ঢাকা, শনিবার   ২৪ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ৯ ১৪২৭

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতারণা (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:২৭ পিএম, ২৮ আগস্ট ২০২০ শুক্রবার

রাহাত খানম তূর্ণা। ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের ২০১১-২০১২ সেশনের ওই ছাত্রী পড়াশোনা শেষ করে নিজেকে উদ্যোক্তা হিসেবে পরিচয় দিতেন। এছাড়া কখনও পরিচয় দিতেন কাস্টমস কর্মকর্তা হিসেবে। তার প্রতারণার সঙ্গী হিসেবে জুটে যায় নাইজেরিয়ার নাগরিকরা। তাদের সঙ্গে নিয়ে ৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন এই তরুণী। অবশেষে ধরা পড়েন তূর্ণা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রতারণার অভিযোগে সম্প্রতি ১২ নাইজেরিয়ানসহ ওই ছাত্রীকে গ্রেফতার করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।   

জানা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে গত কয়েকমাসে প্রায় ১০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি প্রতারক চক্র। আইনশৃংখলা বাহিনীর হাতে কয়েকজন প্রতারক আটকের পর এমন তথ্য বের হয়ে এসেছে। 

প্রথমে সিআইডির ফাঁদে ধরা পড়ে নাইজেরীয় নাগরিকসহ কয়েকজন বিদেশি প্রতারক। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে আটক করা হয় তুর্ণাকে। জিজ্ঞাসাবাদে বের হয় নানা তথ্য। 

জানা যায়, প্রতারণার শিকার হওয়া ব্যক্তিদের পার্সেলের শুল্ক বাবদ মোটা অঙ্কের অর্থ ব্যাংকে জমা দিতে বলতেন তূর্ণা। গিফট গ্রহণ করা না হলে আইনি জটিলতারও ভয় দেখাতেন তিনি। মূলত প্রতারণার শেষ ধাপে কাজ করতেন রাহাত আরা খানম ওরফে তুর্ণা। চক্রটি প্রথমে বিপরীত লিঙ্গের কোনো ব্যক্তির সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে বন্ধুত্ব করতেন। বন্ধুত্বের এক পর্যায়ে একটি ম্যাসেঞ্জার আইডি থেকে পার্সেল গিফট করার প্রস্তাব দেওয়া হত। পরে ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমেই এই পার্সেল বুক করার এয়ারলাইন্স বুকিং ডকুমেন্টও পাঠাতো প্রতারকরা।

তূর্ণা গ্রেপ্তারের পর সিআইডির অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) রেজাউল হায়দার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘গ্রেপ্তারকৃতরা একটি সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য। তারা ফেসবুকে বন্ধুত্বের নামে অনেক লোকের কাছ থেকে দামি উপহারের লোভ দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে আমরা জানতে পেরেছি এই চক্র বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।’

সংশ্লিষ্ট সিআইডি কর্মকর্তা জানান, তাদের প্রতারণার নানা কৌশলের কথা। বলেন, পরিচয় দেয়া হয় আর্মি অফিসার হিসেবে। পরে শুরু হয় ইমোশনাল ব্ল্যাকমেইলিং। আসে সম্পদ দান বা বড় উপহারের প্রসঙ্গ। এটি একটি আন্তর্জাতিক প্রতারক চক্র বলেও জানান এ কর্মকর্তা। বলেন, এদের সমূলে শেষ করা দু:সাধ্য কাজ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপরিচিতদের এড়িয়ে চলা, লটারী বা কোন ধরণে প্রলোভন থেকে বিরত থাকার পরামর্শ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থার।

এসএ/