ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ৭:৫৯:২৫

মাদকের রমরমা ব্যবসা (ভিডিও)

মাদকের রমরমা ব্যবসা (ভিডিও)

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাঁড়াশি অভিযানের মুখেও থামছে না মাদক বেচাকেনা। খোদ রাজধানীতেই মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখের সামনে বিক্রি হচ্ছে ইয়াবা। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলছেন, মাদক পাচারে কৌশল বদল করেছে ব্যবসায়িরা। দর্শক, এ’বিষয়ে বিস্তারিত থাকছে রাত ১০টায় একুশের চোখ অনুষ্ঠানে। মিরপুর এক নম্বরের ‘সি’ ব্লকে ইয়াবা সেবনের এমন আড্ডা। এর একটু দূরে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের চিত্র-ও একই রকম। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের পরও রাজধানীতে হরহামেশা মিলছে ইয়াবা। একুশের অনুসন্ধানী টিমও এর প্রমাণ পেয়েছে। মাদকের আড্ডায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মিরপুর ১ নম্বরে মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে ফতেহ, আলম ও পাখী বেগম। তারা ফোনের মাধ্যমে মাদক সরবরাহ করে। থানার পাশে মাদক বিক্রির বিষয়ে জানানো হয় ওসিকে। তবে, তিনি বলেন, এমন তথ্য তার কাছে নেই। মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক খোরশেদ আলম বললেন, সাঁড়াশি অভিযানের পর এখন পাচারকারিরা পেটের ভেতর, এমনকি গোপনাঙ্গেও ইয়াবা বহন করে। মাদক নিয়ন্ত্রণে অভিযান চলবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।
চলন্ত রাস্তা...

বিশ্বের বহু বিমানবন্দরেই চলন্ত সিঁড়ি দেখা যায়। এর ফলে পথচারীকে হাঁটতে হয় না। কারণ রাস্তাই তাকে পৌঁছে দেয় গন্তব্যে। তবে বিভিন্ন দেশের কয়েকটি বিমানবন্দরে এ ধরনের এস্কেলেটর থাকলেও কোনও দেশে চলন্ত রাস্তা চালু নেই। আর এমনই চলন্ত রাস্তার এক প্রদর্শনী হয়ে গেল রাজধানী ঢাকায়। গতকাল মঙ্গলবার মিরপুর ১ নম্বরের সাইনপুকুর অ্যাপার্টমেন্টে চলন্ত রাস্তা প্রযুক্তি প্রদর্শন করেন চলচ্চিত্রকার আবু সাইয়ীদ। রাজপথে চলন্ত রাস্তার ধারণাটির উদ্ভাবক তিনি। তার এই উদ্যোগকে মানুষের সঙ্গে পরিচিত করতে সাইনপুকুর অ্যাপার্টমেন্টে চলন্ত রাস্তার একটি ছোট মডেল প্রদর্শনী করেন। আবু সাইয়ীদ জানান, এটি অনেকটা চলন্ত সিঁড়ির মতোই। তার ওপর থাকবে একটি বাসের মতো কাঠামো, যার ভেতরে যাত্রীদের জন্য থাকবে বসা ও দাঁড়ানোর ব্যবস্থা। এই পদ্ধতিতে পথচারীরা মূল রাস্তায় না নামায় যান চলাচল স্বাভাবিক থাকবে। এ ধরনের চলন্ত রাস্তা তৈরি করতে ব্যয় হবে মেট্রোরেল নির্মাণের ১০ ভাগের এক ভাগ। আর ঘণ্টায় ২০ থেকে ৬০ কিলোমিটার গতিতে চলতে পারবে এই রাস্তা।   তিনি বলেন, এই পদ্ধতি প্রয়োগ করা হলে ক্রসিং পয়েন্টগুলোতে কয়েকটি স্তরের চলন্ত রাস্তা হবে। যার একটির ওপর থাকবে আরেকটি। বিদ্যুতের মাধ্যমে এটি চলাচল করবে। আর এটা হবে সম্পূর্ণ কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত। এভাবে পুরো শহরকেই চলন্ত রাস্তার নেটওয়ার্কের মধ্যে নিয়ে আসা সম্ভব হবে। তিনি আরও জানান, নির্ধারিত সময়ে চলন্ত রাস্তা থামবে যাত্রী ওঠা-নামার জন্য। কোনও জ্বালানি ব্যবহার করা হবে না। এর ফলে এই রাস্তা হবে সম্পূর্ণ পরিবেশবান্ধব। একে//

উত্তরখানে গ্যাস লাইনের আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫

রাজধানীর উত্তরখান থানা এলাকার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দগ্ধদের মধ্যে আরো দুইজন মারা গেছেন। এ নিয়ে এ ঘটনায় নিহতের সংখ্যা দাঁড়াল পাঁচে। গত ১৩ অক্টোবর ভোর সাড়ে ৪টার দিকে উত্তরখানের বেপারীপাড়ার একটি বাড়ি থেকে আটজনকে দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। দগ্ধরা সবাই একই পরিবারের সদস্য বলে জানা যায়। তাঁদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান পূর্নিমা (৩৫)। আজ বুধবার সকালে মারা যান ডাবলু (৩৩)। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানান ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া। হাসপাতালে ভর্তির পর গত শনিবার সকালে মারা যান আজিজুল (২৭) ও বিকেলে মারা যান মোসলেমা (২০)। পরদিন রোববার মারা যান সুফিয়া বেগম (৫০)। বর্তমানে আনজু (২৫), আবদুল্লাহ (৫) ও সাগর (১২) হাসপাতালে ভর্তি আছে। উত্তরখানের বেপারীপাড়ার তিনতলা বাসাটির নিচতলায় অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাসের পাইপলাইন লিকেজ হয়ে কক্ষগুলোতে গ্যাস জমে গিয়েছিল। ভোরে পরিবারের রান্না করার জন্য চুলার সামনে দিয়াশলাইয়ের কাঠি জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। ঘরে গ্যাস জমে থাকার আলামত পাওয়া গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আবদুল্লাহ ও আনজু ছাড়া সবারই শরীর দগ্ধ হয়েছে।

উত্তরখানে গ্যাস লাইনের আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪

রাজধানীর উত্তরখানে গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে লাগা আগুনে পুড়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪ জনে দাঁড়িয়েছে। আগুনে দগ্ধ ৮ জনের মধ্যে আফরোজা আক্তার পূর্ণিমা (৩০) নামে আরও এক নারী ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান পূর্ণিমা। এর আগে রবিবার সকাল ৭টার দিকে পূর্ণিমার মা সুফিয়া বেগম (৫০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। শনিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুফিয়ার ভাতিজা আজিজুল ইসলাম (২৭) মারা যান। সন্ধ্যায় মারা যান তার স্ত্রী মুসলিমা (২০)। ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া কর্তব্যরত চিকিৎসকের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। চিকিৎসাধীন বাকি দগ্ধরা হলেন পূর্ণিমার ছেলে সাগর (১২), সুফিয়ার ভাতিজি ও আজিজুলের বোন আঞ্জু আরা (২৫) ও তার স্বামী ডাবলু মোল্লা (৩৩), তাদের ছেলে আব্দুল্লাহ সৌরভ (৫)। উল্লেখ্য, গত শনিবার ভোর ৪টার দিকে উত্তরখানের ব্যাপারীপাড়ায় তিনতলা একটি বাড়ির নিচতলায় গ্যাস লাইন বিস্ফোরণে একই পরিবারের আটজন দগ্ধ হয়। খবর পেয়ে উত্তরা ফায়ার স্টেশনের ৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে দগ্ধ আটজনকে উদ্ধার করে ঢামেকে ভর্তি করা হয়। আরকে//

শাহজালালে ৭ কেজি সোনাসহ মালয়েশিয় আটক

রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাত কেজি সোনাসহ মালয়েশিয়ার এক নাগরিককে আটক হয়েছেন। গতকাল রোববার রাতে তাঁকে আটক করে কাস্টমস গোয়েন্দা ও শুল্ক বিভাগের সদস্যরা। উদ্ধার হওয়া সোনার বাজারমূল্য প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা। আটক ব্যাক্তির নাম সিয়ান জি কিয়ং (৪৭)। তিনি চীনা বংশোদ্ভূত মালয়েশিয়ার নাগরিক। তাঁকে বিমানবন্দর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। কাস্টমস বিভাগের উপপরিচালক ওথিলো চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মালিন্দ এয়ারের ওডি-১৬৬ বিমানটি গতকাল রাত ১০টায় শাহজালালে অবতরণ করে। ওই বিমানের যাত্রী ছিলেন এই মালয়েশিয়ান নাগরিক।  ওথিলো চৌধুরী আরো জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি দল গ্রিন চ্যানেল অতিক্রমকালে তাঁকে চ্যালেঞ্জ করে। এ সময় তল্লাশি করে তাঁর পরনে থাকা জ্যাকেটের ভেতর থেকে সোনাগুলো উদ্ধার করা হয়। সোনাগুলো জ্যাকেটের সাতটি ছোট ছোট পকেট থেকে কার্বন পেপারে মোড়ানো হলুদ টেপ প্যাঁচানো ছিল। তিনি আরও জানান, প্রতিটি বারের ওজন ১ কেজি করে মোট পরিমাণ ৭ কেজি। আনুমানিক বাজার মূল্য সব মিলিয়ে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা। / এআর /

হাতিরঝিলের অবৈধ স্থাপনা সরানো নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত

রাজধানীর হাতিরঝিলে লে আউট প্ল্যানের বাইরে গড়ে উঠেছে অসংখ্যা অবৈধ স্থাপনা। এসব স্থাপনা সাত দিনের মধ্যে অপসারণ করতে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের ওপর স্থিতিবস্থা জারি করেছে আপিল বিভাগ। পাশাপাশি এ বিষয়ে আদালতের জারি করা রুল দুই মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। রবিবার (১৪ অক্টোবর) বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলীর নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।   আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। অপরদিকে স্থগিত আবেদনের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান। এ মামলার আইনজীবীরা জানান, স্থিতিবস্থা জারির ফলে রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ওই স্থাপনাগুলো ভাঙা যাবে না। গত ১০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর হাতিরঝিল প্রজেক্টের লে আউট প্ল্যানের বাইরে থাকা স্থাপনা সাত দিনের মধ্যে অপসারণের নির্দেশ দেয় হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ। পরে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে লে আউট প্ল্যানের বাইরে থাকা স্থাপনাগুলোর মালিকরা। লে আউটের বাহিরে অবৈধ এসব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম চললেও রাজউক নিষ্ক্রিয় থাকার বিষয়ে গত ১ আগস্ট একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে জনস্বার্থে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে রিট আবেদন করা হয়। সে আবেদনের শুনানি করে আদালত অবৈধ স্থাপনা সরাতে নির্দেশ দেয়। রিটাকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ জানান, হাইকোর্ট আদেশে রাজউকের চেয়ারম্যান, ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার, হাতিরঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও প্রজেক্ট পরিচালককে প্রজেক্ট এলাকায় প্রতিনিয়ত মনিটরিং করার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন। যেন কেউ লে আউট প্ল্যান বহির্ভূত স্থাপনা করতে না পারে। এসি  

মিরপুরে গ্যাস থাকবে না কাল

মেট্রোরেল প্রকল্পের আওতায় পাইপলাইনে প্রান্ত ক্যাপ স্থাপনের কারণে আগামীকাল সোমবার (১৫ অক্টোবর) রাজধানীর মিরপুর এলাকায় ১০ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন তিতাস গ্যাস কোম্পানির ব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) গোলাম মোস্তাফা। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে সোমবার সকাল ১০টা-রাত ৮টা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, রাজধানীর সেনপাড়া ও কাজীপাড়া এলাকায় মেট্রোরেলের অ্যালাইনমেন্টে বিদ্যমান গ্যাস পাইপলাইনে প্রান্ত ক্যাপ স্থাপনের জন্য মিরপুর, কল্যাণপুর, দক্ষিণ পাইকপাড়া, মধ্য পাইকপাড়া, আহম্মদনগর, বশির উদ্দিন রোড, আনসার ক্যাম্প, মনিপুর, পীরেরবাগ, আগারগাঁও, তালতলা, শেওড়াপাড়া, কাজীপাড়া, সেনপাড়া, ইব্রাহীমপুর, কাফরুল, মিরপুর-১৩, ১৪, ভাষানটেক ও এর আশেপাশে এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখা হবে। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে রাজধানীতে মেট্রোরেল প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এই প্রকল্পের আওতায় মোট ২৮ জোড়া মেট্রোরেল রাজধানীর উত্তরা থেকে মিরপুর- ফার্মগেট হয়ে মতিঝিল পর্যন্ত চলাচল করবে। এতে চলাচলের জন্য সময় লাগবে ৪০ মিনিটেরও  কম। প্রতি চার মিনিট পর পর ঘণ্টায় ৬০ হাজার যাত্রী পরিবহন করবে মেট্রোরেল। কেআই/

বি. চৌধুরীকে অভিনন্দন জানালেন তথ্যমন্ত্রী

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নামে যে জোট গঠিত হয়েছে, তাতে যোগ না দেওয়ায় বিকল্পধারার সভাপতি ও সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের একদিনের মাথায় সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে গণমাধ্যমকে তথ্যমন্ত্রী বলেন,‘বি. চৌধুরী যা বিশ্বাস করেন, সেই বিশ্বাসে অনড় ছিলেন এবং আছেন। একারণেই তিনি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যাননি। এজন্য তাঁকে সাধুবাদ ও অভিনন্দন জানাই।’ গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে করে এই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ঘোষণা দেওয়া হয়। নতুন জোটের আহ্বায়ক করা হয়েছে গণফোরামের সভাপতি ও সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. কামাল হোসেনকে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবি প্রসঙ্গে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) একাংশের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, এগুলোর কোনো ভিত্তি নেই। এই সাত দফার মধ্যে কিছু ওমিশন আর কিছু কমিশন আছে। সাত দফার মাধ্যমে ভূতের সরকার নাজিল করতে চায় ঐক্যফ্রন্ট। সেই ধরনের ঐক্যফ্রন্টে না যাওয়ায় বিকল্পধারার সভাপতি বি. চৌধুরীকে আমরা অভিনন্দন জানাই,’যোগ করেন তথ্যমন্ত্রী। টিআর/

রাজধানীতে গ্যাস লাইনে বিস্ফোরণ: দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু

রাজধানীর উত্তরখানের বেপারিপাড়ার একটি বাসায় চুলার গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণে দগ্ধ ৮ জনের মধ্যে সুফিয়া বেগম (৫০) নামে আরও এক নারী মারা গেলেন। রোববার সকাল ৭ টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ নিয়ে এই ঘটনায় তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধ বাকিদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। এর আগে শনিবার ভোর ৪টার দিকে উত্তরখানের ব্যাপারীপাড়ায় তিনতলা একটি বাড়ির নিচতলায় গ্যাস লাইন বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে একই পরিবারের আটজন দগ্ধ হয়। খবর পেয়ে উত্তরা ফায়ার স্টেশনের ৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে দগ্ধদের উদ্ধার করে ঢামেকে ভর্তি করে। এদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় সুফিয়ার ভাতিজা আজিজুল ইসলাম (২৭) মারা যান। এদিন সন্ধ্যায় মারা যান তার স্ত্রী মুসলিমা (২০)। চিকিৎসাধীন বাকি দগ্ধরা হলেন- সুফিয়ার মেয়ে আফরোজা আক্তার পূর্ণিমা (৩০), পূর্ণিমার ছেলে সাগর (১২), সুফিয়ার ভাতিজি ও আজিজুলের বোন আঞ্জু আরা (২৫) ও তার স্বামী ডাবলু মোল্লা (৩৩), তাদের ছেলে আব্দুল্লাহ সৌরভ (৫)। একে//

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি