ঢাকা, মঙ্গলবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১,   আশ্বিন ৬ ১৪২৮

ঝুঁকিভাতা চালু, ছাঁটাই বন্ধ ও নিয়মিত বেতনের দাবি বিজেসির

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৩:১১ পিএম, ৩১ মার্চ ২০২০ মঙ্গলবার

বিজেসি লোগো

বিজেসি লোগো

করোনা পরিস্থিতিতে সংবাদকর্মীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা, ঝুঁকিভাতা চালু, ছাঁটাই বন্ধ ও বেতন নিয়মিত রাখার দাবি জানিয়েছে ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার -বিজেসি। আজ ৩১ মার্চ গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানায় সংগঠনটি। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা যখন ঘরে, তখন দিনরাত কাজ করছেন বাংলাদেশের সম্প্রচার সাংবাদিক ও কর্মীরা। তাদের নিরলস পেশাদারিত্বের কারণেই দেশের মানুষ প্রতিমুহূর্তে নিজেদের নিরাপদ রাখার তথ্য পাচ্ছেন। কিন্তু এখনও বেশ কিছু সম্প্রচার প্রতিষ্ঠানে কর্মী সুরক্ষা ব্যবস্থায় ঘাটতি রয়েছে। মাঠে যারা খবইর সংগ্রহ করছেন তাদের নিরাপত্তার সরঞ্জাম খুবই অপ্রতুল। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই কাজ করছেন তারা। 

আরও বলা হয়, এ মাসে কয়েকটি টিভি ষ্টেশন নির্ধারিত সময়ের আগেই বেতন দিয়ে ভালো দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেও রূঢ় বাস্তবতা হলো- অধিকাংশ টেলিভিশনে বেতন-ভাতা অনিয়মিত। এই দুর্যোগের মধ্যে সম্প্রতি একটি টিভিতে একযোগে ৩০ জনের মতো কর্মী ছাটাই করা হয়েছে। আরও কিছু টেলিভিশনের কর্মীরাও আছেন ছাটাই আতঙ্কে, যা এই সময়ে সাংবাদিকদের দুর্ভাবনা কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। 

এমন বাস্তবতায় সরকার ও সম্প্রচার শিল্প উদ্যোক্তাদের কাছে চারটি দাবি জানিয়েছে বিজেসি। দাবিগুলো হলো- 

১. করোনা সংক্রমণ এলাকায় যে সকল সংবাদকর্মী কাজ করছেন তাদের পূর্ণ নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিশ্চিত করা,
২. এ ধরণের পরিস্থিতিতে সংক্রমণ এলাকায় যারা কাজ করেন তাদের জন্য ঝুঁকিভাতা চালু করা,
৩. কেউ অসুস্থ হলে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা নেয়া এবং তার পরিবারের জন্য যথাযথ সহায়তা নিশ্চিত করা,
৪. ছাঁটাই বন্ধ করা, নিয়মিত বেতন দেয়া এবং বকেয়া পরিশোধ করা।   

এনএস/