ঢাকা, শুক্রবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ৩ ১৪২৭

করোনাকালে ঠাণ্ডা কাশিতে আমাদের করণীয়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:৩৭ পিএম, ১১ জুলাই ২০২০ শনিবার | আপডেট: ১২:৩৮ পিএম, ১১ জুলাই ২০২০ শনিবার

করোনা আতঙ্কে আজ আমরা আতঙ্কিত। রোগীর সংখ্যাও দিনে দিনে বাড়ছে। কিন্তু আমাদের ভুলে গেলে হবে না যে, শরীর খারাপ লাগলেই তা করোনা ভাইরাস জনিত রোগ নয়। চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতে,  করোনা রোগীদের প্রধান লক্ষণ ঠান্ডা, কাশি, জ্বর, শরীর ব্যাথা, খাওয়ার অরুচি।  এই প্রতিটি সমস্যাই  এতটাই পরিচিত যে এই সমস্যাকে অনেক সময় আমরা আগে গুরুত্বই দিতাম না। কিন্তু সম্প্রতি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) রোগ দেখা দেয়ার পর এই লক্ষণগুলোকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। অবশ্যই দেখার পেছনে অনেক যুক্তি আছে। তাই বলে ঠান্ডা কাশি জ্বর  হলেই যদি আমরা ধরে নেই যে আমাদের করোনা ভাইরাস জনিত রোগ হয়েছে, তা কিন্তু মোটেই ঠিক নয়।

সাধারণ ঠান্ডা কাশি  আমাদের দেশে প্রতি বছরই হয়ে থাকে। আমরা কিন্তু এর জন্য বেশির ভাগ সময়েই চিকিৎসকের নিকট যাই না। এমনিতেই ভালো হয়ে যায়। এইবার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থাকায় এই ধরনের রোগীদের সংখ্যাও প্রতিবারের থেকে বেশি। অন্যান্য অনেক কারণে ঠান্ডা-কাশি- গলা ব্যাথা হতে পারে। তার মধ্যে সাধারণ ইনফ্লুয়েঞ্জা অন্যতম। অপরদিকে অনেকেরই কোল্ড এবং ডাস্ট এনার্জি থাকে। অর্থাৎ সামান্য গরম-শীতে এবং ধুলো বালিতে অনেকের ঠান্ডা কাশি শুরু হয়ে যায়। সাধারণত ঋতু পরিবর্তনের সময় এ ধরণের সমস্যা বেশি হয়ে থাকে। আবার জ্বর হলো অনেক রোগেরই সাধারণ লক্ষ্মণ। আমাদের দেশে ভাইরাল ফিভার, টাইফয়েড জ্বর,  ডেংগু জ্বর ইত্যাদি আমরা বেশি পেয়ে থাকি। যেহেতু এখন করোনা মহামারি চলছে তাই আমরা এই ধরনের লক্ষণ থাকলে করোনা পরীক্ষা করাচ্ছি। পরবর্তী চিকিৎসা নির্ভর করছে ঠান্ডা কাশি জ্বরের কারণের উপর। 

করোনারকালীন এই অসুস্থ পৃথিবীতে প্রতিনিয়ত আমরা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ছি৷ অজস্র স্বজনদের হারিয়ে নির্বাক হয়ে পড়ছি নিজের অনুভূতির জগতে৷ কিন্তু চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা শোনাচ্ছেন আশার কথা- তাদের মতে, এই সময়ে কাশি বা জ্বর হলেই বিচলিত না হয়ে চিকিৎসকদের নির্দেশনা মেনে চললে সহজেই মুক্তি মিলতে পারে এই ভয়ানক থাবা থেকে৷ এ অবস্থায় আমাদের করণীয় কী সে বিষয়ে একুশে টেলিভিশনের সঙ্গে কথা বলেছেন ঢাকা মহানগর জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের কনসালটেন্ট এবং মেডিসিন ও বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ ডাঃ রাজীব কুমার সাহা। তথ্য সংগ্রহে ছিলেন- ওয়াহিদ তাওসিফ (মুছা)।  

করোনাকালে ঠান্ডা কাশি হলে আমাদের কী করণীয় সে বিষয়ে ডা. রাজীব কুমার সাহা বলেন,

• আতংকিত না হওয়া। অযথা আতংক বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

• গারগল করার পাশাপাশি ভিটামিন সি জাতীয় খাবার অথবা বাজারে পাওয়া যায় এমন ওষুধ গ্রহন করতে পারেন৷ এক্ষেত্রে সিভিট, এসকোবেক্স,ভাসকো ইত্যাদি গ্রহন করা যায়৷ তবে লেবু বা প্রাকৃতিক ভাবে প্রাপ্ত ভিটামিন সি জাতীয় খাবার গ্রহণ শ্রেয়৷ 

• ঠান্ডা, কাশি, জ্বরের রোগীদের পরিবার এবং কর্মস্থলের সবার থেকে আলাদা করতে হবে।

• করোনা পরীক্ষা করে ফেলতে হবে। রিপোর্ট পজিটিভ আসলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে৷ 

• করোনা পরীক্ষার সাথে সাথে চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী অন্যান্য পরীক্ষা করে দেখতে হবে।

• করোনা টেস্ট নেগেটিভ হলে চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী ঠান্ডা কাশির মেডিসিন গ্রহণ করবেন।

• করোনা পজিটিভ অল্প উপসর্গের রোগীরা সাধারণ মেডিসিন এর মাধ্যমে বাসায় চিকিৎসা নিবেন।

• করোনা পজিটিভ গুরুতর সমস্যার রোগীরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিবেন।

ডা. সাহা আরও জানান, করোনাকালে ঠান্ডা কাশি বা এই ধরনের সমস্যা দেখা দিলে চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আগে রোগ নির্নয় করতে হবে। তারপর রোগ অনুসারে ব্যবস্থা নিতে হবে। অযথা আতংকিত হবেন না। সবাই সচেতন হোন এবং ভালো থাকুন।

এমবি//