ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২,   আশ্বিন ২১ ১৪২৯

কুড়িগ্রামে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন 

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:৩২ পিএম, ২৮ জানুয়ারি ২০২০ মঙ্গলবার

কুড়িগ্রামে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী বাবলু মিয়া (৪৫) নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার কুড়িগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মুন্সী রাফিউল আলম এই রায় প্রদান করেন। এসময় বাবলু মিয়া আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের কাচিচর গ্রামের ছমির জালালের পূত্র বাবলু মিয়ার সাথে একই গ্রামের মৃত. খেজমত উল্লাহর কন্যা আনোয়ারা বেগমের বিয়ে হয় ১৯৯৫ সালে। বিয়ের পর বিলকিছ (১০) ও বিজলি (৮) নামে তাদের সংসারে দু’কন্যা সন্তান জন্মলাভ করে। বাবলু মিয়া পূত্র সন্তানের জন্য দ্বিতীয় বিয়ে করতে স্ত্রী আনোয়ারা বেগমকে সাদা স্টাম্পে স্বাক্ষর দিতে চাপ প্রয়োগ করে। এ নিয়ে দু'জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। 
অপরদিকে বাবলুর পরিবারের লোকজন কারণে-অকারণে আনোয়ারা’র উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতে থাকে। এক পর্যায়ে ২০০৮ সালের ১৭ এপ্রিল আনোয়ারাকে নির্যাতন করে গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাবলু ও তার পরিবারের স্বজনরা। পরে তার লাশ ওড়না দিয়ে পেঁচিয়ে ঘরের ধড়নার সঙ্গে ঝুলিয়ে পরিবারকে খবর দেয়া হয়।
 
এ ঘটনায় আনোয়ারা বেগমের বড় ভাই ইউনুছ আলী ২০০৮ সালের ১৯ এপ্রিল বাদী হয়ে বাবলু মিয়া, তার পিতা ছমির জালাল, মাতা বাছিরন বেগমসহ ৫ জনের নামে ৩০২/২০১/৩৪ দণ্ডবিধিতে মামলা দায়ের করে। যার দায়রা মামলা নং-৭৪/১৯ইং।

বিজ্ঞ বিচারক দীর্ঘ শুনানীর পর অদ্য ২৮ জানুয়ারি জেলা দায়রা ও জজ আদালতে পেনাল কোডের ৩০২ ধারায় অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আসামী বাবলু মিয়াকে উক্ত ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেন।

সরকারি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এস এম আব্রাহাম লিংকন রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন দীর্ঘ শুনানীর পর বাদীগণ ন্যায়বিচার প্রাপ্ত হয়েছেন।

কেআই/এসি