ঢাকা, রবিবার   ২৪ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ৮ ১৪২৮

করোনায় বায়ুবাহিত সংক্রমণ থেকে বাঁচতে কী করবেন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:০৮ এএম, ১৮ জুলাই ২০২০ শনিবার

যতদিন যাচ্ছে ততই কোভিড-১৯ নিয়ে নতুন নতুন তথ্য সামনে আসছে। ফলে, মানুষ আরও আতঙ্কিত হয়ে পড়ছে।সাম্প্রতিক এক গবেষণা থেকে জানা গেছে যে, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বাতাসের মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। বিজ্ঞানীরা বাতাসে ভাইরাসের উপস্থিতির সম্ভাবনা প্রকাশ করেছেন এবং তাঁদের এই দাবি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও স্বীকৃতি দিয়েছে।

আমাদের আরও বেশি সতর্ক থাকতে হবে। বাড়ির ভিতরে এবং বাইরে সব জায়গাতেই আরও কেয়ারফুল থাকা দরকার। কারণ এখন করোনা ভাইরাস কেবলমাত্র সংক্রামিত বস্তু এবং ব্যক্তির থেকেই নয়, বাতাস থেকেও ছড়িয়ে পড়ছে।

তাই আমাদেরকে মনে রাখতে হবে, যখন কোনও সংক্রামিত ব্যক্তি হাঁচি বা কাশি দেয় তখন ভাইরাসটি তার দেহ থেকে বাতাসে প্রবেশ করে। এই ভাইরাস বাতাসে বেশ কয়েক ঘন্টা জীবিত থাকে এবং এই বায়ুতে শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া ব্যক্তিকে সংক্রামিত করতে পারে।

১) মাস্ক ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়া যাবে না, সংক্রমণ এড়াতে প্রত্যেকের N95 মাস্ক পরা উচিত। যেখানে কয়েকজন মানুষ একসঙ্গে আছে এমন জায়গায়ও যাওয়া ঠিক নয়, কারণ কখন, কার থেকে, কীভাবে বাতাসে ভাইরাস ছড়াবে তা বুঝতে পারবেন না। তাই ফাঁকা জায়গা বেছে নিতে হবে।  
২) কোনও কারণে বাড়ির বাইরে গেলে ফেস শিল্ড ব্যবহার করা খুবই উপকারি। এর ফলে আপনি বার বার আপনার মুখ স্পর্শ করবেন না এবং সংক্রমণ থেকে দূরে থাকবেন।
৩) স্বাস্থ্যকর্মীরা সামাজিক দূরত্ব অনুসরণ করতে পারলেও সব সময় মাস্ক পরুন, এই ভাইরাস মাত্র পাঁচ মাইক্রন-এর হয়, যদি কোনও সংক্রামিত ব্যক্তি আপনার চারপাশে শ্বাস নেয়, তাহলেও আপনি সংক্রামিত হতে পারেন।
৪) কথা বলার সময়ও ভাইরাস বাতাসে ছড়িয়ে পড়তে পারে তাই কেবলমাত্র মাস্ক ব্যবহার নয়, সামাজিক দূরত্বও এর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কথা বলার সময় এক মিটারেরও বেশি দূরত্ব বজায় রাখুন এবং মাস্ক পরুন।
৫) এয়ার কন্ডিশন আছে এমন পাবলিক প্লেসে একদমই না যাওয়ার চেষ্টা করুন। কম ভেন্টিলেশনযুক্ত কোনও জায়গায়ও যাবেন না। এমন জায়গায় ভাইরাস খুব সহজেই ছড়াতে পারে।
৬ বায়ুচলাচল না করতে পারলে ভাইরাস ঘরের ভিতরেই ঘুরতে থাকে এবং সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায়। তাই বাড়িতে বায়ুচলাচলের ব্যবস্থা রাখুন এই সময় যে ঘরে অবাধে বায়ুচলাচল করে সেইসব ঘর ব্যবহার করুন।

এসইউএ/এসি