ঢাকা, বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

নিঃশ্বাসে বিদ্যুৎ ছাড়ে ব্যাকটেরিয়া!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:০৫ পিএম, ১ অক্টোবর ২০২০ বৃহস্পতিবার

বিজ্ঞানীরা নতুন এক অণুর সন্ধান পেয়েছেন, যার সাহায্যে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া নিঃশ্বাসের মাধ্যমে বিদ্যুৎ নির্গত করে। গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন, এই ব্যাকটেরিয়া বিশেষ প্রোটিনে তৈরি নলের মাধ্যমে নিঃশ্বাস ছাড়ে। তবে এই ব্যাকটেরিয়া নিঃশ্বাসের সঙ্গে মানুষের মতো কার্বন ডাইঅক্সাইড নির্গত করে না, এরা নির্গত করে ইলেকট্রন; যা ক্ষুদ্র বৈদ্যুতিক প্রবাহ তৈরি করতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীদের গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। তাদের এ গবেষণা নিবন্ধ নেচার কেমিক্যাল বায়োলজি জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে।

মুখ ও ফুসফুসবিহীন ব্যাকটেরিয়ার জন্য শ্বাস নেওয়া একটু জটিল। আমরা সাধারণত অক্সিজেন গ্রহণ এবং কার্বন ডাইঅক্সাইড নিঃসরণ করে থাকি। কিন্তু জিওব্যাক্টর, ভূগর্ভস্থ পানিতে বসবাসকারী ব্যাকটেরিয়ার একটি শ্রেণি, যারা জৈব বর্জ্যের ওপর নির্ভরশীল, এ ধরনের ব্যাকটেরিয়া ইলেকট্রন নির্গত করে থাকে। এদের থেকে নিঃসরণ হওয়া ইলেকট্রন একটি ক্ষুদ্র বৈদ্যুতিক প্রবাহ তৈরি করে। যা দিয়ে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ইলেকট্রনিকস যন্ত্র চালানো সম্ভব বলে গবেষণায় উঠে এসেছে।

ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক নিখিল মালভঙ্কর বলেন, জিওব্যাক্টর শ্বাসনালির মাধ্যমে সাধারণত তাদের আকারের তুলনায় কয়েকশ গুণ বেশি নিঃশ্বাস নিয়ে থাকে। যে শ্বাসনালিকে বলা হচ্ছে ন্যানোওয়্যার। যদিও ক্ষুদ্র এই তন্তু মানুষের চুলের প্রস্থের চেয়ে এক লাখ গুণ ক্ষুদ্রতর এবং সেগুলো একটি ব্যাকটেরিয়ার দেহে কয়েকশ থেকে কয়েক হাজার গুণ ইলেকট্রন শাটল তৈরি করতে সক্ষম।

অধ্যাপক নিখিল জানান, কীভাবে এই বিদ্যুৎ মাক্রোবিয়াল পাওয়ার গ্রিডে যুক্ত করা যায়- তিনি ও তার সহকর্মীরা তা আবিষ্কার করেছেন। তারা উন্নত মাইক্রোস্কপি কৌশল ব্যবহার করে 'গুপ্ত অণু' আবিষ্কার করেছেন, যা ব্যাকটেরিয়াকে ইলেকট্রন নির্গত করতে সাহায্য করে। এ ধরনের অণুর সন্ধান এর আগে ব্যাকটেরিয়ার মধ্যে পাওয়া যায়নি। 

সূত্র: লাইভসায়েন্স।