ঢাকা, শুক্রবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৮ ৮:১৩:৪৭

উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সূচকের বড় উত্থান

পুঁজিবাজারের সব খবর

উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সূচকের বড় উত্থান

সূচক ও লেনদেন বেড়েছে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে। একইসঙ্গে দর বেড়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের। বৃহস্পতিবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ২১২টির, কমেছে ৯১টির, আর ৩৭টি প্রতিষ্ঠানের দর অপরিবর্তিত ছিল। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫৯ পয়েন্ট বেড়ে উঠে আসে ৫ হাজার ৪৬৭ পয়েন্টে। দিন শেষে লেনদেন হওয়া শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বাজারমূল্য ছিল ৫৮০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। সূচক বেড়েছে সিএসইতেও। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৪০টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৩টির, কমেছে ৭৮টির, আর ১৯টি প্রতিষ্ঠানের দর ছিল অপরিবর্তিত। আর মোট লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। কেডিএস এক্সেসোরিজপুুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান কেডিএস এক্সেসোরিজ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হবে ২০ আগস্ট। সভায় ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত বছরের জন্য ডিভিডেন্ডের সুপারিশ আসতে পারে। স্পট মার্কেটের খবর ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ফার্স্ট ফাইন্যান্স ও সান লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ার শুধু স্পট ও ব্লক মার্কেটে লেনদেন হয়। এসএইচ/  
ঈদের আগে নিয়ন্ত্রণে আছে বাজার: সাঈদ খোকন

এবার ঈদের আগে বাজারে পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে আছে বলে দাবি করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন । তিনি বলেন, ঈদে দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখতে পাইকারি বাজারের দাম যাচাই-বাছাই করতে এসেছি। দাম নিয়ন্ত্রণে আছে। গত বছরের তুলনায় এ বছর রসুন ও পেঁয়াজের দাম কম। এ ছাড়া অন্যান্য মসলার দামও স্থিতিশীল। বৃহস্পতিবার ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে এসে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান। বাজার পরিদর্শনের সময় মেয়রের সঙ্গে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) ও ডিএসসিসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সাঈদ খোকন বললেন, এবার ঈদের আগে মসলার দাম বাড়বে না। আমরা ব্যবসায়ী ও আমদানিকারকদের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি, এ বছর মসলার মজুদ পর্যাপ্ত। সরবরাহ ভালো। তাই দাম বাড়ার সম্ভাবনা নেই। আজকে পাইকারি বাজারের দর-দাম দেখে গেলাম। আমরা পণ্যের মূল্যতালিকা তৈরি করছি, এটি খুচরা বাজারে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ঈদের আগে যেন বাজার অস্থিতিশীল না হয়ে ওঠে, এ জন্য মাঠপর্যায়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কর্মকর্মাদের সমন্বয়ে মনিটরিং টিম কাজ করবে। আশা করছি, ঈদে ও ঈদের পরে সাধারণ মানুষ তাদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে দ্রব্য কিনতে পারবেন। এদিকে ঢাকায় পেঁয়াজের কেজি পাইকারি বাজারে ৫৫, আর খুচরা বাজারে ৬০ টাকা। আদা কেজিতে ৮০- ৯০ টাকা, রসুন ৭০-৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এক মাসের ব্যবধানে এই তিন মসলায় কেজিপ্রতি ১০-১৫ টাকা করে বেড়েছে। আরকে//  

চামড়া খাতে বিদেশী বিনিয়োগ বেড়েছে ৪২ শতাংশ

বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় চামড়া শিল্পে দিনে দিনে বাড়ছে এফডিআই স্টক বা পুঞ্জীভূত বিদেশী বিনিয়োগ। চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত খাতটিতে বিদেশী বিনিয়োগ প্রবাহ বেড়েছে ৪২ শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানে এ চিত্র দেখা গেছে। পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৭ সালের মার্চ পর্যন্ত চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যে পুঞ্জীভূত বিদেশী বিনিয়োগ প্রবাহ ছিল ১৮ কোটি ৫৮ লাখ ৩০ হাজার ডলার। ২০১৮ সালের মার্চ পর্যন্ত এ প্রবাহের পরিমাণ ছিল ২৬ কোটি ৫৩ লাখ ৭০ হাজার ডলার। এ হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে বিনিয়োগ প্রবাহ বেড়েছে ৪২ দশমিক ৮ শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যে দেখা যায়, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যে এক বছরে পুঞ্জীভূত বিদেশী বিনিয়োগ প্রবাহ সবচেয়ে বেশি এসেছে তাইওয়ান, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া ও নেদারল্যান্ডস থেকে। চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত দেশগুলো থেকে আসা পুঞ্জীভূত বিদেশী বিনিয়োগ প্রবাহ ছিল যথাক্রমে ৭ কোটি ১৫ লাখ ৮০ হাজার, ৬ কোটি ৩৬ লাখ ৫০ হাজার, ৫ কোটি ৭১ লাখ ৪০ হাজার ও ৪ কোটি ৬ লাখ ৮০ হাজার ডলার। চামড়াজাত পণ্য উৎপাদনকারী শিল্প-সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বর্তমানে চামড়া, চামড়াজাত পণ্য ও পাদুকা শিল্পের বৈশ্বিক বাজার ২৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারের। এ শিল্পে বাংলাদেশের সম্ভাবনা অপার। এশীয় অন্যান্য দেশের তুলনায় পণ্যের মূল্য সংযোজনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এগিয়ে রয়েছে। এসব কারণেই প্রতিনিয়ত এ খাতে বিদেশীদের বিনিয়োগ আগ্রহ বাড়ছে। এলএফএমইএবি সূত্রে জানা গেছে, চামড়াজাত পণ্য ও পাদুকা খাতে অসংখ্য দেশীয় প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগ থাকলেও বিদেশী বিনিয়োগ খুবই নগণ্য। এলএফএমইএবির দেড় শতাধিক সদস্যের মধ্যে ১২টি শিল্প-ইউনিট রয়েছে, যারা যৌথ বিনিয়োগের মাধ্যমে শিল্প স্থাপন করেছে। আর চারটি ইউনিট শতভাগ বিদেশী বিনিয়োগের মাধ্যমে বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। সংগঠনটির সভাপতি মো. সায়ফুল ইসলাম বলেন, প্রয়োজনের তুলনায় বাংলাদেশের চামড়া, চামড়াজাত পণ্য ও পাদুকা শিল্পে বিদেশী বিনিয়োগের পরিমাণ অনেক কম। গত বছর চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যকে প্রডাক্ট অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করেছিল সরকার। নগদ প্রণোদনাসহ নানা রকম নীতিসুবিধাও ঘোষণা করা হয়েছে। পোশাক খাতের বিকল্প ও বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রফতানি খাত হিসেবে এ খাতকে আরো সম্প্রসারণের সম্ভাবনা উন্মোচন হচ্ছে। আরকে//  

৭ শতাংশ ব্যবহার বেড়েছে ভিসা কার্ডের

ভিসা কার্ডের ব্যবহার বেড়েছে বাংলাদেশে। ভোক্তারা ২০১৭ সালের তুলনায় চলতি বছরের রমজান মাস ও ঈদুল ফিতরে ৭ শতাংশ বেশি ভিসা কার্ড ব্যবহার করেছেন। ভিসার পেমেন্ট ট্রেন্ডস সম্প্রতি প্রতিবেদনে এমন চিত্র উঠে এসেছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, রমজান ও ঈদুল ফিতরে ভিসা কার্ডে ব্যবহার ৭ শতাংশ বেড়েছে, যেখানে লেনদেনের পরিমাণ বেড়েছে ৮ শতাংশ। এছাড়া অন্য মাসের তুলনায় রমজানে ভিসা কার্ডের মাধ্যমে গড় ব্যয়ও বেড়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী, অন্যান্য মাসের তুলনায় রমজানের তৃতীয় সপ্তাহে ভিসা কার্ডের মাধ্যমে ভোক্তাদের খরচের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এ বিষয়ে ভিসার ভারত ও দক্ষিণ এশিয়ার গ্রুপ কান্ট্রি ম্যানেজার টিআর রামাচন্দ্রণ বলেন, ভোক্তাদের ব্যয়ের এ ধারা প্রমাণ করে, বাংলাদেশের মানুষ নগদ অর্থবিহীন লাইফস্টাইলকে প্রাধান্য দিচ্ছে। কার্ডের সুবিধা, নিরাপত্তা ও ব্যবহারের সহজ উপযোগিতা ভোক্তাদের ডিজিটাল ইকোসিস্টেমে সহজ লেনদেনে সহায়তা করবে। প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, এবারের রমজানে ভিসা কার্ডের মাধ্যমে পোশাক ও অ্যাকসেসরিজ, রিটেইল শপ ও ইলেকট্রনিকস পণ্যের দোকানে লেনদেন যথাক্রমে ১০, ৩ ও ১ শতাংশ বেড়েছে। ই-কমার্স লেনদেন ও ভোক্তাদের খরচ সর্বোচ্চ বেড়েছে ৪৮ শতাংশ, যা মোট বিক্রির প্রবৃদ্ধিতে ৮ শতাংশ অবদান রেখেছে। এয়ারলাইনস (২০ শতাংশ), শিক্ষা ও সরকার (১৫ শতাংশ) ও ভ্রমণসেবা খাত (১৩ শতাংশ) ই-কমার্স বাজারে ব্যয়ের শীর্ষে রয়েছে। প্রতিবেদন থেকে আরো জানা গেছে, ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে আন্তর্জাতিকভাবে ভিসা কার্ডের ব্যবহার বেশি হয়েছে। ভ্রমণসেবা, হোটেল ও এয়ারলাইনস খাতে ভিসা কার্ডের ব্যবহার বেশি হয়েছে। আরকে//  

চামড়া শিল্প রপ্তানিখাতে আরো ভূমিকা রাখতে পারবে

গত অর্থবছরে প্রায় ৪ হাজার ৭শ’ কোটি টাকার চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি হয়েছে। অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যাংক ঋণসহ সুবিধা বাড়ালে চামড়া শিল্প রপ্তানিখাতে আরো ভূমিকা রাখতে পারবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়িরা। তারা বলছেন, সাভারে চামড়া শিল্প নগরীর অবকাঠামো সম্পন্ন হলে রপ্তানি আরো বাড়বে। পাশাপাশি কর্মসংস্থান হবে বিপুল সংখ্যক মানুষের। আর শিল্প মন্ত্রণালয় বলছে, আগামী জুনের মধ্যেই চামড়া শিল্প নগরীতে পুরোদমে কার্যক্রম শুরু হবে। তৌহিদুর রহমানের ধারবাহিক রিপোর্টের প্রথম পর্ব আজ। তৈরি পোশাকের পর দেশে সব থেকে সম্ভাবনাময় শিল্প হিসেবে দেখা হয় চামড়াকে। তৈরি পোশাকের প্রায় শতভাগ কাঁচামাল আমদানি নির্ভর। অথচ চামড়া শিল্পের অধিকাংশ কাঁচামাল দেশে পাওয়া যায়। এছাড়া, বাংলাদেশী পশুর চামড়ার কদর বাড়ছে বিশ্ব বাজারে। গত অর্থবছরে প্রায় ৪ হাজার ৭শ’ কোটি টাকার চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি হয়েছে। ব্যবসায়িরা বলছেন, অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যাংক ঋণ সহ অন্যান্য সুবিধা বাড়লে চামড়া শিল্পের আরো উন্নয়ন হবে। কর্মসংস্থান হবে বিপুল সংখ্যক মানুষের। শিল্প সচিব বললেন, রপ্তানি বৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থানের কথা মাথায় রেখে সরকার চামড়ার বর্জ্য থেকে নতুন পণ্য তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে। দক্ষ শ্রমিকের পাশাপাশি আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহারেরও তাগিদ দিয়েছেন ব্যবসায়িরা।

কাতারে ম্যাগাজিন ‘পরিবর্তন’ এর মোড়ক উন্মোচন  

প্রবাসে মাতৃভাষা বাংলা ভাষা চর্চার মাধ্যমে ইতিবাচক পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে প্রথমবারের মত ‘বাংলাদেশ লেখক-সাংবাদিক অ্যাসোসিয়েশন’ কাতার  আত্মপ্রকাশ এবং ‘পরিবর্তন’ নামের একটি ম্যাগাজিনের  মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।   অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দূতাবাসের কাউন্সিলর ড. সিরাজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল হক।   বিশেষ অতিথি ছিলেন,কাতার নিউজ এজেন্সির প্রধান সম্পাদক কাতারের নাগরিক মো. খালিদ আল-জিয়ারা। মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য দেন, প্রকাশনা উৎসবের আহ্বায়ক শাহাবুদ্দিন শামীম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা হাজারী, সদস্য ও এটিএন বাংলা কাতার প্রতিনিধি হারুনুর  রশিদ মৃধা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কমিউনিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন আকন, মুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুক চৌধুরী,  বাংলাদেশ স্কুল ও কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. জুলফিকার আজাদ, এরাবিয়ান এক্সচেঞ্জ এর মহাব্যবস্থাপক নূরুল কবির চৌধুরী,  বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান এম. সাইফুল আলম প্রমুখ কেআই/এসি     

সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেনের পরিমাণ

সূচক বেড়েছে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে। একইসঙ্গে দর বেড়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের। মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৩৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৮টির, কমেছে ১৩০টির, আর ৪৭টি প্রতিষ্ঠানের দর অপরিবর্তিত ছিল। ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২৯ পয়েন্ট বেড়ে উঠে আসে পাঁচ হাজার ৪০৮ পয়েন্টে। দিন শেষে লেনদেন হওয়া শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের বাজারমূল্য ছিল ৫৮০ কোটি ১৯ লাখ টাকা। সূচক বেড়েছে সিএসইতেও। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৩৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ১১৪টির, কমেছে ১০০টির, আর ২১টি প্রতিষ্ঠানের দর ছিল অপরিবর্তিত। আর মোট লেনদেন হয়েছে ২২ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড। ড্রাগন সোয়েটারপুুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান ড্রাগন সোয়েটার অ্যান্ড স্পিনিং লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হবে ১৮ আগস্ট। সভায় ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত বছরের জন্য ডিভিডেন্ডের সুপারিশ আসতে পারে। কেডিএস এক্সেসোরিজপুুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান কেডিএস এক্সেসোরিজ লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হবে ২০ আগস্ট। সভায় ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত বছরের জন্য ডিভিডেন্ডের সুপারিশ আসতে পারে। শেয়ারের দরবৃদ্ধি নিয়ে প্রশ্নশেয়ারের অস্বাভাবিক দরবৃদ্ধির পেছনে অপ্রকাশিত মূল্যসংবেদনশীল কোনো তথ্য নেই বলে জানিয়েছে বিবিএস কেবলস লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের জিজ্ঞাসার প্রেক্ষিতে কোম্পানিটি এই জবাব দেয়। শেয়ার কেনার ঘোষণামিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেডের একজন উদ্যোক্তা পরিচালক দুই লাখ ৭৫ হাজার শেয়ার কেনার ঘোষণা দিয়েছেন। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পাবলিক মার্কেট থেকে তিনি এ শেয়ার কিনবেন। শেয়ার বিক্রির ঘোষণাপাইওনিয়র ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের একজন উদ্যোক্তা ২৫ হাজার শেয়ার বিক্রির ঘোষণা দিয়েছেন। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পাবলিক মার্কেটে তিনি এই শেয়ার বিক্রি করবেন। এসএইচ/    

মেঘনা ব্যাংক ও ল্যাব এইডের মধ্যে চুক্তি

সম্প্রতি মেঘনা ব্যাংক লিমিটেড ও ল্যাব এইড গ্রুপের মধ্যে দ্বি-পাক্ষিক চুক্তি ব্যাংকের হেড অফিস সুবাস্তু ইমাম স্কয়ার, গুলশান-১, ঢাকায় স্বাক্ষরিত হয়েছে। এই চুক্তির মাধ্যমে মেঘনা ব্যাংকের কার্ডধারীরা ল্যাব এইড হাসপাতাল থেকে সেবা গ্রহণে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্ট সুবিধা পাবেন। অনুষ্ঠানে মেঘনা ব্যাংকের এসইভিপি এবং হেড অব রিটেইল, এসএমই অ্যান্ড আদার ফাইনান্সিয়াল ডিভিশন মোহাম্মদ ইমদাদুল ইসলাম, ল্যাব এইড গ্রুপের হেড অব অপারেশন্স মো. আলমগীরের হাতে চুক্তিপত্র তুলে দেন। অনুষ্ঠানে মেঘনা ব্যাংকের হেড অব ব্রাঞ্চেস আব্দুর রহমান এবং হেড অব ল্যায়াবিলিটি অ্যান্ড ওয়েলথ ম্যানেজমেন্ট কাজী ফারহানা জাবিন উপস্থিত ছিলেন। এসএইচ/

‘এজেন্ট নির্দেশিকা’ নামক বই প্রকাশ করলো ব্যাংক এশিয়া

এজেন্ট এবং অফিসারদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, অর্থনৈতিক অন্তর্ভূক্তি কার্যক্রম শক্তিশালী করাসহ কৃষির উন্নয়নে ভূমিকা রাখার লক্ষ্যে ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট ব্যাংকিং বিভাগ আমেরিকার উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ইউএসএআইডি’র আর্থিক সহযোগিতায় পরিচালিত ‘দখিনা’ প্রকল্পের আওতায় ‘এজেন্ট নির্দেশিকা’ নামক একটি বই প্রকাশ করেছে। ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল আলম এবং ইউএসএআইডি’র ইকোনোমিক গ্রোথ অফিসের প্রাইভেট সেক্টর এ্যাডভাইসর অনিরুদ্ধ হোম রায়কে আজ মঙ্গলবার রাজধানী পুরানা পল্টনস্থ করপোরেট অফিসে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন। ব্যাংকের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও চ্যানেল ব্যাংকিং বিভাগের প্রধান সর্দার আকতার হামিদ, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও কোম্পানি সেক্রেটারি এসএম আনিসুজ্জামান এবং এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজ বিভাগের প্রধান মো. শামিনুর রহমান এবং ইউএসএআইডি’র এগ্রিকালচার ভ্যালু চেইনস (ডিএআই)-এর মার্কেট সিষ্টেম টিম লিডার অনুপ কুমার রায় এবং প্রাইভেট সেক্টর ইনভেষ্টমেন্ট ও এক্সেস টু ফাইন্যান্স বিশেষজ্ঞ বিথীকা দাস হাজরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। এসএইচ/

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের ‘মর্গেজ ওয়ান’ ঋণব্যবস্থা চালু

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ তার রিটেইল গ্রাহকদের জন্য ‘মর্গেজ ওয়ান’ নামে বাজারে প্রথমবারের মত হোম ফাইন্যান্সিং সমাধান, নতুন এক উদ্ভাবনী ঋণব্যবস্থা চালুু করার কথা ঘোষণা করেছে। আজ মঙ্গলবার ঢাকার স্থানীয় একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সন্মেলনে এ ঘোষণা করা হয়। হোম ফাইন্যান্সিং ‘মর্গেজ ওয়ান’ একটি অপ্রতিদ্বন্দী ঋণ সেবা যা হোম লোন এর ধারায় ভিন্ন মাত্রা যোগ করবে। বর্তমান সময়ে যে সব হোম লোন চালু রয়েছে তাতে করে একজন গ্রাহক তার পূর্ণ ঋণের অপরিশোধিত আমানতের ওপর সুদ প্রদান করে থাকেন। ‘মর্গেজ ওয়ান’ এর মাধ্যমে একজন গ্রাহক শুধু তার গৃহীত ঋণের স্থিতি এবং তার চলতি হিসাবের স্থিতির পার্থক্যের ওপর সুদ প্রদান করবেন। এক্ষেত্রে ঋণ স্থিতির সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ পর্যন্ত তার চলতি হিসাবে দৈনন্দিন স্থিতির সঙ্গে সমন্নয় হতে পারে। সূচনা বক্তব্যে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশ এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাসের এজাজ বিজয় বলেন, আপনি যদি আমাদের চারপাশের পরিবর্তনের গতির দিকে তাকান, সেটা আর্থিক খাতেই হোক অথবা অন্য যেকোনো খাতেই হোক তাহলে অনুধাবন করতে পারবেন অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে আমরা দ্রুততম গতিতে চলছি। তেমনি আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, ভবিষ্যতে এই গতি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরও বৃদ্ধি পাবে। ‘মর্গেজ ওয়ান’ এর মত অভিনব সেবা বাংলাদেশে মর্গেজ লোনের ক্ষেত্রে বৈচিত্র নিয়ে আসবে এবং পরিবর্তিত সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে আরও উন্নত গ্রাহক সেবা নিশ্চিত করতে সক্ষম হবে। এসএইচ/

বাংলাদেশের পোশাকের চাহিদা বাড়ছে ভারতে

ভারত সরকার চীন থেকে আমদানি করা ৩২৮টি বস্ত্র ও পোশাক খাতের পণ্যের ওপর আমদানি শুল্ক দ্বিগুণ করেছে। এত দিন এই শুল্ক ছিল ১০ শতাংশ; তা বাড়িয়ে ২০ শতাংশ করা হয়েছে। স্থানীয় বস্ত্র খাতকে এ সুবিধা দিতে এবং চীন থেকে আমদানি নিয়ন্ত্রণেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে ভারতের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। ভারতের এ সিদ্ধান্তে দেশটিতে বাংলাদেশের পোশাকের কদর আগের চেয়ে বাড়ছে বলে ব্যবসায়ীরা মনে করছেন। বাংলাদেশের পোশাক খাতের উদ্যোক্তাদের আশা চীনের পোশাক পণ্যে আমদানি শুল্ক বাড়ানোর ফলে ভারতে বাংলাদেশের পণ্যের রফতানি আয় আরো বাড়বে। এ ছাড়া সদ্য বিদায়ী অর্থবছরের ভারতে বাংলাদেশের পোশাকের রপ্তানি বেড়েছে প্রায় ১১৫ শতাংশ। আর প্রতিবেশী দেশ, জাহাজীকরণে সময় কম ও কম খরচে উন্নতমানের পণ্য সহজেই রপ্তানি করতে পারবে। ফলে দেশটিতে বাংলাদেশের পোশাকের কদর আরো বাড়ার সম্ভাবনা তৈরি হলো। কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি (সিআইটিআই) সূত্রে জানা য়ায়, যেসব পণ্যে শুল্ক দ্বিগুণ করা হয়েছে এমন কয়েকটি পণ্যের মধ্যে রয়েছে জ্যাকেট, স্যুট, অন্তর্বাস, পায়জামা, শিশুদের কাপড়, ট্রাক স্যুট, সুইমিং ওয়্যার ইত্যাদি। ভারতের বাজারে সবচেয়ে বড় পোশাক রপ্তানিকারক দেশ চীন। এ ছাড়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় তুলা উৎপাদনকারী দেশ হওয়ার পরও গত অর্থবছরে বস্ত্র ও পোশাক খাতের পণ্য আমদানিতে দেশটিতে চীনের আয় বেড়েছে প্রায় ১৬ শতাংশ। ভারত এ সময় ৭০০ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি করে এর মধ্যে ৩০০ কোটি ডলারের পণ্য আসে চীন থেকে। বাংলাদেশ এক্সপোর্টার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ইএবি) সভাপতি ও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি সালাম মুর্শেদী বলেন, পোশাক পণ্য আমদানিতে ভারত শুল্ক বৃদ্ধিতে বাংলাদেশের নতুন বাজার হিসেবে রফতানি আয় বাড়বে। তিনি বলেন, ভারতের বিশাল পোশাকের বাজারে এরই মধ্যে আমাদের ১১৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। আরকে//  

ব্যাংক এশিয়ার নতুন ডিএমডি পরিচালক জিয়াউল  

মোহাম্মদ জিয়াউল হাসান মোল্লা ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড এর উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসাবে পদোন্নতি পেয়েছেন। সম্প্রতি তিনি এ পদে উন্নিত হন।   এর আগে তিনি সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিস শাখা এবং একই সাথে ইসলামী ব্যাংকিং ডিভিশন প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন।    জিয়াউল হাসান দুই দশক ধরে দেশ ও বিদেশের বহুমাত্রিক কর্ম পরিবেশে ব্যাংকিং এর বিভিন্ন ধারায় অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বলে ব্যাংকটির এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকে কর্মজীবন শুরু করে পরবর্তীতে হংকং ভিত্তিক ফাইভ কন্টিনেন্ট ক্রেডিট লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী এবং বাংলাদেশে সিটি ব্যাংক-এর ক্যাশ ম্যানেজমেন্ট প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন। ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আরফান আলী অভিনন্দন জানিয়ে বলেন  “ডিএমডি হিসাবে জিয়াউল হাসানের পদোন্নতিতে আমি আনন্দিত। নেতৃত্বের গুনাবলী ছাড়াও কর্মী ব্যবস্থাপনা এবং বাংলাদেশের আর্থিক ব্যবস্থাপনা ও কর্পোরেট গ্রাহক সেবায় তার দক্ষতা রয়েছে"।   জিয়াউল হাসান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে ফিন্যান্সে স্নাতকোত্তর এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিউপোর্ট বিশ্ববিদ্যালয় হতে এম বি এ ডিগ্রী অর্জন করেন। এছাড়াও হংকং বিশ্ববিদ্যালয় হতে ইসলামী ব্যাংকিং ও অর্থনীতিতে উচ্চতর ডিগ্রী লাভ করেন। কর্মজীবনে তিনি এশিয়া, ইউরোপ, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেন। (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি) এমএইচ/এসি    

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি