ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ১:৩০:৩৫

 ‘মি-টু’ নিয়ে কোনো মন্তব্য নয়: ঐশ্বরিয়া

 ‘মি-টু’ নিয়ে কোনো মন্তব্য নয়: ঐশ্বরিয়া

যৌন নির্যাতন বিরোধী অন্যতম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ‘মি-টু’এর চলমান আন্দোলন নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চন। সম্প্রতি তিনি স্তন ক্যান্সার নিয়ে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন। সেখানে তাকে বলিউডে চলমান ‘মি-টু’আন্দোলন নিয়ে প্রশ্ন করা হলে কোনো উত্তর দেননি। এদিকে হলিউডের পর এবার বলিউডেও ‘মি-টু’আন্দোলন মাইলফলক অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। ইতোমধ্যে ভারতের ভিকাস বাল, সুবাস কাপুর, আলুক নাথ, সাজিদ খান এবং আরো বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে নারীদের যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ উঠার পর তাদের চলমান প্রযেক্ট নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছে। এছড়াও অভিযোগকারীদের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসছেন অনেকেই। তবে এর কিছু দিন আগে ভারতে ‘মি-টু’ আন্দোলন নিয়ে মন্তব্যে করতে গিয়ে তিনি জানিয়েছিলেন, ভারতে যৌন নির্যাতন বিরোধী এ আন্দোল শুরু হওয়ায় তিনি খুব খুশি হয়েছেন। তথ্যসূত্র: এনডিটিভি এমএইচ/
‘বিগ বস’র ঘরে কিম শর্মা

ভারতীয় ক্রিকেটার যুবরাজ সিং। তার সাবেক প্রেমিকা কিম শর্মা। যিনি বলিউডের একসময়ের তারকা ছিলেন। এবার তিনি উঠে আসলেন সংবাদ মাধ্যমে। সূত্র ‘বিগ বস’। জানা গেছে, এবার ‘বিগ বস’ এর বাড়িতে তার আগমন ঘটতে যাচ্ছে। সম্প্রতি নেহা পেন্ডসে ‘বিগ বস’-র বাড়ি থেকে বিদায় নিয়েছেন। আর তার জায়গাতেই যুক্ত হচ্ছেন এই তারকা। যদিও কিমের বিগ বসের বাড়িতে আসা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। শোনা গেছে, এই বাড়িতে আসার জন্য কিম মোটা অঙ্কের দর হাঁকিয়েছেন। যা নিয়ে চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে। সবকিছু চূড়ান্ত হলে তবেই বিগ বসের বাড়িতে আসবেন ‘মোহাব্বতে’র অভিনেত্রী। উল্লেখ্য, কিম শর্মা তার ফিল্মি ক্যারিয়ারে যতোটুকু না আলোচনায় এসেছেন, তা থেকে বেশি আলোচিত হয়েছেন তার প্রেম নিয়ে। যুবরাজ সিংয়ের সঙ্গে তার প্রেমের খবর এখনও আলোচনায় উঠে আসে। যদিও যুবরাজের সঙ্গে কিমের প্রেমের সম্পর্কের ইতি ঘটলে এই বলিউড সুন্দরী বিয়ে করে সুদূর কেনিয়ায় চলে যান। এমনকি বলিউডকেও চিরদিনের জন্য বিদায় যান। তবে তার সেই সাজানো সংসারও টেকেনি। ভেঙে গেছে কিছু দিনের মধ্যেই। ডিভোর্সের পর আবারও তিনি ফিরেছেন বলিউডে। এ মূহুর্তে অভিনেতা হর্ষবর্ধন রানের সঙ্গে তার সম্পর্কের কথা শোনা যায়। সূত্র : জি নিউজ এসএ/  

খুবই সাধারণ ও ঘরমুখী জীবনযাপন পছন্দ আনুশকার

বলিউড অভিনেত্রী আনুশকা শর্মা। ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলির স্ত্রী। অভিনেত্রী হিসেবে তিনি বেশ সফল। কারণ ব্যক্তিত্বসম্পন্ন এই অভিনেত্রী তার ক্যারিয়ারে দিয়েছেন বেশ কয়েকটি হিট সিনেমা। মজার বিষয় হচ্ছে এই অভিনেত্রীর লাইফস্টাইল অতি সাধারণ। সরল জীবনধারণে বিশ্বাসি এবং কম খরচে সবকিছু সামলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। অপ্রয়োজনীয়ভাবে অর্থ খরচ করেন না তিনি। এ বিষয়ে আনুশকা বলেন, ‘আমি মনে করি, এ ক্ষেত্রটি বিবেচনায় নিলে খুব ভাগ্যবান ও এগিয়ে আছি। আমি এমন একজন, যে অপ্রয়োজনীয়ভাবে অর্থ খরচ করি না। পার্টি বা অন্য কোথাও যাই না, কারণ ঘর থেকে বের হতে আমার ভালো লাগে না। খুবই সাধারণ ও ঘরমুখী জীবনযাপনের কারণে আমার খুব বেশি অর্থ খরচও হয় না। এটা বেশ ভালো, এর মানে এই নয় যে আমার পকেটে তেমন টাকা নেই।’ আনুশকা আরও বলেন, ‘যদিও অভিনেত্রীদের জীবনধারাকে অসংযত ও ব্যয়বহুল মনে করা হয়, তবে তিনি খুবই সাধারণ জীবনযাপন করেন। উল্লেখ্য, আনুশকা শর্মার সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা ‘সুই ধাগা : মেইড ইন ইন্ডিয়া’। এ সিনেমাতে তিনি বরুণ ধাওয়ানের সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন। বক্স অফিসে ভালো আয় করেছে সিনেমাটি। সূত্র : ডেকান ক্রনিকেল এসএ/

নভেম্বরেই দীপিকা-রণবীরের বিয়ে!

বলিউডে চলছে বিয়ের মৌসুম। কোহলি-আনুশকার পর অনেকেই বিয়ের সাজে সেজেছেন। কেউ কেউ আছেন অপেক্ষায়। কিছুদিন আগে নিক-প্রিয়াঙ্কার বিয়ের দিনক্ষণ প্রকাশ পেয়েছে। যদিও এই জুটির পক্ষ থেকে বিয়ের তারিখ বিষয়ে কোন মন্তব্য শোনা যায়নি। এবার আবারও বিয়ের খবর। এ বছরই নাকি বিয়ের সব আয়োজন শেষ করতে যাচ্ছেন রণবীর সিং ও দীপিকা পাড়ুকোন। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে বিয়ে নিয়ে জল্পনা। এর আগে শোনা গিয়েছিল, দীপিকা চেয়েছিলেন জুলাই মাসে বিয়েটা সেরে ফেলতে। তবে এখন শোনা যাচ্ছে, নভেম্বরের ১২ থেকে ১৬ তারিখের মধ্যেই গাঁটছড়া বাঁধছেন দুজনে। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, ১৩ নভেম্বর নাকি বিয়ে করছেন রণবীর সিং এবং দীপিকা পাড়ুকোন। এমনকি বিয়ের কেনাকাটাও শুরু করে দিয়েছেন তারা। একে অপরের পরিবারের সঙ্গেই বিয়ের কেনাকাটা করছেন এই প্রেমীক জুটি। আরও শোনা গেছে যে, দীপিকা ও রণবীর নভেম্বর মাসে বেশ কয়েক দিন শুটিংয়ের জন্য কোন সময় দেননি। এমনকি দীপিকা ও রণবীরের মেকআপ আর্টিস্ট এবং ডিজাইনাররাও ঠিক একই সময়ে ছুটিতে যাচ্ছেন। এসব ঘটনাকে এক করেই গুঞ্জনটি দানা বেধেছে। বলিউডে কান পাতলে আরও শোনা যাচ্ছে, বিরুষ্কার মতো ইতালিতে নাকি বসতে চলেছে বিয়ের আসর। লেক কোমোতে চার হাত এক হতে চলেছে দুজনের। তবে বিয়ের ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেননি রণবীর কিংবা দীপিকা। যদিও কিছুদিন আগে রণবীর দাবি করেছেন, তাদের বিয়ের বিষয়ে এখনও কিছুই ঠিক হয়নি। বিয়ের তারিখ চূড়ান্ত হলে তিনি চিৎকার করে সারা দুনিয়াকে এই খবর জানাবেন। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন এসএ/

করণের বিরুদ্ধে হেনস্তার অভিযোগ রানির

করণ জোহর। বলিউডের সেরা পরিচালকদের একজন। তার পরিচালিত প্রথম সিনেম ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’। ১৯৯৮ সালে মুক্তি পেয়েছিল সিনেমাটি। প্রথম সিনেমাতেই বাজিমাত করেন তিনি। এ সিনেমাতে রানি মুখার্জি ‘টিনা’ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। ২০ বছর আগে এ সিনেমার শুটিং সেটে রানিকে না কি ‘হেনস্তা’ করেছিলেন করণ জোহর। এমনটাই অভিযোগ করেছেন রানি। গত মঙ্গলবার ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’ সিনেমার ২০ বছর পূর্তি উদযাপন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শাহরুখ খান, টুইঙ্কেল খান্না, রানি মুখার্জি, কাজল দেবগনসহ বলিউডের অনেক তারকা। অনুষ্ঠানে করণ জোহরের দিকে আঙুল তুলে হাসতে হাসতে রানি মুখার্জি বলেন, ‘ওই সিনেমাতে সে (করণ জোহর) আমাকে হেনস্তা করে। মনে পড়ছে, হা হা হা, সে আমাকে হেনস্তা করেছিল, কারণ সে আমার খাবারের প্লেট ফেলে দিতে বলেছিল। ‘সকালে শট ছিল, আমি নাশতা করছিলাম’- আমি কমলা রঙের শর্ট টপস ও শর্ট স্কার্ট পরেছিলাম। মনীষ ও করণ এলো, জুনিয়র আর্টিস্টদের সঙ্গে খাচ্ছিলাম। দুজনই আমার দিকে অবাক হয়ে তাকাল, বলল, তুমি এগুলো খেতে পারবে না। হাত থেকে প্লেট কেড়ে নাও! হা হা হা, এবং সত্যিই আমার হাত থেকে প্লেট কেড়ে নিল।’ তখন অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবাই হেসে ওঠেন। উল্লেখ্য, ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’ সিনেমার টিনা চরিত্রে অভিনয়ের জন্য প্রথমে টুইঙ্কেল খান্নাকে প্রস্তাব দিয়েছিলেন করণ। কিন্তু ওই প্রস্তাবে রাজি হননি টুইঙ্কেল। টুইঙ্কেল রাজি না হওয়ায় সুপারস্টার শাহরুখ খানের সঙ্গে অভিনয়ের সুযোগ পান রানি মুখার্জি। সূত্র : এবিপি এসএ/  

মৌনীর হট ফোটোশুট ভাইরাল

মৌনী রায়। সোশ্যাল মিডিয়াতে তিনি বেশ সরব। প্রতিনিয়ত নিজের আপডেট প্রকাশ করেন নায়িকা। এবার তিনি নিজের হট ছবি শেয়ার করলেন। আবারও নতুন রূপে ধরা দিলেন তিনি। মৌনীর হট ফোটোশুট নিয়ে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় গুঞ্জন শুরু হয়ে গিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার হট লুক পোস্ট করা মাত্রই ভাইরাল হয়ে পড়ে। ৩ লক্ষেরও বেশি লাইক পড়েছে। কিউ কি সাঁস ভি কভ বহু থি, দেবো কা দেব মহাদেব, নাগিন— এ সব টেলি সিরিয়ালের পরিচিত মুখ মৌনী রায়। শুধু অভিনয় নয়, নাচেও যথেষ্ট পারদর্শী। তিনি এক জন প্রশিক্ষিত কত্থক শিল্পী। পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারের গাঁধী কলোনিতে ১৯৮৫-তে জন্ম। তার ঠাকুরদা ছিলেন এক জন নামকরা থিয়েটার শিল্পী। মা-ও থিয়েটারের সঙ্গে জড়িত। দ্বাদশ শ্রেণি পাশ করেছেন কোচবিহারের বাবুরহাটের কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় থেকে। তার পরই দিল্লি পাড়ি দেন। মাস কমিউনিকেশন নিয়ে পড়াশোনা চলাকালীনই অভিনয়ের জন্য মুম্বাইয়ে যান। ২০০৪-এ রান সিনেমাতে ব্যাকগ্রাউন্ড ডান্সার হিসেবে অভিনয়ের জগতে আত্মপ্রকাশ। তার পর আর ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০০৭-এ কিউ কি সাঁস ভি কভ বহু থি সিরিয়ালে অভিনয় দিয়ে কেরিয়ার শুরু করেন। সম্প্রতি গোল্ড সিনেমাতে অভিনয় করছেন মৌনী। এটাই তার প্রথম সিনেমা। আর প্রথম সিনেমাতেই বাজিমাত করেছেন তিনি। সূত্র : আনন্দবাজার এসএ/

সালমানের ভালোবাসার মৃত্যু, ভেঙে পড়েছেন তিনি

সালমান খান। বলিউডের অন্যতম সেরা তারকা। ক্যারিয়ারে খ্যাতি তার চূড়ায়। তবে এখনও সঙ্গী ছাড়া একা ব্যাচেলর জীবনে রয়েছেন তিনি। তার এই একাকী জীবনে একজন সঙ্গী অবশ্য ছিল। যে তার একমাত্র ‘ভালোবাসা’। আর সেই ‘ভালোবাসা’র মৃত্যু হয়েছে। যাকে হারিয়ে ভেঙে পড়েছেন ভাইজান। এই ভালোবাসা আর কেউ নয়, সালমানের প্রিয় পোষ্য নিয়াপলিটান ম্যাস্টিফ প্রজাতির ‘মাই লাভ’। বৃহস্পতিবার রাতে ‘মাই লভ’-এর মৃত্যু হয়েছে। তার মৃত্যুতে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছেন নায়ক। ইনস্টাগ্রামে পোষ্যের ছবি শেয়ার করে সালমান লিখেছেন, ‘আমার ভালোবাসা আজ চলে গেল। ভগবান ওর আত্মাকে শান্তি দিক।’ সালমান নিজেই টুইটারে তার ভক্তদের ‘মাই লাভ’-এর মৃত্যুর কথা জানিয়েছেন। নায়কের কাছে নানা প্রজাতির কুকুর রয়েছে। মাই লভ সেই পরিবারের এক জন সদস্য ছিল। পোষ্যদের প্রতি তার ভালোবাসার ছবি মাঝেমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন সাল্লু। মাই লভ ছাড়াও মাই জান ও মাই সন নামে সালমানের আরও দুই পোষ্য ছিল। ওই দুই পোষ্য আগেই মারা গিয়েছে। দুই পোষ্যের মৃত্যুতেও সালমান খুব ভেঙে পড়েছিলেন। উল্লেখ্য, পোষ্যদের দেখাশোনার জন্য লাখ লাখ টাকা খরচ করেন সালমান। তাদের দেখাশোনা করার জন্যও আলাদা আলাদা লোকও রাখা আছে। সূত্র : জি নিউজ এসএ/

নিজেই নিজের গোপন তথ্য ফাঁস করলেন সুশান্ত

‘# মি টু’ কেলেঙ্কারিতে ক্লান্ত ভারতীয় গণমাধ্যম। এবার সেই আন্দোলন থেকে নিজেকে বাঁচাতে চাইছে সুশান্ত সিং রাজপুত। অভিনেত্রীর সঙ্গে তার কথোপকথনের স্ক্রিনশট টুইট করে দিলেন তিনি। নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে ‘# মি টু’ আন্দোলন শুরু করেছিলেন তনুশ্রী দত্ত। এরপর একের পর এক রাঘব বোয়ালের বিরুদ্ধে উঠে আসছে যৌন হেনস্থার অভিযোগ। এমনকি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্বের পদও খোয়াতে হয়েছে এমজে আকবরকে। সুশান্তের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহার ও অযাচিত বন্ধুত্বের অভিযোগ তুলেছেন অভিনেত্রী সঞ্জনা সঙ্ঘী। সঞ্জনার অভিযোগের পরই আচমকা টুইটারে সুশান্তের ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্ট থেকে নীল ‘টিক’ মুছে যায়। অনেকেই মনে করছিলেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। তবে স্ক্রিনশট টুইট করে সমালোচকদের একহাতও নিয়েছেন। সুশান্তের কথায়, ‘আমার অ্যাকাউন্ট থেকে নীল ‘টিক’ মুছে দেওয়া হয়েছে বলে অনেকেই মিথ্যা দাবি করছেন। আমি বলতে চাই, ৫ সেপ্টেম্বর থেকেই এটা ছিল না। এখন অবশ্য সুশান্তের অ্যাকাউন্টে নীল ‘টিক’ রয়েছে।  ‘কিজি ঔর মান্নি’ সিনেমাতে সুশান্তের বিপরীতে অভিনয় করছেন সঞ্জনা সঙ্ঘী। তিনি অভিযোগ করেছেন, তার সঙ্গে ঘনিষ্ট হওয়ার চেষ্টা করছেন সুশান্ত। যোধপুরে সিনেমার শুটিংয়ের সেটে দুর্ব্যবহারও করেছেন। তার জবাব দিতে সঞ্জনার সঙ্গে তার এসএমএস চালাচালির স্ক্রিনশট টুইট করেছেন সুশান্ত। তিনি লিখেছেন, ‘ব্যক্তিগত তথ্য আপনাদের সঙ্গে ভাগ করে নিচ্ছি। এছাড়া আর কোনও পথ ছিল না। প্রথম থেকে শুটিংয়ের শেষ দিন পর্যন্ত সঞ্জনার সঙ্গে এই কথাই বলেছি।     প্রসঙ্গত, কিজি ঔর মান্নি সিনেমার পরিচালক মুকেশ ছাবড়া। তার বিরুদ্ধে জমা পড়েছে ‘# মি টু’। অভ্যন্তরীণ তদন্ত কমিটির রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত তাকে আপাতত সিনেমার কাজ থেকে সরিয়ে রেখেছে প্রযোজনা সংস্থা ফক্স স্টার স্টুডিও। সূত্র : জি নিউজ এসএ/

‘যত বারই তার অফিসে গিয়েছি ততবারই কাছে টানতে চেয়েছে’ 

বলিউডে থিতু হতে চাচ্ছেন ইরানি অভিনেত্রী ইলনাজ নরৌজি। সে জন্য নিজের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এদিকে বৃহস্পতিবারই সারা বিশ্বে মুক্তি পেয়েছে ‘নমস্তে ইংল্যান্ড’ সিনেমাটি। তবে, ‘নমস্তে লন্ডন’-এর এই সিক্যুয়েলের সাড়া খুব ভাল নয়।   বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ার ইঙ্গিত চিত্র সমালোচকদের আলোচনাতে। কিন্তু তার আগেই #মিটু-র কাঠগড়ায় ছবির পরিচালক বিপুল অমৃতলাল শাহ। তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুললেন ইরানি অভিনেত্রী ইলনাজ নরৌজি। তাঁর অভিযোগ, ‘নমস্তে ইংল্যান্ড’ ছবিতে সুযোগ দেওয়ার কথা বলে অডিশনের নাম করে বার বার তাঁর যৌন হেনস্থা করেছেন পরিচালক। কখনও জড়িয়ে ধরা, কখনও বা চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছেন।    ‘মিড ডে’ ম্যাগাজিনে একটি কলাম লিখেছেন ইলনাজ। সেখানেই তিনি বিপুল শাহর সঙ্গে নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা লিখেছেন অভিনেত্রী। তিনি লিখেছেন, ‘‘বিপুল শাহ ‘নমস্তে ইংল্যান্ড’ ছবিতে আমাকে দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ মহিলা চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ দেবেন বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু, কোনও চুক্তিতে সই করেননি। বার বার চুক্তির কথা বললেও এড়িয়ে গিয়েছেন পরিচালক। কিন্তু, ছবিতে সুযোগ দেওয়ার নাম করে বার বার অডিশনের জন্য ডেকে পাঠিয়েছেন।’’ ইলনাজ আরও লিখেছেন, ‘‘প্রথম সাক্ষাতেই বিপুল এমন ভাবে কথা বলছিলেন, যেন ওই চরিত্রে আমিই অভিনয় করছি। অথচ কোনও অডিশন নেওয়া হয়নি।’’ এর কয়েক দিন পর ভারসোবা সৈকতে কাস্টিং ডিরেক্টরের সঙ্গে অডিশনের দিন ঠিক হয়। অথচ সেখানে গিয়ে ইনলাজ বুঝতে পারেন, কাস্টিং ডিরেক্টর জানেনই না, কী বিষয়ের অডিশন। অডিশনের পর বিপুল শাহ ইলনাজকে জানান, তিনি যেটা চেয়েছেন, সে রকম হয়নি। এর পর ইলনাজ নিজেই বিপুলের অফিসে গিয়ে দেখা করেন। সেখানে বিপুল তাঁকে বলেন, খুব শীঘ্রই চুক্তি সই হবে। কিন্তু অফিস থেকে বেরনোর সময় ঘটে প্রথম ঘটনা। ইলনাজ লিখেছেন, ‘‘বিপুল আমার এত কাছে চলে এসেছিলেন যে, অস্বস্তি হচ্ছিল। তার পর আচমকাই চুমু খান।’’ ওই বৈঠকের পর ইনলাজ তাঁর ম্যানেজারকে জানান, বিপুল শাহ তাঁকে ‘নমস্তে ইংল্যান্ড’ ছবিতে নিচ্ছেন। তাঁর ম্যানেজার বিপুলের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। কিন্তু পরিচালকের তরফ থেকে কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি বলে ইনলাজের দাবি। ওই প্রতিবেদনে ইলনাজের বক্তব্য, ‘‘আবারও বিপুলের সঙ্গে দেখা করি আমি। কিন্তু তিনি এমন আচরণ করছিলেন, যেন এই গ্রহের সবচেয়ে খারাপ অভিনেত্রী আমি।’’ এর পর আরও এক বার বিপুলের অফিসে গিয়ে দেখা করেন ইলনাজ। তাঁর অভিযোগ, সেখানে ফের তাঁকে চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেন বিপুল। তিনি পিছনে সরে যান। জানতে চান, শুটিং কবে শুরু হবে? প্রশ্নটা করতেই ছবির অভিনেতা-অভিনেত্রী অর্জুন কপূর ও পরিণীতি চোপড়ার সঙ্গে আলাপ করিয়ে দেন। কিন্তু শুটিংয়ের দিন ক্ষণ জানাননি। এর পর আরও এক দফা অডিশন দিতে হয় তাঁকে, লিখছেন ইলনাজ। সেটা বিপুলের অফিসে। সেখানে ফের খারাপ ভাবে তাঁর গায়ে হাত দেওয়ার চেষ্টা করেন বিপুল। কিন্তু তিনি শরীর খারাপের অজুহাত দিয়ে সেখান থেকে চলে আসেন। পরের অডিশনের জন্য বিপুল শাহ তাঁকে পাটিয়ালায় যেতে বলেন। ইলনাজের বয়ান অনুযায়ী, ‘‘পাটিয়ালার যে হোটেলে আমরা ছিলাম, বিপুল সেখানে তাঁর রুমে ডেকে পাঠান আমাকে। বলেন স্ক্রিপ্ট শোনাবেন। রুমে যাওয়ার পর আমাকে পিছন থেকে ধরে তাঁর দিকে টেনে নেওয়ার চেষ্টা করেন বিপুল। কিন্তু আমি ঘর থেকে বেরিয়ে আমার রুমে চলে যাই।’’ ইলনাজের দাবি, তার পরেও আরও প্রায় দু’মাস ধরে অপেক্ষা করেন তিনি। কিন্তু বিপুলের তরফ থেকে কোনও সাড়া পাননি। প্রতিবেদনে অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘‘এর মধ্যেই ওয়েব সিরিজ ‘সেক্রেড গেমস’-এর অফার পাই। বিপুলকে সে কথা জানাতেই তিনি বলেন, ওই চরিত্রে নগ্ন হয়ে অভিনয় করতে হবে। তাই ওঁরা আমাকে বাদ দিয়েছেন।’’ ‘‘আমি তিন মাস ধরে নির্যাতনের শিকার হয়েছি। আমি নিশ্চিত যে, বিপুলের সঙ্গে বিছানা শেয়ার করলে ওই চরিত্রটা পেতাম। যত বারই আমি ওঁর অফিসে গিয়েছি, তত বারই আমাকে খারাপ ভাবে ছোঁয়া, গায়ে হাত দেওয়া ও চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেছেন’’, ওই প্রতিবেদনে লিখেছেন ইলনাজ। কিন্তু তখন না বলে এখন কেন এই বিষয় শেয়ার করলেন ইলনাজ? প্রতিবেদনেই ইলনাজ তার উত্তর দিয়েছেন। বলেছেন, ‘‘আমি বিদেশি। তার উপর বিপুল শাহ বলিউডে বেশ প্রভাবশালী। তাই তখন পুলিশে অভিযোগ করিনি। আর এই ধরনের লোকজন ক্ষমতার অপব্যবহার যাতে না করতে পারে, সে জন্যই এখন এই দুর্বিসহ অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছি।’’ আনন্দবাজার এসি    

তনুশ্রী কি ‘বিগ বস’-এ যেতে চান?

নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। এখন পর্যন্ত নিজের অভিযোগে অনড় রয়েছেন তনুশ্রী।  ১০ বছর পরে আচমকা এই প্রসঙ্গ মাথা চাড়া দিয়ে উঠলে অনেকেই প্রশ্ন তোলেন, তনুশ্রী কি ‘বিগ বস’ যেতে চাইছেন? এর উত্তরে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে তনুশ্রী দত্ত পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছেন, ‘তাঁর কোনভাবেই ‘বিগ বস’-এ যাওয়ার কোনও ইচ্ছে নেই। তিনি আরও জানান, তাঁর লক্ষ্য সম্পূর্ণ আলাদা, কারণ তাঁর এই একটি অভিযোগের জন্যই ‘মি-টু’ ব্যাপকভাবে সাড়া ফেলেছে এবং একের পরে এক সত্য প্রকাশ  করছেন অভিযোগকারীরা। কর্ম ক্ষেত্রে  যারা এমন পরিস্থিতির শিকার হচ্ছেন তারা তাদের অভিজ্ঞতার কথা জানাচ্ছেন। নানা পটেকর বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলার পরে, অনেকে দাবি করেছিলেন, এত বছর পরে দেশে ফিরে এইভাবে নিজের প্রচার করছেন তনুশ্রী দত্ত। কিন্তু এই ধরণের মন্তব্যে আমলে না নিয়ে নিজের লক্ষ্যে স্থির থেকে এগিয়ে গেছেন তিনি। শুধু যৌন হেনস্থার অভিযোগ নয়। এমন কী কুপ্রস্তাবের প্রতিবাদ করায় রাজনৈতিক দলের লোক দিয়ে তনুশ্রীর গাড়িও ভাঙচুর করিয়েছিলেন নানা পটেকর। সূত্রঃ এবেলা কেআই/

‘কুছ কুছ হোতা হ্যয়’ সিনেমার অজনা কথা

১৯৯৮ সালের সুপার-ডুপার হিট বলিউড সিনেমা ‘কুছ কুছ হোতা হ্যয়’। এই সিনেমায় কাজল, রানি মুখার্জি আর শাহরুখ খানের বন্ধুত্বের কথা মনে আছে নিশ্চই। সেই সময় যারা এই সিনেমা দেখেছেন তারা প্রত্যেকেই প্রেমে পড়ে গিয়েছিলেন তাদের। দেখতে দেখতে ২০ বছর চলে গেছে। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক ‘কুছ কুছ হোতা হ্যয় সিনেমাটির অজানা কিছু তথ্য - মজার বিষয় হচ্ছে- যে রানি মুখার্জির অভিনয় দর্শক হৃদয়কে করেছিলো আন্দোলিত সেই রানি নয়, টিনার চরিত্রের জন্য পরিচালক কর্ণ জোহরের প্রথম পছন্দ ছিলেন টুইঙ্কল খন্না। আর টুইঙ্কলেরই ডাক নাম টিনা, যেটা সিনেমাতেও একই রেখে দিয়েছিলেন কর্ণ। কিন্তু টুইঙ্কলই সেই অফার ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। আর তার পরেই শাহরুখের কথা মতো চরিত্রটি চলে যায় রানির কাছে। সিনেমার শুটিংয়ের সময়ে রানির বয়স ছিল মাত্র ১৯ বছর। তবে রানির হাস্কি ভয়েস এক্কেবারেই পছন্দ ছিল না পরিচালকের। তাই অন্য কাউকে দিয়েই ডাব করতে চেয়েছিলেন কর্ণ। ছোট্ট অঞ্জলি অর্থাৎ শাহরুখের মেয়ের চরিত্রে যাকে দেখা গিয়েছিল, সেই সানা সঈদ সিনেমাতে গ্লিসারিন ব্যবহার করতে চাননি। আর তাই পরিচালক কর্ণকে সানাকে কাঁদানোর জন্য নানারকম ফন্দি আঁটতে হত। ‘তুম পাস আয়ে’ গানটির টিউন আসলে তৈরি করেছিলেন অভিনেতা যুগল হংসরাজ। আর তা তৈরি করেই শুনিয়েছিলেন কর্ণকে। কর্ণর তো বেজায় পছন্দ হয়ে গিয়েছিল। তার পর তো সেই গানই কয়েকদিনের মধ্যেই সুপার ডুপার হয়ে যায়। বাস্কেট বল খেলার দৃশ্যগুলোতে জাম্প করার জন্য ট্রাম্পোলাইনের ব্যবহার করতে হত শাহরুখ এবং কাজলকে। ‘কোই মিল গ্যায়া’ গানটিতে শাহরুখ যে পোলো স্পোর্টের টি-শার্টটি পরেছিলেন তার দাম সে সময়েই ছিল প্রায় ৫ হাজার ৫০০ টাকার কাছাকাছি। আর এমন দামি টি-শার্ট কেনার জন্য পরিচালকের বকুনিও খেয়েছিলেন ডিজাইনার মণীশ মলহোত্র। সিনেমাটি দেখার পর এক্কেবারে পছন্দ হয়নি শাহরুখের। শেষের দৃশ্যগুলো এত দুঃখের হওয়ার কারণেই মূলত তা অপছন্দ হয়েছিল শাহরুখের। তবে শাহরুখের অভিনয়ে ফিদা হয়ে গিয়েছিলেন সুস্মিতা সেন। শাহরুখকে বলেছিলেন, ‘এ বার অভিনয় ব্যাপারটাকে আমি সিরিয়াসলি নিতে চাই।’ টিনা অর্থাৎ রানি মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুর গল্প প্রথমে সিনেমার স্ক্রিপ্টে ছিল না। পরে কাজলেরই মাথা থেকে এই আইডিয়া আসে। কাজলের সেই আইডিয়া খুব পছন্দ হয়ে যায় কর্ণ জোহরের। সিনেমার সেই ছোট্ট পঞ্জাবী বাচ্চাটি, অর্থাৎ পারজান দস্তুরের কেবল একটি ডায়লগই ডাবিং করেছিল আর একটি বাচ্চা। কৈবাল্য চেডা নামের আর একটি বাচ্চার গলাতেই শোনা গিয়েছিল, ‘তুসসি যা র‌্যাহে হো? তুসসি না যাও!’ মণীশ মলহোত্র, ফারহা খান, কোরিওগ্রাফার গীতা কপূর এবং পরিচালক নিখিল আডবাণী এমনকি কর্ণ জোহরের মা হিরু জোহরকেও ‘কুছ কুছ হোতা হ্যয়’ সিনেমাতে ক্যামিও করতে দেখা গিয়েছে। আমানের চরিত্রটির অফার প্রথমে গিয়েছিল সাইফ আলি খানের কাছে। কিন্তু সেই অফার ফিরিয়ে দেন সাইফ। তার পরে কর্ণ জোহরের বাড়িতে একটি অনুষ্ঠানে সালমান এসেছিলেন। তখনই সালমানকে আমানের চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন কর্ণ। সূত্র : আনন্দবাজার এসএ/

করণের সঙ্গে সালমানের শেষ ও প্রথম কাজ

‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’ সিনেমার কথা মনে আছে? সিনেমাটি পরিচালনা করেছিলেন বলিউডের বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় পরিচালক ও প্রযোজক করণ জোহর। পরিচালক হিসেবে এটাই তার অভিষেক। প্রথম সিনেমাতেই তিনি সাফল্য পেয়েছিলেন। সম্প্রতি সিনেমাটির দুই দশক পূর্তি হয়েছে। আর এ জন্য একটি পার্টির আয়োজন করেন করণ। যেখানে উপস্থিত ছিলেন সিনেমাটির তারকারা। যদিও ব্যস্ততার কারণে উপস্থিত হতে পারেননি সালমান খান। তবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে না পারলেও ভিডিওকলের মাধ্যমে যুক্ত হন তিনি। শেয়ার করেন সিনেমাতে ছোট এই চরিত্রে কাজ করার কারণ। সালমান জানালেন, করণ তার প্রথম সিনেমার ‘আমান’ চরিত্রটি নিয়ে বেশ দুশ্চিন্তায় ছিলেন। অনেকের কাছেই ধর্ণা দিয়েও লাভ হয়নি, অবশেষে করণ গিয়েছিলেন সালমানের বোন আলভিরার কাছে। সেখানে তিনি জানান, তার এটি প্রথম সিনেমা। যেখানে সে কাজল-শাহরুখ ও রানিকে অভিনয় করাচ্ছেন। কিন্তু আমান চরিত্রটি ছোট হলেও খুব গুরুত্বপূর্ণ, তবে কেউ চরিত্রটিতে অভিনয় করতে রাজি হচ্ছেন না। তখন সালমানের বোন সালমানকে বলেন, করণ একদমই তরুণ পরিচালক। এটি তার প্রথম কাজ, সালমানের উচিত করণকে সাহায্য করা। পরবর্তীতে সালমান-করণের সঙ্গে একটি পার্টিতে দেখা হওয়ার পর কাজ করার সম্মতি দেন। শুধু তাই নয় সালমান জানান, সেটিই ছিল করণের সঙ্গে আমার শেষ ও প্রথম কাজ। এরপর করণ এতই ব্যস্ত যে একসঙ্গে আর কাজ করা হয়নি। তাই একটু টিপ্পনি কেটে করণের উদ্দেশ্যে সালমান বলেন ‘সুযোগ পেলে আবারও একসঙ্গে কাজ করার জন্য ডেকো কখনো’। সূত্র : এনডিটিভি এসএ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি