ঢাকা, বুধবার   ২২ জানুয়ারি ২০২০,   মাঘ ৮ ১৪২৬

সৌদি প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান করা হবে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:২২ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৯ মঙ্গলবার | আপডেট: ১১:২৮ পিএম, ২০ আগস্ট ২০১৯ মঙ্গলবার

বাংলাদেশের প্রায় এক কোটি নাগরিক বিশ্বের ১৬০টি দেশে চাকরি সূত্রে অবস্থান করছে। প্রবাসীদের অনেকের নেই কোন ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা ভোটাধিকার। দেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি গোল্ডেনবয় হিসেবে পরিচিত এই প্রবাসীদের নিজ দেশেই পরবাসী হয়ে থাকতে হচ্ছে। নির্বাচন কমিশন প্রবাসীদের ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র দিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা।
 
বাংলাদেশ কনসাল জেনারেল কর্তৃক আয়োজিত সৌদিআরব প্রবাসী বাংলাদেশিদের এনআইডি(জাতীয় পরিচয়পত্র) প্রদান বিষয়ক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। 

তিনি বলেন, প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র খুব জরুরি। বাংলাদেশের প্রত্যেক ক্ষেত্রে এখন এনআইডি কার্ড ছাড়া কোন কাজ করা সম্ভব নয়।সেই লক্ষ্যে প্রবাসীদের এনআইডি কার্ড দিতে প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন। সেজন্য প্রবাসীদের অনলাইনের মাধ্যমে ফরম পূরণ করে কনস্যুলেট অফিস বা দূতাবাস জমা দিতে হবে।

এরপর দূতাবাস বাংলাদেশে তাদের স্থায়ী ঠিকানা অনুযায়ী জেলাভিত্তিক প্রাথমিক তালিকা প্রস্তুত করে পাঠাবে ইসির কাছে।ইসি জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার মাধ্যমে তা যাচাই-বাছাই করবে।প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়া হবে।

এ কে এম হুদা আরও বলেন, প্রবাসী ও কমিটির নেতৃবৃন্দ খেয়াল রাখতে হবে যাতে করে রোহিঙ্গা বা অন্য কোন গোষ্ঠী যেন এই সুবিধা গ্রহণ করতে না পারে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নুরুল হুদা বলেন, কয়েকটি দেশের দূতাবাসে পাসপোর্ট করার ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু একই কায়দায় জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়া কঠিন। পাসপোর্ট ডাটা বেইজ এর সাথে নির্বাচন কমিশনের ডাটা বেইজ এক নয় তাই পাসপোর্ট ডাঁটা বেইজ দিয়ে এনআইডি কার্ড দেওয়া খুব কঠিন বলে মনে করেন তিনি।

খুব শিগগিরই প্রবাসীদের জাতীয় পরিচয় পত্র প্রদান করা হবে সেই লক্ষ্যে দূতাবাস ও কনস্যুলেট জেনারেল কার্যালয়গুলোতে এ বিষয়ে বিশেষ ডেস্ক স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল এফএম বোরহান উদ্দিন এর সভাপতিত্বে এতে আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সহধর্মিণী মিসেস হুদা,রিয়াদ দূতাবাসের দুইজন কর্মকর্তা, জেদ্দা কনস্যুলেট কর্মকর্তা, প্রবাসী কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিনিধিগণ।
কেআই/