ঢাকা, সোমবার   ২৬ জুলাই ২০২১,   শ্রাবণ ১১ ১৪২৮

করোনাকালীন উদ্বেগ দূর করতে যোগব্যায়াম

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:৪৩ পিএম, ৯ জুন ২০২১ বুধবার | আপডেট: ১০:৪৩ এএম, ১০ জুন ২০২১ বৃহস্পতিবার

বর্তমান বিশ্বে করোনাভাইরাসের আক্রমণ মহামারী রূপ ধারণ করেছে। ইতোমধ্যে সারা বিশ্বে কয়েক লাখ লোক মৃত্যুবরণ করেছেন। কয়েক কোটি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। পৃথিবীর ইতিহাসে এমন ভয়াবহতা আর দেখা যায় নাই। দীর্ঘদিন ধরে ঘরে আবদ্ধ থাকার কারণে মানুষের মধ্যে হতাশা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। আতঙ্ক মানুষের মানসিক শক্তি ধ্বংস করে। এর ফলে মানুষের শরীর ও মনের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমে যায়। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে মানসিক শক্তি ও শারীরিক যোগ্যতা অর্জন খুবই জরুরি। শরীর ও মনের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতে যোগব্যায়ামের বিকল্প নেই। একমাত্র যোগব্যায়ামই মানুষের শারীরিক ও মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করতে পারে। প্রতিদিন সকাল বা সন্ধ্যায় নিয়মিত যোগব্যায়াম করে মানুষ শারীরিক ও মানসিক ক্ষমতাকে সুস্থ রাখতে পারে।

এই কঠিন পরিস্থিতিতে মন শান্ত রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে যেমন বর্তমান সময়কে মেনে নেয়া যায়, তেমনি সুস্থ থাকার বিষয়টিও সহজ হয়।

এ জন্য বেছে নিতে পারেন যোগব্যায়াম। কেননা শরীর ও মন সুস্থ রাখতে প্রাচীনকাল থেকেই যোগব্যায়াম বা ইয়োগা বেশ জনপ্রিয়।

নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে শুধু শরীর ও মন সুস্থই রাখে না- ওজন কমে, শরীরে রক্ত চলাচল বাড়ে, হৃদরোগের ঝুঁকি কমে। শারীরিক সুস্থতার পাশাপাশি যোগব্যায়ামের দারুণ প্রভাব আছে মনের ওপর। নানা গবেষণায় দেখা গেছে, মানসিক চাপ, দুশ্চিন্তা ও আতঙ্ক নিয়ন্ত্রণে যোগব্যায়াম অত্যন্ত কার্যকর। তাই প্রতিদিনের কর্মতালিকায় যোগব্যায়াম রাখার মাধ্যমে মন এবং শরীরকে শক্তিশালী করে আপনি করানোভাইরাসের চ্যালেঞ্জ কাটিয়ে উঠতে পারেন।

নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে শ্বাসকষ্টের মতো সমস্যা অনেকটা রুখে দেওয়া সম্ভব। 

এবার জেনে নেওয়া যাক যোগব্যায়াম সম্পর্কে-
প্রাণায়াম
সোজা হয়ে বসে ধীরে ধীরে নাক দিয়ে লম্বা শ্বাস নিন। একইভাবে ধীরে ধীরে মুখ দিয়ে শ্বাস ছাড়ুন। এভাবে প্রতিদিন ১৫ থেকে ২০ বার প্রাণায়াম করতে পারেন। এই ব্যায়াম মানসিক অবসাদ দূর করতে সাহায্য করে। তাছাড়া করোনা সংক্রমিত হলে ফুসফুসের সমস্যা প্রকট হয়। এ কারণে চিকিৎসকরা এই সময় ফুসফুসের ব্যায়াম করার পরামর্শ দিচ্ছেন।

উত্তরাসন
উত্তরাসন পদ্ধতিতে ব্যায়ামের জন্য প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়াতে হবে। এবার শরীরের ওপর দিকটি নীচে ঝুঁকে হাত দিয়ে পায়ের পেছনে স্পর্শ করতে হবে। ৫ সেকেন্ড এভাবে 
থেকে আবার সোজা হয়ে দাঁড়াতে হবে। এভাবে প্রতিদিন ৫ বার উত্তরাসন পদ্ধতিতে ব্যায়াম করতে পারেন। এই পদ্ধতিতে ব্যায়াম করলে শরীরে রক্ত চলাচল ঠিক থাকে। এছাড়া মস্তিষ্কের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে।

মেডিটেশন
মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন উদ্বেগ কমাতে সাহায্য করে। মেডিটেশনে মন অনেক বেশি ইতিবাচক হয়। আত্মবিশ্বাস ও স্থিরতা ফিরে আসে। নিয়মিত মেডিটেশন করা এই সময়ের জন্য খুবই জরুরি। কেননা শরীরের মতো মনের যত্ন নেওয়াও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তা থেকেই বড় সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই মন শান্ত রেখে স্বাভাবিকভাবেই পাড়ি দিতে হবে এই কঠিন পরিস্থিতি।

অফিসের কাজ বা পড়াশোনার জন্য যাদের দীর্ঘ সময় ধরে বসে থাকতে হয় তারা প্রায়শই চোখ, ঘাড়, কাঁধ, পিঠ এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে দীর্ঘস্থায়ী ব্যথার কথা বলে থাকেন। বিভিন্ন ওষুধ সাময়িকভাবে এসব ব্যথা দূর করলেও তা আবারও ফিরে আসতে পারে। এসব ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে আপনি যোগব্যায়াম করতে পারেন

করোনার এই দুঃসময়ে অনেকেই অনিদ্রায় ভুগছেন কিংবা মনে বড় কোনো চাপ অনুভব করছেন। এই পরিস্থিতিতে নিদ্রাহীনতা দূর এবং আপনার মানসিক শান্তি দিতে 
পারে যোগব্যায়াম। আপনার প্যারাসিমপ্যাথেটিক স্নায়ুতন্ত্রকে সক্রিয় করে দেহের বিশ্রাম এবং হজম প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে এই ইয়িন যোগব্যায়াম। 

করোনাভাইরাস মহামারি চলাকালীন হাঁচি দেয়ার ঘটনা আপনাকে জনসাধারণের মধ্যে অস্বস্তিতে ফেলতে পারে। এ ক্ষেত্রেও যোগব্যায়াম বেশ কার্যকরি। আপনাকে 
অ্যালার্জিক রাইনাইটিস থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করতে পারে যোগব্যায়াম। 

মোটকথা উদ্বেগ দূর করতে, অতিরিক্ত ওজন কমাতে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে এবং শক্তিশালী শরীর গঠনে যোগব্যায়ামের বিকল্প নেই।

এসএ/