ঢাকা, বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

লোকসংস্কৃতি সংগ্রহ ও সংরক্ষণ কর্মসূচি শুরু

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:৫২ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ মঙ্গলবার

লোকসংস্কৃতি সংগ্রহ ও সংরক্ষণ কর্মসূচির আওতায় ঢাকা বিভাগের ঢাকা, মানিকগঞ্জ, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ গাজীপুর, টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ এই আটটি জেলায় ‘লোকসংস্কৃতি সংগ্রহ ও সংরক্ষণ কর্মসূচি ২০২০’ শুরু হয়েছে।

গ্রামপ্রধান বাংলাদেশের বিশাল জনগোষ্ঠী যুগযুগ ধরে বৈচিত্রময় সংস্কৃতি গড়ে তুলেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে সমৃদ্ধ আমাদেরও লোকসংষ্কৃতি। আমাদের লোকগানের বিশাল ভান্ডারে রয়েছে ভাওয়াইয়া, ভাটিয়ালি মুর্শিদী, মারফতি, বাউলগান, গম্ভীরা, অষ্টক, আলকাপ, ঘাটুগান, পালাগান বিচারগান, কবিগান। এর অনেকটাই কালের আবর্তে হারিয়ে যেতে বসেছে সংগ্রহ ও সংরক্ষণের অভাবে।

মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর ভাবনা ও পরিকল্পনায় লুপ্তপ্রায় লোকসংস্কৃতি সংগ্রহ ও সংরক্ষণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) মানিকগঞ্জ জেলার গীতিকবিদের গান সংগ্রহ দিয়ে এই কর্মসূচি শুরু হয়। পর্যায়ক্রমে ঢাকা বিভাগের অন্যান্য জেলাগুলোতে এই কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে। প্রাথমিকভাবে সাতজন গীতিকারের সাড়ে চার হাজার গানের মধ্য হতে সাড়ে চারশত গান গীত অবস্থায় ধারণ এবং বাকি গান লিখিত আকারে সংরক্ষণ করা হবে। সাতজন গীতিকার হলেন রশীদ সরকার, সাইদুর রহমান বয়াতী, দেওয়ান রশীদ, ভবা পাগলা, গওহর শাহ, কানু শাহ, ইয়াব আলম আল চিশতী।

উল্লেখ্য,‘লোকসংস্কৃতি সংগ্রহ ও সংরক্ষণ কর্মসূচি’শিরোনামে ২০১৬ সালে বাংলাদেশের পাঁচটি অঞ্চল রংপুর বিভাগের আটটি জেলা, বৃহত্তর ফরিদপুরের ৫টি জেলা, বৃহত্তর ময়মনসিংহ ৬টি জেলা, সুনামগঞ্জ জেলা ও ঝিনাইদহ জেলাসহ মোট ২১টি জেলা হতে ১৩,৪৮১টি লোকগান সংগ্রহ করা হয়েছে যা জাতীয় আর্কাইভে সংরক্ষিত রয়েছে।
কেআই//