ঢাকা, শনিবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯,   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬

সাদেক হোসেন খোকা আর নেই

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০২:৫৪ পিএম, ৪ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার | আপডেট: ০৩:৩০ পিএম, ৪ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। 

সোমবার দুপুরে নিউইয়র্কের মানহাটানে মেমোরিয়াল স্লোন ক্যাটারিং ক্যানসার সেন্টার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় (বাংলাদেশ সময় দুপুরে) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবং মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শোক প্রকাশ করেছেন।

এদিকে গতকাল রোববার সাদেক হোসেন খোকার সার্বিক খোঁজখবর নিতে হাসপাতালে যান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান। এ সময় খোকার শয্যাপাশে তিনি কিছু সময় অতিবাহিত করেন।

এরআগে সাদেক হোসেন খোকার দেশে ফেরার পর বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা হবে বলেও জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম।

ফেসবুকে এক বার্তায় প্রতিমন্ত্রী জানান, ‘তিনি এবং তার স্ত্রীর নামে মামলা আছে এবং গ্রেফতারি পরোয়ানাও থাকতে পারে (আমি নিশ্চিত নই) কিন্তু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের সাথে কথা বলে যা জেনেছি, তাদের আগমনের পর বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে দেখা হবে’।

শাহরিয়ার আলম তার ফেসবুক পোস্টে বলেন, নিউইয়র্কে সাদেক হোসেন খোকার পরিবার ‘ট্রাভেল পারমিটেরর জন্য আবেদন করলে আমাদের মিশন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তিনি এবং তার স্ত্রীর যেহেতু পাসপোর্ট নেই সেহেতু আন্তর্জাতিকভাবে অন্য দেশ থেকে নিজের দেশে ফেরার এটাই একমাত্র ব্যবস্থা। আমি আমাদের নিউইয়র্কের কনস্যুলেটে এ সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছি।

২০০২ সালের ২৫ এপ্রিল অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন খোকা। ২৯ নভেম্বর ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরে তিনি কিডনির ক্যানসারে ভুগছিলেন খোকা। তাঁর শারীরিক অবস্থার ব্যাপক অবনতি হয়েছিল। তিনি চিকিৎসার জন্য ২০১৪ সালের ১৪মে সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক যান। তারপর থেকে সেখানেই ছিলেন তিনি। সম্প্রতি খোকার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে ম্যানহাটনের স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। গত ক’দিন ধরে খোকা জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ছিলেন বলে জানান তার পরিবার পরিজনরা।

একাধিক মামলায় সাদেক হোসেন খোকার সাজা হয়েছে। এরপর থেকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রেই ছিলেন। তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি ছিল।