ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১২ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ২৮ ১৪২৬

ফাইনালের পথে ইংল্যান্ড

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৯:৩৮ পিএম, ১১ জুলাই ২০১৯ বৃহস্পতিবার

এজবাস্টনে ফাইনালের লড়াইয়ে চলছে ইংলিশ শো। অজিদের দেয়া ২২৪ রানের মাঝারি লক্ষ্যকে একেবারে মামুলীই বানিয়ে ফেলেছেন দুই ইংলিশ ওপেনার জেসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো। এ দুজনের ১২৪ রানের ঝোড়ো জুটিতে বড় জয়ের গন্ধই পাচ্ছে ইংলিশরা।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ২৩ ওভারে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ২ উইকেটে ১৫৮ রান। জো রুট ২৩ রানে এবং মরাগান ৫ রানে ক্রিজে আছেন।

ফিফটি হাঁকিয়ে সেঞ্চুরির লক্ষ্যে ছুটতে থাকা ইংলিশদের `সৌভাগ্য` ফেরানো ওপেনার জেসন রয় আউট হন ৮৫ রান করে। সাজঘরে ফেরার আগে মাত্র ৬৫ বল খেলে নয়টি চার ও পাঁচটি বিশাল ছক্কা হাঁকান রয়। এতেই বোঝা যায়, অজি বোলারদের উপর কি পরিমাণ চড়াও ছিলেন এই ডানহাতি ওপেনার।

এর আগে রয়ের সঙ্গে ১০৪ বলে ১২৪ রানের ঝোড়ো জুটি গড়ে স্টার্কের শিকার হয়ে ফেরেন আরেক ওপেনার জনি বেয়ারস্টো। লেগ বিফোর হয়ে ফেরার আগে ৪৩ বলে পাঁচ বাউন্ডারিতে ৩৪ রান করেন জনি। তার আগে অল্প পুঁজি টপকাতে গিয়ে অজি বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলায় মাতেন দুই ওপেনার।

অন্যদিকে, ইংলিশ বোলারদের তোপের মুখে শুরুতেই তিন উইকেট হারিয়ে বিপর্যয়ে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। তবে এ্যালেক্স ক্যারিকে নিয়ে শতাধিক রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় কাটিয়ে প্রতিরোধ গড়েন স্টিভ স্মিথ। মূলত তার ব্যাটে চড়েই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২২৩ রানের মাঝারি স্কোর গড়ে অস্ট্রেলিয়া। তবে ফাইনালে যেতে হলে স্টার্ক-কামিন্সদের সামলে ২২৪ রান করতে হবে স্বাগতিকদের।

এর আগে চলতি দ্বাদশ ক্রিকেট বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হয় স্বাগতিক ইংল্যান্ড। এজবাস্টনে ফাইনালের এ লড়াইয়ে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। যার ফলে আর্চার-ওকসদের বিপক্ষে এ ম্যাচে অজিরা যে কঠিন অগ্নি পরীক্ষায় পড়তে যাচ্ছে, সেটা আগেই বোঝা গিয়েছিলো।

হয়েছেও তাই। ব্যাটিংয়ের শুরু থেকেই ওই আর্চার-ওকসদের তোপের মুখে পড়ে অজিরা। ১৪ রানেই হারায় তিন টপ অর্ডারকে। বিপর্যয়ে পড়ে অজিরা। সেই বিপর্যয় থেকে আর উঠে দাঁড়াতে পারেনি বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। তবে চতুর্থ উইকেট জুটিতে উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান এ্যালেক্স ক্যারিকে নিয়ে শতাধিক রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় কাটিয়ে যা একটু প্রতিরোধ গড়েন স্টিভ স্মিথ।

তবে আদিল রশিদের ঘূর্ণিতে ক্যারি ৪৬ রান করে আউট হলে ভাঙে সে প্রতিরোধ। এরপর একাই লড়াই চালিয়ে দলের রানকে দুইশ পার করান সাবেক ক্যাপ্টেন স্মিথ। রান আউটের কাটা পড়ে ৮ম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফেরার আগে খেলেন ৮৫ রানের লড়াকু ইনিংস। ১১৯ বলে ছয় বাউন্ডারিতে ওই রান করেন স্মিথ। মূলত তার ব্যাটেই ইংলিশদের বিপক্ষে ২২৩ রানের সংগ্রহ পায় অস্ট্রেলিয়া।

স্মিথ-ক্যারি ছাড়া ম্যাক্সওয়েলের ২২ এবং শেষ দিকে মিচেল স্টার্কের এক ছয়ে এক চারে করা ২৯ রানই ছিল অজি ইনিংসের উল্লেখযোগ্য দিক।

এর আগে আউট হওয়া অপর ব্যাটসম্যানরা হলেন- ফিঞ্চ (০), ওয়ার্নার (৯), হ্যান্ডসকম্ব (৪) এবং স্টয়নিস (০)। ইংলিশদের হয়ে আদিল রশিদ ও ক্রিস ওকস তিনটি করে এবং জোফরা আর্চার ২টি উইকেট লাভ করেন।

এনএস/আরকে