ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১২:০৬:০৩

জবির ১৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ২২ অক্টোবর

জবির ১৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ২২ অক্টোবর

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আগামী ২২ অক্টোবর  উদযাপন করা হবে। রোববার বেলা ১২ টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান-এর সভাপতিত্বে উপাচার্য মহোদয়ের সভা কক্ষে ১৩ তম জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কমিটির ১ম প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ২০ অক্টোবর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দিবস। বিগত বছরগুলোর ন্যায় এবারও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে মহাসমারহে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হতে যাচ্ছে। ২০ ও ২১ অক্টোবর বন্ধ থাকার কারণে ২২ অক্টোবর দিনব্যাপী ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এবারের বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে-বর্ণাঢ্য র‌্যালি, আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। র‌্যালির সার্বিক ব্যবস্থাপনায় থাকবে প্রক্টর দপ্তর। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সার্বিক দায়িত্ব পালন করবে সংগীত ও নাট্যকলা বিভাগ। এছাড়াও চারুকলা বিভাগের উদ্যোগে চিত্রকলা প্রদশর্নীর আয়োজন করা হবে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, রেজিস্ট্রার, বিভাগের চেয়ারম্যান, দপ্তর প্রধান, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠন, কর্মকর্তা সমিতি, কর্মচারী সমিতি ও সহায়ক কর্মচারী সমিতির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। কেআই/ এসএইচ/
চুয়েটে তিন দিনব্যাপী ‘সিএসই ফেস্ট-২০১৮’ উদযাপিত  

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এ বর্ণাঢ্য আয়োজনে কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের শিক্ষার্থীদের বিদায় ও বরণ উৎসব ‘সিএসই ফেস্ট-২০১৮’ উদযাপিত হয়েছে।    সিএসই বিভাগের ‘১৩তম ব্যাচের বিদায় এবং ‘১৭ তম ব্যাচের নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।          এ উপলক্ষে অদ্য রোববার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ ঘটিকায় সিএসই বিভাগের সামনে থেকে এক আনন্দ র‌্যালির মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন করেন চুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। এ সময় শিক্ষার্থীরা ঢাকঢোল পিঠিয়ে এবং ভুভুজেলা বাজিয়ে শুভ্র রঙের টি-শার্ট সহযোগে নেচে-গেয়ে ক্যাম্পাস মাতিয়ে তোলে। র‌্যালিটি সিএসই বিভাগ হতে শুরু হয়ে ইএমই ভবন ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ভবন হয়ে কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে এসে শেষ হয়।   এ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে সিএসই বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সামসুল আরেফিনের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন তড়িৎ ও কম্পিউটার কৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. কৌশিক দেব ও ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সিএসই ফেস্ট-২০১৮ এর কনভেনর ও সিএসই বিভাগের অধ্যাপক ড. প্রণব কুমার ধর। ‘১৪ ব্যাচের শিক্ষার্থী মায়িশা মালিহা ও ‘১৫ ব্যাচের রাফিউর রহমান রিয়াদের সঞ্চলনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন সিএসই ফেস্টের কো-কনভেনর ও ‘১৪ ব্যাচের শিক্ষার্থী মো. রিদওয়ান তাওহীদ, বিদায়ী ‘১৩ ব্যাচের পক্ষে মো. কাজী হাসান সাকিব, মো. আতিকুর রহমান রিজভী ও সাদিয়া তাসনীম, ‘১৪ ব্যাচের পক্ষে আয়েশা সিদ্দীকা, ‘১৫ ব্যাচের পক্ষে মোশারফ হোসেন, ‘১৬ ব্যাচের পক্ষে রাতুল ভৌমিক এবং ‘১৭ ব্যাচের পক্ষে ফারিহা চৌধুরী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, দেশের বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর নির্মিত হচ্ছে আমাদের চুয়েটে। আগামী মাস দু’য়েকের মধ্যে সেটার দৃশ্যমান হতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যেই ওয়ার্ক -অর্ডার হয়ে গেছে। সরকার কর্তৃক প্রকল্প পরিচালকও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আইটি পার্ক স্থাপনেরও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এই ইনকিউবেটরের সবচেয়ে বড় সুফল ভোগকারী হবে কম্পিউটার প্রকৌশলীরা। দেশে চাকরির বাজার ক্রমশ সংকুচিত হয়ে আসছে। সেক্ষেত্রে চাকরির পেছনে না ছুটে শিক্ষার্থীরা চাইলে ছাত্রজীবন থেকেই উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারেন। এ জন্য দরকার শুধু সৃজনশীল আইডিয়া এবং পরিশ্রমী মনোভাব। আর এই আইটি ইনকিউবেটর হবে শিক্ষার্থীদের জন্য অনেক বড় প্লাটফর্ম। তিনি আরও বলেন, চুয়েটে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা ও গবেষণার জন্য যাবতীয় ল্যাবরেটরি ও কারিগরি সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। এখন সে সবের যথাযথ ব্যবহার করতে পারলেই শিক্ষার্থীরা গবেষণা ক্ষেত্রে এবং কর্মক্ষেত্রে এগিয়ে যাবে। পরে বিদায়ী ‘১৩ ব্যাচ এবং নবাগত ‘১৭ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের হাতে মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম সম্মাননা স্মারক তুলে দেন।   এরপর সিএসই ফেস্ট-২০১৮ উপলক্ষে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সেমিনারে রিসোর্স পারসন হিসেবে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুর রাজ্জাক এবং চুয়েটের সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল হাসান সরকার। এর আগে সিএসই বিভাগের অপারেটিং সিস্টেম ল্যাবে মর্যাদাপূর্ণ প্রোগ্রামিং কনটেস্টের মাধ্যমে গত ২১ সেপ্টেম্বর, থেকে তিনদিনব্যাপী উৎসবের প্রথম পর্ব শুরু হয়। উৎসবের অন্যান্য আয়োজনের মধ্যে ছিলো- গেমিং কনটেস্ট, প্রজেক্ট শো, ক্যারিয়ার আড্ডা, সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা প্রভৃতি।   কেআই/এসি     

জাবি উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের একাংশের

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগের দাবি করেছেন আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের একাংশের জোট। রোববার বেলা তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ডিনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানায় ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ ১৯৭৩ লঙ্ঘন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থ পরিপন্থী বিভিন্ন কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন। শিক্ষক লাঞ্ছণার বিচার না করা, নিয়ম বহিভূতভাবে আবাসিক হলের প্রাধ্যক্ষ ও অনুষদের ডিন নিয়োগ দেওয়া, তলবি সিনেট অধিবেশন ও নিয়মিত সিন্ডিকেট সভা না ডাকা, জাকসু নির্বাচনের জন্য দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করাসহ নানা অনিয়ম চালিয়ে যাচ্ছেন। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে এবং শিক্ষা ও গবেষণার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, উপাচার্যের ‘অধ্যাদেশ বিরোধী’ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করতে গিয়ে শিক্ষকেরাও বিভিন্ন সময় লাঞ্ছিত হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ মনে করে অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম উপাচার্য পদে বহাল থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ও সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আবুল হোসেন, সভাপতি অজিত কুমার মজুমদার, সহ-সভাপতি কৌশিক সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলমগীর কবির পমুখ। কেআই/ এসএইচ/

এলআইসিটি বেস্ট অ্যাওয়ার্ড পেলেন চবি শিক্ষার্থী

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষার্থীদের সাফল্য-মুকুটে যুক্ত হলো আরেকটি পালক। এবার আইসিটি মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত এলআইসিটি সমাপনী অনুষ্ঠানে বেস্ট প্রজেক্ট এ্যাওয়ার্ড পেলেন কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী নাজমুল করিম নিপুন। সম্প্রতি ঢাকায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল অডিটরিয়ামে সমাপনী অনুষ্ঠানে তার হাতে এ পদক তুলে দেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। জানা যায়, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে এ খাতে দক্ষ জনবল তৈরির জন্য বাংলাদেশের প্রায় সকল সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ কর্মশালাটি পরিচালিত হয়। এলআইসিটির এই উদ্দ্যোগে উপদেষ্টা পরিষদে আছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এবং তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। এ প্রতিযোগিতায় পাঁচটি ক্যাটাগরিতে অংশগ্রহণকারীদের পুরস্কৃত করা হয়। ৩০ হাজার প্রজেক্টের মধ্যে `রেস্টুরান্ট বিল্ডিং সিস্টেম` এর ওপর তৈরি নাজমুল করিম নিপুনের প্রজেক্টটি জাভা ট্র্যাকে সেরা হিসেবে বিবেচিত হয়। বেস্ট প্রজেক্ট এ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হওয়া নাজমুল করিম নিপুন বলেন, প্রায় ছয় মাসব্যাপী এই প্রজেক্টের জন্য কাজ করি। কাজ করার সময় কখনো ভাবিনি এভাবে স্বীকৃতি পাব। যা অনেক ভালো লাগছে এবং সামনে কাজ করার অনুপ্রেরণা যোগাবে। তবে সবার কাজে লাগবে এ কথা মাথায় রেখে `রেস্টুরান্ট বিল্ডিং সিস্টেম` অ্যাপসটি তৈরি করা হয়েছে। উল্লেখ্য, পড়ালেখার পাশাপাশি নাজমুল করিম নিপুন ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয় আছেন। তিনি চবি শাখার ছাত্রলীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি ছিলেন। জেইউ/ এমজে  

সরকারি কলেজে বেসরকারি কর্মচারীদের চাকরি জাতীয়করণের দাবি

সরকারি কলেজে কর্মরত বেসরকারি কর্মচারীরা নিয়োগের তারিখ হতে তাদের চাকরি জাতীয়করণসহ তিন দফা দাবিতে মানববন্ধন করছে ‘সরকারি কলেজের বেসরকারি কর্মচারি ইউনিয়ন’। আজ শনিবার ঢাকা কলেজে সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানানো হয়। মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি দুলাল সরদার বলেন, সারা দেশে সরকারি কলেজগুলোতে প্রায় ১২ হাজার কর্মচারী কাজ করছে। এরা বিগত ১৫-২০ বছর ধরে বেসরকারি কর্মচারী হিসেবে সেবা দিয়ে যাচ্ছি। বর্তমানে আমরা পরিবার-পরিজন নিয়ে খুবই মানবেতর জীবন যাপন করছি। দ্রব্যমূল্যে ঊর্ধ্ব গতির কারণে আমাদের সন্তানদের লেখাপড়া প্রায় বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে একজন গার্মেন্টস শ্রমিকের নূন্যতম মজুরি ৮৫০০ টাকা, ওভারটাইমসহ তাদের আয় ২০ হাজার টাকার ওপরে। সেখানে মাসিক বেতন হিসেবে আমরা পাই ৫ থেকে ৮ হাজার টাকা। এছাড়া কোনো ওভারটাইমও নেই। এই টাকা দিয়ে বর্তমান বাজারের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে জীবন যাপন করা কঠিন হয়ে পড়েছে। তিনি বলেন,আমরা বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে যোগাযোগ করার পরেও কোনো প্রকার সুযোগ-সুবিধা পাইনি। প্রতিটি সরকারি কলেজে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ সরকারি কর্মচারী থাকার কথা থাকলেও সেখানে আছে মাত্র ৫ থেকে ১০ শতাংশ। গত ১৫/২০ বছর যাবত চাকরিতে আমাদের কোনো সুযোগ-সুবিধা বাড়েনি। তাই কোনো উপায় না দেখে বেঁচে থাকার তাগিদে আমরা আন্দোলনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তিনি আরও জানান, আমাদের দাবি আদায়ে আগামী ২৫ তারিখ মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেওয়া হবে। আমাদের সংগঠনের ৫ সমস্যের একটি প্রতিনিধি স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রীর বরাবর পৌছে দেবেন। এর পরেও যদি আমাদের দাবি না মেনে নেওয়া হয় বড় ধরনের আন্দোলেন ডাক দেওয়া হবে। দাবিসমুহ- বেসরকারি কর্মচারীদের নিয়োগের তারিখ হতে চাকরি জাতীয়করণ, জাতীয়করণের আগ পর্যন্ত সরকারি বেতন স্কেল অনুযায়ী বেতন-ভাতাদি প্রদান এবং প্রতিটি কলেজের অধ্যক্ষকে বেসরকারি কর্মচারীদের জাতীয়করণের ক্ষমতা দিতে হবে। মানবন্ধনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রিজভী আহমেদ রায়হান, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন,সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মানিক মিয়ামহ সরকারি কলেজের প্রায় দেড় শতাধিক কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীর পাশে দাঁড়ালেন রাবি ছাত্রলীগ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম বর্ষে অধ্যায়ন করছেন আব্দুস সালাম। নিজের পড়ালেখা ও সংসারের খরচ জোগাতে বেছে নিয়েছেন দিন মজুরের কাজ। এমন অবস্থায় ওই শিক্ষার্থীর পাশে দাঁড়িয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া। সালামের লেখাপড়া, থাকা-খাওয়াসহ যাবতীয় খরচ বহনের আশ্বাস দিয়েছেন ছাত্রলীগের এ নেতা। জানা যায়, আব্দুস সালাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষের (২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষ) শিক্ষার্থী। তার বাসা দিনাজপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায়। বাবা একসময় ফুটপাতে বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসা করতেন। বর্তমানে বার্ধক্যের কারণে তিনি আর সেই কাজ করতে পারেন না। বড়ভাই প্রতিবন্ধী আর ছোটবোন লেখাপড়া করেন।দরিদ্র বাবার পক্ষে লেখাপড়ার খরচ জোগাতে না পারায় দিনমজুরের কাজ করে নিজের খরচ চালান। তিনি দুইদিন শ্রমিকের কাজ করেন আর এরপরের দুইদিন ক্লাস করেন। এভাবে তার লেখাপড়া চলে। আব্দুস সালাম বলেন, লেখাপড়ার খরচ জোগাতে দিন মজুরের কাজ করছিলাম। ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া ভাই খবর পেয়ে আমার লেখাপড়া, থাকা-খাওয়াসহ যাবতীয় খরচ বহনের আশ্বাস দিয়েছেন। শেরে বাংলা হলে আমার থাকার ব্যবস্থা করেছেন।তিনি আরও বলেন, আগে লেখাপড়া করতে পারতাম না। সবসময় অর্থের আর খাওয়ার টেনশনে ছিলাম। আজ থেকে অনেকটা টেনশন কমে গিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, আব্দুস সালামের কথা শুনে তার যাবতীয় দায়িত্ব আমি নিয়েছি। প্রাথমিকভাবে তাকে হলে তুলে দিয়েছি এবং ক্যাম্পাসে তার খাবার খরচের দায়িত্ব নিয়েছি। সে যেন সুষ্ঠুভাবে লেখাপড়া চালাতে পারে এটাই আমার কামনা। তাকে বলেছি যেকোনো প্রয়োজনে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে। এসএইচ/

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএনসিসির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

জ্ঞান, শৃঙ্খলা, একতা এ স্লোগানকে ধারণ করে বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি) কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্লাটুনের ৮ম ব্যাচের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সামনে ব্যাডমিন্টন কোর্টে এ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ভর্তি পরীক্ষায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যাালয়ের বিভিন্ন বিভাগের মোট ৭৫ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্য থেকে মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে ৪০ জন পুরুষ ২০ জন মহিলাকে সাময়িক ক্যাডেট হিসেবে মনোনীত করা হবে। এ সময় প্লাটুন কমান্ডার ড. মো. শামিমুল ইসলাম, সামরিক প্রশিক্ষক সার্জেন্ট মো. বাবুল হোসেন এবং ক্যাডেট আন্ডার অফিসার মো. সোহান শেখসহ প্লাটুনের অন্যান্য ক্যাডেটরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গত ৯ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ সেপ্টেম্বর (বৃহস্পতিবার) পর্যন্ত ক্যাডেট সংগ্রহ সপ্তাহ পালন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বেচ্ছাসেবী এই সংগঠনটি। উল্লেখ্য, জ্ঞান, শৃঙ্খলা, একতা এ স্লোগানকে ধারণ করে ২০০৯ সলের ২৯ এপ্রিল বিএনসিসি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্লাটুন যাত্রা শুরু করে। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্লাটুন ৯ বিএনসিসি ব্যাটালিয়ন, ময়নামতি রেজিমেন্টে সেনা শাখার অধীনে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। বর্তমানে ৪০ জন পুরুষ ও ৩০ জন মহিলা ক্যাডেট রয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনসিসির এ প্লাটুনে। এসএইচ/

ইয়াবা ব্যবসায়ী সন্দেহে রাবিতে যুবককে পুলিশে সোপর্দ

ইয়াবা ব্যবসায়ী সন্দেহে আরিফুল হক আরিফ (৩০) নামে এক যুবককে মারধর করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখ্শ হলে এ ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত নয় বলে দাবি করলেও শিক্ষার্থীরা মারধর করলে ব্যবসার সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করেন। মারধরের শিকার আরিফ নাটোরের বড়াইগ্রাম থানার, আহাম্মদপুর গ্রামের আবুল কালামের ছেলে। পেশায় তিনি অটোচালক। প্রত্যক্ষদর্শীসূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে মাদার বখ্শ হলের প্রথম ব্লকের তিন তলায় তাকে বিভিন্ন রুমের দরজা খোলার চেষ্টা করতে দেখা যায়। আরিফ ৩০১ নম্বর কক্ষ থেকে শুরু করে অন্য কক্ষের দরজা খোলার চেষ্টা করে। যখন ৩০৮ নম্বর কক্ষের দরজা খোলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় তখন হলের কয়েকজন শিক্ষার্থী তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে। একপর্যায়ে সন্দেহজনক কথা বললে তাকে মারধর করলে তিনি ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত বলে স্বীকার করে। রিফাত নামে এক শিক্ষার্থীর কাছে টাকা নিতে এসেছে বলে সে জানায়। পরে তাকে হলের প্রাধ্যক্ষ কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। এবিষয়ে ওই হলের ৩০৮ নম্বর কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থী রাশেদ বলেন, ‘শুক্রবার সবাই একটু দেরিতেই ঘুম থেকে উঠে। আমাদের রুমের সবাই ঘুমিয়ে ছিলাম। এর মধ্যে বাইরে থেকে দরজা খোলার চেষ্টা করছে বুঝতে পারলাম। তখন অন্য রুমের শিক্ষার্থীরা এসে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে রিফাতের কাছে এসেছে বলে দাবি করে। পরে তাকে মারধর করা হলে সে ইয়াবা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত স্বীকার করে।’ মাদার বখ্শ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক আব্দুল হালিম বলেন, ‘হলের শিক্ষার্থীরা প্রাথমিক পর্যায়ে চোর সন্দেহ ধরে আমাকে ফোন করে। পরে শিক্ষার্থীরা জানতে পারে সে ইয়াবা ব্যবসায়ী। এবিষয়ে আমি জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে স্বীকার করে। এরপর পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। এখন পুলিশ আইনুযায়ী ব্যবস্থা নিবে।’ এসএইচ/

ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের অধীনে প্রথম বর্ষ সম্মান শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা আজ শুক্রবার অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরের মোট ৬৯টি কেন্দ্রে। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এ বছর দুই হাজার ৩৮৩ আসনের জন্য ভর্তিচ্ছু আবেদনকারী ৩৫ হাজার ৭২৬ জন। পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে শিক্ষার্থীসহ সংশ্নিষ্ট সবার অবগতির জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানিয়েছে, পরীক্ষার হলে মোবাইল বা টেলিযোগাযোগ করা যায় এমন কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইস বা যন্ত্র সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ। পরীক্ষায় মোবাইল কোর্ট দায়িত্ব পালন করবেন। ভর্তি পরীক্ষার সিট প্ল্যান বিশ্ববিদ্যালয়ের admission.eis. du.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটসহ ক্যাম্পাসের বাইরের কেন্দ্রগুলো হলো- নীলক্ষেত স্কুল, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ, ঢাকা কলেজ ও ইডেন কলেজ।এসএ/

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াবেন ড. হাছান মাহমুদ

দীর্ঘ বিরতির পর আবারও অধ্যাপনায় ফিরছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে যোগ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন পরিবেশবিদ ড. হাছান মাহমুদ। আজ বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম ক্লাস নেন হাছান মাহমুদ। পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের একটি ক্লাসে অধ্যাপনা করেন তিনি। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুরোধে একটি ক্লাস নিলে সেখানকার শিক্ষার্থীরা হাছান মাহমুদকে নিয়মিত শিক্ষক হিসেবে পেতে ইচ্ছা পোষণ করেন। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের দাবি এবং অনুরোধের প্রেক্ষিতে ড. হাছান মাহমুদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। প্রতি সপ্তাহে এই বিভাগে একটি করে ক্লাস নিবেন তিনি। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে মাসে ১০টি ক্লাস নেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছিলো বলে জানা যায়। এর আগে পরিবেশ বিজ্ঞান ও বাংলাদেশ স্টাডিস বিষয়ে ইস্ট-ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি এবং নর্থ-সাউথ ইউনিভার্সিটিতে খণ্ডকালীন শিক্ষকতা করেন ড. হাছান মাহমুদ। শিক্ষাজীবনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রসায়ন বিষয়ে সম্মানসহ স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন তিনি। বেলজিয়াম ব্রিজ ইউনিভার্সিটি অব ব্রাসেলস থেকে হিউম্যান ইকোলজি (পরিবেশ বিজ্ঞান) ও ইউনিভিার্সিটি অব লিবহা দু ব্রাসেলস থেকে আন্তর্জাতিক রাজনীতি বিষয়ে মাস্টার্স করেন। এরপর পরিবেশ রসায়ন বিষয়ে বেলজিয়ামের লিম্বুর্গ ইউনিভার্সিটি থেকে পি এইচ ডি ডিগ্রি অর্জন করেন। শিক্ষাজীবন শেষ করে ব্রাসেলসের ইউরোপীয়ান ইনস্টিটিউট ফর স্ট্রেটেজিক স্টাডিস-এ ভিজিটিং ফেলো এবং একাডেমিক বোর্ড মেম্বার হিসেবে মনোনীত হন তিনি। উল্লেখ্য, ড. হাছান মাহমুদ দেশে এবং আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে একজন খ্যাতিমান পরিবেশবিদ হিসেবে সুপরিচিত। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে সরকারের পরিবেশমন্ত্রী এবং বর্তমানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ও দলের অন্যতম মুখপাত্র এবং জাতীয় সংসদের বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি হিসেবে দেশের পরিবেশ সংরক্ষণ ও জলবায়ুজনিত ঝুঁকি মোকাবিলায় সফলতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। যা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হয়েছে।   //এসএইচএস// এসএইচ/

জাবিতে ভর্তি পরীক্ষা ৩০ সেপ্টেম্বর শুরু

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে। চলবে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত। আজ মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির এক মিটিংয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা)আবু হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন,  ৩০ সেপ্টেম্বর ও ১ অক্টোবর ‘এ’ ইউনিটের (গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদ) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ১ অক্টোবর ‘এইচ’ ইউনিট (ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি), ২ ও ৩ অক্টোবর ‘ডি’ ইউনিট (জীববিজ্ঞান অনুষদ), ৩ অক্টোবর ‘আই’ ইউনিট (বঙ্গবন্ধু তুলনামুলক সাহিত্য ও সংস্কৃতি ইনস্টিটিউট), ৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিট (সমাজবিজ্ঞান অনুষদ), ৮ অক্টোবর ‘সি’ ইউনিট (কলা ও মানবিক অনুষদ)’ ৯ অক্টোবর ‘সি-১’ (চারুকলা এবং নাটক ও নাট্যতত্ত) ও ‘এফ’ ইউনিট(আইন অনুষদ) এবং ১০ অক্টোবর ‘জি’ ইউনিট (আইবিএ) ও ‘ই’ ইউনিটের (বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তিনি আরও বলেন, এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ১৮৮৯ আসনের বিপরীতে ৩,২২,৯৪৬ জন শিক্ষার্থী প্রাথমিক আবেদন করেছে। ফলে এবারের জাবির ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে লড়বে ১৭১ জন। ভর্তি পরীক্ষার তথ্য www.ju-admission.org থেকে জানা যাবে। কেআই/এসএইচ/

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি