ঢাকা, বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ১৭ ১৪২৬

ছাত্রলীগের ১১ দাবিতে বন্ধ হাবিপ্রবির কার্যক্রম

হাবিপ্রবি সংবাদদাতা 

প্রকাশিত : ০৫:৪৪ পিএম, ২৭ জানুয়ারি ২০২০ সোমবার

ছাত্রলীগের ১১ দাবিতে বন্ধ হাবিপ্রবির কার্যক্রম

ছাত্রলীগের ১১ দাবিতে বন্ধ হাবিপ্রবির কার্যক্রম

১১ দফা দাবিতে প্রশাসনিক ও ওরিয়েন্টেশন কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মী।

সোমবার (২৭ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ২০২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন শুরু হওয়ার কথা থাকলেও ছাত্রলীগ ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে তা বন্ধ হয়ে যায়। 

অপরপক্ষে, ছাত্রলীগের অন্য একটি গ্রুপ ১১ দফা দাবিতে প্রশাসনিক ভবন তালাবদ্ধ ও বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন স্লোগান দিতে দেখা যায়।

দাবি দাওয়ার ব্যাপারে আন্দোলনরত ছাত্র সংগঠনটির নেতারা বলেন, গত ২৮ অক্টোবর সংঘর্ষের যে ঘটনা ঘটেছে তার সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করতে হবে। বিএনপি-জামায়াত মতাদর্শের শিক্ষককে লাইব্রেরিয়ান পদের দায়িত্ব থেকে সরাতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মচারী আমিনুল ইসলামের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে। অনতিবিলম্বে ল্যাব সংকট সমস্যার সমাধানসহ যে ১১ দফা দাবি দেয়া হয়েছে তা বাস্তবায়ন না হলে অনির্দিষ্টকালের জন্য সকল ধরনের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হবে। 

আন্দোলনকারীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- আকিভ আলভী রাসেল, মির্জা ফয়সাল সৌরভ, পল্লব হোসেন রাঙ্গা, রাশেদুল ইসলাম রাহাতসহ আরও অনেকে। 

সার্বিক বিষয় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ‘ছাত্র নেতারা যে দাবি করেছেন সেগুলো চাইলেও একবারে তা সমাধান করা সম্ভব নয়। যেগুলো দ্রুত সময়ে সমাধান করা সম্ভব সেগুলো করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তারপরও ছাত্ররা কেন বা কি কারণে প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়েছে তা আমার জানা নেই।’   

অন্যদিকে, সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তারা বিগত প্রায় দেড় মাস ধরে পর্যান্নোয়ন নীতিমালার বিষয়ে রিজেন্ট বোর্ড কর্তৃক গঠিত কমিটির সুপারিশ অবিলম্বে বাস্তবায়নের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে আসছে।  

এআই/