ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

সততার অনন্য নজির শ্রমিকের

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:৪০, ২১ মে ২০১৮

বাড়ির পেছনে মাটি খোঁড়ার সময় পাওয়া গেল একটি ধাতব বাক্স। জমির মালিক সেটি খুলে দেখেন তার মধ্যে বিপুল অর্থ ছাড়াও স্বর্ণ, হীরাসহ নানা রকম মূল্যবান রত্ন।
এমনটি হলে যে কেউ এগুলো আত্মসাত করার কথাই ভাবত। সেগুলো কাজে লাগিয়ে স্বাবলম্বী হওবার কথা ভাবতো। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ম্যাথিউর ক্ষেত্রে ঘটল উল্টো ঘটনা। আর সে কারণেই খবরের শিরোনাম তিনি।
ম্যাথিউ বাক্সটি ঘাটাঘাঁটির সময় এক টুকরো কাগজ পেলেন। সেটি পড়ে দেখেন তাতে একই এলাকার এক ব্যক্তির নাম লেখা আছে। তাকে জিজ্ঞাসা করে নিশ্চিত হন এই বাক্সের  আসল মালিক তিনিই। পরে স্বেচ্ছায় সেটি তাকে ফিরিয়ে দেন। সততার এই অনন্য নজির স্থাপন করেছেন তিনি।
জানা গেছে, বাড়ির পেছনের কিছু পুরনো গাছ তুলে ফেলার জন্য সম্প্রতি ম্যাথিউ একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন। ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা মাটি খোঁড়ার সময় বাক্সটি পেয়ে ম্যাথিউর কাছে নিয়ে আসেন। ম্যাথিউ বাক্সটি ভেঙে দেখেন তার ভেতর নগদ ৫২ হাজার ডলার ছাড়াও বিপুল পরিমাণ মূল্যবান অলংকার রয়েছে। তবে বাক্সের ভেতর তার এলাকার ইমানুয়েল নামের এক ব্যক্তির নাম দেখতে পেয়ে তিনি তার কাছে গিয়ে জিজ্ঞাসা করেন কোনোদিন তাদের কোনো দামি জিনিসপত্র লুট হয়েছিল কি না।  
ইমানুয়েল জানান, ২০১১ সালে তাদের বাড়িতে ডাকাতি হয়েছিল। ডাকাতরা  নগদ টাকা ছাড়াও অনেক গহনা চুরি করে নিয়ে গিয়েছিল। তবে সেটি কেন ডাকাতরা ম্যাথিউদের বাড়ির পেছনে পুতে রাখল সেটি মাথায় আনতে পারল না কেউ। জরুরি ভাবে সেটি লুকানোর জন্য পুতে ফেললেও পরে কেন আর সেটি নিতে এলো না সেটিও এক রহস্য বটে।
যাহোক ম্যাথিউ গোটা বাক্সটি ইমানুয়েলের হাতে তুলে দেন, যেহেতু তিনি এর বৈধ মালিক। যুক্তরাষ্ট্রের সিবিএস নিউজ ম্যাথিউকে প্রশ্ন করে, কেন তিনি এগুলো ফেরত দিতে গেলেন। জবাবে তিনি বলেন, এটা কোনো প্রশ্ন হলো? যে সম্পদ আমার নয়, সেটির উপর কেন আমি লোভ করব।
সূত্র : ব্রিদার
/ এআর /


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি