ঢাকা, ২০১৯-০৪-২৪ ১২:১৯:৫৩, বুধবার

পরীক্ষায় অনৈতিক সুবিধা না দেওয়ায় শিক্ষক লাঞ্চিত

বাগেরহাট সরকারি মহিলা কলেজে চলমান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) ৪র্থ বর্ষ পরীক্ষায় অনৈতিক সুবিধা প্রদান না করায় শিক্ষককে লাঞ্চিত করেছে শিক্ষার্থীরা। পরীক্ষা শেষে খুলনা যাওয়ার পথে পদার্থ বিদ্যার ওই শিক্ষককে বাস থেকে জোর করে নামিয়ে লাঞ্চিত করে শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ ড. এস.এম রফিকুল ইসলাম বাগেরহাট মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। সেখোনে তিনি বলেছেন, পরীক্ষা চলাকালীন ৩০১ কক্ষের কতিপয় শিক্ষার্থী অনৈতিক সুবিধা দাবি করে। কর্তব্যরত পর্যবেক্ষক (৩৬ তম বিসিএস ক্যাডার কর্মকর্তা) তাদের সুবিধা না দিয়ে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করেন। এ কারণে দুষ্কৃতিকারীরা খুলনাগামী ওই শিক্ষক এবং অন্য এক শিক্ষককে জোর করে বাস থেকে নামিয়ে লাঞ্চিত করে। এ বিষয়ে সরকারি মহিলা কলেজ শিক্ষক পরিষদের সভায় বাগেরহাট মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করার সিদ্ধান্ত করা হয়। ওই সিদ্ধান্ত মোতাবেক থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এ বিষয়ে বাগেরহাট মডেল ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহতাব উদ্দিন বলেন, সাধারণ ডায়েরির বিষয়ে তদন্ত চলছে, দুষ্কৃতিকারীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে। একে//

নুসরাতের ঘাতকদের দ্রুত বিচারের দাবিতে মোরেলগঞ্জে মানববন্ধন

বর্তমান সময়ের নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডের শিকার নুসরাত জাহান রাফির ঘাতকদের দ্রুত বিচারের দাবিতে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে মানববন্ধন ও শোক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বেলা ১১টায় ‘মানব কল্যাণে আমরা’ সংগঠনের ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। মানববন্ধনে পৌরসভা মেয়র অ্যাড. মনিরুল হক তালুকদার ও পৌর এলাকার সরকারি এসএম কলেজ, এসিলাহা উচ্চ বিদ্যালয়, লতিফিয়া ফাজিল মাদ্রাসা, কেজি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, আবু হুরায়রাহ দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধনে ব্যবহৃত ব্যানার, পোস্টার ও প্লাকার্ডে নুসরাত জাহান রাফির প্রতি যৌন হয়রানি ও পারিকল্পিতভাবে অগ্নিসংযোগ করে নৃশংস হত্যাকাণ্ডের মূল হোতা সিরাজ-উদ-দৌলার ফাঁসিসহ সব আসামির দ্রুত বিচারের দাবি জানানো হয়। একে//

বাগেরহাটে ৩ বছরের শিশু ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

বাগেরহাটের ফকিরহাটে ৩ বছরের এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। নির্যাতিতার পিতার অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার রাতে আরমান শেখ (১৬) নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। আরমান উপজেলার বাহিরদিয়া গ্রামের হাবি শেখের ছেলে। মেয়েটির পিতা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে চকলেট দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণ করে আরমান। পরে মেয়েটি অসুস্থবোধ করলে তার মা ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় এবং খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। থানায় মামলা করার পরামর্শ দেন। এলাকাবাসী জানান, খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য লিয়াকত বিচারের আশ্বাস দিয়ে কালক্ষেপন করেন। পরে জানাজানি হলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অভিযুক্ত আরমানকে আটক করে। ফকিরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু জাহিদ শেখ বলেন, এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আমরা শনিবার সকালে শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করার জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছি। আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

বাগেরহাটে কৃষকলীগ নেতার উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

বাগেরহাটে কৃষকলীগ নেতার উপর হামলার প্রতিবাদ ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে এলাকাবাসী। শনিবার বেলা ১১টায় বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সামানে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, সদর উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম সম্পাদক ইলয়াস হোসেন ছুটুল, কৃষক লীগের স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক শেখ আবুল কালাম, কচুয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি মো. রফিকুল আলম, মুক্তিযোদ্ধা আমীর আলী, আহত কৃষক লীগ নেতা আনোয়ার শেখের ছেলে শেখ রাজিউল ইসলাম সাগর, স্ত্রী কহিনুর বেগম, মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার রহমান প্রমুখ। বক্তারা বলেন, সদর উপজেলার কলাবাড়িয়া গ্রামের আকবর আলী ওয়াকফ স্টেট-এর জমি থেকে জোরপূর্বক মাছ ধরে নেওয়ার প্রতিবাদ করায় গত সোমবার রাতে সদর উপজেলা কৃষক লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক আনোয়ার শেখকে (৫৩) হত্যার চেষ্টা করে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার বিকেলে হামলাকারী তিনজনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেন আহতের ছেলে রাজিউল ইসলাম। এর পরেও হামলাকারীরা এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তারা। আমরা হামলাকারীদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

রামপালে মাদরাসা শিক্ষার্থী ধর্ষণের মামলায় অধ্যক্ষ গ্রেফতার

বাগেরহাটের রামপালে ১০ বছর বয়সী এক মাদরাসা ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার মামলায় মাদরাসার অধ্যক্ষ ওলিয়ার রহমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোর রাতে উপজেলার ফয়লাহাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। এর আগে গতকাল শুক্রবার দুপরে একই ঘটনায় ধর্ষণে অপরাধে অভিযুক্ত ফেরদৌস শেখ (১৮) নামে এক মুদি ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার ফেরদৌস শেখ রামপাল উপজেলার শরাফপুর গ্রামের লুৎফর শেখের ছেলে। রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. লুৎফর রহমান বলেন, মাদরাসায় শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় তার মামা বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আমরা প্রধান আসামী মুদি ব্যবসায়ী ফেরদৌস শেখ (১৮) এবং মাদরাসার অধ্যক্ষ ওলিয়ার রহমানকে গ্রেফতার করেছি। তাদেরকে আদালতে সোপর্দের প্রস্তুতি চলছে। অন্য আসামীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। প্রসঙ্গত, ফকিরহাটে নানা বাড়িতে থেকে রামপাল উপজেলার একটি মাদরাসার ছাত্রী নিবাসে থেকে পড়ালেখা করছিল নির্যাতিতা শিশুটি। মাদরাসার সামনের মুদি দোকানি ফেরদৌসের সঙ্গে মেয়েটির পরিচয় হয়। সেই পরিচয়ের সূত্র ধরে ১১ এপ্রিল রাতে মুদি দোকানি ফেরদৌস সুকৌশলে মেয়েটিকে একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে।

ঝিনাইদহ বাজারে ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা

ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় জামিরুল ইসলাম (৩৭) নামে এক ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার রাত ৯টার দিকে সদর উপজেলার কুবিরখালি মাঠে এ ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত পুলিশ সপুার মিলু মিয়া বিশ্বাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিহত জামিরুল ইসলাম মধুহাটি ইউনিয়নের কুবির খালি গ্রামের মজনুর রহমানে ছেলে। তিনি হার্ডওয়্যার ব্যবসায়ী ছিলেন। অতিরিক্ত পুলিশ সপুার মিলু মিয়া বিশ্বাস জানান, শুক্রবার রাতে জামিরুল দোকান থেকে মোটরসাইকেলে বাড়িতে ফিরছিলেন। তিনি কুবিরখালি মাঠ এলাকায় পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা রাস্তায় কলা গাছ ফেলে তার পথ গতিরোধ করে। এ সময় দুর্বৃত্তরা গুলি করলে জামিরুলের মাঠায় ও পিঠে লাগে। এতে ঘটনাস্থেলেই তার মৃত্যু হয়। একে//

রামপালে মাদরাসা ছাত্রী ধর্ষিত, গ্রেপ্তার-১

বাগেরহাটের রামপালে এগারো বছর বয়সী এক মাদরাসা ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে ধর্ষণের অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ ফেরদৌস শেখ (১৮) নামে এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে। ধর্ষিতা শিশুটি রামপাল উপজেলার শরাফপুর ফাজিল মাদরাসার দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী। সে ওই মাররাসার আবাসিক শিক্ষার্থী। শুক্রবার দুপুরে ধর্ষণের শিকার ওই শিশুটিকে পুলিশী হেফাজতে নিয়েছে। শনিবার বাগেরহাট সদর হাসপাতালে মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা হওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ। ফেরদৌস শেখ রামপাল উপজেলার শরাফপুর গ্রামের লুৎফর শেখের ছেলে। পরিবারের বরাত দিয়ে রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. লুৎফর রহমান বিকেলে বলেন, মেয়েটির বাড়ি নওগাঁ জেলায়। তার নানা বাড়ি বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলাতে। এখানে মামাদের কাছে থাকে। ছয় মাস আগে মেয়েটিকে তার মামারা পাশ^বর্তি রামপাল উপজেলার শরাফপুর ফাজিল মাদরাসায় দ্বিতীয় শ্রেণীতে ভর্তি করে দেন। সেই থেকে মেয়েটিকে ছাত্রাবাসে থেকে পড়ালেখা করছিল। এখানে ভর্তি হওয়ার পর মাদরাসার সামনের মুদি দোকানি ফেরদৌসের সাথে তার পরিচয় হয়। সেই পরিচয়ের সূত্র ধরে গত ১১ এপ্রিল বিকেলে মুদি দোকানি ফেরদৌস সুকৌশলে মেয়েটিকে একটি ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। বৃহষ্পতিবার মেয়েটি ছুটি নিয়ে ফকিরহাটে যেয়ে তার মামাদের বিষয়টি জানালে তারা পুলিশের কাছে অভিযোগ দেয়। সেই অভিযোগ পেয়ে মুদি দোকানি ফেরদৌসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমরা মেয়েটিকে পুলিশী হেফাজতে নিয়েছি। শনিবার বাগেরহাট সদর হাসপাতালে মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে। আরকে//

বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের কারণে কাজে আসছে না ভবনটি

বছর দেড়েক আগে ভবন নির্মাণ সম্পন্ন হলেও ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকা বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের কারণে বাগেরহাট ২৫০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বাগেরহাটবাসী। ফলে ৩৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৫০ শয্যার ভবনটি কোনও কাজে আসছে না তাদের। স্বাস্থ্য ও গনপূর্ত বিভাগের মধ্যে আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে উপকূলীয় এ জেলার মানুষ। বহুল কাঙ্খিত বাগেরহাট জেলার সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট সদর হাসপাতাল চালুর দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। হাসপাতালটি চালু হলে জেলার স্বাস্থ্যসেবায় গুণগত পরিবর্তন আসবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা । বিশ্বঐতিহ্য সুন্দরবনের কোলঘেষা বাগেরহাট জেলার প্রায় ১৭ লাখ মানুষের চিকিৎসাসেবার কেন্দ্রস্থল সদর হাসপাতাল। ১৯৯৭ সালে ৫০ শয্যা থেকে হাসপাতালটি ১০০ শয্যায় উন্নীত হয়। ২০১৩ সালে ১০০ শয্যা থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত হয়। একই বছর জুন মাসে ‘হেলথ পপুলেশন এন্ড নিউট্রেশন সেন্টার ডেভলমেন্ট প্রজেক্ট’এর আওতায় আধুনিক চিকিৎসার উপযোগী ১৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল ভবন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে নির্মাণ কাজ শেষ হলেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় হাসপাতাল ভবনটি হস্তান্তর প্রক্রিয়া ঝুলে রয়েছে। দুই বিভাগের মধ্যে কয়েকদফা পত্র আদান প্রদানও হয়েছে ইতোমধ্যে। সর্বশেষ ২০১৭ সালের ডিসেম্বর থেকে এ বছরের মার্চ পর্যন্ত ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় ভবনটি বুঝে নিচ্ছেন না বাগেরহাট স্বাস্থ্য বিভাগ। এলাকাবাসীরা বলেন, নির্মাণ কাজ শেষ হলেও দীর্ঘদিন ধরে অব্যবহৃত রয়েছে ভবনটি। এটি চালু হলে, উন্নত চিকিৎসা সেবা পেতে জেলার বাইরে যেতে হবে না রোগীদের। আমরা দ্রুত এই ভবনে হাসপাতালের কার্যক্রম চালুর দাবি জানাচ্ছি। ষাটোর্ধ বৃদ্ধ মতলেব মিয়া বলেন, আমরা চাই দ্রুত হাসপাতালটি চালু হোক। আমরা উন্নত সেবা পাব। রোগীর স্বজন মহিবুন্নাহার বলেন, ২৫০ শয্যা হাসপাতাল বাগেরহাটবাসীর স্বপ্ন ছিল। এ স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য ভবন নির্মাণ হলেও, সেবা পাচ্ছি না আমরা। এ হাসপাতালটি চালু হলে মানুষ উন্নত সেবা পেত। জামশেদ আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের ডিজি মহাদয়ের কাছে আবেদন করছি যাতে দ্রুত এ হাসপাতালটি চালু হয়। তাহলে আমরা উপকৃত হব। আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাগেরহাটবাসীর একটু বড় ধরণের কোনও সমস্যা হলে খুলনাসহ বড় শহরে চিকিৎসা সেবা নিতে যেতে হয়। আমাদের ২৫০ শয্যা হাসপাতালটি চালু হলে এখানেই পর্যাপ্ত সেবা পেতাম। আর দূরে যাওয়া লাগত না। ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি, বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী পলাশ কুমার ঘোষ বলেন, ভবন নির্মাণের সময় যে অস্থায়ী মিটার ছিল, তার বিল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান দিয়েছে। বর্তমানে বকেয়া বিলের মিটারটি সিভিল সার্জন মহোদয়ের নামে রয়েছে। বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. জি কে এম সামসুজ্জামান বলেন, ১১ লাখ ৩০ হাজার টাকা বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার কারণে আমরা ভবনটি বুঝে নিতে পারছি না। এ বিষয়টি আমরা উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। ভবন বুঝে নেওয়ার আগের বিদ্যুৎ বিল স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে পরিশোধের কোনও সুযোগ নেই বলে দাবি করেন তিনি। গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোবারক হোসেন বলেন, ৩৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ভবনটি নির্মাণ কাজ দেড় বছর আগে শেষ হলেও, স্বাস্থ্য বিভাগ ভবনটি বুঝে নিচ্ছে না। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ শেষে তাদের অস্থায়ী মিটারের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেছে। সিভিল সার্জনের নামের মিটারে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকার বিষয়টি পরস্পর সমঝোতার ভিত্তিতে সমাধান করে দ্রুত হস্তান্তরের জন্য চেষ্টা চলছে।

`বন্ধন মৈত্রী’ ট্রেনে ১০০ টিকিট দেওয়ার দাবি

খুলনা-বেনাপোল-কোলকাতার মধ্যে সরাসরি চলাচলকারী ‘বন্ধন মৈত্রী’ ট্রেন সার্ভিসে বেনাপোল থেকে কোন টিকিট না দেওয়ায় ক্ষুদ্ধ এই রুটে যাতায়াতকারি যাত্রীরা। তাদের দাবি সারাদেশ থেকে প্রতিদিন কয়েক হাজার যাত্রী বেনাপোল হয়ে ভারতে প্রবেশ করেন। লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ইমিগ্রেশনের কাজ শেষ করে বনগাঁ রেলস্টেশনে ট্রেনে ওঠার প্রতিযোগিতায় নামতে হয়। তাই এই বিড়ম্বনা থেকে রাহাই পেতে ভারতে যাওয়া-আসায় খুলনা-বেনাপোল-কোলকাতা ‘বন্ধন মৈত্রী’ ট্রেন সার্ভিস চালু। একই সঙ্গে বেনাপোল থেকে একশ‘ টিকিট দেওয়ার দাবিতে রেলমন্ত্রীর কাছে স্মারক লিপি দিয়েছেন বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেস্টস এসোসিয়েশন। সম্প্রতি, রেল মন্ত্রণালয়ে দেওয়া স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, বেনাপোল স্থলবন্দর দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর। ভারতের সঙ্গে অসম বাণিজ্যে বেনাপোল বন্দরের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিবছর দেশের সিংহভাগ শিল্প কলকারখানা ও গার্মেন্টস ইন্ডাষ্ট্রির মালামাল আমদানি হয় এই বন্দর দিয়ে। ইতিমধ্যে এ বন্দরটি এশিয়ান হাইওয়ের সঙ্গে সংযুক্ত হয়েছে। তাছাড়া চার দেশীয় ট্রানজিট করিডোর এই বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর। নানান সুযোগ-সুবিধার কথা চিন্তা করে স্থানীয়রা প্রতিদিন ট্রেন সাভিসটি চালু রেখে একশ’ টিকিট বরাদ্দ রাখার দাবি জানিয়েছে। আরও বলা হয়েছে, ভারতের কোলকাতা থেকে বেনাপোল অত্যন্ত কাছাকাছি হওয়ায় কম সময়ে এই বন্দর দিয়ে মালামাল আমদানি করা সম্ভব। প্রতিদিন এই রুটে প্রায় সাত থেকে আট হাজার পাসপোর্টযাত্রী ভারত-বাংলাদেশ যাতায়াত করে থাকে। দু’দেশের প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবির কথা চিন্তা করে কোলকাতা-বেনাপোল-খুলনা রুটে সরাসরি যাত্রীবাহী ট্রেন চালু করা হয়েছে। আন্ত:দেশীয় ঐতিহাসিক ট্রানজিট চুক্তি বাস্তবায়ন হয়েছে বেনাপোল বন্দর দিয়ে। অথচ বেনাপোল থেকে যখন কোলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা হয় তখন দেখা যায় অনেকটা ফাঁকা নিয়েই ট্রেনটি চলছে। যাতে করে দিনের পর দিন যদি এভাবে চলতে থাকে তাহলে সরকার যে কোন সময় লোকসান দেখিয়ে সার্ভিসটি বন্ধ করে দিতে পারে বলে ধারণা করছেন ব্যবসায়ীরা। এ ব্যাপারে বেনাপোল কাস্টমস ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টেস এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ নানান কাজে ভারতে যাতায়াত করেন। কিন্তু খুলনা-বেনাপোল-কোলকাতা ‘বন্ধন মৈত্রী’ ট্রেন সার্ভিসে বেনাপোল-কোলকাতার কোনো টিকিট বিক্রি করা হয় না। অথচ প্রতিদিন ট্রেন সার্ভিসটি চালু রেখে একশ‘ করে টিকিট দিলে মানুষ সহজেই চলাচল করতে পারতো। তিনি বলেন, সম্প্রতি এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট দাবি রেখে রেলমন্ত্রীর কাছে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে। কেআই/   

ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার দাবি

সাম্প্রতিক সময়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও নোয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১২টায় ‘মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব’ ম্যুরালের পাদদেশে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ধর্ষকরা পুরুষ জাতির লজ্জা, তাদের কোন জাত-পাত নেই। ধর্ষকরা সহজেই রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছাড় পেয়ে যাচ্ছে। ধর্ষকদের রাজনৈতিক আশ্রয়- প্রশ্রয় দেওয়া বন্ধ করুন। ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড  করার দাবি জানান বক্তারা। মানববন্ধনে বক্তারা আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দেশের আলোকিত অংশ। এখান থেকে দেশের উচ্চশিক্ষিত ও মেধাবী মানুষগুলো বের হয়। কিন্তু সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও আজ যৌন নিপীড়নের শিকার হচ্ছে। এসব ঘটনার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিযুক্তরা রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে। দ্রুত এসব ঘটনার সঠিক বিচার করা করুন একই সাথে ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার দাবি জানান বক্তারা। এসময় মানববন্ধনে শিক্ষার্থীদের হাতে নিরাপদ স্বদেশ আমার অধিকার মুজিবনগর দিবসের অঙ্গিকার, নিরাপদ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চাই, চবি-নোবিপ্রবি নেক্সট?,বাসে চবি রাস্তায় নোবিপ্রবি পরে কোথায় কিভাবে?, ধর্ষকের জাত নাই আমরা তার ফাঁসি চাই, মা-বোনদের জন্য নিরাপদ দেশ আমার অধিকার, নীতি বাক্যের দিন শেষ রুখে দাড়াও বাংলাদেশ, ধর্ষকরা দেশ-জাতির কলঙ্ক তাদের নাগরিকত্ব বাতিল করুন, মুজিবনগর দিবসে সবার নিরাপত্তা চাই ইত্যাদি শ্লোগান সম্বলিত ফেস্টুন দেখা যায়। শামিমুল ইসলাম সুমনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, বাংলা বিভাগের ফেরদাউসুর রহমান সোহাগ, জি কে সাদিক, দাওয়াহ অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিস বিভাগের শাহজালাল সোহাগ, হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের মোশাররফ হোসেন নীল, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের পিয়াস প্রমূখ। জানা যায়, গত ১১ এপ্রিল বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীতে বাসে ধর্ষণের চেষ্টাকালে চলন্ত বাস থেকে লাফিয়ে জীবন বাঁচান চবি অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার নোয়াখালী সদর থানায় যৌন হয়রানি ও হত্যার উদ্দেশ্যে হামলার একটি মামলা করেন নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের একছাত্রী। কেআই/

বেনাপোল ব্যাংকার্স ফোরামের সভাপতি রকিবুল সম্পাদক হাসান

দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলে অবস্থিত সকল সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত কর্তাদের নিয়ে বুধবার সকালে সোনালী ব্যাংক বেনাপোল শাখায় বেনাপোল ব্যাংকার্স ফোরাম (বিবিএফ) গঠিত হয়েছে। ১৬ সদস্য বিশিষ্ট কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি মনোনীত হয়েছেন বেনাপোল সোনালী ব্যাংক লিমিটেড এর ম্যানেজার এ আর এম রকিবুল হাসান এবং সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হয়েছেন আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লি. এর ম্যানেজার মোহাম্মদ আবুল হাসান। ফোরামের কার্যনির্বাহী পরিষদের মেয়াদকাল থাকবে এক বছর। বেনাপোলস্থ ব্যাংক সমূহের যে সকল ম্যানেজার/শাখা প্রধানগণ কার্যনির্বাহী পরিষদের মনোনীত হয়েছেন তারা হলেন সহ-সভাপতি মো. আবুল হোসেন, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লি., সাংগঠনিক সম্পাদক এম এম আশিকুজ্জামান,এবি ব্যাংক লিমিটেড, কোষাধ্যক্ষ মাহবুবুর রহমান, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড,দপ্তর সম্পাদক মো. তরিকুল ইসলাম, দি সিটি ব্যাংক লি.। কার্যনির্বাহী সদস্য হয়েছেন একেএম মোস্তাফিজুর রহমান, জনতা ব্যাংক লিমিটেড, মো. তছির উদ্দীন বিশ্বাস,অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, মো.শফিকুল হোসেন, স্ট্যান্ডার্স ব্যাংক লিমিটেড, মো. আশরাফুল আলম, সিমান্ত ব্যাংক লিমিটেড, মো. মফিদুল হাসনাত, ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড, রিপন কুমার বিশ্বাস, পূবালী ব্যাংক লিমিটেড, মো. আমিনুর রহমান, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, মো. জোবায়ের হোসেন, আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড, মো. মোশারেফ হোসেন, আইসিবি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড ও গৌতম কুমার দে, আনসার ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংক। কেআই/

কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের মধ্যে বিনামূল্যে রাসায়নিক সার ও বীজ বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার বিকালে উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে উপজেলা মিলনায়তনে এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আর এম সেলিম শাহনেওয়াজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন-সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়ার) সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ। স্বাগত বক্তব্য দেন-উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মহাসীন আলী। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য দেন-কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য অফিসার রবিন্দ্র নাথ ঠাকুর,ভাইস প্রিন্সিপাল মইনুল হাসান, প্রভাষক আব্দুর রহিম, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা লুৎফর রহমান, পিপি আই মনিরুল হক, আব্দুল্লাহ আল মামুন, আবির হোসেন প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সংসদ সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহসহ অতিথিবৃন্দ উপজেলার ৯৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে আউশ বীজ ৫ কেজি, ডিএপি সার ১ কেজি ও এমওপি সার ১০ কেজি সার বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ করেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন উপ-সহকারি কৃষি অফিসার শেখ আবুল হাসান। কেআই/

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাশিপের নতুন কমিটি

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় ‘স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ` (স্বাশিপ)-এর কার্যনির্বাহী পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্যবৃন্দ বুধবার (১৭ এপ্রিল) বেলা সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও অদম্য বাংলায় পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করেছে। স্বাশিপ-এর কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন গত (১৬ এপ্রিল) মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইকেল মধুসুদন দত্ত অতিথি ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে রসায়ন বিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক ড.মোসাম্মৎ হোসনে আরা সভাপতি এবং ফার্মেসি ডিসিপ্লিনের অধ্যাপক আশীষ কুমার দাস সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন।   নবনির্বাচিত সভাপতি ড. মোসাম্মৎ হোসনে আরা বলেন,‘এটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সবচেয়ে বড় শিক্ষক সংগঠন, যারা স্বাধীনতার চেতনাকে বুকে লালন করে। আমরা গণতন্ত্রের চর্চা অব্যাহত রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়নে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যেতে চাই। এজন্য তিনি সবার সহযোগিতাও কামনা করেন। ১৬ সদস্যবিশিষ্ট কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচিত অন্যরা হলেন,সহ-সভাপতি ড. মো.ওয়ালিউল হাসানাত অধ্যাপক আইন ডিসিপ্লিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক ড. মো. দুলাল হোসাইন সহযোগী অধ্যাপক বাংলা ডিসিপ্লিন, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক সহযোগী অধ্যাপক ব্যবসায় প্রশাসন ডিসিপ্লিন, কোষাধ্যক্ষ  ড. মো. মনিরুজ্জামান অধ্যাপক ইসিই  ডিসিপ্লিন, দপ্তর সম্পাদক তালুকদার রাসেল মাহমুদ সহকারি অধ্যাপক আইন ডিসিপ্লিন, প্রচার সম্পাদক এস.এম.আব্দুল্লাহ্ আল মামুন সহযোগী অধ্যাপক এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিন, শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক ড. মো. শামীম আখতার সহযোগী অধ্যাপক বিজিই ডিসিপ্লিন, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক কারিমুল হক সহকারী অধ্যাপক পদার্থবিজ্ঞান ডিসিপ্লিন। এছাড়া সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন হাফিজ আহমেদ সহকারী অধ্যাপক ইতিহাস ও সভ্যতা ডিসিপ্লিন,  জয়ন্তী রায় সহকারী অধ্যাপক এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিন, মো. আমিনুল ইসলাম সহকারী অধ্যাপক ভাস্কর্য ডিসিপ্লিন, মো. মিনহাজুল আবেদীন সহকারি অধ্যাপক পরিসংখ্যান ডিসিপ্লিন, নিশাত তারান্নুম সহকারী অধ্যাপক গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা ডিসিপ্লিন এবং মো. মারুফ বিল্লাহ প্রভাষক এগ্রোটেকনোলজি ডিসিপ্লিন। কেআই/

মেহেরপুরে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

মেহেরপুর সদরে ট্রাক চাপায় অফতাব আলি (৫৫) নামের মোটরসাইকেল আরোহী এক স্কুল শিক্ষক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন তার স্ত্রী আহত হালিমা খাতুন। বুধবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। নিহত অফতাব আলী মাস্টার মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিনি মুজিবনগর উপজেলা চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলামের ভাই ও মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। আর আহত হালিমা খাতুনকে মেহেরপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওসি শাহ দারা জানান, অফতাব স্ত্রীকে নিয়ে মেহেরপুর থেকে মোটরসাইকেলে করে মুজিবনগর যাচ্ছিলেন। পথে পেছন থেকে একটি ট্রাক তাদের চাপা দিলে অফতাব ঘটনাস্থলেই নিহত হন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় ট্রাকটিকে জব্দ করা হয় বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা। একে//

স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ উপলক্ষে বাগেরহাটে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সপ্তাহ উপলক্ষে বাগেরহাটে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে বাগেরহাট স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে শহরের সিভিল সার্জন অফিসের সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশনের সামনে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে বাগেরহাট মেডিকেল এ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল, স্বাস্থ্য বিভাগ, নাসিং ইনস্টিটিউটসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন। পরে সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশনের এসিলাহা মিলনায়তনে সিভিল সার্জন ডা. জি কে এম সামসুজ্জামানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. জহিরুল ইসলাম। সভায় বক্তব্য দেন, ডেপুটি সিভিল সার্জন পুলক দেবনাথ, জেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা গুরু পদ ঘোষ, মেডিকেল অফিসার ডা. প্রদীপ কুমার বকশি, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মোজাফফর হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, স্বাস্থ্য সেবা দিতে সবাইকে আন্তরিক হতে হবে। সেবা নিতে এসে রোগী ও রোগীর স্বজনরা যেনো বিড়ম্বনার স্বীকার না হয়, সে দিকে খেয়াল রাখার আহ্বান জানান বক্তারা।

শার্শা সীমান্তে ফেনসিডিলসহ আটক ২

যশোরের শার্শা সীমান্তে ১০ বোতল ফেনসিডিলসহ দুই মাদক সম্রাটকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। মঙ্গলবার বিকেলের দিকে ডিহি ইউনিয়নের বেলতলা গ্রাম থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। এ সময় আটকদের কাছ থেকে চারটি মোবাইল ফোন সেট ও ১৬ হাজার ৪শ‘৩৫ টাকা জব্দ করা হয়। আটকরা হলো, উপজেলার বেলতা গ্রামের মৃত. খায়রুল ইসলামের ছেলে ইমামুল ইসলাম ওরফে শাকদুল (৩৩) ও কাশিপুর গ্রামের রফি উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (২৭)। ৪৯ যশোর বিজিবি ব্যাটালিয়নের কাশিপুর ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার গোলাম সরোয়ার জানান, গোপন সংবাদে জানা যায়, মাদক ব্যবসায়ীরা মাদকের একটি চালান নিয়ে বেলতলা গ্রামে অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে কাশিপুর বিজিবি ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ১০ বোতল ফেনসিডিলসহ মাদক সম্রাট শাকদুল ও জাহাঙ্গীরকে আটক করে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দিয়ে শার্শা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানান তিনি। কেআই/

নুসরাত হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে বাগেরহাটে মানববন্ধন

মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে হাঙ্গার প্রজেক্টের বিকশিত নারী নেটওয়ার্কের আয়োজনে শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। মঙ্গলবার সকালে সদর উপজেলার রাজাপুর স্কুল এ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা মগরাহাট সড়কে এ ঘণ্টাব্যাপী এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, নুসরাতের হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দিতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সরকারিভাবে মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। ভবিষ্যতে নুসরাতের মত যাতে আর কোনও শিক্ষার্থীর প্রাণ দিতে না হয়, তা নিশ্চিত করতে সবাইকে সচেতন হতে হবে। মানববন্ধনে বক্তব্য দেন রাজাপুর স্কুল এ্যান্ড কলেজ কমিটির সদস্য ফেরদাউস হোসেন বাবুল, নারী নেত্রী নিলা রানী দাস, সোহাগ আহমেদ, মোল্লা মনিরুজ্জামান, শিক্ষার্থী ফারজানা মিতু ও ফারিয়া মমতাজ প্রমুখ।

দামুড়হুদায় মাটিচাপায় নিহত ২

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় মাটিচাপা পড়ে আব্দুল হান্নান (৪৫) ও বাবু (৫০) নামে ২ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩ শ্রমিক। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার শেখ ব্রিকসে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। দুর্ঘটনার পর থেকে ইটভাটার মালিক পলাতক রয়েছেন বলে জানান ওসি। নিহত হান্নান দামুড়হুদা উপজেলার কেশবপুর গ্রামের মৃত কালা চাঁদ মণ্ডলের ছেলে। আর নিহত বাবু একই উপজেলার নতুন বাস্তপুর গ্রামের মৃত লাল মণ্ডলের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের মতো মঙ্গলবার ভোর থেকে উপজেলার শেখ ব্রিকসে কাজ করছিলেন শ্রমিকরা। পরে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে স্তুপ করে রাখা মাটির একটি অংশ ধসে পড়লে ঘটনাস্থলেই দুইজনের মৃত্যু হয়। এছাড়া গুরুতর আহত হন আরও তিন শ্রমিক। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক (ডিসি) গোপাল চন্দ্র দাস জানান, এ ঘটনায় দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে ৩ সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য দুই সদস্য উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)। একে//

কলারোয়ায় ইয়াবা ট্যাবলেটসহ যুবক আটক

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ইয়াবাসহ জাহিদুল ইসলাম (২০) নামে যুবককে আটক করেছে থানা পুলিশ। সে কলারোয়া উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়নের কোটা গ্রামের কিতাব শেখের ছেলে। সোমবার সকালে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান জানান,জাহিদুল ২০পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়ে কোটার ইলিশপুর বাজারস্থ জনৈক ইবাদুলের চায়ের দোকানের সামনে দাড়িয়ে থাকা অবস্থায় পুলিশ তাকে আটক করে। এ বিষয়ে কলারোয়া থানায় তার বিরুদ্ধে একটি মামলা নং-২২(৪)১৯ দায়ের হয়েছে । অপর এক অভিযানে গ্রেফতারী পরোয়ানা থাকায় মিঠু (৪৫) তার বাড়ী থেকে সোমবার ভোররাতে আটক করা হয়। সে কলারোয়া পৌর সদরের ঝিকরা গ্রামের শফিউদ্দিন মোড়লের ছেলে। কেআই/  

বেনাপোলে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত

অসাম্প্রদায়িক বাঙ্গালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখকে ঘিরে যশোরের শার্শা উপজেলায় ও বেনাপোলে নানা কর্মসূচি মাধ্যমে এ দিবসটি পালিত হয়েছে। শার্শা পাইলট মডেল হাইস্কুল থেকে সকাল ৯টার সময় র‌্যালি ও মঙ্গল শোভাযাত্রার মাধ্যমে পহেলা বৈশাখের যাত্রা শুরু হয়। উপজেলা প্রশাসন ছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বর্ষ বরণের নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। উৎসবকে ঘিরে চিরায়ত মঙ্গল শোভাযাত্রা, পান্তা-ইলিশের পাশাপাশি বিভিন্ন ভর্তা দিয়ে পান্তাসহ বিভিন্ন দেশীয় মুখরোচক খাবার পরিবেশন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রতিবছরের মত পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে বৈশাখী মেলা বসেছে। বিভিন্ন সংগঠন শিক্ষা প্রতিষ্টান, রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তিরা শার্শা ও বেনাপোলে বৈশাখ এর অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। উৎসবে মাতে শিশু-কিশোরসহ বিভিন্ন ধর্ম বর্ণের মানুষ। অপরদিকে বেনাপোলে পৌর ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের উদ্দ্যোগে বেনাপোল বলফিল্ড ময়দান থেকে বিশাল র‌্যালি ও মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। পহেলা বৈশাখের উৎসবকে ঘিরে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষের পান্তা ও ইলিশ খাওয়ানো হয়। সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে পান্তা ও ইলিশ খাবারের দায়িত্ব পালন করেন পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগ। এসব অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যশোর-১ (শার্শা) আসনের সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মঞ্জু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার পূলক কুমার মন্ডল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান, যশোর জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ-উদ-দৌলা আলোক সর্দার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, বেনাপোল পোর্ট থানার ইনর্চাজ আবু সালেহ মাসুদ করিম, শার্শা থানার ওসি (তদন্ত) তাসকিন আহম্মেদ তুষার, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অহিদুজ্জামান অহিদ, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানগণ, বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল হক মুকুল, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, বেনাপোল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি তাহাজ্জেল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শহিদুজ্জামান শহিদ, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার,সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন রাসেল, পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি জুলফিকার মন্টু, সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মামুন জোয়ার্দ্দার, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রুবেল, ইমরান, পারভেজ, শ্রমিক নেতা জসিম উদ্দিন প্রমুখ। কেআই/

বেনাপোল শার্শায় ৫ হাজার মানুষকে পান্তা-ইলিশ খাইয়ে বর্ষবরণ

বাংলার প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখকে ঘিরে সীমান্ত শহর বেনাপোল ও শার্শায় নতুন বছরকে বরণ করে নিতে বিভিন্ন উৎসবের পাশাপাশি প্রায় পাঁচ হাজার বিভিন্ন শ্রেণির মানুষকে পান্তা-ইলিশ দিয়ে আপ্যায়িত করেন যশোরের শার্শা উপজেলা প্রশাসন ও বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগ। নববর্ষে মঙ্গল বার্তা নিয়ে বের হয়েছে মঙ্গল শোভাযাত্রা। আবহমান বাংলার ঐতিহ্যগাথা সার্বজনীন উৎসবের দিন রোববার পহেলা বৈশাখকে স্বাগত জানাতে ব্যাপক আয়োজন করে শার্শা উপজেলা পরিষদ ও বেনাপোল পৌর আওয়ামী লীগ। জাতীয় সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। সকাল ৯টায় উপজেলা সদরে ও বেনাপোল বন্দরে মঙ্গল শোভাযাত্রার বর্ণ্যাঢ্য র‌্যালি বের হয়। এতে আবহমান বাংলার চিরায়িত রুপ ও দেশজ সংস্কৃতি উপস্থাপন করা হয়। সামনে পেছনে ঢাকের বাদ্যের তালে তালে নৃত্য আর হাতে হাতে বড় আকারের বাহারী মুখোশ। গরুর গাড়ি, টেপা পুতুল আর বাঁশের কাঠামোতে মাছ পাখি ফুটে উঠেছে বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্য। সেই প্রতীক ধারন করেছে সাম্প্রতিক ঘটনা প্রবাহের চিহৃ, অমঙ্গলের আধার ঘোচানোর প্রত্যয়। বৈশাখের লাল-সাদার ভিড়ে সব বয়সের সব শ্রেণি পেশার হাজারো মানুষ। রাজনৈতিক কোলাহলমুক্ত মঙ্গল শোভাযাত্রায় নববর্ষের ব্যানার ফেস্টুনসহ রং বেরং এর পোশাকে গ্রামবাংলার অতিত ঐতিহ্য ফুটিয়ে তোলে ছেলে মেয়েরা। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মঙ্গল শোভাযাত্রায় এনে দেয় বাঙালি সংস্কৃতির আদি উৎসব, যা এই ডিজিটাল যুগেও শেকড়ের সন্ধানে ছোট বড় সবার মাঝে অনুপ্রেরণা জোগায়। স্কুল কলেজসহ বিভিন্ন সংগঠন রংঙে ঢংঙে গা গ্রামের আদলে সেজে ব্যানার ফেস্টুন সহকারে মঙ্গল শোভা যাত্রা বর্ণ্যাঢ্য র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন। শার্শা-বেনাপোলে মঙ্গল শোভাযাত্রায় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম মজ্ঞু, নির্বাহী অফিসার পুলক কুমার মন্ডল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মৌসুমী জেরিন কান্তা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ নুরুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক এস এম আসিফ-উদ-দৌলা সরদার অলক, জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌস, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা জয়দেব কুমার সিংহ, বেনাপোল পোর্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু সালেহ মাসুদ করিমসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ উপজেলার সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার হাজারো মানুষ। শার্শা ও বেনাপোলের বৈশাখী অনুষ্ঠানে প্রায় পাঁচ হাজার মানুষকে পান্তা ইলিশ দয়ে আপ্যায়িত করা হয়। বর্ষবরণকে সামনে রেখে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। এসএইচ/

ইবিতে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা ও বৈশাখী মেলা

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা আয়োজনে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে রোববার সকাল ৯টায় বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা, তিনদিনব্যাপী বৈশাখী মেলা ও জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। সকাল সাড়ে ৯ টায় প্রশাসন ভবনের সামনের চত্বর হতে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী, ছাত্র-ছাত্রী, বিভিন্ন হল, বিভাগ এবং সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের স্ব-স্ব ব্যানারসহ অংশগ্রহণে এক বর্ণাঢ্য “মঙ্গল শোভাযাত্রা” অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী। উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা ও রেজিস্ট্রার এস,এম আব্দুল লতিফ। মঙ্গল শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মেলা প্রাঙ্গণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানস্থল বাংলা মঞ্চে গিয়ে শেষ হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানস্থলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী তিন দিনব্যাপী বৈশাখী মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। উদ্বোধনকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, সংস্কৃতিক হচ্ছে বেগবান যা চর্চার বিষয়। আর এই চর্চাটি হয় পহেলা বৈশাখের সার্বজনীন উৎসব বর্ষ বরণের মধ্যে দিয়ে। পহেলা বৈশাখ হচ্ছে বাঙালী সংস্কৃতির প্রাণের উৎসব যেখানে নেই কোন ভেদাভেদ ও বিভাজন। সকল ধর্ম-বর্ণ, পেশার মানুষ এই দিনে সম্প্রতির বন্ধনে মেতে উঠে। তিনি আরও বলেন, সমাজ ও সভ্যতার বিনাশ সৃষ্ঠিকারী অপ-সংস্কৃতির কারণে যেন আমাদের দেশীয় সংস্কৃতির চরম ক্ষতি সাধন না হয় সে দিকে আমাদের সকলকেই খেয়াল রাখতে হবে। কোন অপশক্তি ও অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসীরা যেন মাথা তুলতে না পারে। তিনি বলেন,পহেলা বৈশাখের অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে মঙ্গল শোভাযাএা, যা সকল অমঙ্গলকে বিদায় করে দিয়েছে। তাই মঙ্গল শোভাযাএা সমাজের বিশেষ কোন শ্রেনীর বা পেশার মানুষের জন্য নয় বরং তা সার্বজনীন যেখানে সকল ভেদাভেদ ভুলে জাতি,বর্ণ-ধর্ম নির্বিশেষে সমাজের সকল স্তরের মানুষ স্বর্তস্ফুতভাবে প্রাণের উৎসবে মিলিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল ও বিভাগ এবং বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের আয়োজনে তিনদিন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দুপুর ৩টা হতে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। কেআই/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি