ঢাকা, বুধবার   ২৪ জুলাই ২০২৪,   শ্রাবণ ৮ ১৪৩১

স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

মেহেরপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ০৩:২২ পিএম, ৭ জানুয়ারি ২০২৩ শনিবার

মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের রিতা খাতুন (৩০) নামের দুই সন্তানের জননীকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্বামী জাকারুলকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার দুপুরে রিতা খাতুনের লাশ নিজ এলাকায় পৌঁছে। এর আগে শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) রাতে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। 

রিতা খাতুন মুজিবনগর উপজেলার আনন্দবাস গ্রামের জাকারুল মল্লিকের  স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, গত ১ জানুয়ারি রাতে পারিবারিক কলহের জের ধরে জাকারুল কাঠ দিয়ে তার স্ত্রী রিতা খাতুনের মাথায় আঘাত করেন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মুজিবনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে নেয়া হয়। 

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাতে (৬ জানুয়ারি) তিনি মারা যান।

নিহতের মা আফরোজা খাতুন জানান, রিতার ছোট ছোট দুটি ছেলেমেয়ে আছে। দুজনই আনন্দবাস গ্রামের সরকাররি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে। মেয়ে জাকিয়া খাতুন এবার পঞ্চম শ্রেণিতে ও ছেলে নয়ন মল্লিক তৃতীয় শ্রেণিতে উন্নিত হয়েছে। সংসার করতে গেলে নানান ঝামেলা থাকে তাই বলে মেয়েটাকে এভাবে মেরে ফেলবে ভাবতে পারিনি। আমি জাকারুলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। 

রিতার ভাই রাজু আহাম্মেদ বলেন, প্রায় সময় বোনটাকে মারধর করতো সে। দুটি ছেলেমেয়ে আছে বুঝিয়ে রেখে আসতাম। আজ একেবারে মেরেই ফেললো। আমি এ হত্যাকাণ্ডের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

মুজিবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদি রাসেল জানান, পরিবারের পক্ষ থেকে রিতার ভাই রাজু আহাম্মেদ বাদি হয়ে শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জাকারুল মল্লিকের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। যার মামলা নং-৩। 

আসামি জাকারুলকে আটক করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

এএইচ