ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৩৫:১৯

ওসমানী বিমানবন্দরে ৬০ স্বর্ণের বার জব্দ

সিলেট ওসমানী বিমানবন্দর থেকে ৬০টি স্বর্ণের বারসহ ইকবাল হোসেন (২৬) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে কাস্টমস গোয়েন্দা ও আর্মড পুলিশ। জব্দকৃত ৯ কেজি ৯০০ গ্রাম ওজনের স্বর্ণের বাজারমূল্য প্রায় ৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে ওমানের মাসকট থেকে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট নং-বিজি-২২২ সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে আসার পর স্বর্ণের বারসহ ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। আটককৃত ইকবাল হোসেন চট্টগ্রামের সাজকানি থানার মধ্যম কাঞ্চন এলাকার শেখ আহমদের ছেলে বলে জানা গেছে। সূত্র জানিয়েছে, ইকবাল ওমানের রাজধানী মাসকট থেকে সিলেটে আসেন শুক্রবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে। তার সিট নং ৩১ এইচ’এ নিচে স্বর্ণের বারের ব্যাগ না রেখে পাশের সিট ৩৭ জে এর নীচে স্বর্ণের বারগুলো লুকিয়ে রাখে। যাতে ধরা পড়লে তার জড়িত থাকার বিষয়টি প্রকাশ না পায়। যাত্রীরা বিমান থেকে নামার পর তিনি ওই সিটের নিচ থেকে স্বর্ণের বার রাখা ব্যাগ নিয়ে বের হতে গেলে সন্দেহ হলে ব্যাগটিতে তল্লাশি চালায় কাস্টমস গোয়েন্দা ও আর্মড পুলিশ। এরপর স্বর্ণের বারগুলো ধরা পড়ে। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে সিলেট মহানগর পুলিশের বিমানবন্দর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। একে//

সিলেটে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১

সিলেট সদর উপজেলায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আব্দুল আহাদ ফকির (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১০ জন। সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার আব্দুল ওয়াহাব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। শনিবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার কান্দিরগাঁওয়ের বাঘারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ হামলাকারীদের গ্রেফতার করার জন্য অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন আব্দুল ওয়াহাব। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক বছর থেকে সদর উপজেলার কান্দিরগাঁওয়ের বাঘারপার গ্রামের জাফর মিয়ার স্ত্রী ছালিতুন বিবির সঙ্গে দীর্ঘদিন থেকে পাশেল বাড়ির মকলিছ মিয়ার বিরোধ চলছিল। সম্প্রতি উভয় পক্ষ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পঞ্চায়েত কমিটি এ বিরোধ মীমাংসা করার জন্য শালিস বৈঠকের উদ্যোগ নেয়। গত বৃহস্পতিবার প্রথম দফায় বসার সিদ্ধান্ত হলে ওই সময়ে ছালিতুন বিবিকে পঞ্চায়েতের সামনে গালিগালাজ করে চলে যান মখলিছ মিয়া। গতকাল শনিবার তারাবির নামাজের পর পুনরায় শালিস বৈঠকের আয়োজন করা হয়। কিন্তু শালিসে বসার আগেই দু’পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে জালালাবাদ থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থল যায়। সেখান থেকে নিহত আহাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। একে/

ভাঙা ঘড়ি-মোবাইল যন্ত্রাংশ দিয়ে ড্রোন নির্মাণ (ভিডিও)

মৌলভীবাজারে দশম শ্রেনীর ছাত্র কিবরিয়া নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি করেছে ড্রোন। উদ্ভাবন করেছে পানি থেকে বিদ্যুৎ তৈরির প্রক্রিয়া। এলাকায় কিবরিয়া পরিচিতি পেয়েছে ক্ষুদে বিজ্ঞানী হিসেবে। দেয়াল ঘড়ি ও মোবাইলের ভাঙা যন্ত্রাংশ, ছাতার ভাঙা অংশ, প্লাস্টিকের বোতল, নষ্ট টেলিভিশনের সেন্সর, খেলনা গাড়ি এবং পুতুলের মোটর ও সার্কিটসহ বিভিন্ন ফেলনা সামগ্রী দিয়ে ড্রোন তৈরি করেছে ক্ষুদে বিজ্ঞানী কিবরিয়া। ড্রোনটির সাথে সে সংযুক্ত করেছে একটি সোলার। আকাশে উড়ার সময় এর মাধ্যমে ড্রোনটি নিজে নিজেই চার্জ নিতে পারবে। এতে সংযুক্ত করেছে মেটাল ডিটেক্টরও। স্কুলের আর্থিক সহায়তায় ও দুই সহপাঠীর সহযোগিতায় বিজ্ঞানমেলায় প্রথম পুরস্কার জিতে নেয় কিবরিয়ার ড্রোনটি। ড্রোন ছাড়াও কিবরিয়া আবিষ্কার করেছে বিদ্যুৎ উৎপাদনের কৌশলও। প্রয়োজনীয় সুযোগ পেলে কিবরিয়া একদিন বড় বিজ্ঞানী হতে পারবে, আশা তার শিক্ষক, সহপাঠী ও প্রতিবেশীদের। প্রত্যন্ত জনপদে লুকিয়ে থাকা কিবরিয়ার মতো প্রতিভাদের খুঁজে বের করতে ভূমিকা রাখবে সরকার, এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

জ্বালানী তেল সংকটে মৌলভীবাজার [ভিডিও]

শ্রীমঙ্গল ডিপোতে সরবরাহ অর্ধেকে নেমে আসায়, জ্বালানী তেল সংকটে পড়েছে মৌলভীবাজারসহ আশপাশের জেলাগুলো। চট্টগ্রাম থেকে শ্রীমঙ্গলে তেলবাহী ট্রেন সপ্তাহে দু’বারে জায়গায় আসছে একবার। এ অবস্থায় প্রতি সপ্তাহেই ঘাটতি দেখা দিচ্ছে। পাঁচ মাস ধরে জ্বালানী সরবারহে বিঘ্ন ঘটছে শ্রীমঙ্গলে। এখানকার পদ্মা, মেঘনা, যমুনা তেল ডিপোতে এখন প্রতি সপ্তাহেই ঘাটতি। জ্বালানী নিতে আসা ট্যাংক লরিগুলো থাকে দীর্ঘ অপেক্ষায়। যানবাহনের পাশাপাশি চাষাবাদের যন্ত্রে ব্যবহারের কারণে, নভেম্বর থেকে মে মাস পর্যন্ত মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলায় ডিজেলের চাহিদা বেড়ে দাড়ায় প্রতি মাসে প্রায় ৭০ লক্ষ লিটার। শ্রীমঙ্গলে এখন সরবরাহ অর্ধেকের মতো, তাই বেগ পোহাতে হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের। ডিপো কর্মকর্তারা বলছেন, আগে চট্টগ্রাম থেকে সপ্তাহে দু’বার তেলবাহী ট্রেন আসতো শ্রীমঙ্গলে। এখন আসে একবার। জ্বালানী সরবরাহ সংকট নিরসনে কর্তৃপক্ষকে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন গ্রাহকরা।  এসএইচ/

ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ‘ধর্ষণ’, ২০ হাজার টাকায় ‘মিটমাট’

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে উজ্জ্বল মিয়া নামের দুই সন্তানের জনক। গুরুতর অবস্থায় শিশুটিকে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত ২ ও ৩ মে ঘটে যাওয়া এই ঘটনাটি ৪ মে কাজল মিয়া নামের এক স্থানীয় কাউন্সিলর ‘মামলা করে ফায়দা হবে না’ জানিয়ে ২০ হাজার টাকায় মিটমাট করেন। এ ঘটনায় অসুস্থ শিশুটির অবস্থা শোচনীয় হয়ে পড়লে গতকাল বুধবার দুপুরে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে রাতে শিশুর বাবা থানায় মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে ‘ধর্ষক’ উজ্জ্বল মিয়া পলাতক রয়েছে। জানা গেছে, শিশুটির পরিবার হত-দরিদ্র। হাওর এলাকায় দিন-মজুরি করে তাদের সংসার চলে। প্রতিদিনের মতো গত ২ মে শিশুটিকে বাড়িতে একা রেখে বাবা-মা হাওরে কাজে যায়। এ সুযোগে দুই সন্তানের জনক উজ্জ্বল মিয়া শিশুটির বাড়িতে গিয়ে চেতনানাশক মিশ্রিত জুস দেয়। শিশুটি জুস খেয়ে অচেতন হয়ে পড়লে তাকে ধর্ষণ করে উজ্জ্বল। পরদিনে ফের একই কায়দায় শিশুটিকে ঘরে একা পেয়ে সে ধর্ষণ করে। এতে শিশুটি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। তখন মা-বাবার কাছে সে বিষয়টি জানায়। এরই মাঝে বিষয়টি স্থানীয়রাও জেনে যান। বিষয়টি ধামাচাপা চুনারুঘাট পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজল মিয়া সালিশের উদ্যোগ নেন। তিনি ধর্ষিতা শিশুটির পরিবারকে ২০ হাজার টাকা নিয়ে যা হয়েছে তা ভুলে যেতে বলেন। ব্র্যাকের সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচির সংগঠক অন্নিকা দাশ বলেন, অসুস্থ শিশুটির চিকিৎসা না করানোয় তার অবস্থা শোচনীয় হয়ে পড়ে। পরে বিষয়টি জানতে পেরে হাসপাতালে নেওয়ার উদ্দেশ্যে আমি শিশুটির বাড়ি যাই। এসময় চুনারুঘাট থানা থেকে পুলিশ এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। চুনারুঘাট থানার ওসি কেএম আজমিরুজ্জামান জানান, ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। ভিকটিমের বাবা অভিযোগ করেছেন। আসামিকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। একে// এআর

শুরু হয়েছে দেশের ২য় চা নিলাম কেন্দ্রের কার্যক্রম (ভিডিও)

শ্রীমঙ্গলে আজ থেকে শুরু হয়েছে দেশের ২য় চা নিলাম কেন্দ্রের কার্যক্রম। দেশে চা উৎপাদন শুরুর প্রায় দেড়শ’ বছর পর সিলেটে চা নিলাম কেন্দ্র হওয়ায় খুশি সিলেটবাসী। এর মধ্যদিয়ে বাস্তবায়িত হলো সিলেটবাসীকে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্র“তি। ২০১২ সালের ২৯ ডিসেম্বর সিলেটে চা নিলাম কেন্দ্র স্থাপনের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দীর্ঘদিনের স্বপ্ন আর আকাঙ্খার বাস্তবায়ন। শুরু হলো মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে নিলামে চা নিলাম। এরইমধ্যে প্রায় সাড়ে ৫লাখ কেজি চা নিলামে তোলা হয়েছে। নিলামে অংশ নিয়েছেন দেশের ৭টি ব্রোকারেজ হাউজ ও শতাধিক বিডার। আর চা মজুদে প্রস্তুত ওয়ার হাউজ। ব্রোকারেজ হাউজগুলোই স্থাপন করেছে ওয়ার হাউজগুলো। নিলাম কেন্দ্রের ফলে ভালো মানের চা বিক্রির পাশাপাশি বছরে প্রায় দুশ’ কোটি টাকা সাশ্রয় হবে বলে আশা সংশ্লিষ্টদের। চা নিলাম কেন্দ্র চালু হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান বাগান মালিকরা।

স্কুল ম্যাগাজিন

১৯৮৫-১৯৯০ স্মৃতিময় পাঁচটি বছর। প্রাণের শায়েস্তাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়। স্কুল ও শিক্ষকরা আগেরই পরিচিত বাবার কারণে। বাবা আবদুন নূর চৌধুরী দীর্ঘদিন থেকেই স্কুলে প্রধান শিক্ষক। ভর্তি হলাম ক্লাস সিক্সে। নতুন বন্ধু-বান্ধব পেলাম। শুরু হলো নতুন অধ্যায়ের। প্রথম থেকেই অনেকটা চাপ। অন্য ভাইয়েরা ভালো রেজাল্ট করেছে। আমাকেও ভালো করতে হবে। তবে সমস্যাটা অন্য জায়গায়। কড়া শাসনের বাবার অধীনে সবাই ছাত্র। বন্ধুরা কখন আবদুন নূর চৌধুরীর কড়া শাসনের বেত্রাঘাতগ্রস্ত হয়। বেশিদিন যায়নি, আশঙ্কা সত্যি হলো। নাম মনে পড়ছে না- কোনো এক বন্ধু নূর চৌধুরীর বেতের শাসনে কান্নাগ্রস্ত। মার খেত অন্যজন, আর ভয় হতো আমার। কিভাবে ওই বন্ধুকে সান্ত¦না দেব। আরেকটি ভয় সবসময় কাজ করত। দুষ্টুমির বয়স- দুষ্টুমি তো করতেই পারি। কিন্তু দুষ্টুমিও করা যাবে না। কারণ কোনো শিক্ষক যদি দেখে ফেলেন- তাহলে কি করে মুখ দেখাবো আর সেটা যদি আব্বার কানে যায়। সেজন্য সব সময় সতর্ক থাকতে হতো। ওই সময়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক কাজী খালেক স্যার ছাড়া প্রায় শিক্ষকই আব্বার ছাত্র ছিলেন। ওই সময়ের শিক্ষকদের মধ্যে ছাত্রদের প্রতি যে মমত্ববোধ আর শিক্ষদের প্রতি ছাত্রদের শ্রদ্ধা ছিল- সেটাই ছিল শিক্ষার প্রতিফলন। মনে পড়ে ওমর আলী স্যার, নৃপেন্দ্র স্যার, তাহের আলী স্যার, রহিম আলী স্যার, বিপদবরণ স্যার, মহেশ্বর স্যার, মওলানা তাহের আলী স্যার, খালেক সার, জলিল স্যার, পণ্ডিত স্যার, শিশির বাবু স্যার, তোফাজ্জল স্যার, কুতুব আলী স্যার, এখলাছুর রহমান স্যার, ফরিদ স্যার ও নবীন শিক্ষক ফজলুল হক স্যারের কথা। এদের মধ্যে জলিল স্যার, মওলানা তাহের আলী স্যার ও বিপদবরণ স্যার ছাড়া ছাত্ররা অন্যদের তেমন ভয় পেত না। জলিল স্যার স্কাউট শিক্ষক থাকার কারণে সবসময়ই আমার কাছে পুলিশের মতো মনে হতো।সব শিক্ষকের আলাদা একটা পড়ানোর ধরন ছিল। ওমর আলী স্যার সবসময়ই হ্যাসরস দিয়ে পড়ানোর চেষ্টা করতেন। আমরা স্যারের পড়ানোর জন্য হাস্যরসাত্মক অংশটুকুই উপভোগ করতাম। নৃপেন্দ্র স্যার বাংলা পড়াতেন এবং কখনো কারো প্রতি রাগ করতে দেখিনি। এমন মানুষ আসলেই দুর্লভ। তাহের আলী স্যার বাংলা পড়াতেন এবং তাকেও কখনো রাগতে দেখিনি। খালেক স্যারের ইংরেজি পড়ানোর কথা এখন মনে পড়ে। কিছু নির্দিষ্ট বাক্য ব্যবহার করতেন যা আমাদের সবার মুখস্থ হয়ে যেত। বিপদবরণ স্যারের অংক ক্লাসের সময় আসলেই আতঙ্কে থাকতাম তবে অংক পারলে খুব স্নেহ করতেন। মওলানা আবু তাহের স্যারের ক্লাসে আমাকে একটি বাড়তি কাজ করতে হতো সেটা হলো- যারা নামাজে যায়নি, তাদের নাম জমা দিতে হতো। কি যে বিপদ! বন্ধুদের শত্রু হতে হতো, খারাপই লাগত, স্যার যখন বেত দিয়ে মারতেন। এখলাছ উদ্দিন স্যার নতুন এসেছেন। বায়োলজি পড়াতেন। একদিন ক্লাসে বললেন, আইক্কা (এঁকে) দিলে বুঝবায়। পিছন থেকে কে যেন বলে উঠলো আইসা দিলে বুঝবায়। আর যায় কোথায়, সে যে কি পিঠুনি আজও ভুলতে পারিনি। সে সময় সব স্যারের কাছেই ভালো ছাত্রদের কদর ছিল। ভালো ও ভদ্রলোক ছাত্র স্যারদের মার খেয়েছে বলে মনে নেই। ছাত্র-শিক্ষক সম্পর্ক অত্যন্ত মধুর ছিল। পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সহশিক্ষা কার্যক্রমে আমরা ছিলাম অগ্রগামী। আর এর সবই সম্ভব ছিল শিক্ষকদের প্রতি ছাত্রদের শ্রদ্ধা ও বাবা-মায়েদের আস্থা।তবে একটি ভালো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য দরকার অভিজ্ঞ ও দক্ষতাসম্পন্ন শিক্ষকমণ্ডলী ও তা পরিচালনার জন্য সঠিক নেতৃত্ব তথা একজন সুযোগ্য প্রধান শিক্ষক। আমাদের সময় তথা দীর্ঘকাল শায়েস্তাগঞ্জ হাই স্কুল সুনামের সাথে পরিচালিত হচ্ছিল আবদুন নূর চৌধুরীর নেতৃত্বে। তবে এর অবদান শুধু তার একার নয়। তার অধীন সুযোগ্য শিক্ষকণ্ডলী কৃতিত্বের অংশীদার। প্রধান শিক্ষককে যেমন জ্ঞানসম্পন্ন ও সুযোগ্য হতে হয়, সেই সাথে তাকে তার নিজের মতো কাজ করতে দিতে হয় একটি স্কুলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যেতে। আর সেটি সম্ভব যখন রাজনৈতিক ও অন্যান্য প্রভাবমুক্ত হয়ে প্রধান শিক্ষক ও শিক্ষকণ্ডলী কাজ করতে পারবেন। প্রধান শিক্ষক এমন একটি পরিবেশ সৃষ্টি করবেন, যার ফলে অভিভাবকদের আস্থা অর্জন করতে পারবেন। শতবর্ষে পদার্পণ করেছে আমাদের ঐতিহ্যবাহী স্কুল। আমরা যে উৎসাহ নিয়ে শতবর্ষ উদযাপন করতে যাচ্ছি- আসুন সবাই মিলে সে উৎসাহ ধরে রেখে স্কুলের পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে ব্রত হই। স্কুলের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত যারা স্কুলের জন্য বিভিন্নভাবে কাজ করেছেন- সবার প্রতি রইল কৃতজ্ঞতা। তৌহিদ চৌধুরী, প্রাক্তন ছাত্র, লন্ডন, ইংল্যান্ড (১৯৮৫-১৯৯০)

সুনামগঞ্জে তলিয়ে গেছে ৫ হাজার হেক্টর জমির ধান (ভিডিও)

অতি বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলে প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমির পাকা ধান তলিয়ে গেছে। এদিকে, ভারী বর্ষণ আর উজানের ঢলে সিলেটের সুরমা, কুশিয়ারাসহ কয়েকটি নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পরপর দু’বছর সুনামগঞ্জের হাওরগুলোতে ফসলহানির পর এবার ভালো ফলন দেখে আশায় বুক বেঁধেছিলেন চাষীরা। কিন্তু সে আশার গুড়ে বালি অনেকের। ভারি বর্ষণ আর উজানের ঢলে তলিয়ে গেছে বিস্তীর্ণ ধানক্ষেত। জেলার শনির হাওর, করচার হাওর ও নলুয়ার হাওরসহ ছোটবড় সব হাওরেই নিচু জমির প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। এ’জন্য অপ্রয়োজনীয় বাঁধ নির্মাণকে দুষছেন চাষীরা। তবে, অভিযোগ অস্বীকার করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। আর জলাবদ্ধতার আগেই হাওরের ৯৬ শতাংশ ধান কাটা হয়ে গেছে বলে জানিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এদিকে, ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলে সিলেট অঞ্চলের প্রায় সব নদ-নদীর পানি বেড়েছে। সুরমা ও কুশিয়ারাসহ কয়েকটি নদীর পানি ৮টি পয়েন্টে বিপদসীমা অতিক্রম করেছে। আরও এক সপ্তাহ সিলেটে মাঝারী ধরনের বৃষ্টিপাত হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

হবিগঞ্জে বজ্রপাতে ৬ কৃষকের মৃত্যু

হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ছয় কৃষক নিহত হয়েছেন। বুধবার দুপুরে তারা হাওরে ধান কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে তাদের মৃত্যু হয়। এতে আহত হয়েছেন আরও ছয়জন। জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে,  বুধবার দুপুরে হঠাৎ জেলার বিভিন্ন স্থানে তুমুল কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়। এ সময়ে ঝড়ে ধান কাটা অবস্থায় ছয়জন কৃষক বজ্রপাতে মারা যান। এরই মধ্যে বানিয়াচংয়ের মাকালকান্দি  হাওরে দাইপুর গ্রামের বসন্ত দাশের ছেলে স্বপন দাশু (৩৫)। একই উপজেলার নূরপুর হাওরে সিরাজগঞ্জ জেলার দত্তকান্দি এলাকার বাসিন্দা জয়নাল উদ্দিন (৬০) মারা যান। এ দুটি স্থানে আহত হন আরও ছয়জন। এছাড়া নবীগঞ্জ উপজেলার বৈলাকীপুর  গ্রামের হাওরে নারায়ন পাল (৪০) ও আমড়াখাই হাওরে হাবিব উল্লাহর ছেলে আবু তালিব (২৫) বজ্রপাতে মারা যান। অপরদিকে লাখাই উপজেলার তেঘরিয়া হাওরে সফি মিয়া (৫৫) ও মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম হাওরে রাম কুমার সরকারের ছেলে জোহর লাল সরকার (১৮) বজ্রপাতে মারা যান। জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অফিসের বজ্রপাতের তথ্য সংগ্রহের দায়িত্বরত কর্মী আব্দুল নূর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কেআই/ টিকে

সিলেটের ৮ নদীর পানি বিপদসীমার উপরে

উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও বৃষ্টিপাতের ফলে সিলেট অঞ্চলের আট নদীর পানি ১৩টি পয়েন্টে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। মঙ্গলবার কেন্দ্রের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় সিলেট, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জে জেলার কিছুস্থানে বিদ্যমান আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি  ঘটতে পারে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের রেকর্ড অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর কানাইঘাট ও সিলেট, কুশিয়ারার অমলশীদ, শেওলা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও মারকুলি, মনু নদীর মৌলভীবাজার, খোয়াই নদীর বাল্লা ও হবিগঞ্জ,  সুতং নদীর সুতং রেলওয়ে ব্রিজ, কংস নদীর জারিয়াজঞ্জাইল, কালনী নদীর আজমিরিগঞ্জ এবং বাউলাই নদীর খালিয়াজুরি এলাকার পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। কুশিয়ারা নদীর পানি অমলশিদ পয়েন্টে বিপদসীমার ৮৯ সেন্টিমিটার, শেওলায় ১০৭ সেন্টিমিটার ও ফেঞ্চুগঞ্জে ৬৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া সুরমা নদীর পানি কানাইঘাটে বিপদসীমার ৩৪ সেন্টিমিটার এবং সিলেট পয়েন্টে ১৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন। তবে ভারতের আসাম ও মেঘালয়ে বৃষ্টি হলে বাংলাদেশে নদ-নদীর পানি আরও বাড়তে পারে এবং সিলেট,  মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ জেলার বিদ্যমান আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে সেই সাথে সুনামগঞ্জ জেলার প্রধান নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি পেতে পারে। কোথাও কোথাও নতুন করে আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া আগামী ৪৮ ঘণ্টায় নেত্রকোণা ও কিশোরগঞ্জ জেলার বিদ্যমান আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটতে পারে বলে আভাস দিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। কেআই/টিকে

সিলেটে হাইটেক পার্কের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে (ভিডিও)

সিলেটের কোম্পানিগঞ্জ ইলেট্রনিক সিটি বা হাইটেক পার্কের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। এটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে সিলেট থেকেই তৈরি করা সম্ভব হবে সফটওয়্যার, ইলেকট্রনিক পণ্য ও যন্ত্রাংশ। আর প্রথম দিন থেকেই এখানে কর্মসংস্থান হবে ৫০ হাজার মানুষের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ি, ২৮টি হাইটেক পার্কের মধ্যে কোম্পানিগঞ্জ ইলেট্রনিক সিটি বা হাইটেক পার্ক একটি। ফেব্র“য়ারির প্রথম দিকে প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমদ পলক উদ্বোধন করার পর দ্রুতগতিতে চলছে এর নির্মাণ কাজ। ১৬২ দশমিক ৮৩ একর জমিতে প্রকল্পের ভূমি উন্নয়ন, দৃষ্টিনন্দন ডিজাইনের প্রায় ৩১ হাজার বর্গফুট বিশিষ্ট আইটি বিজনেস সেন্টার, ক্যাবল ব্রিজ, অভ্যন্তরীণ রাস্তা, গ্যাস লাইন স্থাপন এবং সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ চলছে পুরোদমে। হাইটেক পার্ক নির্মাণ হলে এখানে সফটওয়্যার, ইলেট্রনিক পণ্য ও যন্ত্রাংশ প্রস্তুত করা হবে। আর চালু হওয়ার দিন থেকে ৫০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমদ পলক। হাইটেক পার্কের নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ায় উচ্ছ্বসিত স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। আর চেম্বার নেতারা মনে করেন, শুধু সিলেটের নয়, প্রবাসী বিনিয়োগকারীরাও এখানে বিনিয়োগ করবেন। আগামি এক দশকের মধ্যে দেশের তরুণ প্রজন্ম তথ্য-প্রযুক্তিতে বিপুল অর্থ আয় করতে পারবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

বজ্রপাতে সুনামগঞ্জে  ২জনের মৃত্যু

বজ্রপাতে সুনামগঞ্জে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুর দুইটার দিকে সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের সাফেলা গ্রামের পাশে এ ঘটনা ঘটে। সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ বজ্রপাতে দুজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বজ্রপাতে নিহতরা হলেনগৌরারং ইউনিয়নের উজান শাফেলা গ্রামের একা রানী দাশ (১৮) ও ভাটি শাফেলা গ্রামের এখলাছ মিয়া (৫৫)। স্থানীয় সূত্রের বরাতে পুলিশ জানান, উজান শাফেলা গ্রামের রাধিকা রঞ্জন দাসের মেয়ে একা রানী দাশ এবার এইচএসসি পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। দুপুরের দিকে ধান শুকানোর খলায় তার বাবার জন্য ভাত নিয়ে গ্রামের পাশের এক খলায় যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে বৃষ্টি শুরু হলে একা রানী পথের পাশের একটি গাছের নিচে দাঁড়ান। অন্যদিকে পাশেই ধানমাড়াইয়ের কাজে করছিলেন এখলাছ মিয়া। বৃষ্টি বেড়ে যাওয়ায় এখলাছ মিয়াও ওই গাছের নিচে আসেন। পরে আকস্মিক বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তাদের দুজনের মৃত্যু হয়।  এমএইচ/টিকে

সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার

পরিবহন শ্রমিক নেতাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ তুলে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে লাক্সারি বাস মালিকরা ধর্মঘটের ডাক দেন। শুক্রবার দিনভর ভোগান্তির পর সন্ধ্যায় বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়েছে। এর আগে আজ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত লাক্সারি বাস মালিক সমিতির ডাকে সিলেট-ঢাকা রুটে বাস চলাচল বন্ধ ছিলো। হঠাৎ এ ধর্মঘটের কারণে বিপাকে পড়েন সাধারণ যাত্রীরা। সকাল থেকে যাত্রীরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে টার্মিনালে যেয়ে আবারো ফিরে আসতে বাধ্য হন। সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের অর্থ সম্পাদক সামসুল হক মানিক গণমাধ্যমকে জানান, শ্রমিকদের কল্যাণে সম্প্রতি গাড়ি প্রতি চাঁদা ২০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৫০ টাকা করা হয়েছে। এ টাকা শ্রমিকরা পরিশোধ করলেও রহস্যজনক কারণে বাস মালিকরা পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেন। তিনি জানান, সংগৃহিত চাঁদা থেকে কোনো শ্রমিক অসুস্থ হলে বা মারা গেলে তার পরিবারকে সহায়তা করা হয়। জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক বলেন, হঠাৎ করে বাস মালিকদের ডাকা ধর্মঘটের সঙ্গে শ্রমিকদের সংশ্লিষ্টতা নেই। শ্রমিকদের কল্যাণেই চাঁদা বৃদ্ধি করা হয়েছে। সাধারণ শ্রমিকরা সে টাকা পরিশোধ করছেন, তারা সেটা মেনেও নিয়েছেন। আর/টিকে

সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে শ্রমিক নিহত

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় বজ্রপাতে জাফর মিয়া (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার গড়কাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জাফর মিয়া উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের গড়কাটি গ্রামের মৃত লাল মাহমুদের ছেলে বলে জানা গেছে। বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মনির উদ্দিন জানান, শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া যাদুকাটা নদীতে বারকি নৌকার পানি সেচ করতে গিযেছিলেন বালি-পাথর উত্তোলকারী শ্রমিক জাফর। বাড়িতে ফিরতে দেরি হওয়ায় পরিবারের লোকজন খুঁজতে যায়। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। একে/ এমজে

সেইফ হোমে বেড়ে উঠা বিপাশার বিয়ে মহা ধুমধামে অনুষ্ঠিত (ভিডিও)

সিলেটে মহা ধুমধামে অনুষ্ঠিত হয়েছে সেইফ হোমে বেড়ে উঠা বিপাশা আক্তার মুন্নির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। শুক্রবার নানা আয়োজনে মুন্নিকে তুলে দেয়া হয় বর আব্দুল লতিফের হাতে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা। বর-কনেকে শুভেচ্ছা জানাতে আসা প্রায় তিনশ’ অতিথিকে আপ্যায়ন করা হয়। ২০১১ সালে দিরাই থানা এলাকায় উদ্দেশ্যহীনভাবে ঘোরাফেরা করছিলো বিপাশা আক্তার মুন্নী। তখন তার বয়স ছিল ১১ বছর। পরিবারের সদস্যদের খোঁজ না পাওয়ায় পুলিশ তাকে হস্তান্তর করে সেইফ হোমে। সেখানে ৩ বছর রাখা হয় মুন্নীকে। তারপর থেকে বসবাস সিলেট সরকারি বালিকা শিশু পরিবারে। সেই মুন্নির বিয়ে। সুন্দর করে সাজানো হয় সরকারি বালিকা শিশু পরিবারকে। কমতি ছিল না আনন্দ-আয়োজনেও। মুন্নীর শ্বশুরবাড়ি দিরাইয়ে। বর আব্দুল লতিফ একজন ব্যবসায়ি। নতুন ঠিকানায় মুন্নী যাতে ভালো থাকে সে ব্যাপারে সচেষ্ট থাকার কথা জানিয়েছে তার স্বামী। দীর্ঘদিনের বসবাসের জায়গা ছেড়ে যেতে কষ্টের কথা জানায় মুন্নী। তবে, সবার ভালোবাসায় নতুন ঠিকানা পাওয়ার আনন্দও তার চোখেমুখে। নিজ সন্তানকে স্বামীর হাতে তুলে দেয়ার আনন্দই যেন সমাজসেবা কর্মকর্তাদের চোখে। বিয়ের অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা জানাতে আসেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা। আপ্যায়ন করা হয় প্রায় তিনশ’ অতিথিকে। ঠিকানাহীন প্রায় একশ’ শিশু রয়েছে সিলেট সরকারি শিশু পরিবারে।

সেই বিপাশার বিয়ে মহা ধুমধামে (ভিডিও)

সিলেটে মহা ধুমধামে অনুষ্ঠিত হয়েছে সেইফ হোমে বেড়ে উঠা বিপাশা আক্তার মুন্নির বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। গতকাল শুক্রবার নানা আয়োজনে মুন্নিকে তুলে দেওয়া হয় বর আব্দুল লতিফের হাতে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা। বর-কনেকে শুভেচ্ছা জানাতে আসা প্রায় তিনশ’ অতিথিকে আপ্যায়ন করা হয়। ২০১১ সালে দিরাই থানা এলাকায় উদ্দেশ্যহীনভাবে ঘোরাফেরা করছিলো বিপাশা আক্তার মুন্নী। তখন তার বয়স ছিল ১১ বছর। পরিবারের সদস্যদের খোঁজ না পাওয়ায় পুলিশ তাকে হস্তান্তর করে সেইফ হোমে। সেখানে ৩ বছর রাখা হয় মুন্নীকে। তারপর থেকে বসবাস সিলেট সরকারি বালিকা শিশু পরিবারে। সেই মুন্নির বিয়ে। সুন্দর করে সাজানো হয় সরকারি বালিকা শিশু পরিবারকে। কমতি ছিল না আনন্দ-আয়োজনেও। মুন্নীর শ্বশুরবাড়ি দিরাইয়ে। বর আব্দুল লতিফ একজন ব্যবসায়ী। নতুন ঠিকানায় মুন্নী যাতে ভালো থাকে সে ব্যাপারে সচেষ্ট থাকার কথা জানিয়েছেন তার স্বামী। দীর্ঘদিনের বসবাসের জায়গা ছেড়ে যেতে কষ্টের কথা জানায় মুন্নী। তবে, সবার ভালোবাসায় নতুন ঠিকানা পাওয়ার আনন্দও তার চোখেমুখে। নিজ সন্তানকে স্বামীর হাতে তুলে দেওয়ার আনন্দই যেন সমাজসেবা কর্মকর্তাদের চোখে। বিয়ের অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা জানাতে আসেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা। আপ্যায়ন করা হয় প্রায় তিনশ’ অতিথিকে। উল্লেখ্য, ঠিকানাহীন প্রায় একশ’ শিশু রয়েছে সিলেট সরকারি শিশু পরিবারে। একে// এআর

হবিগঞ্জে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষে আহত ৫০ (ভিডিও)

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে ১০ পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সিএনজি অটোরিকশা চলাচলে বাধা দেয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় শ্রমিকরা। স্থানীয়রা জানায়, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ক’দিন ধরেই শায়েস্তাগঞ্জে ঢাকা-সিলেট মহসড়কে সিএনজি অটোরিকশা চলাচল নিয়ে উত্তেজনা ছিল। শুক্রবার পরিবহন শ্রমিকরা মহাসড়কে আন্দোলন শুরু করলে পুলিশ তাদেরকে সরিয়ে দেয়। এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষ বাঁধে। এতে ১০ পুলিশসহ অন্তত ৫০জন আহত হয়। সংঘর্ষের সময় শ্রমিকরা মহাসড়কে আগুন ধরিয়ে দিলে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এদিকে, নরসিংদীর শীলমান্দীতে যুবলীগ নেতা মাহমুদুল হাসান সৈকতের হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে গ্রামবাসী। তাদের বিক্ষোভের কারণে মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। এমজে/

সিলেটে ছুরিকাঘাতে যুবককে হত্যা

সিলেট নগরের কাজিরবাজার ব্রিজ এলাকায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে মোহাম্মদ আলী (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আর্থিক লেনদেন নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা পুলিশের। নিহত আলী সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার বাসিন্দা ছিলেন বলে জানা গেছে। ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এসআই পলাশ জানান, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে কাজিরবাজার ব্রিজ এলাকায় আলী নামের ওই যুবককে ছুরিকাহত করা হয়। পরে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়। একে/

মৌলভীবাজারে নবনির্মিত কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন

মৌলভীবাজার জেলায় নবনির্মিত কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের  উদ্বোধন করা হয়েছে। রোবাবার এ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, দক্ষ ও প্রশিক্ষিত মানবসম্পদই পারে একটি দেশকে উন্নত ও সমৃদ্ধের দিকে নিয়ে যেতে। বর্তমান সরকার ২০২১ সালে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সে লক্ষ্যে সরকার দেশের প্রতিটি জেলা উপজেলায় কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপনের কাজ করছে। মন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশের বেকারত্ব দূরীকরণ ও দারিদ্র্য বিমোচনে কারিগরি প্রশিক্ষণ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। বর্তমান সরকার অভিবাসন ব্যবস্থাকে স্বচ্ছ ও গতিশীল করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। অভিবাসীদের নিরাপত্তা ও অধিকার রক্ষাসহ বিদেশে যাওয়ার জন্য সহজে অর্থ সংস্থান, বৈধপথে রেমিট্যান্স প্রেরণের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিতে কাজ করছে। জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম-এর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মৌলভীবাজার নবনির্মিত কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন  অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) শেখ মোহাম্মদ নাহিদ নিয়াজ। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মৌলবীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসিন। (বিজ্ঞপ্তি)   এমএইচ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি