ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৪ নভেম্বর ২০২০,   অগ্রাহায়ণ ৯ ১৪২৭

ইরানের হামলায় ৮০ মার্কিন সেনা নিহত!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০১:১২ পিএম, ৮ জানুয়ারি ২০২০ বুধবার

ইরাকে অবস্থিত মার্কিন দুটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ৮০ মার্কিন সেনা নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে ইরান। বুধবার ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের এক খবরে এ দাবি করা হয়। খবর দ্য গার্ডিয়ানের। 

খবরে বলা হয়, ইরাকে মার্কিনিদের আরবিল ও আল-আসাদ বিমানঘাঁটিতে ১৫টি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ৮০ ‘মার্কিন সন্ত্রাসী’ নিহত হয়েছেন।

ওই হামলায় ব্যাপকভাবে মার্কিন হেলিকপ্টার ও সামরিক সরঞ্জাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইরান।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার মধ্যরাতে ইরাকের দু’টি মার্কিন বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে ইরাকের দু’টি মার্কিন বিমানঘাঁটিতে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানিয়েছে। 

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনও দু’টি ঘাঁটিতে হামলার কথা নিশ্চিত করেছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হামলায় হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার মধ্যরাতে ইরাকের ওই দুটি মার্কিন বিমানঘাঁটিতে এক ডজনেরও বেশি ‘ব্যালিস্টিক মিসাইল’ ছুড়েছে ইরান।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে হামলার কথা স্বীকার করে বলা হয়েছে, বিমানঘাঁটিতে হামলা পর্যালোচনা করা হচ্ছে। সেখানে মার্কিন সেনারা অবস্থান করছিল।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের মুখপাত্র জনাথন হফম্যান এক বিবৃতিতে বলেছেন, হামলার প্রাথমিক ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণের কাজ করছি আমরা। 

তিনি বলেন, হামলার শিকার একটি ঘাঁটি হলো আইন আল-আসাদ আরেকটি ইরাকের এরবিলে অবস্থিত।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদে মার্কিন হামলায় নিহত হন ইরানের এলিট ফোর্স হিসেবে পরিচিত বিপ্লবী গার্ড করপোরেশনের (আইআরজিসি) ‘কুদস বাহিনী’র প্রধান জেনারেল কাশেম সোলাইমানি। এরপর থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।