ঢাকা, বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১,   মাঘ ১৪ ১৪২৭

জার্মানির নতুন অভিবাসন আইন

একুশে টেলিভিশন লিমিটেড

প্রকাশিত : ১২:০১ পিএম, ১৭ মে ২০২০ রবিবার | আপডেট: ১২:০২ পিএম, ১৭ মে ২০২০ রবিবার

জার্মান যাওয়ার স্বপ্ন অনেকেই দেখেন, যোগ্যতাও অনেকেরই আছে কিন্তু প্রস্তুতিটাই ঠিক মতো নেওয়া হয় না। অভিবাস সম্পর্কে ও সঠিক ধারনা নেই। জার্মানিতে দক্ষ শ্রমিকের অভাব পূরন করতে নতুন অভিবাসন আইন করা হয়েছে , যা ১মার্চে থেকে কার্যকর হয়েছে।  আগের চেয়ে বেশি সুযোগ সৃষ্টি করে নতুন আইন করা হয়েছে।  
নতুন আইনে যা থাকছে
নতুন আইনে কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রাপ্তরাও আবেদন করতে পারবে, তবে প্রশিক্ষণের মেয়াদ কমপক্ষে ২বছর হতে হবে, প্রশিক্ষণ জার্মান ডিগ্রির সমমান বলে গন্য হবে।
সার্টিফিকেট জার্মানের শ্রম মন্ত্রণালয়ের ইনফরমেশন পোর্টালে গিয়ে যাচাই করা যাবে। কিভাবে যাচাই করতে হবে তার বিস্তারিত রয়েছে "মেক ইন ইন জার্মানি" ওয়েব সাইটে।
আবেদনকারীর নূনতম পাঁচ বছরের চাকরির অভিজ্ঞতা থাকলে সার্টিফিকেট যাচাইয়ের প্রয়োজন পড়বে না।
ভিসা ইস্যু করা হবে চার সপ্তাহের মধ্যেই ।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরে বসবাসকারীরাও জার্মানিতে চাকরির আবেদন করতে পারবে। 
চাকড়ির যোগ্যতা না থাকলেও শর্তসাপেক্ষে অভিবাসনের চেষ্টা করা যাবে। শর্ত হচ্ছে জার্মানির চাকরিদাতার চাকরির অফার এবং চাকরীতাদা আবেদনকারীর প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা ও যথাসময়ে পেশাদার পর্যায়ের সার্টিফিকেট পাওয়ার নিশ্চয়তা দিতে হবে।
চাকরির সুযোগ পেলে চার বছরের ভিসা দিবে, চার বছর পরে স্থায়ী বসবাসের আবেদন করতে পারবে।
নতুন নিয়মে শর্তসাপেক্ষে চাকড়ি খোঁজতেও জার্মান যাওযা যাবে।
৪৫ বছরের বেশি বয়সি আবেদনকারীর মাসিক আয় নূনতম ৩,৬৮৫ ইউরো হতে হবে।
তথ্যপ্রযুক্তি, চিকিৎসা, নার্সিং, সেসব ক্ষেত্রে আইন একটু শিথিল করা হয়েছে। মোট কথা যেসব খাতে দক্ষ জনশক্তির অভাব প্রকট সেসব ক্ষেত্রে আইন একটু শিথিল ।
চাকড়ি করে স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানদের থাক খাওয়ার সামর্থের প্রমান দিতে পারলে জার্মানীতে নিতে পারবে।

সূত্র-ঢাকা টাইমস
এস ইউ এ