ঢাকা, শুক্রবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৬

স্যামসন এইচ চৌধুরীর জন্মদিন আজ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৩৮ এএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ বুধবার | আপডেট: ০৮:৩৯ এএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ বুধবার

স্কয়ার গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা স্যামসন এইচ চৌধুরীর ৯৩তম জন্মদিন আজ। দেশের শীর্ষস্থানীয় এ শিল্পোদ্যোক্তা ১৯২৫ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর বর্তমান গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। পরে তিনি পাবনার আতাইকুলা গ্রামে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। তিনি মৃত্যুবরণ করেন  ৮৬ বছর বয়সে।

দেশের শিল্প খাতের এই অগ্রনায়ক তার পেশাজীবন শুরু করেছিলেন ওষুধের দোকান দিয়ে। এর পর তিনি ১৯৫৮ সালে আরও তিন বন্ধুর সঙ্গে প্রতিষ্ঠা করেন স্কয়ার ফার্মা। সেই কারখানা আজ পরিণত হয়েছে দেশের অন্যতম বৃহৎ ওষুধ শিল্প প্রতিষ্ঠানে, যা এখন বিশ্বব্যাপী স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড নামে পরিচিত। তিনি শুধু ওষুধ ব্যবসায় আটকে থাকেননি। দূরদৃষ্টিসম্পন্ন এই মানুষটি ২০১২ সালের ৫ জানুয়ারি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত এক এক করে বস্ত্র, ভোগ্যপণ্য, প্রসাধন, হাসপাতাল, কৃষিপণ্য, গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন খাতে প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। স্কয়ার বর্তমানে বাংলাদেশে প্রধানতম শিল্প গ্রুপ।

নিজের ব্যবসায় মনোযোগ দেওয়ার পাশাপাশি পুরো ব্যবসা খাতের উন্নয়নে কাজ করেছেন স্যামসন এইচ চৌধুরী। তিনি বিভিন্ন সময়ে ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের বিভিন্ন সংগঠনের দায়িত্বশীল পদে থেকে শিল্প-বাণিজ্য খাতের সমস্যা সমাধান ও সম্ভাবনা কাজে লাগানোর উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটান চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি ছিলেন। ছিলেন এফবিসিসিআইর পরিচালক, আসিসিবির সহসভাপতি, ফ্রান্স বাংলাদেশ চেম্বারের সদস্য, সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি এজেন্সি অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান পদসহ বিভিন্ন গুরুত্বপর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়া সামাজিক কাজেও তিনি ছিলেন অগ্রণী। টিআইবির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়া মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, মাইডাসের মতো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি।

ব্যবসায়িক সাফল্য ও সততার স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি পেয়েছেন দেশি ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিও। তিনি একুশে পদক, সর্বোচ্চ করদাতা, আমেরিকান চেম্বার কর্তৃক বিজনেস এক্সিকিউটিভ অব দ্য ইয়ার, ডেইলি স্টার ও ডিএইচএল কর্তৃক বেস্ট এন্টারপ্রেইনার অব দ্য কান্ট্রি পুরস্কারসহ বিভিন্ন পুরস্কার লাভ করেন। শিল্পোৎপাদন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, রফতানি আয় বৃদ্ধি করে স্যামসন এইচ চৌধুরী জাতীয় অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। এ জন্য তিনি বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির (সিআইপি) স্বীকৃতিও পান।

স্যামসন এইচ চৌধুরীর তিন ছেলে অঞ্জন চৌধুরী, তপন চৌধুরী ও স্যামুয়েল চৌধুরী বাবার প্রতিষ্ঠিত ব্যবসা আরও সম্প্রসারণ করে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন।
এসএ/