ঢাকা, সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১,   বৈশাখ ৫ ১৪২৮

মালয়েশিয়ায় রমজান শুরু ২৪ এপ্রিল

শেখ আরিফুজ্জামান, মালয়েশিয়া থেকে

প্রকাশিত : ০৮:৫৮ পিএম, ২২ এপ্রিল ২০২০ বুধবার

রহমত-মাগফেরাত ও নাজাতের মাস পবিত্র মাহে রমজান। ২৩ এপ্রিল (বৃহস্পতিবার) রমজানের চাঁদ দেখা গেলে মালয়েশিয়ায় ২০২০ সালের রমজানের প্রথম রোজা পালন হবে ২৪ এপ্রিল।

ইসলামের রীতি অনুযায়ী চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল আরবি মাস। চাঁদ দেখার মাধ্যমেই সারাবিশ্বের মুসলিমরা মাসব্যাপী রোজা পালন করেন। আকাশ গবেষক ও জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা যাই বলুক না কেন, মুসলিম বিশ্ব চাঁদ দেখেই পালন করবেন পবিত্র রমজান মাসের রোজা। এটাই ইসলামের নীতি। চন্দ্রবর্ষ হওয়ায় আরবি বছরের মাসগুলো নির্ধারণ করা হয় চাঁদ দেখার ওপর। হিজরি বর্ষপঞ্জিতে এখন শাবান মাস চলছে। এর পরের মাসটিই হচ্ছে রমজান।

যেহেতু রমজানের রোজা চাঁদ দেখার ওপর নির্ভরশীল। ২৮ শাবান (২৩ এপ্রিল) যদি রমজানের চাঁদ দেখা যায় তবে ২৩ তারিখ তারাবীহ পড়ে ভোর রাতে সেহরি খেতে হবে। ২৪ এপ্রিল হবে মালয়েশিয়ায় রমজানের প্রথম রোজা।

পবিত্র মাহে রমজানকে সামনে রেখে স্থানীয়দের পাশাপাশি এখানকার বাংলাদেশিরাও নিচ্ছেন প্রস্তুতি। তবে প্রাণঘাতী করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে পুরো মালয়েশিয়া এখন লকডাউনের আওতায়। যার ফলে এ বছর সকলকে তারাবীহ আদায় করতে হবে নিজ নিজ বাসায়। এ বছর রমজান উপলক্ষ্যে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী ক্রয়ে বিগত বছরগুলোর মতো নেই কোন জনসমাগম। 

অন্যদিকে, কোভিড-১৯ এর কারণে বাংলাদেশীরা এখন কর্মহীন হয়ে পড়ায় দেখা দিয়েছে আর্থিক সংকট। যার ফলে প্রবাসীদের বিশাল একটা অংশ এখন ভুগছেন খাদ্য সংকটে। রমজানকে সামনে রেখে তাদের মাঝে বিরাজ করছে গভীর উৎকণ্ঠা। এবারের রমজানে পরিবারের জন্য টাকা পাঠাতে না পারার জন্য অনেকেই ভুগছেন গভীর হতাশায়। বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে তাদের নিজ উদ্যোগে গড়ে ওঠা সুরাওগুলোতে (পাঞ্জেগানা মসজিদ) এবার তারাবীহ আয়োজন হবে না ভেবেও অনেকের মন খারাপ।

আগত রমজানকে সামনে রেখে প্রায় সকলেরই একটা চাওয়া, রহমত-মাগফিরাত ও নাজাতের এ মাসের উছিলায় মহান আল্লাহ যেন সমস্ত পৃথিবীর থমকে যাওয়া চাকা আবার ঘুরিয়ে দেন এবং শান্তি ফিরিয়ে দেন।

উল্লেখ্য, প্রত্যেক বছরই রাজধানী কুয়ালালামপুরসহ সমগ্র মালয়েশিয়াজুড়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হতো কয়েকশ তারাবীহর জামাত।

এনএস/