ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৯ অক্টোবর ২০২০,   কার্তিক ১৪ ১৪২৭

সাড়ে ৫ ঘণ্টা ব্যাট করেও ৬৩!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৬:৪২ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০২০ সোমবার

বাজে পারফরম্যান্সের কারণেই স্বেচ্ছায় টেস্ট ক্রিকেট থেকে বিরতি নিয়েছিল জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। বিরতি ভেঙ্গে ফেরার মুহূর্তেই পড়তে হয় আইসিসির নিষেধাজ্ঞায়। তবে সবকিছুকে পিছনে ফেলে প্রায় আড়ই বছর পর দেশের মাটিতে টেস্ট খেলতে নেমেছে জিম্বাবুয়ে। দীর্ঘ বিরতির পর ফিরে আফ্রিকার দেশটি যেন আসল টেস্টই খেলল।

গত ১৯ জানুয়ারি হারারের স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ব্যাটিং করতে নেমে বেশ ধীরলয়েই খেলে স্বাগতিকরা। যাতে প্রথম দিন শেষে দুই উইকেটে ১৮৯ রান তোলে জিম্বাবুয়ে। এদিন টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ের নতুন টেস্ট অধিনায়ক শেন উইলিয়ামস।

অধিনায়কের এমন সিদ্ধান্তের পর জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার কেভিন কাসুজা ও প্রিন্স মাসভাউরে যেন ডুবে গেলেন টেস্ট নামক মহাসমুদ্রে! ওপেনিংয়ে ৫০.১ ওভার ব্যাটিং করেছেন দুজন। আর এতে রান উঠেছে মাত্র ৯৬!

লঙ্কান দলপতি দিমুথ কারুনারত্নের দুর্দান্ত এক ক্যাচে প্রিন্স মাসভাউরে ১৪৯ বল খেলে ৫৫ রান করে ফেরেন। তার ইনিংসে চারের মার ছিল ৭টি। সময়ের হিসেবে মাসভাউরে ক্রিজে ছিলেন প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা। অন্যদিকে, ওপর ওপেনার কেভিন কাসুজা ছিলেন আরও ধীরগতির। একেবারে কচ্ছপ গতিতে রান করে দিনের শেষ সেশনে ফিরেছেন ৬৩ রান করে।

আর এই রান করতে প্রায় সাড়ে পাঁচ ঘণ্টা ব্যাটিং করেছেন কাসুজা। ২১৪টি বল খেলে চার মেরেছেন ৫টি আর ছক্কা ১টি। জিম্বাবুয়ান ওপেনারের স্ট্রাইকরেট ছিল মাত্র ২৯.৪৩! পরে তিনে নেমে ফিফটি পেয়েছেন ক্রেইগ আরভিনও। 

১৮৭ বল খেলে ইনিংস সর্বোচ্চ ৮৫ রান করে আউট হন তিনি। যাতে ছিল পাঁচটি চারের সঙ্গে তিনটি ছক্কার মার। আর এই ইনিংস খেলতে তিনিও ক্রিজে ছিলেন সোয়া চার ঘণ্টা। 

আর এর মধ্যদিয়েই নতুন রেকর্ড গড়ল জিম্বাবুয়ে। দেশটির টেস্ট ইতিহাসে এই প্রথম টপ অর্ডারের টানা তিন ব্যাটসম্যান ফিফটি হাঁকালেন। যদিও পরের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এক সিকান্দার রাজা ছাড়া বড় রান আসেনি আর কারও ব্যাট থেকেই। চতুর্থ সর্বোচ্চ ৪১ রান করেন তিনি। 

আর এতেই আজ দ্বিতীয় দিনে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩২২ রান তুলেছে জিম্বাবুয়ে। দলটির বিপক্ষে তুলে নেয়া আট উইকেটের মধ্যে একাই পাঁচটি উইকেট তুলে নেন লাসিথ এমবুল্ডেনিয়া। ৩৭ ওভার হাত ঘুরিয়ে ১০৩ রান দিয়েছেন এই লেগ স্পিনার। এছাড়া লাকমল নিয়েছেন দুটি উইকেট।

এনএস/