ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬

সেমিফাইনালে বাদ শামি! বিস্মিত ভারতীয় কোচ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৬:১৪ পিএম, ৯ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার

চলতি বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে মোহাম্মদ শামিকে ছাড়াই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামল বিরাট কোহালির দল। ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের এই সিদ্ধান্ত দেখে রীতিমতো অবাক শামির কোচ বদরুদ্দিন সিদ্দিকি। কেন যে শামিকে প্রথম একাদশে রাখা হল না, তাই বোধগম্য হচ্ছে না বদরুদ্দিনের।

মঙ্গলবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে তিনি বললেন, ‘সেমিফাইনালে ভারতের দল দেখে আমি খুবই অবাক হয়েছি। এ রকম একটা ম্যাচে শামিকে দরকার ছিল।’

এবারের বিশ্বকাপে প্রথম দিকে সুযোগ পাননি শামি। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বল করার সময়ে চোট পান ভুবনেশ্বর কুমার। তাতেই কপাল খোলে তার, ঢুকে পড়েন দলে। আর প্রথম ম্যাচেই ম্যাজিক। আফগানদের বিরুদ্ধে রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে হ্যাটট্রিক-সহ চার উইকেট নেন শামি। উইন্ডিজের বিরুদ্ধে পরের ম্যাচেও অব্যাহত থাকে শামির আগুনে বোলিং। ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধেও শামির ঝুলিতে চার-চারটি উইকেট।

এ দুই ম্যাচে বল হাতে দুরন্ত বোলিং করলেও, একটাতেও ম্যাচের সেরা করা হয়নি তাকে। তা নিয়েও কম কালি খরচ হয়নি। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারত হেরে গেলেও, পাঁচ-পাঁচটি উইকেট নিয়ে সেরা বোলারের তালিকায় উপরের দিকে উঠে আসেন শামি। ৪ ম্যাচে ১৪ উইকেট নিয়ে ব্যাটসম্যানদের রাতের ঘুম কেড়ে নিচ্ছিলেন।

এমনই পরিস্থিতিতে গ্রুপের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে বিশ্রাম দেয়া হয় তাকে। সেমিফাইনালের আগে দেখে নেয়া হয় ভুবিকে। চোট থেকে ফিরে ভুবি ১০ ওভারে ৭৩ রান দিয়ে উইকেট পান মাত্র একটি। তবুও শেষ চারের ম্যাচে প্রথম একাদশে রাখা হল ভুবিকে।

এ বিষয়ে কোচ বদরুদ্দিন বলছেন, ‘শুরুর দিকে এই পিচে বোলাররাই সুবিধা পাবে। এ রকম পিচে শামির পেসটা দরকার ছিল। ঘন্টায় ১৪০-১৪৫ কি.মি. বেগে ধেয়ে আসা বল খেলতে সমস্যায় পড়বে যে কোনও ব্যাটসম্যানই। আমার মনে হয় বড় ঝুঁকি নিয়ে ফেললো ভারত।’

এদিকে কোচ বদরুদ্দিনের সমালোচনা করে পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন অধিনায়ক লক্ষ্মীরতন শুক্লা বলছেন, ‘একটা কিছু চিন্তাভাবনা করেই তো প্রথম একাদশ বেছে নেয়া হয়েছে। এতদূর থেকে ভারতীয় দলের সিদ্ধান্ত নিয়ে মন্তব্য করা উচিত নয়।’

এনএস/কেআই