ঢাকা, শনিবার   ১৩ জুলাই ২০২৪,   আষাঢ় ২৮ ১৪৩১

চুল পড়া রোধে করণীয় ও বর্জনীয়

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:২৯ পিএম, ১৯ মার্চ ২০২২ শনিবার

চুলের সঠিক যত্ন নেওয়ার সর্বপ্রথম এবং প্রাচীন পন্থা তেল। এই তেল দেওয়ার জন্য আগের দিনে নানি-দাদীরা আমাদের কতইনা বকতেন! আজ যুগান্তর পেরিয়ে গেলেও চুল পড়ার সমস্যার সমাধান আমরা সেই তেল থেকেই পাই। অনেকের কাছেই চুলের খাবার হিসেবে পরিচিত তেল। চুলের জন্য প্রয়োজনীয় উপাদানগুলো তেল থেকেই পাওয়া যায়। তবে সঠিক তেল নির্বাচন করাটি সবচেয়ে জরুরী।

ছোটবেলা থেকেই আমরা চুলে নারকেল তেল দিয়ে অভ্যস্ত। নারিকেল তেল চুলের জন্য উপকারী বিভিন্ন উপাদানের এক অনন্য বাহক। প্রাকৃতিক গুনাগুণসম্পন্ন খাঁটি নারকেল তেল চুলকে গোড়া থেকে মজবুত করে ও চুলের উজ্জলতা ধরে রাখে। চুল পড়া রোধেও নারকেল তেল ভীষণ কার্যকরী। 

চুল পড়া কমাতে মেথি, আমলকী, অ্যালোভেরা ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এসব উপাদান বাজারে কিনতে পাওয়া গেলেও তা চুলে ব্যবহারের উপযোগী করে তোলাটা একদিকে যেমন ঝামেলাদায়ক, অন্যদিকে সময়সাপেক্ষ। কিন্তু যখন বাজারে বিদ্যমান নারকেল তেলেই এসব প্রাকৃতিক উপাদানের শক্তি মিশ্রিত থাকে, তখন চুলের যত্ন নেওয়া অনেক সহজ হয়ে ওঠে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, প্রতি ১০ জনের মধ্যে ৫ জনই চুল পড়া সমস্যার শিকার। বিশেষ করে নারীরা এতে বেশি ভোগেন। শরীরে পুষ্টিকর খাবারের অভাব, চুলের সঠিক যত্ন না করা, পানিতে ক্লোরিনের পরিমাণ বেশি থাকা ইত্যাদি চুল পড়ার কিছু মূল কারণ। এছাড়া অতিরিক্ত দুশ্চিন্তার ফলেও ঝরে যেতে পারে সাধের চুল। অন্যের ব্যবহৃত টাওয়াল, রুমাল, চিরুনি, কাপড় ইত্যাদি ব্যবহারেও চুল পড়ার ঝুঁকি বাড়তে পারে। 

আজকাল অনেক নারীই যাতায়াতে রাইড শেয়ারিং অ্যাপের মাধ্যমে মোটরসাইকেল ব্যবহার করেন। ফলে, অনেক যাত্রীই রাইডারের কাছে রাখা অতিরিক্ত হেলমেট ব্যবহার করেন, যা তার আগে হয়তো আরও বহু মানুষ মাথায় দিয়েছেন। যথাযথভাবে তা পরিষ্কার করা হয় কিনা, সেটিও জানার উপায় নেই। এর ফলেও চুলের ক্ষতি হতে পারে বা পড়ে যাওয়ার ঝুঁকি বাড়তে পারে।

যে কেউ যেকোন বয়সেই চুল পড়া সমস্যার শিকার হতে পারেন। তাই সবসময় সতর্ক থাকতে হবে। কারণ, চুল মানব শরীরের অন্যতম আকর্ষণ এবং এর যত্নে কোন প্রকার আপোষ করা মোটেই উচিত নয়। তাই চুল পড়ার সম্ভব্য কারণগুলো এড়িয়ে চলার পাশাপাশি ব্যবহার করতে হবে খাঁটি নারকেল তেল। কিন্তু বাজারে হরেক রকম নারকেল তেলের অস্তিত্ব লক্ষ্য করা যায়। এদের মধ্যে কোন তেলটি সবচেয়ে উপকারী হবে তা বুঝে ওঠা মুশকিল। তবে বিশেষ করে নারীদের এই ঝঞ্ঝাট দূর করতে প্রাকৃতিক গুনাগুণে ভরপুর চুলের তেল বাজারে এনেছে প্যারাসুট অ্যাডভান্সড এক্সট্রা কেয়ার।

নারিকেল তেল, এলোভেরা, মেথি ও আমলকীর অনন্য মিশ্রণে তৈরি প্যারাসুট অ্যাডভান্সড এক্সট্রা কেয়ার অ্যান্টি হেয়ারফল অয়েল চুলের যত্নে অনন্য একটি পণ্য। এটি ম্যারিকো বাংলাদেশ লিমিটেডের একটি ফ্ল্যাগশীপ ব্র্যান্ড এবং ম্যারিকো’র সকল পণ্য অত্যন্ত যত্নের সাথে, অত্যাধুনিক প্রযুক্তির সাহায্য প্রস্তুত করা হয়। পাশাপাশি, উৎপাদন থেকে ভোক্তার কাছে পৌঁছানো পর্যন্ত বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে পণ্যের সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করা হয়। প্যারাসুট অ্যাডভান্সড এক্সট্রা কেয়ার অ্যান্টি হেয়ারফল অয়েল’ও এর ব্যতিক্রম নয়। 

এতে আছে চুলের জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রাকৃতিক গুনাগুণ, যা চুল পড়া কমায় মাত্র ৪৫ দিনে। এছাড়া তেলের শিশিতে আছে একটি রুট অ্যাপ্লাইয়ার। এর সাহায্য তেল চুলের গোড়া পর্যন্ত পৌঁছাতে সক্ষম হয় এবং চুলের সেরা যত্ন নিশ্চিত করে। এতোসব সুবিধার পর নিশ্চয়ই চুল পড়া সমস্যার সেরা সমাধান খোঁজার প্রয়োজন নেই!

প্রকৃতির কাছে আমরা চিরকালই ঋণী। দেওয়া-নেওয়ার খেলায় প্রকৃতির কাছে আমরা কৃতজ্ঞ হয়েছি বারবার। তাই চুলের যত্নেও প্রাকৃতিক উপাদানের উপর নির্ভর করাই শ্রেয়।