ঢাকা, বুধবার   ২৭ অক্টোবর ২০২১,   কার্তিক ১১ ১৪২৮

চুলকানি বিনাশে কাকমারি

প্রকাশিত : ১১:৪৯ এএম, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ শনিবার

কাকমারির রয়েছে অনেক ওষুধী গুণ। ড. তপন কুমার দে তার ‘বাংলাদেশ প্রয়োজনীয় গাছ-গাছড়া’ বইয়ে এর ওষুধী গুণগুলো তুলে ধরেছেন। একুশে টিভি অনলাইনে তা দেওয়া হলো-

১) ফল থেকে ককুলাস ইন্ডিকাস ওষুধ তৈরি হয় যা পক্ষাঘাত, আংশিক পক্ষাঘাত, বেদনানাশক, স্নায়ু বৃদ্ধি ও রক্ত সঞ্চালনে ব্যবহার্য।

২) বীজ প্রচণ্ড বিষাক্ত, বীজ চূর্ণ ২.৬ গ্রামের উর্ধে মানব দেহে প্রবেশ করালে প্রাণঘাতী হয়ে থাকে।

৩) ফলের তিক্ত রস যক্ষাজনিত রাত্রিঘর্ম, কুষ্ঠ, চুলকানি বিনাশ করে।

৪) তাজা পাতার নস্যি সবিরাম জ্বরে উপকারী।

পরিচিতি- একটি লাতানো আরোহী গাছ । কাণ্ড ৩ সে,মি ব্যাস বিশিষ্ট হয়ে থাকে। বাকল কর্কযুক্ত, ধুসর খাড়া খাঁজ বিশিষ্ট, পাতা বৃহৎ ৬-১৬ সে মি, লম্বা ও ডিম্বাকৃতি, গোড়ার দিক হৃদপিন্ডাকৃতির। পাতার নিচের দিক লোমশ ও উপরের দিক মসৃন। ফুল ফিকে সবুজ বা পীত বর্ণের সুগন্ধিযুক্ত। স্ত্রীপুস্পের পাপড়ি পাঁচটি চার থেকে আট সে.মি দীর্ঘ। পুরুষ মাথা গোলাকৃতি। ড্রপি শাখা বিশিষ্ট প্যানিকলে জন্মে। ফল ড্রপ, বৃক্কাকৃতি ও কালচে খয়েরী। ফল খুব তিতা।

বিস্তার- আসাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রামে চিরসবুজ বনে কাকমারি জন্মে।

ফুল ও ফলের সময়- এপ্রিল – মে মাসে ফূল হয় এবং জুন – জুলাই ফল হয়।

 

এসইউ/এসএইচ/