ঢাকা, রবিবার   ২৯ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৭

শুধু বিল নয় পদ্মফুল সৌন্দর্য বাড়িয়েছে প্রকৃতির (ভিডিও)

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৩:০০ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ শুক্রবার

রাতের আঁধার কেটে সূর্য উঁকি দেয়ার সাথে সাথেই হেসে ওঠে পদ্ম। পাপড়ি মেলে জানান দেয় আপন সৌন্দর্যের। জলজ ফুলের রাণী পদ্ম শুধু বিলের নয় সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিয়েছে প্রকৃতিরও। এমনই দৃশ্যের দেখা মিলেছে গোপালগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লার বিভিন্ন বিলে। এসব বিলে এখন ভিড় করছেন দর্শনার্থীরা। 

খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, বিস্তীর্ণ বিলজুড়ে পদ্মের সমাহার। এরই মাঝে নানান প্রজাতির পাখির উড়া উড়ি। এমন সৌন্দর্য উপভোগে যেতে পারেন গোপালগঞ্জ থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে বলাকইড় গ্রামে। ১৯৮৮ সাল থেকে বর্ষাকালে এ বিলে প্রাকৃতিকভাবে জন্ম নেয় পদ্মফুল। 

বিলে ঘুরতে আসা দর্শনার্থীরা বলেন, ‘এসব প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে আমাদের প্রত্যেকরই আসা উচিত। চলমান করোনা সংকটাবস্থায় যে হতাশা চেপে বসেছিল তার অর্ধেকটাই এখানে এসে শেষ হবে। প্রকৃতির সৌন্দর্যকে কাছে থেকে দেখতে হলে অবশ্যই এ রকম পদ্মবিলে আসা উচিত।’

সৌন্দর্য উপভোগে আসা দর্শনার্থীদের নৌকায় ঘুরিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছে বিল পাড়ের দুই শতাধিক পরিবার। তবে পদ্মবিলে আসার একমাত্র সড়কটি রয়েছে বেহাল অবস্থায়। 

মাঝিরা বলেন, ‘অনেক দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ এখানে ঘুরতে আসেন। এতে করে দৈনিক আয় রোজগার দিয়েই আমাদের পরিবার চলে।’

এদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া ত্রিপুরা সীমান্তবর্তী ঘাগুটিয়া-মিনারকোট পদ্মবিলও সেজেছে অপরূপ সাজে। আর ডিঙ্গি নৌকায় পুরো বিল ঘুরে মনকে প্রশান্ত করছেন প্রকৃতিপ্রেমীরা। 

এ বিলে ঘুরতে আসা কয়েকজন জানান, ‘পরিবারের সবাইকে নিয়ে প্রায়ই এই বিলে ঘুরতে আসি। জায়গাটা দেখতেও অনেক সুন্দর।’

চার রঙে সজ্জিত আরেকটি পদ্মবিল কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার দক্ষিণ গ্রামে। এখানে অন্তত দশ একর জমিজুড়ে প্রশস্ত বিলটি। নীল, সাদা, গোলাপী ও হলুদ রংয়ের পদ্মফুল ফুটে আছে পুরো বিলজুড়ে। বর্ষার শুরু থেকে শরত পর্যন্ত পদ্মফুলে রঙ্গিন থাকে পুরো বিল এলাকা। 

এআই//এমবি