ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৩ মে ২০২৪,   জ্যৈষ্ঠ ৮ ১৪৩১

শাহী মোরগ পোলাও রেসিপি

কোহিনুর বেগম

প্রকাশিত : ০৫:৩৯ পিএম, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ বৃহস্পতিবার

রন্ধনশিল্পী কোহিনুর বেগমের শাহী মোরগ পোলাও

রন্ধনশিল্পী কোহিনুর বেগমের শাহী মোরগ পোলাও

মোরগ পোলাও পুরান ঢাকায় উৎপন্ন একটি ঐতিহ্যবাহী খাবার, যা বর্তমানে গোটা দেশেই খুবই জনপ্রিয়। এটি মূলত পোলাওয়ের একটি বিশেষায়িত পদ, যেখানে প্রধাণত পোলাওয়ের চালের সঙ্গে মুরগির মাংস ব্যবহার করা হয়। মুরগির মাংস ব্যবহার করার কারণে খাবারের এ পদটির নাম হয়েছে মোরগ পোলাও। 

আর আজ আপনাদের জন্য থাকছে রন্ধনশিল্পী কোহিনুর বেগমের অসাধারণ মজার মোরগ পোলাও রেসিপি। চলুন, তাহলে দেখে নেয়া যাক রেসিপিটি।

উপকরণ:
মোরগ ২টা- ৭০০ গ্রাম ওজনের 
পোলাওয়ের চাউল- ১ কেজি
টক দই- ২ টেবিল চামচ
পেঁয়াজ বেরেস্তা- ২ কাপ
পেঁয়াজ বাটা- ১ কাপ
আদা বাটা- ২ চা চামচ
রসুন বাটা- ২ চা চামচ
কাজুবাদাম বাটা- ২ চা চামচ
পোস্তদানা বাটা- ১ চা চামচ
কিসমিস বাটা- ২ চা চামচ
জয়ত্রী বাটা- ১ চা চামচ
জায়ফল বাটা- ১/৪ চা চামচ
শাহী জিরা- ১/২ চা চামচ
তেজপাতা- ৭টা
দারুচিনি- ৫ টুকরা
এলাচ- ৭টা
দুধ- ২ কাপ
মিষ্টি দই- ১ কাপ
কাঁচা মরিচ- পরিমাণ মতো ঝাল বুঝে
শুকনো মরিচের গুঁড়া- ১ চা চামচ
তেল- পরিমাণ মতো
ঘি- পরিমাণ মতো
চিনি- ১ চামচ
লবণ- পরিমাণ মতো
ফুটানো পানি- পরিমাণ মতো

প্রণালী:
প্রথমে মোরগের মাংসগুলো কেটে ভালো করে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিব। তারপর টক দইয়ের মধ্যে মরিচের গুঁড়া ও লবণ দিয়ে মাংসের টুকরোগুলো ভালো করে মাখিয়ে ২০ মিনিটের মতো মেরিনেট করে রাখব। তারপর কড়াইয়ে তেল দিয়ে তাতে তেজপাতা ৪টা, দারুচিনির ছাল ৪টা, এলাচ ৪টা দিয়ে একটু ভাজাভাজা হয়ে এলে তাতে পেঁয়াজ বাটা, আদা-রসুন বাটা, পেঁয়াজ বেরেস্তা ১ কাপ দিয়ে দিব। পোস্তদানা বাটা, জয়ত্রী বাটা, জায়ফল বাটা, বাদাম বাটা, কিসমিস বাটা, কাঁচা মরিচ- সব মশলা একসাথে দিয়ে মসলাগুলো একটু ভালো করে কষিয়ে নেব। তারপর মেরিনেট করা মাংসের টুকরোগুলো মসলার মধ্যে দিয়ে দিব। মাংসগুলো ভালো করে কষিয়ে তার মধ্যে মিষ্টি দই ও দুধ দিয়ে আরেকটু ৫ মিনিটের মতো রান্না করব। নামানোর আগে সামান্য চিনি ও ঘি দিয়ে নামিয়ে নিব। একটা পাত্রে মোরগের টুকরোগুলো উঠিয়ে রাখবো এবং মোরগের কিছু রান্না মশলা আলাদা করে উঠিয়ে রাখবো।

এবার পোলাও রান্না করবো। পোলাওয়ের চাল ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরাতে দিব। এখন একটা হাঁড়িতে তেল দিয়ে তারমধ্যে তেজপাতা, দারুচিনি, এলাচ, শাহী জিরা হালকা ভেজে নিব। তারপর ঝরানো চালগুলো হাড়িতে দিয়ে দিব। চালগুলো ভালো করে ভাজা হলে তাতে ১ চামচ আদা বাটা দিব। পরিমাণ মতো লবন ও কাঁচা মরিচ দিব। সেইসাথে তুলে রাখা মোরগের রান্নাকরা মসলাগুলো দিয়ে দেব। 

এবার পরিমাণ মতো ফুটানো পানি দিব অর্থাৎ ১ কেজি চালে ডাবল পানি দিব। অবশ্য দুধ দিলে পানির পরিমাণটা একটু কমিয়ে দিব। পোলাওটা যখন মোটামুটি হয়ে আসবে তখন অর্ধেক পোলাও উঠিয়ে রাখবো। এবার মোরগের টুকরোগুলো একটা একটা করে পোলাও এর উপর বিছিয়ে দিব। তারপর একটু বেরেস্তা ও চিনি একসঙ্গে মাখিয়ে পোলাওয়ের উপর দিব। এবার বাকি পোলাও গুলো দিয়ে দিব। আবার চিনি দিয়ে মাখানো বেরেস্তা ও ঘি দিয়ে পোলাওগুলো ঢেকে একটু দমে রাখবো। অবশ্যই হাড়ির নিচে একটি তাওয়া দিয়ে দমে রাখবো।
তারপর গরম গরম পরিবেশন করব।

এনএস//