ঢাকা, সোমবার   ১০ মে ২০২১,   বৈশাখ ২৬ ১৪২৮

মহামারির বছরে বাড়ল ধনীর সংখ্যা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:১৯ এএম, ৮ এপ্রিল ২০২১ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৬:২১ পিএম, ৮ এপ্রিল ২০২১ বৃহস্পতিবার

মহামারি করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিশ্বের সাধারণ মানুষের জীবন তছনছ হলেও ধনীরা আরো ধনী হয়েছেন, বেড়েছে তাদের আয়, তালিকায় যুক্ত হয়েছে আরো নতুন নাম। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রভাবশালী ফোর্বস ম্যাগাজিন ৩৫তম বছরের মতো ধনকুবেরদের তালিকা প্রকাশ করেছে। বিশ্বে বেড়েছে এখন অতি ধনী ও বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা। এই সময়ে এই সংখ্যা এখন দুই হাজার ৭৫৫ জন। তাদের সম্পদের মূল্য দাঁড়িয়েছে ১৩ দশমিক এক ট্রিলিয়ন বা ১৩ লাখ ১০ হাজার কোটি মার্কিন ডলার।

ফোর্বসের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, করোনা মহামারির মধ্যেই বিশ্বে বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা বেড়েছে ৬৬০ জন। তাদের সম্পদ বেড়েছে ৫ দশমিক এক ট্রিলিয়ন ডলার। এক বছরে এতজন এই শত কোটি ডলারের ক্লাবে এর আগে কখনো ঢুকতে পারেননি। এবার তালিকায় নতুন করে যুক্ত হওয়াদের মধ্যে ৪৯৩ জনই প্রথমবারের মতো বিলিয়নিয়ার হয়েছেন। অর্থাৎ বিশ্বে প্রতি ১৭ ঘণ্টায় একজন ব্যক্তি বিলিয়নিয়ার হয়েছেন। ২০২০ সালে বিশ্বে বিলিয়নিয়ার ছিলেন ২ হাজার ৯৫ জন। যাদের মোট সম্পদের পরিমাণ ছিল ৮ ট্রিলিয়ন বা ৮ লাখ কোটি ডলার। তবে ধনীর তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ২৫০ জন।

দেশভিত্তিক হিসাবে সবচেয়ে বেশি বিলিয়নিয়ার যুক্তরাষ্ট্রে, ৭২৪ জন। তালিকায় এরপরই রয়েছে চীন। দেশটিতে শত কোটি ডলারের মালিক ৬৯৮ জন। আর ভারতে এ সংখ্যা ১৪০ জন। জার্মানিতে ১৩৬ জন। 

তালিকা অনুযায়ী, ধনীদের তালিকায় যথারীতি শীর্ষে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস। তার সম্পদের নিট মূল্য ১৭৭ বিলিয়ন বা ১৭ হাজার ৭০০ কোটি ডলার। গত এক বছরে তার সম্পদ বেড়েছে ৬৪ বিলিয়ন ডলার। ১৫১ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ নিয়ে বেজোসের পর বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ ধনী একই দেশের বৈদ্যুতিক গাড়ি কোম্পানি টেসলার চেয়ারম্যান ইলন মাস্ক।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ফ্রান্স ভিত্তিক ব্যবসায়ী বার্নার্ড আর্নল্ট ও পরিবার। তার নিট সম্পদের পরিমাণ ১৫০ বিলিয়ন ডলার। এক সময়ের বিশ্বের শীর্ষ ধনী ও মাইক্রোসফট প্রধান বিল গেটস ১২৪ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ নিয়ে রয়েছেন চতুর্থ অবস্থানে। ৯৭ বিলিয়ন ডলার তালিকায় পঞ্চম অবস্থানে রয়েছেন ফেসবুকের সহপ্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ। ৯৬ বিলিয়ন ডলার নিয়ে ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ারেন বাফেট। 

সপ্তম ও অষ্টম অবস্থানে যথাক্রমে মার্কিন ধনকুবের ল্যারি এলিসনের ৯৩ বিলিয়ন ডলার ও গুগলের ল্যারি পেজের রয়েছে ৯৩ বিলিয়ন ডলার। নবম অবস্থানে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সের্গেই ব্রিন, তার রয়েছে ৮৯ বিলিয়ন ডলার। ভারতের মুকেশ আম্বানি সাড়ে ৮৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মালিক হিসেবে এই তালিকার দশম স্থানে আছেন। এশিয়ার শীর্ষ ধনী ব্যক্তি তিনি। গত এক বছরে এই দশজনেরই সম্পদ আগের তুলনায় বেড়েছে।

একে//