ঢাকা, সোমবার   ২৬ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ১০ ১৪২৬

শেষবারের মত বিশ্বকাপে খেলছেন যারা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১২:১৫ পিএম, ২৭ মে ২০১৯ সোমবার | আপডেট: ১২:৫৯ পিএম, ২৭ মে ২০১৯ সোমবার

আর মাত্র তিনদিন পরই রাণীর দেশে গড়াবে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর। দেশের হয়ে বিশ্বমঞ্চে পারফর্ম করতে উন্মুখ থাকেন যে কোনও খেলোয়াড়। খেলতে পেলে সেটাকে পরম পাওয়া মনে করেন তারা। তবে এবারের আসর দিয়ে শেষ হতে চলেছে অনেক ক্রিকেটারের বিশ্বকাপ অধ্যায়। সেই তালিকায় রয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজাসহ আরও অনেকে। চলুন এক নজরে জেনে নেওয়া যাক-

মাশরাফি বিন মুর্তজা

এ নিয়ে ৩টি বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা হয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার। আর বিশ্বকাপের গত আসরে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন এ ফাস্ট বোলার। এবারের বিশ্বকাপেও নেতৃত্বের গুরুভার নড়াইল এক্সপ্রেসের কাঁধে। কিন্তু ইংল্যান্ডের এই আসরই শেষ বিশ্বকাপ হতে চলেছে টাইগারদের দলপতির জন্য। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে মাশরাফি নিজ মুখেই জানিয়ে দিয়েছেন এই কথা।

মহেন্দ্র সিং ধোনি

সারা বিশ্বের ক্রিকেটারদের মধ্যে তিনি এই মুহূর্তে সবচেয়ে ফিট বলে মনে করা হচ্ছে। তবে ৪০-এর দিকে এগোচ্ছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। তাই ২০১৯ সালের বিশ্বকাপটাই ধোনির শেষ বিশ্বকাপ হতে চলেছে। ভারতকে ২০১১ বিশ্বকাপে ভারতকে জেতানো এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান এখন পর্যন্ত ৩টি বিশ্বকাপে অংশ নিয়ে খেলেছেন ২০ ম্যাচ। এর মধ্যে দলকে দু’বার বিশ্বসেরার মঞ্চে প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি।

ক্রিস গেইল

এর আগে ৪টি বিশ্বকাপ খেলেছেন ক্রিস গেইল। ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং দানবের জন্য এবারই হতে চলেছে শেষ বিশ্বকাপ।

লাসিথ মালিঙ্গা

বিশ্বকাপে একমাত্র বোলার হিসেবে দুদুটি হ্যাটট্রিক করার রেকর্ড রয়েছে লাসিথ মালিঙ্গা। আগের ৩টি বিশ্বকাপ খেলা মালিঙ্গার জন্য এটা হতে চলেছে শেষ বিশ্বকাপ। ৩৫ বছর বয়সী এই পেসার বিশ্বকাপে মোট ২২টি ম্যাচ খেলে উইকেট শিকার করেছেন ৪৩টি।

রস টেলর

বিশ্বমঞ্চে দলকে কখনও নেতৃত্ব দেওয়ার সৌভাগ্য হয়নি টেলরের। তবে ব্যাট হাতে প্রতিবার দলের সেরাদের একজন ছিলেন ৩টি বিশ্বকাপ খেলা এই সাবেক এই কিউই অধিনায়ক।

শন মার্শ

প্রথম বিশ্বকাপেই শেষ বিশ্বকাপ হতে চলেছে মার্শের জন্য। ৩৫ বছর বয়সী অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানের অসিদের হয়ে এই বয়সে বিশ্বকাপ খেলাও বা কম গর্বের কিসে!

ইমরান তাহির

এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে বয়স্ক ক্রিকেটার হিসেবে খেলতে যাচ্ছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ইমরান তাহির। এই বয়সেও শুধু ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের জোরে বিশ্বকাপ দলে নিজের জায়গা নিশ্চিত করেছেন ৪০ বছর বয়সী এই লেগ-স্পিনার। এর আগে দুটি বিশ্বকাপ খেলা তাহির বিশ্বকাপে বেশ সফল বোলারদের একজন।

জেপি ডুমিনি

২০১১ ও ১৫ বিশ্বকাপ খেলা জেপি ডুমিনির জন্য ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ হতে চলেছে নিজের ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ। ৩৫ বছর বয়সী দক্ষিণ আফ্রিকার এই অলরাউন্ডার ১৩ ম্যাচে অংশ নিয়ে ১২ ইনিংস খেলেছেন। তার ব্যাট থেকে এসেছে ৩৮৮ রান।

ডেল স্টেইন

৩৬ বছর বয়সী ডেল স্টেইনও জানিয়ে দিয়েছেন এটাই হতে চলেছে তার শেষ বিশ্বকাপ। ২০০৫ সালে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হলেও এই প্রোটিয়া বোলার খেলেছেন কেবল ২টি বিশ্বকাপ। দুই বিশ্বকাপে ১৪ ম্যাচ খেলে বিধ্বংসী পেসারের উইকেটসংখ্যা ২৩। সেরা বোলিং ফিগার ভারতের বিপক্ষে, ৫/৫০।

হাশিম আমলা

দক্ষিণ আফ্রিকার আরও একজন ক্রিকেটার। যার জন্য

দুটি বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া দক্ষিণ আফ্রিকার আরও একজন ৩৬ বছর বয়সী ক্রিকেটারের জন্য আসন্ন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপই হতে চলেছে শেষ বিশ্বকাপ। ওপেনিং ব্যাটসম্যান হাশিম আমলার প্রোটিয়াদের হয়ে ১৫ ম্যাচ খেলে ৪২ দশমিক ৬০ গড়ে করেছেন ৬৩৯ রান। আছে ৩টি ফিফটি এবং ২টি হাফ-সেঞ্চুরি।  

শোয়েব মালিক

১৯৯৯ সালে রঙিন পোশাক গায়ে জড়িয়েছেন পাকিস্তানের শোয়েব মালিক। তবে এখন পর্যন্ত মাত্র ১টি বিশ্বকাপ খেলার সৌভাগ্য হয়েছে ৩৮ বছর বয়সী এই ক্রিকেট তারকার। সুতরাং, এটাই যে মালিকের ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

মোহাম্মদ হাফিজ

গত বিশ্বকাপ না খেললেও ২০০৭ ও ২০১১ বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা আছে মোহাম্মদ হাফিজের। এই দুই বিশ্বকাপে মোট ১০ ম্যাচ খেলে একটিমাত্র ফিফটির সাহায্যে নিজের পাশে ২৩০ রান যোগ করেছেন এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। এদিকে বল হাতে ১১ উইকেট শিকার করার সুখস্মৃতিও আছে এই অলরাউন্ডারের। তবে বিশ্বকাপের পর পুরোপুরি হয়তো ব্যাট-প্যাড জোড়াও তুলে রাখবেন তিনি।

লিয়াম প্লাঙ্কেট

৮২টি ওয়ানডে খেলা লিয়াম প্লাঙ্কেট কেবল ২০০৭ বিশ্বকাপই খেলতে পেরেছেন। ৩৪ বছর বয়সী এই পেসারের বল হাতে সেবার বলার মতো তেমন কিছু করতে না পারলেও তার ঝুলিতে আছে ৪ উইকেট।

হামিদ হাসান

একের পর এক ইনজুরিতে আক্রান্ত হওয়া ৩১ বছর বয়সী পেসার হামিদ হাসান এই বিশ্বকাপ শেষেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন বলে ইতোমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন। এর আগে, ২০১৫ বিশ্বকাপেও আফগান দলে ছিলেন হামিদ হাসান। ওই আসরে আফগানদের হয়ে ৬টি ম্যাচেই মাঠে নামেন এই পেসার।

মোহাম্মদ নবী

বিশ্বকাপে আফগানিস্তান প্রথম অংশ নেয় ২০১৫ সালে। আর আফগানদের ক্রিকেটের উত্থান থেকে দলটির সঙ্গে আছেন মোহাম্মদ নবী। তবে দেখতে দেখতে বয়স এখন প্রায় ৩৫! সুতরাং, জাতীয় দলের হয়ে এটাই হতে চলেছে নবীর শেষ বিশ্বকাপ।