিয়া জার্মানরা।
টিমো ভের্নারের নিচু ক্রসে বল মারিও গোমেজের পায়ে লেগে উঠে যায়। ঠিকমতো শট নিতে পারেননি রয়েস। তবে তার হাঁটুর কাছাকাছি লেগে বল যায় জালে।
৭৫তম মিনিটে একটি ক্রস বিদমুক্ত করতে গিয়ে উল্টো নিজেদের জালেই পাঠিয়ে দিচ্ছিলেন সুইডেনের আন্দ্রিয়াস গ্রাংকভিস্ত। তবে বল একটুর জন্য বাইরে দিয়ে যায়।
৮২তম মিনিটে বোয়াটেং দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখলে বাকি সময় ১০ জন নিয়ে খেলে জার্মানি। তাতেও ছন্দপতন হয়নি তাদের খেলায়।
৮৯তম মিনিটে গোমেজের হেডে ফিস্ট করে বল ক্রসবারের উপর দিয়ে পাঠান সুইডিশ গোলরক্ষক।
এরপর যোগ করা সময়ের পঞ্চম মিনিটে ক্রুসের বুদ্ধিদীপ্ত ওই গোল। প্রথমেই শট না নিয়ে বলে দেন আলতো টোকা। সামনে থাকা রয়েস বল থামাতেই বাঁকানো শটে দূরের পোস্ট দিয়ে বল জালে পাঠান রিয়াল মাদ্রিদের এই মিডফিল্ডার।
১৯৫৮ বিশ্বকাপের পর প্রথমবারের মতো কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে জার্মানিকে হারানোর আশা জাগিয়েও পারল না সুইডেন। সেই বিশ্বকাপের পরই প্রথমবারের মতো ফুটবলের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্টে টানা দুই ম্যাচে হারের শঙ্কায় পড়ে গেলেও তা এড়াতে পারল জার্মানি।
সুইডেনের বিপক্ষে এ নিয়ে সবশেষ ১২ ম্যাচ অপরাজিত থাকল জার্মানি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা জেতায় নক আউটের আশা টিকে থাকল গ্রুপের সব দলেরই।
আগামী বুধবার নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে খেলবে জার্মানি। একই সময়ে মেক্সিকোর মুখোমুখি হবে সুইডেন।
এসএ/



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি