ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৭ জুন ২০২১,   আষাঢ় ৪ ১৪২৮

সিরাজগঞ্জে নমুনা টেষ্টের ব্যয়ভারের দায়িত্ব নিলেন সাংসদ ডা.মুন্না

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:০০ পিএম, ৪ জুলাই ২০২০ শনিবার

করোনার পরীক্ষার আরটি-পিসিআর টেস্টের জন্য সরকারি ফি নির্ধারণ করে দেয়ায় সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) নির্বাচনী এলাকার ১০ জন ব্যক্তির প্রতিদিন করোনায়  নমুনা টেস্টের অর্থ ব্যয়ভারের দায়িত্ব নিয়েছেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত মুন্না।

অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত অসহায়দের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে প্রতিদিন উল্লেখিত নমুনা প্রদানকারীর ব্যয়ভার গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এমনকি করোনা পরীক্ষা বিষয়ক কার্যক্রম বাড়াতে হাসপাতালে অতিরিক্ত দুইটি বুথ স্থাপন করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে বেতন প্রদানের মাধ্যমে নমুনা সংগ্রহে স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ দেয়ার জন্যও নির্দেশনা দিয়েছেন ডা. হাবিবে মিল্লাত এমপি।

গত ২৯ জুন-২০ থেকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ পরীক্ষার আরটি-পিসিআর টেস্টের জন্য সরকারি ফি নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। এখন থেকে বুথ থেকে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য ২০০ টাকা, বাসায় গিয়ে সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য ৫০০ টাকা এবং হাসপাতালে ভর্তি রোগীর নমুনা পরীক্ষার জন্য ২০০ টাকা পরীক্ষা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। যার ফলে বিপাকে পড়েছে নিম্ন আয়ের  মানুষেরা। স্বাস্থ্য বিপর্যয়ের কঠিন সময়ে জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে প্রতিদিন ১০ জন নমুনা প্রদানকারীর ব্যয়ভার গ্রহন করার সিদ্ধান্ত নেন অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত।

সিরাজগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুর রহমান হীরা বলেন,ডা. মিল্লাত মুন্না মহোদয়ের এমন চমৎকার উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য অনেক বড় একটা সাহায্যের সুযোগ তিনি করে দিলেন। ওনার উদ্যোগেই সিরাজগঞ্জে আমরা পিসিআর মেশিন পেয়েছি। সিরাজগঞ্জের মানুষ ঠিক সময়ে করোনা টেষ্ট করতে পারছে। সিরাজগঞ্জের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় এমপি মহোদয়ের অবদান বরাবরই প্রশংসনীয়। স্বাস্থ্যসেবা সংশ্লিষ্ট সকল বিষয়ে তিনি সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর রাখেন। সিরাজগঞ্জের প্রতিটি স্বাস্থ্যকর্মী তার প্রতি কৃতজ্ঞ।

সিরাজগঞ্জ শহীদ এম. মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ এ- হাসপাতালের অধ্যক্ষ মো. রেজাউল জানান, এমপি মহোদয় প্রতিদিন ১০জন নমুনা প্রদানকারীর ব্যায়ভার বহন করার কথা জানিয়েছেন। সেই সাথে করোনা ভাইরাস পরীক্ষার কার্যক্রম বৃদ্ধি করতে ঢাকা থেকে দুটি বুথ আনা হয়েছে। দুই বুথের কার্যক্রমের জন্য প্রয়োজনীয় স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ দেয়ারও নির্দেশনা দিয়েছেন। এমপি মহোদয়ের এমন উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবী রাখে।

সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন জাহিদুর রহমান বলেন, এমপি মুন্না ঢাকা থেকে দুটি বুথ এনেছেন। একটি শহীদ এম. মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে এবং অপরটি সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে স্থাপন করা হয়েছে। দুই বুথের কার্যক্রমের জন্য মোট চারজন স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ দেয়া হবে। যার ব্যয়ভার তিনি নিজেই বহন করবেন। এছাড়া প্রতিদিন ১০জন করোনা ভাইরাসের নমুনা প্রদানকারীর ব্যয়ভারও বহন করবেন।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা.হাবিবে মিল্লাত মুন্না  জানান,নিম্ন আয়ের মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য প্রতিদিন করোনাভাইরাসের নমুনা প্রদানকারী ১০ জনের যাবতীয় ব্যয় বহন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেই সাথে স্বাস্থ্য বিপর্যয়ের এই কঠিন সময়ে চিকিৎসার স্বার্থে এবং হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবের কাজকে আরও গতিশীল ও ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে দুটি নতুন বুথ স্থাপনসহ স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। দ্রুত স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগের জন্য শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. রেজাউল করিমকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনাও দিয়েছি। আশা করি সাধারণ ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা উপকৃত হবে এবং নিজেদের সুরক্ষিত রাখার জন্য করোনা টেষ্ট করতে আগ্রহী হবে।
কেআই/