ঢাকা, শুক্রবার   ১৮ অক্টোবর ২০১৯,   কার্তিক ৩ ১৪২৬

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলেই দেশের উন্নয়ন হয় : কৃষিমন্ত্রী

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:১৮ পিএম, ৭ জুলাই ২০১৯ রবিবার

কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার যখনই ক্ষমতায় আসে তখনই দেশের উন্নয়ন হয়। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর খাদ্য ঘাটতির দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে এবং অবকাঠামো উন্নয়নসহ সার্বিক উন্নতি হয়েছে।

তিনি বলেন, ২০০৮ সাল থেকে বর্তমান মেয়াদ পর্যন্ত সরকার সব ক্ষেত্রে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে। সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা’র (এমডিজি) অধিকাংশ লক্ষ্য অর্জন হয়েছে। এখন টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের পালা।

আজ রোববার রাজধানীর নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে ‘ইন্টারন্যাশনাল সিম্পোজিয়াম, এগ্রিকালচার ইনোভেশন : এ পাথওয়ে টু সাসটেইনএবল ডেভলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ইউনিভার্সিটির অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম ইসমাইল হোসেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইউনিভার্সিটির ভিজিটিং প্রফেসর ড. নজরুল ইসলাম।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের কৃষি প্রকৃতি নির্ভর, প্রকৃতির সাথে লড়াই করে আমাদের কৃষকরা আমাদের খাবারের যোগান দেয়। এক সময় দেশ ছিল খাদ্য ঘাটতির দেশ, মঙ্গা কবলিত দেশ। আর এখন খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশ এবং মধ্যম আয়ের দেশ। আমরা ২০৩০ সালে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখি ।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারে কৃষি বিষয়ক অঙ্গীকার ছিল নিরাপদ খাদ্য, পুষ্টি নিশ্চয়তা ও কৃষির আধুনিকায়ণ। কৃষি উৎপাদন খরচ কমাতে কৃষিকে যান্ত্রিকীকরণ করতে হবে। ইতোমধ্যে সরকার এ ব্যাপারে নীতিগত সিদ্বান্ত গ্রহণ করেছে এবং কাজ চলমান রয়েছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, কৃষি যান্ত্রিকীকরণের লক্ষ্যে সরকার কৃষি যন্ত্রে সর্বনিম্ন ৫০ শতাংশ এবং সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ প্রণোদনা দিয়েছে, সারের মূল্য ৩ দফায় কমিয়েছে এবং সেচে প্রণোদনা দেয়া হয়েছে। ইনশাল্লাহ শেখ হাসিনা সরকারের দেয়া সব ওয়াদা পূরণ করা হবে।

ড. রাজ্জাক বলেন, আমাদের উৎপাদিত পণ্য বিক্রি হচ্ছে স্থানীয় বাজারে। কৃষি লাভজনক করতে হলে রপ্তানির কোন বিকল্প নেই। এখন আমাদের খাদ্য প্রক্রিয়াজাত, মূল্য সংযোজন, সংরক্ষণ এবং রপ্তানির দিকে গুরুত্ব দিতে হবে। দেশে এখন বিনিয়োগের ভালো পরিবেশ রয়েছে। এছাড়াও, ১শ টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলা হচ্ছে যেখানে নিশ্চিন্তে বিনিয়োগ করা যাবে। তিনি বিদেশী বিনিয়োগকারিদেরকে এখানে বিনিয়োগ করার আহবান জানান।

এসি