ঢাকা, মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

শাহিদ-কারিনার ব্রেকআপের নেপথ্যে

প্রকাশিত : ১১:৪৪ এএম, ২৮ অক্টোবর ২০১৭ শনিবার | আপডেট: ০৬:০৭ পিএম, ৩১ অক্টোবর ২০১৭ মঙ্গলবার

বলিউডের শাহিদ-কারিনার প্রেমকাহিনী কারোর-ই অজানা নয়। পরিচালক ইমতিয়াজ আলির সুপারহিট ছবি ‘যব উই মেট’মুক্তির পর শাহিদ-কারিনার প্রেমকাহিনী প্রথম প্রকাশ্যে আসে। শুধু প্রেম নয়, দুজনে বিয়ে করছেন এমন খবরও শোনা যায় তখন।

২০০৭ সালের ২৬ অক্টোবর মুক্তি পেয়েছিল বলিউডের হিট জুটি শাহিদ-করিনা অভিনীত ‘যব উই মেট’ ছবিটি। এই ছবির একটি বিশেষত্ব হচ্ছে শাহিদ-কারিনা জুটির প্রেমকাহিনী। কিন্তু হঠাৎ করেই ব্রেকআপ হয় এই জুটির। ভক্তদেরও মন ভেঙ্গে যায় তখন। তবে কি কারণে এমন করুণ পরিনতি হয়েছিলো তা জানা যায়নি এতো দিন।

এতদিন যে বিষয়টি চাপা পড়েছিলো তা এবার প্রকাশ্যে এলো। শাহিদ-কারিনার এই ব্রেকআপের নেপথ্যে নাকি ছিলেন- কারিনার মা ববিতা এবং সাইফ আলী খান।

যখন কারিনা কাপুর ‘হায়দর’ অভিনেতা শাহিদ কাপুরের প্রেমে পাগল, তখন নাকি মা ববিতা বিষয়টি একেবারেই পছন্দ করছিলেন না। তাছাড়া, কারিনা কাপুর বরাবরই সাইফ আলি খানের প্রতি গোপন একটা ভালোলাগা প্রকাশ করে এসেছেন। সেই সময়ে ‘তশান’ ছবিতে কারিনার বিপরীতে ছিলেন সাইফ আলী খান। শ্যুটিংয়ের কারণে তাঁরা একে অপরের সঙ্গে সময়ও কাটাতেন।

এটি নিয়ে আবার মনক্ষুন্ন হন শাহিদ। তিনি ক্রমশ ‘কিশমত কানেকশন’-এর সহ-অভিনেত্রী বিদ্যা বালানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতে শুরু করেন। যদিও বিদ্যার সঙ্গে শাহিদের ঘোরাফেরা নিয়ে খুব বেশি মাথা ঘামাননি কারিনা। কিন্তু শাহিদ-কারিনার এই ব্যক্তিগত সমস্যার মধ্যে বারবার চলে আসেন ববিতা। এরপরই এই সম্পর্ক থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন কারিনা।

যাই হোক, দুজনেই এখন নিজ নিজ ব্যক্তিগত জীবনে খুব সুখী। আশ্চর্য মনে হলেও সত্য, সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর একই ইন্ডাস্ট্রিতে থেকেও একে অপরের সঙ্গে কখনও কথা বলেননি শাহিদ-কারিনা। পাশাপাশি শাহিদ কাপুরের সঙ্গে আবার সইফ আলি খানের সম্পর্ক খুবই ভালো। তাঁরা একে অপরের সঙ্গে কিছুদিন আগেও সিনেমা করেছেন।

সূত্র : টাইমস নাউ

 

এসএ / এআর