ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:২৫:০৮

Ekushey Television Ltd.

বিষণ্ণতা রোধে বড় বিতর্কের অবসান

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৩:২০ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৩:২০ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার

বিষণ্নতা রোধে ব্যবহৃত ওষুধের উপর ব্যাপক গবেষণা চালিয়ে বিজ্ঞানীরা বলছেন, তারা একটি বড় বিতর্কের অবসান করতে যাচ্ছেন। ১ লাখ ১৬ হাজার ৪৭৭ জন মানুষের ওপর ৫২২টি পরীক্ষা চালিয়ে গবেষকরা বলছেন, ২১টি সাধারণ বিষণ্নতা রোধক পিল ডামি পিলের চেয়ে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে। তবে ওই পিলগুলোর মূল কার্যকারিতা অনেকটা নির্ভর করে ওই প্রোডাক্টের গুনাগুণের উপর।

২১টি সাধারণ ওষুধের মধ্যে যার গুণাগুণ ভালো, সেটি বেশি কার্যকরী। ল্যানসেটে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে লেখকরা দাবি করেন, ওই ওষুধগুলো ব্যবহার করে অনেক মানুষ উপকার পেতে পারবেন। ২০১৬ সালে যুক্তরাজ্যে ৬৪.৭ মিলিয়ন প্রেসক্রিপশনে ওই ওষুধগুলো লেখা হয়েছে। এর আগে ২০০৬ সালে ৩১ মিলিয়ন প্রেসক্রিপশনে ওই ওষুধগুলো লিখেন চিকিৎসকরা।

তবে এত প্রেসক্রিপশন হওয়া সত্ত্বেও এতদিন ধরে একটা বিতর্ক কাজ করে আসছে, যে ওষুধগুলো লেখা হচ্ছে তা বিষণ্ণতা রোধে কতোটা সহায়ক? এদিকে রয়েল কলেজের মনোবিজ্ঞানীরা দাবি করেন, এই গবেষণার ফলে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা বিতর্কের অবসান ঘটতে যাচ্ছে। গবেষণায় দেখা গেছে, স্বল্পমেয়াদী চিকিৎসার ক্ষেত্রে ৫২২টি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার পর দেখা গেছে প্লেকবসের (পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দূরীকাণে ব্যবহৃত ওষুধ) তুলনায় সাধারণ ওষুধগুলো বিষণ্ণতা দূরীকরণে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির গবেষক ড. আন্দ্রে সিপারিয়ানি বিবিসিকে বলেন,‘এ গবেষণাটি দীর্ঘদিন ধরে চলা বিতর্কের চূড়ান্ত উত্তর। এ বিষয়ে বিষণ্নতাবিরোধী কাজ বিষন্নতা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখতে পারে কি না, এটাই তার চূড়ান্ত উত্তর।’

সূত্র: বিবিসি
এমজে/



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি