মন্ত্রিসভায় থাকছে বড় চমক
Ekushey Television

মন্ত্রিসভায় থাকছে বড় চমক

তবিবুর রহমান

প্রকাশিত : ০৯:০৩ পিএম, ৪ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার | আপডেট: ০৯:০৭ পিএম, ৪ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার

মন্ত্রিসভায় থাকছে বড় চমক

মন্ত্রিসভায় থাকছে বড় চমক

সদ্য শেষ হওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। ইতোমধ্যে সংসদ সদস্যরা শপথ গ্রহণ শেষ হয়েছে। আগামী সোমবার নতুন মন্ত্রীসভা গঠিত হবে। নতুন মন্ত্রী সভা গঠনের প্রস্তুতি চলছে গণভবনে। তবে থেমে নেই চলছে আলোচনা সমলোচনা।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্রে জানাগেছে, এবারের এই মন্ত্রিসভায় একঝাঁক নতুন মুখ দেখা যেতে পারে। নতুন ও পুরনোদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ বাস্তবায়নের যাত্রা শুরু করবেন।

টানা তৃতীয় মেয়াদের দেশ পরিচালনার প্রধান লক্ষ্য, সরকারকে দল থেকে আলাদা করে চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম ত্বরান্বিত করার পাশাপাশি সুশাসন নিশ্চিত ও দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা আওয়ামী লীগের মূললক্ষ্য হবে।

এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ২৫৯, জাতীয় পার্টি ২০, ওয়ার্কার্স পার্টি ৩, জাসদ ২, বিকল্পধারা ২, তরিকত ফেডারেশন ১, জাতীয় পার্টি (জেপি) ১, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বিএনপি ৫, গণফোরাম ২ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন ৩ আসনে।

গত বৃহস্পতিবার নতুন সাংসদগণ শপথ নেবেন। এর পর রাষ্ট্রপতি শেখ হাসিনাকে সরকার গঠনের জন্য আহ্বান জানাবেন। তিনি হয়তো ৫০ বা ৬০ জনের মন্ত্রিসভা গঠন করতে পারেন। এর মধ্যে জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, বিকল্পধারা, জাতীয় পার্টি (জেপি) থেকে মোট ১০ জন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী বা উপমন্ত্রী নিতে পারেন।

নতুন মন্ত্রিসভা কেমন হবে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচনে আওয়ামী লীগ যেমন বড় জয় পেয়েছে, তেমনি নতুন মন্ত্রিসভাতেও কিছু চমক থাকতে পারে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ইতোমধ্যে নতুন সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনাকে সরকার গঠনের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

শেখ হাসিনার বিদায়ী মেয়াদের সরকারে মন্ত্রীর সংখ্যা অর্ধশতের আশপাশেই ঘোরাফেরা করছিল। নতুন সরকারের সদস্য সংখ্যা কত হবে, সে বিষয়ে কোনো আভাস দলটির শীর্ষ নেতাদের কাছ থেকে পাওয়া যায়নি।

১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে সরকার প্রধানের দায়িত্ব পালন করে আসা শেখ হাসিনা ২০০৯ সালে সরকার গঠনের সময় নতুনদের প্রাধান্য দিয়েছিলেন। পরের মেয়াদে তিনি মন্ত্রিসভায় ফিরিয়ে এনেছিলেন প্রবীণ নেতাদের অনেককে।

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম সাংবাদিকদের বলেছেন, ইতোমধ্যে সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণ শেষ হয়েছে। আগামী সোমবার মন্ত্রিসভা গঠন করা হবে। আশা করি মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ আসবে।

গণভবন সূত্র জানিয়েছে, বর্তমান মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্য থেকে বেশ কয়েকজনের নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে গত পাঁচ বছরের মূল্যায়নে যাঁদের পারফরম্যান্স খারাপ তাঁরা সবাই বাদ পড়বেন। সে ক্ষেত্রে বয়স এবং দলীয় পদ বিবেচনায় নেওয়া হবে না বলে জানা গেছে।

এর আগে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ১২ জানুয়ারি গঠিত হয়েছিল নতুন মন্ত্রিসভা। তখন শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করে ৪৮ সদস্যের মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়েছিল।

 

টিআর/