ঢাকা, রবিবার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯,   পৌষ ১ ১৪২৬

মেয়র আরিফুলসহ পদত্যাগ করছেন বিএনপির ৩ কেন্দ্রীয় নেতা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:০৯ পিএম, ২ নভেম্বর ২০১৯ শনিবার

আব্দুর রাজ্জাক, আরিফুল হক ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন

আব্দুর রাজ্জাক, আরিফুল হক ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন

সম্প্রতি ঘোষণা করা হয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি। যা নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন কেন্দ্রীয় নেতাসহ সিলেট বিএনপির একাংশ। এমনকি শুক্রবার রাতে নগরের কুমারপাড়া এলাকায় সভা করেছেন বিক্ষুব্ধরা। যে সভায় কেন্দ্রীয় ওই তিন নেতা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। 

আজ (শনিবার) দলীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছে তারা পদত্যাগপত্র পাঠাবেন বলেই সিদ্ধান্ত নেন তারা। পরবর্তীতে এই তিন নেতার সঙ্গেই গণপদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন সভায় উপস্থিত থাকা বিএনপি ও অন্যান্য অঙ্গ সংগঠনের নেতারাও।

এ বিষয়ে সেই সভায় উপস্থিত থাকা সিলেট জেলা যুবদলের সদ্য সাবেক কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, শুক্রবার সিলেট জেলা ও মহানগরের যে কমিটি গঠন করা হয়েছে এতে দীর্ঘদিন ধরে যুবদলের রাজনীতি করা কেউ ঠাঁই পাননি। ঠাঁই পেয়েছেন বিশেষ একজন কেন্দ্রীয় নেতার অনুসারীরা। তাই রাতেই তারা সিলেটে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে বিষয়টি তুলে ধরেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিন কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাক, আরিফুল হক চৌধুরী ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী দলীয় পদ থেকে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, অতীতে সিলেটে বিএনপির যে কোনও অঙ্গ সংগঠনের কমিটি করা হলে স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে করা হতো। কিন্তু এবারের কমিটির ব্যাপারে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এম এ হক, তাহসিনা রুশদী লুনাসহ কারও সঙ্গেই যোগাযোগ করা হয়নি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (১ নভেম্বর) সিলেট জেলা ও মহানগর শাখা যুবদলের ওই নতুন কমিটি ঘোষণা করেন যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুল ইসলাম নীরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু। ঘোষিত কমিটিতে জেলার আহ্বায়ক করা হয় কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান পাপলুকে ও মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক করা হয় নজিবুর রহমান নজিবকে। 

এছাড়াও জেলা শাখার ২৯ সদস্য ও মহানগর শাখায় যুবদলের ২৭ জনকে সদস্য করে ঘোষণা করা হয় ওই কমিটি।

এনএস/আরকে