ঢাকা, শনিবার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ৯ ১৪২৮

শারদ উৎসবের শেষ সময়ের প্রস্তুতি চলছে (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৫:৫৯, ১৮ অক্টোবর ২০২০

আগামী ২৩ অক্টোবর ষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে শুরু হবে শারদীয় দুর্গোৎসবের মূল আনুষ্ঠানিকতা। তাই এখনও দেশের বিভিন্ন স্থানে চলছে শেষ সময়ের প্রস্তুতি। তবে এবার মূল আয়োজন হবে সীমিত পরিসরে। 

খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, নেত্রকোণায় প্রতিমা তৈরির প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। জেলার ৫শ’র বেশি মন্ডপে এবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে হবে সব আয়োজন। দুর্গা প্রতিমাকে ফুটিয়ে তুলতে চলছে রঙের কাজ। তবে উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামে এবার বন্যা আর করোনার কারণে মন্ডপের সংখ্যা কমেছে। 

নেত্রকোণার কয়েকজন সনাতন ধর্মাবলম্বী বলেন, ‘করোনায় এখন আয় রোজগার নেই বললেই চলে। তাই এবারের পূজায় তেমন একটা আনন্দ নেই। তবে নিয়মতান্ত্রিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুর্গোৎসব হবে।’

শুরুর দিকে উৎসবে কিছুটা অনিশ্চয়তা ও অর্থের যোগান না থাকায় কমেছে মন্ডপের সংখ্যা। তাই আয় কমে যাওয়ায় বিপাকে প্রতিমা কারিগররা।

জেলার কয়েকজন কারিগর বলেন, ‘গতবারে যেখানে এক একটি মন্ডপে সাতটি করে প্রতিমা বানানো হতো, এবার সেখানে তিনটি। প্রতিবছর পূজাকে ঘিরে কাজের অনেক চাপ থাকে কিন্তু এবার সেরকম নেই।’

স্বাস্থ্যবিধি মেনে শান্তিপূর্ণ উৎসবের প্রস্তুতির কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক কাজী মো. আব্দুর রহমান।  তিনি বলেন, ‘উৎবে ভক্তরা প্রতিমা দেখতে অবশ্যই আসবে। তবে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’

এদিকে করোনা আর বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামেও মন্ডপের সংখ্যা কমেছে। গত বছর জেলায় প্রায় সাতশ’ মন্ডপে পূজা হলেও এবার এ সংখ্যা ৪৭৮টি। রাজারহাটের দুর্গারহাট নামে পরিচিত বৈদ্যের বাজারে প্রতিমার সংখ্যা কমেছে অর্ধেকেরও বেশি।

কয়েকজন সনাতন ধর্মাবলম্বী বলেন, ‘করোনার কারণে নির্দিষ্ট সময়ে প্রতিমা তৈরির কাজ ধরা সম্ভব হয়নি। এবার অনেক কষ্টে উৎসবের আয়োজন করা হচ্ছে। মাটি অনেক দূর থেকে আনায় ভাড়া বেশি পড়ে।’ 

কারিগররা বলছেন, ‘করোনার কারণে গতবারের চেয়ে এবার মজুরিও অনেক কম। 
এআই/এসএ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি