ঢাকা, বুধবার   ২৭ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭

বইমেলায় কাজী এনায়েত উল্লাহর নতুন ৩ বই

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৭:৪৭ পিএম, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বুধবার

ফ্রান্স প্রবাসী, সফল ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা ও সংগঠক কাজী এনায়েত উল্লাহর তিনটি বই এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় এসেছে। বইগুলো  হল- ধ্রব এষের করা প্রচ্ছদে প্রথমা প্রকাশনী থেকে উপন্যাস ‘ভালোবাসার রূপান্তর’ এবং হিমেল হকের প্রচ্ছদে শব্দশৈলী প্রকাশনী থেকে ‘তারুণ্য’ এবং ‘দ্যা লিভিং ওয়ার্ল্ড’। প্রবাস জীবন নিয়ে লেখা ‘বিশ্বপ্রবাস’ বইটি গতবছর বইমেলায় শব্দশৈলী থেকে প্রকাশিত হয়, যা পাঠকের মনে জায়গা করে নিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় নতুন তিনটি বইও পাঠকদের মনে জায়গা করে নিতে শুরু করেছে। 

ঢাকার চেয়ারম্যানবাড়ির চেয়ারম্যান পরিবারের সন্তান কাজী এনায়েত উল্লাহ এখন বিশ্বে একটি পরিচিত নাম। তিনি ইউরোপের ২৯টি দেশের বাংলাদেশিদের সম্মিলিত সংগঠন অল ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের (আয়েবা) মহাসচিব এবং ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ অর্গানাইজেশনের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

প্রথমা প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত এনায়েত উল্লাহর ভালোবাসার রূপান্তর বইটি যে কোনো পাঠকের মনে নাড়া দিবে। বইটি ইতোমধ্যেই পাঠকপ্রিয় হয়ে উঠছে। এই বইটি মূলত দুই প্রজন্মের দুই নারী ও একজন প্রবাসী প্রাক্তনের গল্প।

ভালোবাসার রূপান্তর উপন্যাসটির গল্প প্রসঙ্গে কাজী এনায়েত উল্লাহ বলেন, মা এবং মেয়ের সংগ্রাম ও স্বপ্ন ভালোবাসার রূপান্তর উপন্যাসে উঠে এসেছে। প্রথম যৌবনের প্রথম প্রেমিকা ফিনার সঙ্গে প্যারিস প্রবাসী রাহাতের সম্পর্ক পরিণতি পায়নি, কিন্তু জীবন থেকে সেই প্রেম কখনও হারিয়েও যায়নি। ফিনার মেয়ে শাহানা আজ আধুনিকা তরুণী, সে তার মায়ের প্রাক্তনকে আবিষ্কার করে, খুঁজে বের করে। তারপর রাহাত আহমেদের সঙ্গে শাহানার দেখা হয়। রাহাত আহমেদ শাহানার বড় একটা আশ্রয় হয়ে ওঠে। শাহানাকে পেয়ে রাহাত তার প্রিয় স্বদেশকে নতুনভাবে আবিষ্কার করে। 

দেশের মানুষ ও প্রকৃতির প্রতি তার মায়া জন্মায়। কিন্তু শাহানা দাবি করে বসে, সে আর দেশে থাকতে চায় না। শাহেদ নামের যে তরুণকে সে ভালোবাসে, সেই ভালোবাসারও পরিণতি চায় না সে। রূপান্তরিত ভালোবাসায় আবদ্ধ এই তরুণীর গতি কোনদিকে? আর তার মা ফিনা? রাহাতের সেই প্রথম জীবনের ভালোবাসার মানুষটি আজ কি ভাবছে, তার অবস্থান কোথায়? এসব প্রশ্নের উত্তর বইয়ে পাবেন পাঠকরা।  

আর শব্দশৈলী থেকে প্রকাশিত তারুণ্য বইটি প্রসঙ্গে কাজী এনায়েত উল্লাহ বলেন, তারুণ্য মূলত সাহসী হয়ে ওঠার বই। এটি প্রেরণা দায়ক বই, মানুষ এবং সমাজ গঠনের প্রক্রিয়ায় কাজ করবে। তারুণ্য নিজেকে চেনাজানা ও মানার বই। নিজেকে ছাড়িয়ে সকলের পাশে দাঁড়াবার প্রেরণাদায়ক বই তারুণ্য। যে-কোনো বয়স ও সামর্থ্যের সীমাকে ছাড়িয়ে সফল ও সার্থক মানুষ হবার পথ দেখাবে তারুণ্য। সম্প্রতি আমি কিউবা সফর করেছি। ফলে চির-তারুণ্যের প্রতীক চে’ গুয়েভারা এবং ফিদেল ক্যাস্ত্রো এই বইয়ের বড়ো একটি অংশ হয়ে উঠেছে। চে’ এবং ক্যাস্ত্রোর জীবন ও বাণী ‘তারুণ্য’ বইটিকে সমৃদ্ধ করছে।

মনের গহীনে লালনকৃত স্বপ্নকে কিভাবে মেধা ও যোগ্যতার সমন্বয়ে বাস্তবরূপ দিতে হয় তার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ফ্রান্স প্রবাসী কাজী এনায়েত উল্লাহ। গতবছর বইমেলায় প্রকাশিত বিশ্বপ্রবাস বইটিতে তিনি প্রবাসীদের বাস্তব জীবনের গল্প তুলে ধরেছেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসকারী বাংলাদেশিদের মধ্যে বইটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এবার বইমেলায় বইটির তৃতীয় সংস্করণ পাওয়া যাচ্ছে। নতুন সংস্করণে বইটিতে লেখক বেশ কিছু বিষয় যুক্ত করেছেন, যা বইটিকে পাঠকের কাছে আর জনপ্রিয় করে তুলবে। আর বিশ্বপ্রবাসের ইংরেজি ভার্সন ‘দ্যা লিভিং ওয়ার্ল্ড’।

আরকে//