ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬

জেনে নিন কোন দেশে কখন বাজেট ঘোষণা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:২১ পিএম, ১২ জুন ২০১৯ বুধবার

বাংলাদেশে জুলাই মাস থেকে জুন মাস পর্যন্ত সময়কে অর্থবছর ধরা হয়। অনেকের ধারণা, পাশ্চাত্যের সঙ্গে তাল মেলাতে গিয়েই এ সময়কে অর্থবছর রাখা হয়েছে! বাস্তবে এ ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। আসুন জেনে নেয় পাশ্চাত্যসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলিতে বাজেট ঘোষণার সময়।

যুক্তরাজ্যে অর্থবছর শুরু হয় ৬ এপ্রিল। যুক্তরাষ্ট্রে ১ অক্টোবর শুরু হয় অর্থবছর। মার্কিন মুলুকের অন্যান্য দেশেও অক্টোবর-সেপ্টেম্বর অর্থবছর। আর পাকিস্তান ছাড়া এ অঞ্চলের খুব কম দেশেই জুলাই থেকে অর্থবছর গণনা করা হয়।
আমাদের প্রতিবেশী ভারত ও মিয়ানমারে অর্থবছর শুরু হয় ১ এপ্রিল। হংকং, জাপান ও সিঙ্গাপুরেও তাই। শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, চীন ও তাইওয়ানে অর্থবছর শুরু হয় ১ জানুয়ারি।

মোগল সম্রাট আকবর ভারতবর্ষের সেরা সুবা বাংলায় পহেলা বৈশাখ থেকে অর্থবর্ষ গণনার প্রথা প্রবর্তন করেছিলেন মূলত রাজস্ব আহরণ তথা অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে। তিনি ১৫৫৬ খ্রিস্টাব্দে নতুন সনের প্রবর্তন করেছিলেন দিল্লিতে। তখনই আঞ্চলিক পর্যায়ে বাংলা সন গণনা শুরু হয়েছিল। ওয়েস্টমিনস্টার পদ্ধতিতে পরিচালিত ভারতে ব্রিটিশ সরকারের প্রথম বাজেট আইন সভায় পেশ করা হয়েছিল ৭ এপ্রিল, ১৮৬০। অর্থবছরের ধারণাটা তখনো বাংলা সনের অনুগামী রাখার পক্ষপাতী ছিলেন ভারতবর্ষের প্রথম অর্থমন্ত্রী ও বিচক্ষণ অর্থনীতিবিদ জেমস উইলসন। এপ্রিল থেকেই তাঁর বাজেটটির বাস্তবায়ন শুরু হয়ে গিয়েছিল, যার সাযুজ্য ছিল প্রচলিত বাংলা সনের সঙ্গে। এর মাত্র তিন মাসের মাথায় ডিসেন্ট্রিতে ভুগে মারা যান জেমস উইলসন। পরবর্তী চার বছর বাজেট এপ্রিল-মে এমনকি জুন মাসে উপস্থাপিত হলেও ১৮৬৫ সাল থেকে স্থায়ীভাবে ১ এপ্রিল থেকে অর্থবছর শুরু করার বিধান কার্যকর হয়। ব্রিটিশ শাসন বাংলা-বিহার-ওড়িষা থেকে গোটা ভারতবর্ষে বিস্তৃত হতে থাকলে বিশেষ করে রাজধানী কলকাতা থেকে দিল্লিতে স্থানান্তরিত হলে ব্রিটিশ ভাবধারায় অর্থবছর আলাদাভাবে গণনার রেওয়াজ চালু হয়।

১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পর নতুন ভারত প্রজাতন্ত্র ১ এপ্রিল থেকে ৩১ মার্চ অর্থবছর অনুসরণে ফিরে গেলেও পাকিস্তান জুলাই-জুন অর্থবছর চালু রাখে। সে সময় পশ্চিম পাকিস্তানের কৃষি বা উৎপাদন মৌসুম অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড—সব কিছুই ছিল পূর্ব পাকিস্তান থেকে ভিন্ন। সে কারণে জুলাই-জুন অর্থবছর সাব্যস্ত করার ক্ষেত্রে পাকিস্তানের সিদ্ধান্তই ছিল চূড়ান্ত।

আরকে//