ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ৭:১৭:২৪

ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের মোটরসাইকেল র‍্যালি

ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগের মোটরসাইকেল র‍্যালি

২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার সাথে জড়িত অভিযোগে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ফাঁসির দাবিতে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের মোটর সাইকেল র‌্যালি ও পথসভা অনুষ্টিত হয়েছে।    সোমবার বিকেলে ঝিনাইদহ শহরের পায়রা চত্ত্বর থেকে পাঁচ হাজার মোটর সাইকেল নিয়ে হাজার হাজার নেতাকর্মী একটি র‌্যালি বের করে।   র‍্যালি শেষে পথসভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু বলেন, অবিলম্বে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার সাথে জড়িত খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ সকল আসামীদের ফাঁসির রায় কার্যকর করতে হবে।    তিনি আরও বলেন, আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে স্বাধীনতা বিরোধী অশুভ শক্তির সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও ক্ষমতায় যাবে।    এর আগে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হাটগোপালপুর ও ডাকবাংলা বাজার ও হরিনাকুন্ডু এলাকা ঘুরে একই স্থানে এসে মোটরসাইকেল র‍্যালি শেষ হয়। এ সময় ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ ও ছাত্রলীগের  নেতৃবৃন্দ ব্যক্তব্য দেন। কেআই/এসি   
বেনাপোলে নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধন

  নিরাপদ সড়কের দাবিতে যশোরের শার্শা উপজেলায় র‌্যালি ও মানববন্ধন করেছে প্রশাসন, কলেজ, স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।  সোমবার বেলা ১১টার সময় শার্শা উপজেলা পরিষদ, বেনাপোল হাইস্কুল, সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা, মরিয়ম মেমোরিয়াল বালিকা বিদ্যালয়, সিনিয়র মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন কিন্ডার গার্টেন স্কুলগুলোর ছাত্রছাত্রী শিক্ষক শিক্ষিকারা রাস্তায় দাঁড়িয়ে ব্যানার ফেষ্টুন প্লে-কার্ড হাতে নিয়ে নিরাপদ সড়কের দাবিতে মানববন্ধন করেন। এ সময় হেলমেট ছাড়া কেউ যেন মোটর সাইকেল চালিয়ে গেলে তাকে দাঁড় করিয়ে জবাবদিহিতা করতে হয়েছে শিক্ষার্থীদের কাছে। শার্শায় র‌্যালী ও মানববন্ধনে অংশ নেন উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা পূলক কুমার মন্ডল, মৎস্য কর্মকর্তা আবুল হাসান, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাসান হাফিজুর রহমান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া ফেরদৌসসহ উপজেলা পরিষদের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, শার্শা উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। কেআই/ এসএইচ/

নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে ফেনীতে র‌্যালি

‘আইন মেনে চলবো, নিরাপদ সড়ক গড়বো’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে  নিয়ে জাতীয়  নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  হয়েছে। সোমবার আরটিএ ফেনীর  আয়োজনে ও জেলা  প্রশাসনের সহযোগিতায় জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে র‌্যালি  মুক্তিযুদ্ধা কমপ্লেক্স  এর  সামনে  থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক পদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। আলোচনা  সভায়  প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজমান। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট পি.কে এম এনামুল করিমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বি.কম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) উক্য সিং। স্বাগত বক্তব্য রাখেন- ফেনী বিআরটিএ সহকারী পরিচালক (ইঞ্জি.) প্রকৌশলী পার্কন চৌধুরী। জেলা সিভিল সার্জন অফিসের স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার সাইফুদ্দিন আহম্মদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ফেনী জেলা ট্রাফিক পুলিশের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মীর গোলাম ফারুক, ফেনী জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন চৌধুরী মোজাম্মেল, ফেনী জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের সহ-সভাপতি জাফর আহম্মদ, ফেনী জেলা পিকআপ ও (মিনিট্রাক) মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন পারভেজ, পরশুরাম বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী সিরাজুল ইসলাম, ডেইলি সানের ফেনী জেলা প্রতিনিধি আবদুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ। এ সময় প্রশাসন, জেলা পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। কেআই/এসএইচ/

ঢাকা প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা-চট্টগ্রাম অঞ্চলের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

ঢাকায় বসবাসরত চট্টগ্রাম অঞ্চল তথা মুক্তিযুদ্ধে ১ নম্বর সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন ঢাকা প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা-চট্টগ্রাম অঞ্চল এর বার্ষিক সাধারণ সভা ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় ৩২ তোপখানা রোডস্থ-চট্টগ্রাম ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ দিদারুল আলম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন সাবেক সভাপতি মো. নূরুল আলম (অবসরপ্রাপ্ত এডিশনাল আইজিপি), সাবেক নির্বাচন কমিশনার ও চট্টগ্রাম সমিতি-ঢাকার সভাপতি মোহাম্মদ আবদুল মোবারক, ইঞ্জিনিয়ার সিদ্দিক আহমদ, চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সভাপতি রেজাউল হক চৌধুরী মুশতাক, সাংবাদিক নিজাম উদ্দিন আহমদ, ফরিদুল হক, চট্টগ্রাম সমিতি-ঢাকার উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মারুফ শাহ চৌধুরী, কল্যাণী ঘোষ, ফয়জুল মতিন, আনিস কাদেরী, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান প্রমুখ। সংগঠনের ঐতিহ্য অনুযায়ী মেজবান আয়োজন বিষয়ে আলোচনা করেন সাংগঠনিক সম্পাদক ও বায়রার সাবেক সভাপতি আলী হায়দার চৌধুরী। সভায় আর্থিক বিবরণী পেশ করেন অর্থ সম্পাদক যিশু কুমার বড়ুয়া। সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্য পেশ করেন এম. ওয়াহিদ উল্লাহ (ঢাকা ব্যুরো প্রধান, দৈনিক আজাদী)। সভাপতির ভাষণে সদস্যদের সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে ঐতিহ্যবাহী এ সংগঠনকে শক্তিশালী করার এবং মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহ্য আগামী প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধা সদস্যরা পুনর্মিলনীতে সপরিবার অংশগ্রহণ করেন। এসএইচ/

অবাধে পাখি শিকারে হুমকির মুখে চলনবিল (ভিডিও)

পাখি শিকারীদের দৌরাত্ব্যে নাটোরের চলনবিলের পরিবেশ হুমকির মুখে পড়েছে। শিকারীদের কারণে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে নানা প্রজাতির পাখির বিচরণ। এছাড়া অতিথি পাখি কমে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে জীববৈচিত্র। বিলের পরিবেশ রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে সিংড়া উপজেলার চলনবিল জীববৈচিত্র রক্ষা কমিটি। চলনবিল দেশের উত্তর জনপদের বিশাল বিল। এর আয়তন নাটোরের সিংড়া, গুরুদাসপুর, বড়াইগ্রাম ও সদরসহ তিন জেলার নয় উপজেলা জুড়ে। এই বিলের নৈসর্গিক দৃশ্য মনে আনে প্রশান্তি। একসময় শীতের শুরুতে হাজারো অতিথি পাখির বিচরণ মুগ্ধ করত দর্শনার্থীদের। এসব পাখির আগমনে বিলের ফসলের জন্য যেমন উপকার হতো, তেমনি বজায় থাকত পরিবেশের ভারসাম্য। এখন অবাধে পাখি শিকারের কারনে নষ্ট হচ্ছে চলনবিলের পরিবেশ। হারিয়ে যাচ্ছে জীববৈচিত্র। এ ব্যাপারে সরকারিভাবে কোনো উদ্যোগ না থাকলেও পাখি শিকার বন্ধে কাজ করছে সিংড়া চলনবিল জীববৈচিত্র রক্ষা কমিটি। এদিকে বিলের পরিবেশ রক্ষায় সবার সহযোগিতা চেয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।  যথাযথ পদক্ষেপের মাধ্যমে চলনবিলের পরিবেশ ও জীববৈচিত্র রক্ষা করার দাবি নাটোরবাসীর। বিস্তারিত দেখুন ভিডিওতে : এসএ/    

বিভিন্ন উদ্যোগেও কমছে না সড়ক দুর্ঘটনা (ভিডিও)

সরকারি- বেসরকারি বিভিন্ন উদ্যোগেও কমছে না সড়ক দুর্ঘটনা। জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দুর্ঘটনা ঘটেছে দুই হাজার ছয়শ’ ৫১টি। নিহত হয়েছে তিন হাজার একশ’ ১২ জন। চলতি বছরের আগস্ট- সেপ্টেম্বরে ট্রাফিক সচেতনতা কর্মসূচিতে মামলা হয়েছে আড়াই লাখের বেশি। ৯০ শতাংশ মানুষ আইন না মানার কারণেই এমন হচ্ছে বলে মনে করেন নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠনের চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন। আর বুয়েটের এই গবেষক বলছেন, মহাসড়কে হাট বাজার, চালকদের অদক্ষতা ও দ্রুত গতির কারণে দুর্ঘটনা বাড়ছে। গত ২৯ জুলাই ঢাকায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে সড়কে বাসচাপায় নিহত হলে রাজপথে নেমে আসে শিক্ষার্থীরা। উত্তাল হয় সারাদেশ। এরপরও কমেনি সড়ক দুর্ঘটনা। গত বছর মোট দুর্ঘটনা ঘটেছিলো দুই হাজার নয়শ’ সতেরটি। নিহত হয় তিন হাজার ছয়শ’ বাহাত্তর জন। এ’বছর জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দুর্ঘটনা ঘটেছে দুই হাজার ছয়শ’ একান্নটি। নিহত হয়েছে তিন হাজার একশ’ বারো জন। নিরাপদ সড়ক চাই এর চেয়ারম্যন ইলিয়াস কাঞ্চন বললেন, সবাই সড়কে আইন না মানলে শৃঙ্খলা ফেরানো সম্ভব নয়।

কাঁসা শিল্পের ঐতিহ্য ধরে রেখেছেন চাপাইয়ের কারিগররা (ভিডিও)

কাঁসা শিল্পের ঐতিহ্য টিকিয়ে রেখেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জে কারিগররা। একসময় পাচারের কারণে বিলুপ্ত হতে বসা কাঁসার সুদিন ফিরতে শুরু করেছে। এখন পাচার বন্ধ। তাই কাঁসা কারিগররাও মনোযোগ বাড়িয়েছেন কাজে। চলছে, নিত্য প্রয়োজনীয় কাসার বাসনপত্র তৈরি। ব্যবসায়ীরা মনে করেন, সহযোগিতা পেলে ঐতিহ্যবাহী এ শিল্পে আবারো খুলবে সম্ভাবনার দ্বার। চাঁপাইনবাবগঞ্জের নামোশংকরবাটী, আজাইপুর, আরামবাগ, বটতলাহাট ও সোনারমোড় এলাকার একসময় দিনভর চলতো কাঁসা কারিগরদের হাতুরি পেটা টুং-টাং শব্দ। ৯০’এর দশকে ব্যাপকহারে ভারতে পাচার হয়ে যাওয়ার কারণে, প্রায় বিলুপ্ত হতে বসেছিল এ শিল্প। বর্তমানে পাচার নিয়ন্ত্রণ হওয়ায়, আবারো আশার আলো দেখতে শুরু করেছে কাঁসা শিল্প। বাদ-দাপার আদি পেশায় ফের মন দিয়েছেন কারিগররা। কাঁচামাল আগুনে পুড়িয়ে গলানোর পর তৈরী হচ্ছে কাঁসার থালা, বাটি, কলস, জগ, বদনা, কড়াইসহ নিত্য প্রয়োজনীয় ব্যবহার সামগ্রী। কাঁসা শিল্পের ঐতিহ্য ধরে রাখতে কাঁচামালের দাম কমানো, সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণসহ আনুষাঙ্গিক সহায়তা প্রয়োজন বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। কাঁসার বাসনপত্র তৈরিতে আধুনিক যন্ত্রপাতির ব্যবহারসহ শিল্পের প্রসারে আগ্রহী হচ্ছেন অনেকেই। এ খাতের কাজের সম্ভাবনা বাড়লে, দেশের বাইরেও রপ্তানী হতে পারে নিত্যনতুন কাঁসা-পিতলের সামগ্রী।

বাঁশের খুটি ও গাছের সাথে বেঁধে বিদ্যুত সংযোগ(ভিডিও)

মৃত্যু ফাঁদে পরিণত হয়েছে ঝিনাইদহের শৈলকূপার মধুপুর গ্রাম। বাঁশের খুটি ও গাছের সাথে তার বেঁধে গ্রামে বিদ্যুত সংযোগ দেয়া হয়েছে। ফলে যে কোন সময় ঘটতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। বারবার বলার পরও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ। প্রায় ৩ হাজার মানুষের বাস মধুপুরে। গ্রামের আড়াইশ’ পরিবারে রয়েছে বিদ্যুৎ সংযোগ। তবে বাঁশ ও গাছকে পোল হিসেবে ব্যবহার করে গ্রামের ঘরে ঘরে জ্বলছে আলো। কোন কোন বাড়িতে ঝুলে পড়েছে এসব বিদ্যুতের তার। এতে যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে গ্রামবাসী। এ বিষয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বিদ্যুত বিভাগকে জানানোর পরও কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। তাই আতঙ্কে দিন কাটছে গ্রামবাসীর। পৌরসভার কাজ শেষে গ্রামের বিদ্যুত সংস্কারের কথা জানিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী। আর সমস্যা সমাধানে দ্রুতই পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। ৯০ দশকে মধুপুর গ্রামে বিদ্যুত সংযোগ দেয়ার পর এ পর্যন্ত কোনো সংস্কার করা হয়নি।

সন্দ্বীপের সাবেক এমপি মুস্তাফিজুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

সন্দ্বীপের সাবেক সংসদ সদস্য প্রয়াত দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমানের ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বিকেল ৩টায় সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদ মাঠে এই স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। সভাপতিত্ব করেন  সন্দ্বীপ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাস্টার শাহজাহান বি.এ। বিশেষ অতিথি ছিলেন- সন্দ্বীপের সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান মিতা, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম। প্রধান অতিথি গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমান ছিলেন সন্দ্বীপবাসীর অকৃত্তিম বন্ধু। তিনি সন্দ্বীপের মাটি ও মানুষের জন্যে নিবেদিত হয়ে আপ্রাণ কাজ করে গেছেন। তার কর্মই তাকে বাঁচিয়ে রেখেছে। তিনি সন্দ্বীপের ইতিহাসে অবিসংবাদিত নেতা।    দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমানকে আধুনিক সন্দ্বীপের রূপকার উল্লেখ করে বলেন, সন্দ্বীপের উন্নয়নে দ্বীপবন্ধুর ভূমিকা সন্দ্বীপবাসী চিরদিন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে। তার অসমাপ্ত কাজগুলো তার সুযোগ্য সন্তান মাহফুজুর রহমান মিতা ধীরে ধীরে সম্পন্ন করছে। সন্দ্বীপবাসীর জন্যে সরকার কাজ করছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এই সরকার সন্দ্বীপের উন্নয়নে নজিরবিহীন কাজ করেছে। সন্দ্বীপবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি বিদ্যুৎ দিয়েছে সরকার। আগামী নির্বাচনে সন্দ্বীপে আওয়ামী লীগে কোন বিভেদ সৃষ্টি না করে নৌকার পক্ষে দ্বীপবন্ধুর জ্যৈষ্ঠ সন্তান মাহফুজুর রহমান মিতাকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি। মন্ত্রী আরও বলেন, মিতা সন্দ্বীপে অনেক উন্নয়ন কাজ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিদ্যুৎ, জেটি, রাস্তা-ঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ অনেক উন্নয়ন আজ দৃশ্যমান। তার বাবার মতো সেও জনগণের নয়নমণি হয়ে উঠেছে। আজকেই এই স্মরণ সভার উপস্থিতি সেটাই জানান দিচ্ছে। দলীয় কোন্দল না করে জননেত্রী শেখ হাসিনার পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।  ভাসান চর চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপের অংশ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একনেক’ সভায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে এ ব্যাপারে আলাপ হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ভাসান চর কোনভাবেই নোয়াখালীর সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত হবে না। সন্দ্বীপের আশ পাশে জেগে উঠা চরগুলিতে অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গড়ে তোলা হবে। সন্দ্বীপকে কেন্দ্র করে সরকারের নানান পরিকল্পনার কথা জানান মন্ত্রী।     অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- চট্রগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, ও চট্রগ্রাম-৩ সন্দ্বীপ আসনের সংসদ সদস্য মাহফুজুর রহমান মিতা। সন্দ্বীপ উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দীন বেদনের সঞ্চালনায় স্বরণসভায় বক্তব্য রাখেন- সন্দ্বীপ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহফুজুর রহমান সুমন, এ বি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইদুর রহমান ফাহাদ, চট্রগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হোসেন তপু, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাইন উদ্দীন মিশন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেবুন নেসা জেসি,  দ্বীপবন্ধুর কনিষ্ঠপুত্র জিল্লুর রহমান, সন্দ্বীপ উপজেলা আওয়ামী যু্বলীগ সভাপতি ছিদ্দিকুর রহমান, সন্দ্বীপ উপজেলা কৃষকলীগ সভাপতি কামরুল হাসান আলাল, সন্দ্বীপ উপজেলা সেচ্চাসেবকলীগ যুগ্ম আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান আরমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান বেলাল, মুক্তিযোদ্ধা মাজহারুল ইসলাম, সন্দ্বীপ উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী খসরু, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম। বিকেল ৩টায় শুরু হওয়া এই স্বরণসভা বিকেল গড়াতেই পরিষদ মাঠে হাজারও মানুষের উপস্থিতি পরিলক্ষিত হয়। উল্লেখ্য, দ্বীপবন্ধু মুস্তাফিজুর রহমান সন্দ্বীপে ১৯৯১ ও ১৯৯৬ দুবার আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ছিলেন। তিনি ২০০১ সালের ২০ অক্টোবর সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হসপিটালে মৃত্যুবরণ করেন। কেআই/ এসএইচ/

নওগাঁয় পাখি বাঁচাতে অভিনব উদ্যোগ

পাখিদের নিরাপদ আশ্রয় ও প্রয়োজনীয় খাদ্য কমে যাওয়ায় প্রকৃতি আজ অনেকটা পাখি শূন্য। পাখি শিকার ও বন্যপ্রাণী নিধনের কারণে অনেক প্রজাতির পাখি এখন বিলপ্তির পথে। যা পরিবেশের জন্যে হুমকির কারণ। পশু পাখিদের নিরাপদ বাসস্থান ও সাধারণ মানুষদের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তুলতে নওগাঁ জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান ব্যতিক্রম উদ্যোগ নিয়েছেন। এ লক্ষে গত কয়েক মাস আগে জেলার ১১টি উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, ভূমি অফিসসহ সরকারি কর্মকর্তাদের নিরাপদ ‘অভয়াশ্রম’ বাসস্থান গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।  ইত্যেমধ্যে, বিভিন্ন উপজেলায় গড়ে দেড়শ’ থেকে পাঁচশ’ মাটির পাতিল টাঙ্গানো হয়েছে। এতে পাখিরা তাদের নিরাপদ বাসস্থান খুঁজে পেয়েছে। এই উদ্যোগ মানুষদের মাঝে ব্যাপক সারা জাগিয়েছে। জেলা প্রশাসকের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সচেতনমহল। এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে এক সময় নওগাঁয় পাখির সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। অন্যদিকে নিরাপদ আশ্রয় পেলে বিভিন্ন অতিথি পাখির আসা-যাওয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে। বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম আলী বেগ বলেন, পশুপাখি পরিবেশের একটা অংশ। পাখিদের নিরাপদ আবাস গড়তে জেলা প্রশাসন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরই অংশ হিসেবে হাট-বাজারে সরকারি গাছগুলোতে মাটির ছোট পাতিল বেঁধে দেওয়া হচ্ছে। উপজেলার বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এসএইচ/

নবাবগঞ্জে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মচারীদের কর্মবিরতি

ঢাকার নবাবগঞ্জের পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি-২ এর নবাবগঞ্জে কর্মরত মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জার কর্মচারীরা বিভিন্ন দাবিতে কর্মবিরতি পালন করেছেন। শনিবার সকালে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ নবাবগঞ্জের সদর অফিসের সামনে তারা কর্মসূচি পালন করেন। পরে ঢাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজারের বরাবর স্মারকলিপি দেন কর্মচারীরা। কর্মসূচিতে চাকরি নিয়মিতকরণ, চাকরিচ্যুতদের পুনঃবহাল, কাজের পরিমান কমানো ও সব বৈষ্যম্য দূর করাসহ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন কর্মচারীরা। এ সময় তারা বলেন, পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি ঢাকা-২ এ কর্মরত প্রায় শতাধিক মিটার রিডার ও ম্যাসেঞ্জার চুক্তিভিত্তিক কর্মরত আছি। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি যেভাবে কর্মী ছাঁটাই শুরু করেছে, তাই অনেক কর্মচারী ছাঁটাই করায় আতঙ্কে রয়েছে। দাবি আদায় হওয়া না পর্যন্ত এ কর্মসূচি চলবে বলে জানান আন্দোলনকারীরা। এসএইচ/  

© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি